ইন্টারনেট কি | ইন্টারনেট কিভাবে কাজ করে  (What is Internet in bengali)

ইন্টারনেট কি : আধুনিক প্রযুক্তির এই যুগে ইন্টারনেট (Internet) ব্যবহার করেনা, এমন মানুষকে খুজে পাওয়া কঠিন।

কারণ এই সময়ে অধিকাংশ কাজ গুলো ইন্টারনেট কানেকশন এর মাধ্যমে করা হয়ে থাকে।

ইন্টারনেট কি | ইন্টারনেট কিভাবে কাজ করে  (What is Internet in bengali)
ইন্টারনেট কি | ইন্টারনেট কিভাবে কাজ করে

তাছাড়া দ্রুততার সাথে কোনো কাজ করার জন্য Internet হলো অন্যতম একটি মাধ্যম। আর মজার বিষয় হলো, আপনি যে এখন এই লেখাটি পড়ছেন, সেটাও কিন্তুু ইন্টারনেট কানেকশন এর মাধ্যমেই পড়তে পারছেন ৷

তবে মজার বিষয় হলো, দিনের ২৪ ঘন্টার মধ্যে ১৬ ঘন্টা সময় ইন্টারনেটে ব্যয় করা মানুষটাকেও যদি প্রশ্ন করা হয় যে, “ইন্টারনেট কি” (What is internet in bangla).

তাহলে দেখবেন, সেই মানুষটা এই প্রশ্নের উত্তর দিতে বেশ বিরূপ পরিস্থিতিতে পরে যাবে ৷ কারণ সর্বাধিক সময় মানুষ Internet connection এর সাথে যুক্ত থাকলেও ইন্টারনেট কি ?

তার সঠিক সংঙ্গাটা অধিকাংশ মানুষ দিতে পারবে না।

কিন্তুু আমরা যাতে আসক্ত, তাকে যদি শক্ত করে ধরে রাখতে চাই। তাই অবশ্যই তার সম্পর্কে পূর্নাঙ্গ ভাবে জেনে নেয়া উচিত।

আসলে Internet কি, ইন্টারনেট আবিষ্কার করেন কে, ইন্টারনেট কত প্রকার ও কি কি এই সব গুলো বিষয়ে ধারনা রাখা উচিত।

আপনি আরো দেখতে পারেন…

যেন আমাদের দৈনন্দিন জীবনে ব্যবহার করা এই ইন্টারনেট সম্পর্কে কোনো বিষয় অজানা না থাকে।

আর আজকের এই মূল্যবান আর্টিকেল টি মূলত সেই উদ্দেশ্যে লেখা হয়েছে। কেননা, আমি বেশ কয়েকদিন থেকে ইন্টারনেট নিয়ে জানা অজানা তথ্য গুলো কে সংগ্রহ করেছি।

আর সেই তথ্য গুলোই শেয়ার করবো আপনার সাথে। তো যদি আপনি ইন্টারনেট কি, ইন্টারনেটের ব্যবহার কি কি এবং ইন্টারনেট এর জনক কে – সে সম্পর্কে জানতে চান।

তাহলে আজকের পুরো লেখাটি মন দিয়ে পড়বেন। 

ইন্টারনেট কি ? (What Is Internet In Bangla)

যদি আপনি Internet ki তা সহজভাবে জানতে চান, তাহলে বলবো যে, পৃথিবীর সকল প্রকার ইলেকট্রনিকস ডিভাইস গুলোতে নির্দিষ্ট একটি নেটওয়ার্ক এর মাধ্যমে সংযুক্ত করার মাধ্যম কে বলা হয় ইন্টারনেট।

মূলত এই নেটওয়ার্ক এতোটাই শক্তিশালী যার মাধ্যমে একটি ডিভাইস এর সাথে অন্য আরেকটি ডিভাইস কে একে অপরের সাথে যুক্ত করা হয়ে থাকে।

আর সে কারনে Internet কে একটি জালের সাথে তুলনা করা হয়ে থাকে। একটি জাল যেভাবে নির্দিষ্ট একটি স্থান জুড়ে বিস্তৃতি লাভ করে উক্ত স্থানে সমস্ত কিছুকে এক করতে পারে।

ঠিক তেমনিভাবে ইন্টারনেট হলো এমন এক ধরনের বৃহৎ জাল। যার মাধ্যমে গোটা পৃথিবীতে থাকা ইলেকট্রনিকস ডিভাইস গুলোকে একে অপরের সাথে যুক্ত করা সম্ভব হয়। 

ইন্টারনেট কি ধরনের নেটওয়ার্ক ?

সহজভাবে বলতে গেলে ইন্টারনেট হলো এক ধরনের বিশেষ কম্পিউটার নেটওয়ার্ক। যা গোটা পৃথিবীতে থাকা কম্পিউটার গুলোর মধ্যে একটি অপরটির সাথে যুক্ত হয়ে আছে।

আর পরষ্পরের সাথে সংযুক্ত থাকা এই কম্পিউটার গুলোর সংযোগ কে মূলত সংযুক্ত করা হয় Global Network এর সাথে।

এবং এই সংযোগ কে মূলত কোনো Wire বা বেতার কানেকশন এর মাধ্যমে কানেক্ট করা হয়ে থাকে। 

ইন্টারনেট সংযোগ কি ?

এই আর্টিকেলে আমি ইন্টারনেট কে একটি বৃহৎ জালের সাথে তুলনা করেছি। যে জালটি গোটা পৃথিবী জুড়ে বিস্তৃত।

আর এই জালের মধ্যে গোটা পৃথিবীতে থাকা কম্পিউটার ডিভাইস গুলো কে আইপি বা প্রোটোকল এর মাধ্যমে যুক্ত করা হয়ে থাকে।

এবং এরফলে আমরা একে অপরের সাথে বিভিন্ন ডেটা বা ইনফরমেশন আদান প্রদান করতে পারি। মূলত একেই বলা হয়, ইন্টারনেট সংযোগ ৷ 

কার্নিভাল ইন্টারনেট কি ?

Internet কি তা জানার পাশাপাশি আপনাকে আরো একটি বিষয়ে জেনে নিতে হবে। কারণ, যখন আপনি ইন্টারনেট কি তা জানতে আসবেন ৷

তখন আপনি কার্নিভাল ইন্টারনেট সম্পর্কে নতুন এক ধরনের Internet এর নাম শুনে থাকবেন। তো এই মূহুর্তে আপনার মনে প্রশ্ন জেগে থাকবে যে, কার্নিভাল ইন্টারনেট কি।

এবার আমি সে নিয়ে একটু আলোচনা করার চেস্টা করবো ৷

সহজ ভাষায় বলতে গেলে আমরা যারা শহরে থাকি, তারা ইন্টারনেট সেবা গ্রহনের উদ্দেশ্যে বিভিন্ন ধরনের ব্রডব্যান্ড সেবা নিয়ে থাকি।

ঠিত তেমনি ভাবে কার্নিভাল ইন্টারনেট হলো বিশেষ এক ধরনের ব্রডব্যান্ড সেবা। যা এসএসডি টেক দাড়া পরিচালিত হয় এবং এই সেবাকে জাতীয় ব্রডব্যন্ড সেবা হিসেবেও পরিচিত করা হয়েছে।

মূলত যারা নিয়মিত ইন্টারনেট ব্যবহার করে তাদের নিরবচ্ছিন্ন সার্ভিস প্রদান করাই হলো কার্নিভাল ইন্টারনেট এর মূল উদ্দেশ্য৷ 

ইন্টারনেটের ব্যাপারে জানাটা কেন জরুরি ?

আমরা প্রতিনিয়ত নতুন কিছু জানছি নতুন কিছু শিখছি। কিন্তুু এই একবারও কি আপনার মনে প্রশ্ন জাগেনি যে, এই ইন্টারনেটের ব্যাপারে জানাটা কেন জরুরি।

তো আপনি ভাবুন আর নাই ভাবুন, এবার আমি Importance Of internet knowledge নিয়ে একটু বিস্তারিত আলোচনা করবো।

আপনি সে সম্পর্কে জানতে চাইলে নিচের আলোচনায় চোখ রাখুন।

দেখুন আজকের দিনের উন্নত বিশ্বের পেছনে ইন্টারনেট এর বিরাট একটা হাত রয়েছে।

কেননা, আজকের দিনে আমরা ইন্টারনেট এর মাধ্যমেই অনেক অজানা বিষয়কে জেনে নিতে পারি ৷

যেমন ধরুন Google এর কথা, আমাদের যখনি যা কিছু জানার প্রয়োজন হয়। সেই বিষয়ে যখন আমরা গুগলে সার্চ করি, তখন তাৎক্ষণিক ভাবে উক্ত বিষয় সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারি।

এছাড়াও আজকের দিনে ইন্টারনেট শুধু অজানা বিষয়কে জানানোর মধ্যে সীমাবদ্ধ নেই ৷ কারণ এখনকার দিনে মানুষ ইন্টারনেট কে কাজে লাগিয়ে টাকা আয় পর্যন্ত করে আসছে।

আপনি আরো দেখতে পারেন …

আর যেহুতু মানব সভ্যতা ইন্টারনেট কে কাজে লাগিয়ে এতো কিছু করছে। সেহুতু ইন্টারনেট কি – সে সম্পর্কে আপনি কেন জানবেন না।

বরং ইন্টারনেট কি তা  আপনাকেও জেনে নিতে হবে। 

ইন্টারনেট কিভাবে কাজ করে ? (How Does Internet Works)

কখনও আপনার মনে এই প্রশ্নটি জাগেনি যে, ইন্টারনেট আসলে কিভাবে কাজ করে, কিভাবে আমরা আমাদের হাতে থাকা মোবাইল অথবা কম্পিউটার দিয়ে ইন্টারনেট এর সাথে সংযুক্ত হতে পারি ?

হুমমম! যদি আপনার মনে এই ধরনের প্রশ্ন জেগে থাকে। তাহলে আপনাকে ইন্টারনেট এর কাজ সম্পর্কে পরিস্কার ধারনা নিতে হবে।

আর এই ধারনা থেকে আপনি বুঝতে পারবেন যে, ইন্টারনেট কিভাবে কাজ করে।

আপনি কি ল্যান্ডলাইন চিনেন ? এই ল্যান্ডলাইন গুলো যেভাবে একটি বাসা থেকে অন্য একটি বাসার মধ্যে তার এর সাহায্য সংযুক্ত করা হয়।

ঠিক তেমনিভাবে এই ইন্টারনেট কে গ্লোবাল নেটওয়ার্ক এর সাথে Wire কিংবা বেতার কানেকশন এর সাহায্য যুক্ত করা হয়ে থাকে।

আর যখন এভাবে Global Network এর সাথে সংযুক্ত করা হয়, তখন এই সংযোগ কে পরবর্তী সময়ে রাউটার কিংবা ডাটা সার্ভার এর মাধ্যমে কানেক্ট করা হয়ে থাকে।

তবে এই ধরনের রোবোটিক কথা গুলো শুনে আপনি তেমন কোনো ধারনা নাও পেতে পারেন। তাই চলুন এবার একটু বিস্তারিত ভাবে আলোচনা করা যাক।

তাহলে ইন্টারনেট কিভাবে কাজ করে, তা আপনার বুঝতে সুবিধা হবে।

তো যদি আপনি ইন্টারনেট কে কাজে লাগাতে চান, তবে আপনার নিকট মোট ৩ টি জিনিসের প্রয়োজন হবে। যেমনঃ

০১| A internet supposed device 

যদি আপনি ইন্টারনেট কানেকশন এর কাজ বুঝতে চান কিংবা Internet Connection কে কাজে লাগাতে চান।

তবে সবার আগে আপনার নিকট ইন্টারনেট সাপোর্ট করে এমন একটি ডিভাইস থাকতে হবে।

সেটা হতে পারে একটি মোবাইল, কম্পিউটার কিংবা একটি ল্যাপটপ। তবে আপনার নিকট অবশ্যই একটি ডিভাইস থাকতেই হবে। 

০২| Get internet from ISP

এবার আপনার হাতে থাকা ডিভাইস এর মধ্যে ইন্টারনেট কানেকশন যুক্ত করতে হবে ৷

সেক্ষেত্রে আপনি আপনার দেশের যেকোনো Telecommunication Company থেকে Wireless কিংবা Wire যুক্ত কানেকশন নিতে পারবেন ৷

এবং সেই কানেকশন এর মাধ্যমে আপনি ইন্টারনেট নামক বিশাল জালের সাথে সংযুক্ত হতে পারবেন। 

০৩| Some web browsing application 

এবার আপনি যদি সেই গ্লোবাল নেটওয়ার্ক কে কাজে লাগাতে চান। তাহলে ইন্টারনেট সংযুক্ত থাকা ডিভাইসের মধ্যে কিছু ওয়েব ব্রাউজিং এপ্লিকেশন থাকতে হবে।

এবং এই এপ্লিকেশন গুলোর মাধ্যমে আপনি ইন্টারনেট কে কাজে লাগাতে পারবেন।

Internet এর সুযোগ সুবিধা ভোগ করতে পারবেন। যেমন, Video call, Audio Call, Text Message, Data Transfer ইত্যাদি। 

ইন্টারনেটের ইতিহাস (History Of Internet)

ইন্টারনেট কি সে বিষয়ে জানার পাশাপাশি আপনার এই ইন্টারনেট এর ইতিহাস সম্পর্কে জেনে নেয়াটা অতি গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়।

কারণ আজকে আমরা যতোটা সহজ ভাবে Internet ব্যবহার করছি, ততোটা সহজ ভাবে কিন্তুু ইন্টারনেট এর আবিস্কার হয়নি।

বরং অনেক আশা প্রত্যাশার অবষাদ ঘটিয়ে আজকের এই ইন্টারনেট এর আবিস্কার হয়েছে।

তো চলুন এবার তাহলে History of internet সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নেয়া যাক।

সময়টা ছিলো ১৯৬৯ সাল, এই সময়ে একটি আমেরিকান কোম্পানি সর্বপ্রথম ARPANET এর সূচনা করেছিলো।

যার মূল উদ্দেশ্যে ছিলো, কোনো একটি কম্পিউটার ডিভাইস কে অন্য একটি কম্পিউটার ডিভাইস এর সাথে যুক্ত করা।

এরপর সেই সংস্থা টি এই arpanet কে নিয়ে অনবরত কাজ করে যায়। এবং পরবর্তী সময়ে অর্থ্যাৎ ১৯৮০ এই ARPANET এর উন্নত টেকনোলোজি কে ইন্টারনেট হিসেবে পরিচিত করা হয়।

তবে আপনার একটা বিষয় জেনে রাখা উচিত যে, ১৯৮৩ সালের ১ তারিখে ইন্টারনেট এর শুভ সূচনা হয়েছিলো।

তবে শুরুর দিকে এর নাম ইন্টারনেট ছিলোনা। বরং বিশেষ এই কানেকশন কে বলা হতো “Network To Network”.

এবং পরবর্তী সময়ে আমাদের কাছে এটি INTERNET নামে পরিচিতি লাভ করে। যে নামটি এখনও মানুষ বলে আসছে।

কিন্তুু এরপরও ইন্টারনেট কে ব্যবহার করার মধ্যে নানা রকম বাধ্যবাধকতা ছিলো।

কিন্তুু এইসব বাধাকে পেরিয়ে ওঠার জন্য বিখ্যাত কম্পিউটার সাইন্টিস্ট Tim Berners Lee সর্বপ্রথম World Wide Web এর আবিস্কার করেন।

যাকে সংক্ষিপ্ত আকারে www বলা হয়ে থাকে। আর এরপর থেকে ইন্টারনেট সর্বসাধারনের জন্য উন্মুক্ত করা হয়।

এবং সেই সুবিধা এখনও আমরা ভোগ করে আসছি। 

ইন্টারনেট এর মালিক কে? | Who is the owner of internet ? 

তো আমাদের অনেকের মধ্যে একটি মজার প্রশ্ন জেগে থাকে। সেটি হলো আমরা যে ইন্টারনেট ব্যবহার করছি সেই ইন্টারনেট এর মালিক কে।

যদি আপনার মনে এই প্রশ্নটি জেগে থাকে তাহলে বলবো যে, এই প্রশ্নের সঠিক কোনো উত্তর নেই। কারণ, আমাদের দৈনন্দিন জীবনে ব্যবহার করা এই ইন্টারনেট এর কোনো নির্দিষ্ট মালিক নেই।

হয়তবা এই উত্তরটা শুনে আপনি অবাক হয়ে যেতে পারেন ৷ কারণ ইন্টারনেট এর মতো এতো বড় একটি জিনিসের কোনো মালিক নেই।

তবে হ্যাঁ আপনি যদি ইন্টারনেট এর ইতিহাস সম্পর্কে একটু জেনে নেন ৷ তাহলে আপনি দেখতে পারবেন যে, internet এর সূচনা হয়েছিলো ARPANET নামক একটি এজেন্সি থেকে।

আর এই এজেন্সিতে অনেক প্রোগ্রামার এবং সাইন্টিস্ট কাজ করেছিলো। আর আজকের এই ইন্টারনেট এর গুরুত্বপূর্ণ ভাগ হলো IP Protocol যেটি তৈরি করেছিলো Vincent Cerf এবং Robert Kahn.

ইন্টারনেটের ব্যবহার (Uses Of Internet) 

বর্তমান সময়ে আমরা বিভিন্ন মানুষ বিভিন্ন কারনে ইন্টারনেট কে ব্যবহার করে আসছি। তবে প্রয়োজন এবং কাজের দিক থেকে বেশ কিছু কারনে ইন্টারনেট কে সর্বাধিক ব্যবহার করা হয়ে থাকে। যেমনঃ

০১| Electronic Mail

সবচেয়ে বড় সুবিধা হলো আমরা ইন্টারনেট এর মাধ্যমে খুব দ্রুততার সাথে এক স্থান থেকে অন্য স্থানে ইমেল পাঠাতে পারি।

কেননা, পৃথিবীর এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে খুব কম সময়ের মধ্যে যোগাযোগ স্থাপন করার জন্য Email হলো অন্যতম একটি মাধ্যম।

আর সেই কারনে বিশ্বের অনলাইন ব্যবহার কারীর মোট ৮০% মানুষ যোগাযোগ করার জন্য বিশেষ এই মাধ্যম টি ব্যবহার করে থাকে।

আর এই কাজটি মূলত ইন্টারনেট এর মাধ্যমে করা হয়ে থাকে। 

০২| File Download 

আমরা যারা অনলাইনে সময় ব্যয় করি তাদের বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ধরনের ফাইল ডাউনলোড করার প্রয়োজন হয়ে থাকে ৷

যেমন কখনও আমাদের Video File, Audio File কিংবা বিভিন্ন ধরনের Image ডাউনলোড করার প্রয়োজন হয়ে থাকে।

তো এই Download করার জন্য আমাদের এই ইন্টারনেট ব্যবহার করার প্রয়োজন হয়ে থাকে। 

০৩| Educational Advantage 

আজকের দিনে ইন্টারনেট এর প্রভাব শিক্ষাক্ষেত্রেও এসেছে। কারন এখন আমরা অনলাইন এর মাধ্যমে নানা বিষয়ে ধারনা নিতে পারছি।

যেমন, বর্তমান সময়ে আমরা অনলাইনের মাধ্যমে ক্লাশ করতে পারছি, পরীক্ষা দিতে পারছি এবং অনলাইনের মাধ্যমে টিউশনি করাতে পারছি ৷

এছাড়াও অনলাইনে বিভিন্ন সাবজেক্টের কোর্স করেও উক্ত সাবজেক্টে নিজেকে দক্ষ হিসেবে গড়ে তুলতে পারছি।

আর এই কাজ গুলোর জন্য ব্যবহার করা হয় ইন্টারনেট এর। 

০৪| Online Shopping 

রাস্তায় শত শত মানুষের জ্যাম পেরিয়ে শপিং করা আর সবশেষে ক্লান্ত হয়ে বাড়ি ফেরার কষ্টকে অনেক গুন কমিয়ে দিয়েছে অনলাইন শপিং।

যার সাহায্য আপনি নিজের ঘরে বসে Online Shopping করতে পারবেন। সেজন্য আপনাকে তেমন কিছুই করতে হবেনা, আপনি শুধু আপনার প্রয়োজনীয় পন্য গুলোর অর্ডার দিবেন।

আর কিছু সময়ের মধ্যে আপনার ঘরে সেই পন্য গুলো পৌঁছে যাবে। আর এই সুবিধা গুলি আমার ইন্টারনেট এর মাধ্যমে ভোগ করতে পারছি ৷ 

০৫| Fast Communication 

ইন্টারনেট এর ব্যবহারিক দিক গুলো বিবেচনা করলে দেখতে পারবেন যে আমার কমিউনিকেশন সিস্টেমে।

কারণ এখন আমরা খুব দ্রুততার সাথে পৃথিবীর এক প্রান্তে থাকা মানুষের সাথে অপর প্রান্তের মানুষের সাথে যোগাযোগ করতে পারি।

আর এর পাশাপাশি আমরা নানা রকম সোশ্যাল মিডিয়া গুলো ব্যবহার করতে পারছি। যেমন, Facebook, Messenger WhatsApp ইত্যাদি। 

০৬| For Entertainment 

মানুষের বেঁচে থাকার অন্যতম একটি মাধ্যম হলো বিনোদন করা।

আর অতীতের দিন গুলোতে মানুষ বিনোদনের মাধ্যম হিসেবে অন্য কিছু করলেও আজকের দিনের মানুষের মধ্যে রয়েছে অনেক ভিন্নতা।

কারণ এখন আমরা নিজের ইচ্ছে মতো যেকোনো সময় যেকোনো ধরনের প্রোগ্রাম, গান ইত্যাদি অনলাইন থেকে খুব সহজেই দেখতে পারি ৷

আর এই সুবিধাটি মূলত ইন্টারনেট এর কারনেই ভোগ করতে পারছি। 

০৭| For Online Job

আজকের দিনে অনেক মানুষ নিজের ঘরে বসে অনলাইনে কাজ করে টাকা আয় করতে পারছে।

হুমমম! আমি আমার সাইটে অনলাইন ইনকাম করার এমন অনেক আর্টিকেল পাবলিশ করছি।

যেগুলো থেকে অনলাইন ইনকাম সম্পর্কে অনেক অজানা বিষয়ে জেনে নিতে পারবেন। আর এই ধরনের সুযোগও কিন্তুু ইন্টারনেট এর কারনেই ভোগ করতে পারছি। 

০৮| Search Information 

আপনি কোনো অজানা বিষয়ে জানতে চান! তাহলে গুগলে চলে যান। আর সেখানে গিয়ে আপনি যে বিষয়ে জানতে চান সেটি লিখে সার্চ করুন।

তাহলে আপনার অজানা বিষয় টি জানতে মাত্র কয়েক মিনিট সময় লাগবে। মূলত ইন্টারনেট আসার পরে এই বিশেষ সুবিধা টি আমরা সবাই ভোগ করতে পারছি। 

আপনার জন্য আরো আর্টিকেল…

ইন্টারনেট কি নিয়ে আমাদের শেষকথা 

বর্তমানে আমরা আমাদের বিশ্বকে ডিজিটাল বিশ্বে রুপান্তর করতে পেরেছি। আর এই ডিজিটাল বিশ্বকে এতোটা উন্নত করার পেছনে Internet এর বিরাট একটা অবদান রয়েছে।

আর সে কারনে ইন্টারনেট কি সে নিয়ে আজকে আমি পূর্নাঙ্গ ভাবে আলোচনা করেছি।

আশা করি আজকের এই ছোট্ট আর্টিকেল থেকে ইন্টারনেট কি তা আপনি বেশ ভালো ভাবে বুঝতে পেরেছেন।

আর এমন সব অজানা বিষয় কে সহজ ভাষায় জানতে হলে Bangla it blog এর সাথে থাকবেন। ধন্যবাদ। 

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

HandsUp! কপি করা যাবে না বস!
Scroll to Top
Share via
Copy link
Powered by Social Snap