কিভাবে টিকটক ভিডিও ভাইরাল করবো | Tiktok video ভাইরাল করার উপায়

কিভাবে টিকটক ভিডিও ভাইরাল করবো : (Viral Tiktok Videos) যদি আপনি একজন টিকটক স্টার হয়ে থাকেন।

কিভাবে টিকটক ভিডিও ভাইরাল করবো | Tiktok video ভাইরাল করার উপায়
কিভাবে টিকটক ভিডিও ভাইরাল করবো

তাহলে অবশ্যই আপনার মনে একটি প্রশ্ন জেগে থাকবে যে, কিভাবে টিকটক ভিডিও ভাইরাল করবো।

কিভাবে Discover ভিডিও কিভাবে ভাইরাল করবো, টিক টক ভিডিও ভাইরাল কিভাবে করা যায়।

কারণ যতক্ষণ না পর্যন্ত আপনি আপনার টিকটক ভিডিও ভাইরাল করতে পারবেন বা টিকটকে ভাইরাল হওয়ার উপায়। ততক্ষণ পর্যন্ত আপনি অন্যান্য টিকটকার দের মতো ফলোয়ার নিয়ে আসতে পারবেন না।

মূলত যারা নিয়মিত টিকটক এর মধ্যে ভিডিও আপলোড করে। তারা সবাই চায় যেন, তাদের আপলোড করার Tiktok Video Viral হয়ে যায়।

কিন্তু আপনার জেনে রাখা উচিত যে, আপনি যখন tiktok এর মধ্যে আপনার কোন ভিডিও ভাইরাল করতে চাইবেন।

তখন অবশ্যই আপনাকে টিকটক এর অ্যালগরিদম সম্পর্কে বুঝতে হবে।

আর যখন আপনি টিকটকের অ্যালগরিদম বুঝতে পারবেন। তখন আপনিও আপনার টিকটক ভিডিও ভাইরাল করতে পারবেন।

দেখুন বর্তমান সময়ে গোটা বিশ্বের মধ্যে শর্ট ভিডিও প্ল্যাটফর্ম হিসেবে টিকটক ব্যাপক ভাবে জনপ্রিয়তা অর্জন করতে পেরেছে।

আর এই জনপ্রিয়তার কারণে এখন tiktok এর মধ্যে প্রতিনিয়ত লক্ষ লক্ষ ভিডিও আপলোড হতে হচ্ছে।

তো এই লক্ষ লক্ষ ভিডিওর মধ্যে আপনি যদি আপনার আপলোড করার টিকটক ভিডিও গুলো ভাইরাল করতে চান।

তাহলে আপনাকে প্রচুর পরিমাণে প্রতিযোগিতা করতে হবে। কারণ টিকটক মূলত বিশেষ অ্যালগরিদমে চলে।

আর আপনি যদি tiktok এর মধ্যে থাকা সেই অ্যালগরিদম সম্পর্কে বুঝতে পারেন।

তাহলে আপনি সেই লক্ষ লক্ষ টিক টক ভিডিওর মধ্যে আপনার ভিডিও কে ভাইরাল করতে পারবেন। তবে দুঃখজনক হলেও সত্য যে, আমরা অনেকেই আছি।

যারা মূলত টিকটক এর অ্যালগরিদম কিভাবে কাজ করে সে সম্পর্কে সঠিক ভাবে জানি না।

আর আর এই বিষয় গুলো কে নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করার জন্যই আজকের এই আর্টিকেল টি লেখা হয়েছে।

তো যে মানুষ গুলোর মনে এই প্রশ্ন টি জেগে থাকে যে, কিভাবে টিকটক ভিডিও ভাইরাল করবো। তাদের জন্য এই আর্টিকেল টি অনেক বেশি হেল্পফুল হবে।

আপনার জন্য আরোও লেখা…

কারণ আজকে আমি টিকটক ভিডিও ভাইরাল করার নিয়ম গুলো নিয়ে বিস্তারিত ভাবে আলোচনা করব। এর পাশা পাশি আপনার সাথে গোপন কিছু Tiktok video ভাইরাল করার উপায় শেয়ার করব।

যে Tiktok video ভাইরাল করার নিয়ম গুলো মেনে চলতে পারলে। আপনিও আপনার টিকটক ভিডিও ভাইরাল করতে পারবেন

তাহলে চলুন আর দেরি না করে সরাসরি মূল আলোচনা তে ফিরে যাওয়া যাক।

TikTok অ্যালগরিদমের সাথে কীভাবে কাজ করবেন ?

আমরা যারা নিয়মিত টিকটক এর মধ্যে ভিডিও আপলোড করি। তারা সবাই সেই ভিডিও তে লাইক কিংবা শেয়ার নেওয়ার জন্য ব্যস্ত হয়ে পড়ি।

তবে এমনটা করা কখনোই উচিত নয়। বরং সর্বপ্রথম আমাদের বুঝে নেয়া উচিত যে, এই টিকটক এর অ্যালগরিদম আসলে কিভাবে কাজ করে।

আর যতক্ষণ না পর্যন্ত আপনি সেই টিকটক এর অ্যালগরিদম সম্পর্কে বুঝতে পারবেন। ততক্ষণ আপনি কোন ভাবেই আপনার ভিডিও কে ভাইরাল করতে পারবেন না।

তবে এখন জানার বিষয় হলো যে, বিশ্বের জনপ্রিয় শর্ট ভিডিও প্ল্যাটফর্ম টিকটক এর অ্যালগরিদম কিভাবে কাজ করে। চলুন এবার তাহলে সে সম্পর্কে বিস্তারিত ভাবে জেনে নেওয়া যাক।

সবার শুরুতে ঠান্ডা মস্তিষ্কে একটা বিষয় চিন্তা করে দেখুন। টিকটক এর মধ্যে প্রতিনিয়ত হাজার হাজার ভিডিও আপলোড করা হয়।

আর এত বেশি ভিডিওর মধ্যে টিকটক কেন নির্দিষ্ট ভিডিও কে ভাইরাল করে। আর যখন আপনি এই প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে চাইবেন। তখন আপনার সামনে মোট দুটো উত্তর আসবে।

আর সেগুলো হল, Watch Time & Viewers Activity. এখন এই দুটো বিষয় সম্পর্কে জানার পরে আপনার মনে প্রশ্ন জেগে থাকতে পারে যে, এগুলো আসলে কি?

আর একটি ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পেছনে এই দুটো বিষয় আসলে কিভাবে কাজ করে। তো এই প্রশ্নের উত্তর জানতে হলে আপনাকে নিজের এই আলোচিত আলোচনায় নজর রাখতে হবে।

Tiktok Algorithm: Watch Time 

মনে করুন, আপনি tiktok এর মধ্যে একটি 30 সেকেন্ডের ভিডিও আপলোড করেছেন। এবং আপনার সেই ভিডিও টি আপলোড করার পরে দর্শকরা আপনার ভিডিও টি শুধুমাত্র ৩ সেকেন্ড করে দেখার পরে চলে গেছে।

সে ক্ষেত্রে আপনার ওই ভিডিও টি ভাইরাল হওয়ার সম্ভাবনা অনেক অংশেই কমে যাবে। কারণ টিকটক যখন বুঝতে পারবে যে, আপনার ৩০ সেকেন্ডের সেই ভিডিও তে দর্শকরা শুধুমাত্র তিন সেকেন্ড পর্যন্ত স্থায়ী ছিল।

তখন টিকটক অ্যালগরিদম বুঝে নিবে যে, আপনার ভিডিও তে তেমন কোন আকর্ষণীয়তা নেই। যার কারণে মানুষ আপনার ভিডিও টি দেখছে না।

অপরদিকে আপনি আরেকটা বিষয় চিন্তা করে দেখুন। মনে করুন আপনি tiktok এর মধ্যে একটি 30 সেকেন্ডের ভিডিও আপলোড করেছেন।

এবং সেই ভিডিও টি আপলোড করার পরে দর্শকরা আপনার পুরো ভিডিও টি দেখলো। সে ক্ষেত্রে টিকটক অ্যালগরিদম ধরে নিবে যে, আপনার ভিডিও তে ভালো কিছু রয়েছে।

যার কারণে মানুষ আপনার পুরো ভিডিও টি দেখছে। এর ফলে টিকটক অ্যালগরিদম আপনার সেই ভিডিও কে আরো নতুন নতুন দর্শকের কাছে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করবে।

এভাবে যত বেশি দর্শক আপনার পুরো ভিডিও টা দেখবে। টিকটক তত বেশি নতুন মানুষের কাছে আপনার সেই ভিডিও টি নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করবে।

তো এটি হলো টিকটক এর ওয়াচ টাইম এর উপর নির্ভর করে টিকটক এর অ্যালগরিদম এর কাজ। আর এখান থেকে আপনি হয়তোবা নিশ্চিত ভাবে বুঝতে পেরেছেন।

যে আপনাকে আপনার আপলোড করা ভিডিও তে দর্শকদের ধরে রাখতে হবে। আর আপনি আপনার টিকটক এর মধ্যে আপলোড করা ভিডিও তে যত বেশি দর্শকদের ধরে রাখতে পারবেন।

আপনার সেই tiktok ভিডিও ভাইরাল হওয়ার সম্ভাবনা ঠিক তত বেশি বৃদ্ধি পাবে।

Tiktok Algorithm: Viewers Activity

মনে করুন, আপনি টিকটক এর মধ্যে ৩০ সেকেন্ড কিংবা ৬০ সেকেন্ডের একটি ভিডিও আপলোড করেছেন। তো এই ভিডিওটি যখন নির্দিষ্ট পরিমাণ দর্শকের নিউজ ফিডে গিয়ে পৌঁছাবে।

তখন দর্শকরা যদি আপনার ভিডিও টি যদি সম্পূর্ণ দেখে। এবং সেই ভিডিও টি দেখার পাশাপাশি আপনার ভিডিও তে লাইক করে।

কিংবা শেয়ার করে এর পাশাপাশি যদি আপনার সেই টিকটক অ্যাকাউন্ট কে ফলো করে। তাহলে কিন্তু টিকটক অ্যালগরিদম ভেবে নিবে যে, আপনার ওই ভিডিও তে নিশ্চয়ই কোন আকর্ষণীয়তা আছে।

যার কারণে একজন ভিজিটর বা দর্শক আপনার সেই পুরো ভিডিও টি দেখছে। এবং সেই ভিডিওটি দেখার পাশা পাশি লাইক করেছে বা শেয়ার করেছে।

এর পাশাপাশি আপনার সেই টিকটক একাউন্ট কে ফলো করেছে। তো এভাবে আপনি যত বেশি ভিউয়ার্সদের অ্যাক্টিভিটি গেইন করতে পারবেন।

আপনার সেই tik tok ভিডিও টি ভাইরাল হওয়ার সম্ভাবনা তত বেশি বৃদ্ধি পাবে। কেননা টিকটক এ্যালগারিদম এর মধ্যে তেমন কোন কিছুই নেই।

বরং আপনি যদি এই দুটো বিষয় কে মাথায় রেখে কাজ করেন। তাহলে আপনিও খুব সহজেই আপনার টিকটক ভিডিও ভাইরাল করতে পারবেন।

আশা করি এই অ্যালগরিদম সম্পর্কে আপনি পরিষ্কার ভাবে জানতে পেরেছেন। কারণ টিকটক অ্যালগরিদম কিভাবে কাজ করে।

তার সমস্ত বিষয় কে নিয়ে আমি উপরে বিস্তারিত ভাবে আলোচনা করেছি।

TikTok- এ ভাইরাল হওয়ার উপায়

এতক্ষণে আলোচনা থেকে আপনি টিকটক এর অ্যালগরিদম কিভাবে কাজ করে। সে সম্পর্কে পূর্ণাঙ্গ ভাবে জানতে পেরেছেন।

তবে এই বিষয় গুলো জানার পাশাপাশি এখন অনেকের মনে একটি প্রশ্ন জেগে থাকবে যে। কিভাবে আপনি টিকটক এর অ্যালগরিদম অনুযায়ী কাজ করে ভিডিও ভাইরাল করতে পারবেন।

আর এই বিষয় টি জানতে হলে আপনাকে টিকটক ভিডিও ভাইরাল করার উপায় গুলো সম্পর্কে জেনে নিতে হবে। মজার বিষয় হলো এমন কিছু বিষয় রয়েছে।

আপনি যদি সেই বিষয় গুলোর উপর নজর রেখে ভিডিও তৈরি করেন। এবং সেই ভিডিও গুলো কে টিকটক এর মধ্যে আপলোড করেন।

তাহলে কিন্তু আপনার সেই টিকটক এর মধ্যে আপলোড করা ভিডিও টি ভাইরাল হওয়ার সম্ভাবনা কয়েক গুণ বেড়ে যাবে। এখন আপনার মনে প্রশ্ন জেগে থাকতে পারে যে, টিকটক ভিডিও ভাইরাল করার উপায় গুলো কি কি।

মূলত এই উপায় গুলো নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব। আর আপনি যদি সেই উপায় গুলো সম্পর্কে পূর্ণাঙ্গ ভাবে জেনে নিতে চান।

তাহলে আপনাকে নিচের আলোচিত আলোচনা গুলো মনোযোগ দিয়ে পড়তে হবে। আর আপনি যদি এই উপায় গুলো অনুসরণ করে tiktok এর মধ্যে ভিডিও আপলোড করেন।

তাহলে খুব সহজেই আপনার আপলোড করা সেই ভিডিও টি ভাইরাল হয়ে যাবে।

তো চলুন এবার তাহলে সেই টিকটক ভিডিও ভাইরাল করার উপায় গুলো সম্পর্কে বিশদভাবে জেনে নেওয়া যাক।

কিভাবে টিকটক ভিডিও ভাইরাল করবো ?

আর্টিকেল এর শুরু থেকে এই পর্যন্ত আপনি জানতে পেরেছেন যে, টিকটক অ্যালগরিদম কিভাবে কাজ করে। তো সেখানে আমি আপনাকে স্পষ্ট ভাবে ধারণা দেয়ার চেষ্টা করেছি।

যখন tiktok এর মধ্যে কোন একটি ভিডিও ভাইরাল হয়। তখন আসলে টিকটক অ্যালগরিদম এর মধ্যে কি কি কাজ হয়। আর আপনি যদি উপরের আলোচিত এই আলোচনা গুলো মনোযোগ দিয়ে পড়ে থাকেন।

আপনি আরোও পড়তে পারেন…

তাহলে আমার দীর্ঘ বিশ্বাস যে, এই বিষয়টা সম্পর্কে আপনি একবারে পরিষ্কার ভাবে জানতে পেরেছেন। এর পাশাপাশি আমি আপনাকে বলেছি যে, এমন অনেক ধরনের টিকটক ভিডিও ভাইরাল করার উপায় রয়েছে।

যে উপায় গুলো কে সঠিক ভাবে অনুসরণ করার মাধ্যমে। আপনি আপনার টিক টক ভিডিও ভাইরাল করতে পারবেন যেমন:

ভিডিও আকর্ষণীয় করুন

দেখুন টিকটক হলো এমন এক ধরনের অ্যাপ। যেখানে আপনি একটি ভিডিও দেখার সময় নিচের দিকে স্ক্রল করলেই নতুন আরেক টি ভিডিও দেখতে পারবেন।

এতে করে টিকটক এর মধ্যে থাকা দর্শকরা বিশেষ একটি সুবিধা ভোগ করতে পারে। তো আপনি যদি আপনার ভিডিও তে তেমন আকর্ষণীয় কোন কিছু রাখতে না পারেন।

তাহলে কিন্তু দর্শকরা আপনার ভিডিও থেকে সোয়াইপ করে আরেক টি ভিডিও তে চলে যাবে। আর সেজন্যই ভিডিওর শুরুর অংশে আপনাকে এমন কিছু রাখতে হবে।

যাতে করে আপনার ভিডিও টি দর্শকরা সম্পূর্ণ দেখে।

ট্রেন্ডিং সাউন্ড ব্যবহার করা

কোন একটি ভিডিওর সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অংশ হল সাউন্ড। আর বিশেষ করে আপনি যদি টিকটক এর মধ্যে ভিডিও আপলোড করেন।

তাহলে অবশ্যই আপনাকে আপনার ভিডিও তে ব্যবহার করা সাউন্ড এর উপর যথেষ্ট খেয়াল রাখতে হবে। কারণ যখন কোন একটি দর্শক টিকটক এর মধ্যে ভিডিও দেখে।

তখন সর্বপ্রথম সে আপনার ভিডিওর সাউন্ড দেখে আকৃষ্ট হয়। এবং যখন আপনার ভিডিও তে থাকা সেই সাউন্ড উক্ত দর্শকের কাছে ভালো লাগবে।

এবং তখন সেই দর্শক আপনার ভিডিও টি দেখার জন্য আগ্রহ প্রকাশ করবে।

এবং সেই সময় যদি তার কাছে আপনার ভিডিওটি ভালো লাগে। তাহলে সেই দর্শক আপনার পুরো ভিডিও টি দেখবে।

ট্রেন্ডিং ভিডিও মেকিং

টিকটক এর মধ্যে বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন বিষয় ট্রেন্ডিং এ চলে আসে। আর যখন tiktok এর মধ্যে কোন একটি বিষয় ট্রেন্ডিং এ চলে আসে।

তখন দর্শকরা সেই ভিডিও টি প্রচুর পরিমাণে দেখে। তাই যখন আপনি tiktok এর মধ্যে ভিডিও আপলোড করবেন। তখন অবশ্যই আপনাকে এই বিষয়টির দিকে যথেষ্ট খেয়াল রাখতে হবে।

এবং আপনাকে সর্বদাই খবর রাখতে হবে যে, বর্তমান সময়ে টিক টক এর মধ্যে কোন বিষয় ট্রেন্ডিং এ আছে। আর আপনি যদি সেই বিষয়টি কে খুঁজে নিতে পারেন।

তাহলে সেই সময় আপনাকে ঐ বিষয়ের উপর ভিডিও তৈরি করতে হবে। এবং তাৎক্ষণিক ভাবে সেই ভিডিও কে tiktok এর মধ্যে আপলোড করে দিতে হবে।

আর আপনি যদি এই ধরনের ট্রেন্ডিং ভিডিও নিয়ে কাজ করেন। তাহলে আপনার সেই tiktok ভিডিও ভাইরাল হওয়ার সম্ভাবনা অনেক অংশে বেড়ে যাবে।

সেলিব্রিটিদের সাথে ডুয়েট করা

যদি আপনি নিয়মিত টিকটক অ্যাপস ব্যবহার করে থাকেন। তাহলে আপনার অবশ্যই একটা কথা জানা থাকবে। আর সেটি হল এই tiktok অ্যাপস এর মাধ্যমে ডুয়েট করার একটি অপশন রয়েছে।

তো এই অপশনটি কে আপনাকে সঠিক ভাবে কাজে লাগাতে হবে। সেক্ষেত্রে বর্তমান সময়ে টিকটক এর মধ্যে যারা সেলিব্রেটি রয়েছেন।

তাদের সাথে আপনাকে ডুয়েট ভিডিও তৈরি করতে হবে। এতে করে দর্শকরা আপনার ভিডিও দেখতে আগ্রহ প্রকাশ করবে।

এবং সেলিব্রিটিদের সাথে ডুয়েট করার মাধ্যমে আপনি আপনার টিকটক ভিডিও ভাইরাল করতে পারবেন।

ভিডিও নিশ বাছাই করুন এবং ইউনিক ভিডিও আপলোড করুন

আপনার tiktok একাউন্ট এর মধ্যে নির্দিষ্ট একটি বিষয় নিয়ে ভিডিও তৈরি করার চেষ্টা করবেন। যেমন ধরুন, আপনি যদি আপনার tiktok অ্যাকাউন্টে ফানি ভিডিও আপলোড করেন।

সেক্ষেত্রে আপনার পরবর্তী সব গুলো ভিডিও যেন ফানি ভিডিও হয়। এতে করে যারা আপনার ফলোয়ার থাকবে। তারা আপনার নতুন ভিডিও আসলেই যেন বুঝতে পারে।

যে আপনি কোন ফানি ভিডিও তৈরি করেছেন। ঠিক তেমনি ভাবে আপনি যদি মোটিভেশনাল ভিডিও তৈরি করেন।

তাহলে আপনার পরবর্তী সবগুলো ভিডিও মোটিভেশনাল হিসেবে তৈরি করার চেষ্টা করবেন। এতে করে দর্শকদের কাছে আপনি আলাদা একটা প্রাধান্য পাবেন।

এবং অনেক দর্শক আপনার নতুন ভিডিও পাওয়ার জন্য অপেক্ষা করে থাকবে।

ভিডিওর দৈর্ঘ্য ছোট রাখুন

দেখুন একটা কথা সর্বদাই মাথা রাখবেন। আর সেই কথাটি হলো যে, টিকটক হল একটি শর্ট ভিডিও প্ল্যাটফর্ম। যেখানে আপনাকে অনেক ছোট ছোট দৈর্ঘ্যের ভিডিও তৈরি করতে হবে।

কিন্তু আপনি যদি অনেক দীর্ঘ ভিডিও তৈরি করেন। সেক্ষেত্রে অনেক সময় দর্শকদের কাছে তা বিরক্তির কারণ হয়ে দাঁড়াবে। আর সে জন্যই আপনি চেষ্টা করবেন যেন, আপনার ভিডিও গুলো অনেক ছোট ছোট হয়।

এবং সেই ছোট ভিডিওর মধ্যে দর্শকদের জন্য অনেক কিছু রাখা যায়। আর আপনি যদি এই টিপস টি ফলো করেন।

তাহলে কিন্তু দর্শকরা আপনার সেই ছোট দৈর্ঘ্যের পুরো ভিডিও টি দেখবে। আর যখন দর্শকরা আপনার সম্পূর্ণ ভিডিও দেখবে।

তখন তা টিকটক অ্যালগরিদম এর কাছে একটা পজেটিভ সিগন্যাল বহন করবে।

ঘনঘন ভিডিও পোস্ট করুন

আপনি খুব বেশি বড় দৈর্ঘ্যের ভিডিও তৈরি না করে। বরং ছোট ছোট ভিডিও তৈরি করবেন। এবং টিকটক এর মধ্যে খুব ঘন ঘন ভিডিও পাবলিশ করার চেষ্টা করবেন।

কেননা tiktok এর অ্যালগরিদম অনুযায়ী একটি টিকটক একাউন্ট থেকে যত বেশি ভিডিও পাবলিশ করা হবে। সেই অ্যাকাউন্ট কে ঠিক তত বেশি একটিভ হিসেবে ধরা হবে।

আর আপনি যদি একজন টিকটকার হয়ে থাকেন। তাহলে অবশ্যই আপনাকে এই বিষয় টি অত্যন্ত গুরুত্বের সাথে খেয়াল রাখতে হবে।

আর যখন আপনি আপনার টিকটক একাউন্ট থেকে অধিক পরিমাণে ভিডিও পাবলিশ করবেন। তখন আপনার সেই টিকটক অ্যাকাউন্ট টিকটক অ্যালগরিদম এর কাছে আলাদা রকমের প্রাধান্য পাবে।

নিজের অডিও ব্যবহার করুন

টিকটক এর মধ্যে অন্যান্য কোন সাউন্ড যুক্ত করার পরে। সেই সাউন্ডের সাথে নিজের মুখ নড়িয়ে অর্থাৎ লিপসিং করে ভিডিও তৈরি করা হয়।

আর এই বিষয় টি সম্পর্কে আমরা সবাই জানি। কিন্তু আপনি যদি আপনার সেই tiktok ভিডিওর মধ্যে নিজস্ব ভয়েস ব্যবহার করেন।

সেক্ষেত্রে কিন্তু দর্শকদের কাছে আপনি একটু বেশি প্রাধান্য পাবেন। আর আপনি যদি tiktok এর মধ্যে সেই ভিডিও গুলোর দিকে লক্ষ্য করেন।

যে ভিডিও গুলো নিজের ভয়েস ব্যবহার করে তৈরি করা হয়েছে। তাহলে দেখতে পারবেন যে, উক্ত ভিডিও গুলো তে যে পরিমাণে ভিউ আসে।

তার থেকে অনেক কম পরিমাণে ভিউ আসে যে ভিডিও গুলো তে অন্যের অডিও ব্যবহার করা হয়। এটা আমার কথা নয়, বরং এটা হল টিকটক এর নিজস্ব অ্যালগরিদম।

ভিডিওতে এমন অংশ রাখুন, যা পুনরায় দেখার প্রয়োজন হবে

যখন কোন একটি tiktok একাউন্ট থেকে পাবলিশ করা ভিডিও নির্দিষ্ট কোন একজন দর্শক বারবার দেখবে।

তখন টিকটক অ্যালগরিদম ভেবে নিবে যে, আপনার সেই ভিডিও তে নিশ্চয়ই এমন আকর্ষণীয় কোন কিছু আছে। যার কারণে সেই দর্শক বারবার আপনার একই ভিডিও কে দেখছে।

আর যখন এই বিষয় টি বারবার ঘটবে। তখন টিকটক অ্যালগরিদম নিজে থেকেই আপনার সেই ভিডিও কে আরো নতুন নতুন ব্যক্তিদের কাছে পৌঁছানোর চেষ্টা করবে।

তো আপনাকে আপনার ভিডিও তে এমন কিছু রাখতে হবে। যাতে করে দর্শকরা বারবার আপনার ভিডিও টি দেখে। আর যদি কোন কারণে এমনটা হয়ে থাকে।

তাহলে কিন্তু আপনার tiktok ভিডিও ভাইরাল হতে খুব বেশি একটা সময় লাগবে না।

টাইটেল এবং হ্যাশট্যাগ ব্যবহার

আমরা অনেকেই আছি যারা মূলত টিকটক এর মধ্যে ভিডিও পাবলিশ করি। কিন্তু সেই ভিডিও পাবলিশ করার সময় কোন প্রকার টাইটেল কিংবা হ্যাশট্যাগ ব্যবহার করিনা।

আর যদি আপনিও এমনটা করে থাকেন। তাহলে আমি আপনাকে বলব যে, আপনি নিজেই আপনার ভিডিও কে ভাইরাল হতে দিচ্ছেন না।

কারণ কোন একটি ভিডিও পাবলিশ করার পর অবশ্যই আপনাকে সেই ভিডিওর জন্য সঠিক টাইটেল ব্যবহার করতে হবে।

এর পাশাপাশি টিকটক এর মধ্যে হ্যাশট্যাগ হল গুরুত্বপূর্ণ একটি অংশ। আর আপনি যদি কোনো কারণে আপনার ভিডিও তে হ্যাশট্যাগ ব্যবহার না করেন।

তাহলে এই ভুল টি আর কখনোই করার চেষ্টা করবেন না। বরং আপনার প্রতিটা ভিডিও তে সঠিক টাইটেল এবং হ্যাশট্যাগ ব্যবহার করার চেষ্টা করবেন।

টিকটক ভিডিও ভাইরাল করার সকল উপায়

কিভাবে টিকটক ভিডিও ভাইরাল করবো যাদের মনে এই প্রশ্ন টি ছিল। তাদের জন্য উপরে আমি কার্যকরী কিছু টিকটক ভিডিও ভাইরাল করার উপায় নিয়ে আলোচনা করেছি।

যদি আপনার কোন tiktok account থাকে। এবং আপনি যদি সেই একাউন্টে নিয়মিত ভিডিও আপলোড করেন।

তাহলে অবশ্যই আপনাকে এই উপায় গুলো মাথায় রেখে চলতে হবে। তবে এ গুলোর বাইরেও আরো এমন অনেক টিকটক ভিডিও ভাইরাল করার উপায় রয়েছে।

যে গুলো সম্পর্কে আপনার জেনে রাখা উচিত। যেমন: 

  1. সব সময় ক্লিয়ার ভিডিও আপলোড করার চেষ্টা করবেন।
  2. রেগুলার ভিডিও আপলোড করবেন।
  3. চমকের সাথে ভিডিও শুরু করুন।
  4. ট্রেন্ডিং গান বা সাউন্ড ব্যবহার করুন
  5. প্রভাবশালী কল-টু-অ্যাকশন রাখুন।
  6. মানুষদের রান্ডম কমেন্টের সুযোগ দিন।
  7. কিছু প্রশ্ন অধরাই রাখুন।
  8. ওপেনিং ভিডিও ফ্রেমে ও টেক্সট রাখুন।
  9. কমেন্টের রিপ্লাই করুন।
  10. একটা নিশেই টিকে থাকবেন না।
  11. FYP-এ ভিডিও দেখার জন্য ব্যয় করুন।

তো আপনি যদি আপনার tiktok ভিডিও কে ভাইরাল করতে চান।

তাহলে অবশ্যই আপনাকে এই বিষয় গুলোর দিকে যথেষ্ট গুরুত্ব দিতে হবে। আর আপনি যদি উপরোক্ত এই বিষয় গুলোর দিকে গুরুত্ব দেন।

তাহলে আমার দীর্ঘ বিশ্বাস যে, আপনিও খুব সহজেই আপনার tiktok ভিডিও ভাইরাল করতে পারবেন।

আপনি আরোও দেখতে পারেন…

আমাদের শেষকথা

আমাদের মধ্যে যে মানুষ গুলো আসলে জানতে চেয়েছেন যে, কিভাবে টিকটক ভিডিও ভাইরাল করবো।

তাদের জন্য আজকের আলোচিত এই টিকটক ভিডিও ভাইরাল করার উপায় গুলো অনেক কার্যকরী ভূমিকা পালন করবে। আর আপনি যদি টিকটক সম্পর্কিত আরো অজানা কিছু জানতে চান।

তাহলে অবশ্যই নিচে কমেন্ট করে জানিয়ে দিবেন।

Leave a Comment

Your email address will not be published.

HandsUp! কপি করা যাবে না বস!

Scroll to Top
Share via
Copy link
Powered by Social Snap