অনলাইন মার্কেটিং মানে কি ? | কিভাবে অনলাইনে মার্কেটিং করতে হয় ?

অনলাইন মার্কেটিং মানে কি?  অনলাইন মার্কেটিং এর বিস্তার সারাবিশ্ব জুড়ে। অনলাইন মার্কেটিং এ বর্তমান বিশ্ব ক্যারিয়ার হিসেবে স্বানন্দ্যে নিচ্ছে। অনেকেই আছেন চাকরির পাশাপাশি অনলাইন মার্কেটিং বা নেটওয়ার্কিং এর কাজ করেন।

খুব কম সময়ে অনলাইন মার্কেটিং জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে এবং অনলাইন মার্কেটিং এর পরিধি ব্যাপক। যার ফলে বর্তমানে বিশ্ব অনলাইন মার্কেটিং এর দিকে ঝুঁকছে।

অনলাইন মার্কেটিং মানে কি
অনলাইন মার্কেটিং

আপনার কোন ব্যবসা বা সাইট সম্পর্কে অনলাইনে প্রচার করা হল অনলাইন মার্কেটিং। কারন কথায় আছে প্রচারেই প্রসার। আপনি যদি অনলাইন মার্কেটিং করেন তাহলে সবার মুখে মুখে আপনার ব্যবসা সম্পর্কে জানা হবে এবং আপনার ব্যবসার কার্যক্রম ভালো চলবে।

আর এই কারনে আপনাকে করতে হবে অনলাইন মার্কেটিং। আগে এক সময় ছিলো যখন প্রচার বা বিজ্ঞাপন হত পেপারের লিফলেটের মাধ্যমে, বর্তমানে বিজ্ঞাপনের সবচেয়ে ইজি ওয়ে অনলাইন মাধ্যম।

অনলাইনের মাধ্যমে খুব সহজে বর্তমানে হাজার হাজার মানুষের কাছে পৌঁছে যায় একটি সাইট বা কোম্পানীর তথ্য।তাই আজ বাংলা আইটি ব্লগ আপনাকে জানাবে অনলাইন মার্কেটিং সম্পর্কে।তাহলে আসুন জেনে নেই-

মার্কেটিং মানে কি?

আপনার পণ্যটি কি এবং কেন মানুষের কেনা উচিত তা আপনি যখন বলতে চান তখন আপনি পন্য সম্পর্কে যা বলেন এবং যেভাবে আপনি বলেন তা হচ্ছে মার্কেটিং। মার্কেটিং একটি বিজ্ঞাপন আবার বলা যায় একটি প্রেস বিজ্ঞপ্তি। এবং বর্তমানে মার্কেটিং হয়ে থাকে ফেসবুক বা টুইটার অ্যাকাউন্ট দ্বারা।

মার্কেটিং অনেক ব্যবসায়ীদের কাছে, কেবল বৃহত্তর স্কেলে বিক্রয় করা বোঝায়।বাস্তবতা হল মার্কেটিং ব্যবসায়ের এবং গ্রাহকের মধ্যে ব্যবসায়ের স্বার্থ এবং ক্রেতার প্রয়োজনের চাহিদা মেটানো।

আরো পড়ুন… 

অনলাইন মার্কেটিং মানে কি?

অনলাইন মার্কেটিং হল কোনও সম্ভাব্য গ্রাহকদের কোনও কোম্পানি ব্র্যান্ড এর, পণ্য বা পরিষেবা সম্পর্কে একটি বার্তা ছড়িয়ে দেওয়ার জন্য ওয়েব-ভিত্তিক বা ইন্টারনেট ভিত্তিক মাধ্যম ব্যবহার করা।

অনলাইন মার্কেটিং এর জন্য ব্যবহৃত পদ্ধতি ও কৌশলগুলির মধ্যে রয়েছে ইমেল, সামাজিক মিডিয়া, ভিডিও বিজ্ঞাপন, সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন, গুগল অ্যাডওয়ার্ডস এবং আরও অনেক কিছু।

মার্কেটিং এর উদ্দেশ্য হল সম্ভাব্য গ্রাহকদের মাঝে  মাধ্যমে সঠিক কিছু পৌঁছে দেওয়া যেখানে তারা তাদের পন্য সম্পর্কে সার্চ, কেনা কাটা এবং অনলাইনে সামাজিককরণে ব্যয় করে।

অনলাইন মার্কেটিং এর অন্তর্নিহিত অনেক গুলি সুবিধা এবং চ্যালেঞ্জ রয়েছে, যা গ্রাহকদের কাছে ভার্চুয়াল ভিজিটরদের আকর্ষণ, পণ্য সংযুক্ত এবং তা মার্কেটিং এ রূপান্তর হতে বা করতে প্রাথমিক ভাবে ডিজিটাল মাধ্যম ব্যবহার করা হয়।

অনলাইন মার্কেটিং ট্রেডিশনাল মার্কেটিং থেকে পৃথক, যা প্রিন্ট, বিলবোর্ড, টেলিভিশন এবং রেডিও বিজ্ঞাপনের মতো মাধ্যমগুলি থেকে আলাদা উপায়। অনলাইন মার্কেটিং চ্যানেলগুলি উত্থাপিত হওয়ার আগে, বাজারজাত পণ্য বা পরিষেবাগুলির ব্যয় প্রায়শই ব্যয়বহুল ছিল এবং ট্রেডিশনাল ভাবে পরিমাপ করা বেশ কঠিন ছিল।

এখন যে কোন অনলাইন ব্যবসায় (পাশাপাশি বেশিরভাগ অফলাইন ব্যবসা) সহ যে কেউ ওয়েবসাইট তৈরি করে এবং বিনা ব্যয়ে প্রচারণার মাধ্যমে অনলাইন মার্কেটিং এ অংশ নিতে পারেন।

ইন্টারনেট মার্কেটিং কি

ইন্টারনেট মার্কেটিং হল ইন্টারনেটে মোবাইল ডিভাইস, সোশ্যাল মিডিয়া, সার্চ ইঞ্জিন এবং অন্যান্য মাধ্যম দ্বারা মানুষদের কাছে কোন অথ্য বা প্রডাক সম্পর্কে  পৌঁছানোর জন্য। কিছু মার্কেটার বিশেষজ্ঞ ডিজিটাল মার্কেটিংকে (ইন্টারেনেট মার্কেটিং এর আরেক নাম)  বলে থাকে।

সম্পূর্ণ নতুন প্রচেষ্টা হিসাবে বিবেচনা করে যা গ্রাহকদের কাছে যাওয়ার একটি নতুন উপায় এবং প্রথাগত মার্কেটিং এর তুলনায় গ্রাহকরা কীভাবে পণ্য সম্পর্কে ভাবে। অনলাইন মার্কেটিং করলে বোঝা যায় কেমন পরিসেবা চায় তা সম্পর্কে জানা যায় এই উপায়ে।

ডিজিটাল মার্কেটিং গ্রাহকদের একটি নির্দিষ্ট অংশকে লক্ষ্য করে এবং ইন্টারেক্টিভ ভাবে পর্যালচনা করে। ডিজিটাল মার্কেটিং বৃদ্ধি পাচ্ছে এবং বিজ্ঞাপন, ইমেল বিজ্ঞাপন এবং গ্রাহকের প্রতিক্রিয়া বা কোম্পানি সম্পর্কে গ্রাহকদের মাধ্যমে জানা যায়।

কেন অনলাইন মার্কেটিং করব?

প্রযুক্তির বিকাশের সাথে সাথে আপনার কাছে কার্যকর অনলাইন মার্কেটিং পরিকল্পনা থাকা জরুরী। অনলাইন মার্কেটিং আপনাকে আপনার ব্যবসায় বাড়িয়ে তুলতে সহায়তা করে। অনলাইন মার্কেটিং কেন এত গুরুত্বপূর্ণ তা এখানে সাতটি কারণ  নিয়ে বলব।

১। দ্রুত আপনার প্রডাক বা ব্যবসা সম্পর্কে জানবে

সমস্ত ধরণের তথ্য সন্ধান করতে ইন্টারনেট ব্যবহার করে। বর্তমানে ৪.২  বিলিয়নেরও বেশি লোক ইন্টারনেটে রয়েছে তা বিবেচনা রেখে ব্যবসায়ের জন্য সঠিক পরিকল্পনা করতে হবে। অনলাইনে কোটি কোটি মানুষ রয়েছে কেবল প্রতিষ্ঠানের পণ্যের জন্যে।

আপনার ব্যবসায় পণ্য এবং পরিষেবা সম্পর্কিত প্রাসঙ্গিক তথ্য খুঁজতে মানুষ সার্চ করে। তাই আপনি আপনার ব্যবসা বা সাইটকে অনলাইনে খুব দ্রুত ভাবে মার্কেটিং করতে পারবেন।

যেসব মার্কেটিং প্ল্যাটফর্মে গ্রাহক থাকে বেশি সেসব মার্কেটিং প্ল্যাটফর্মে আপনাকে প্রচার করতে হবে। অনলাইন মার্কেটিং আপনার ব্যবসায়ের জন্য মূল্যবান। কারণ এটি আপনাকে আপনার ব্যবসায়ের পক্ষে সবচেয়ে বেশি আগ্রহী এমন প্ল্যাটফর্মগুলোর সাথে সংযোগ স্থাপনে সহায়তা করে।

২। এটি দ্বিমুখী যোগাযোগ তৈরি করে

ট্রেডিশনাল বিজ্ঞাপনের সাথে, যোগাযোগটি একমুখী। আপনি একটি সংবাদপত্রে একটি টিভি বিজ্ঞাপন তৈরি করলেন এবং আপনি অপেক্ষা করলেনীখন ভাবুন তো আপনার বিজ্ঞাপন প্রচার হতে কত সময় লাগতে পারে।

যদি গ্রাহক আপনার ব্যবসা, পণ্য বা পরিষেবা সম্পর্কে আরও জানতে চান? আপনার অনলাইন মার্কেটিং সিস্টেম না থাকলে তা অনেকটাই কঠিন হবে। অনলাইন মার্কেটিং এর গুরুত্ব অনেক। আপনি ক্লায়েন্টদের আপনার ব্যবসায়ের সাথে যোগাযোগ করার একটি উপায় বলে দিতে পারছেন অনলাইন এর মাধ্যমে।

যদি কেউ আপনার পিপিসির বিজ্ঞাপন দেখে এবং যদি প্রশ্ন থাকে তবে তারা আপনার সাথে যোগাযোগ করতে পারে। তারা প্রশ্ন সহ আপনার সাইটে কল করতে, চ্যাট করতে বা ইমেল করতে পারে।

এটি আপনাকে আপনার গ্রাহকের সাথে সম্পর্ক তৈরি করতে সহায়তা করে। এটি আপনার ভিজিটরদের কাছে মূল্যবান কারণ তারা যেকোন সমস্যায় আপনার সাথে যোগাযোগ করবে।

উদাহরণস্বরূপ, আপনার ব্র্যান্ড থেকে প্রতিদিন গ্রাহক পন্য কেনে। কিন্তু তাদের মনে একটি পন্য নিয়ে বিভিন্ন প্রশ্ন থাকে বা পন্য ব্যবহার করতে গিয়ে বিভিন্ন প্রশ্ন মাথায় আসে যা তারা আপনার সাথে শেয়ার করতে চায়। তখন তারা কি করবে?

প্রতিদিন নিশ্চয় আপনার কাছে তারা আসবে না, তার জন্য সহজ মাধ্যম হল অনলাইন প্ল্যাটফর্ম। আপনার সাথে তাদের প্রশ্ন বা ব্যবহারের পর পন্য কেমন লেগেছে তা সম্পর্কে বলতে হলে আপনার সাইটে তারা সরাসরি যোগাযোগ করতে পারবে।

৩। এটি আপনার গ্রাহকদের অভিজ্ঞতা বাড়ায়

আমরা আগেই বলেছি, আপনার ভিজিটর আপনার ব্যবসায়ের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। কার্যকর অনলাইন মার্কেটিং ভিজিটরদের প্রতিটি সদস্যের জন্য একটি কাস্টম অভিজ্ঞতা তৈরি করে।

অনলাইন মার্কেটিং আপনাকে আপনার ভিজিটরদের অভিজ্ঞতা কাস্টমাইজ করতে সাহায্য করে। কি আশ্চর্য হচ্ছেন? হ্যা কাস্টোমাইজ করতে পারবেন। ধরুন নতুন অফার দিলেন বা প্রশ্ন তৈরি করলেন যে তারা নতুন কি চাচ্ছে।ব্যস আপনি তখন জানতে পারবেন তাদের চাহিদা।

৪। এটি আপনার সাইটের ট্র্যাফিক বাড়াবে

ট্রেডিশনাল বিজ্ঞাপনের সবচেয়ে বড় বাধা হল আগ্রহী ভিজিটরদের পাওয়া যাই না। আপনি যখন ট্রেডিশনাল বিজ্ঞাপন ব্যবহার করেন, আপনি জানেন না যে আপনি কতটি মূল্যবান তথ্য পৌঁছে দিতে পারবেন।

আপনার বিজ্ঞাপনগুলি কতটা আগ্রহী এবং আকর্ষনীয় লিড তৈরি করতে পারবে। অনলাইন মার্কেটিং গুরুত্বপূর্ণ কারণ এটি আপনাকে আরও নির্ভরযোগ্য ট্র্যাফিক আনতে সহায়তা করে।

আপনি আপনার ব্যবসায়ের প্রতি আগ্রহী এমন আরও তথ্য পৌঁছে দিতে পারবেন অনলাইন মার্কেটিং করে। নির্দিষ্ট লিডগুলিকে টার্গেট করে ট্র্যাফিক আনতে সহায়তা করবে।

আপনাকে অনলাইন মার্কেটিং অনলাইন মার্কেটিং আপনাকে ভিজিটরের ডেমোগ্রাফিক তথ্য, আর্থ-সামাজিক অবস্থা, শখ, আগ্রহ বা ব্যয় প্রতিটা বিষয় জানাবে।অনলাইন মার্কেটিং আপনাকে সঠিক সময়ে সঠিক দিকে পৌঁছাতে সহায়তা করবে।

৫। আপনার ব্যবসায়ের দৃশ্যমানতা বৃদ্ধি করে

আপনি যখন আরও বেশি মানুষের মাঝে আপনার সাইটটি ছড়িয়ে দিবেন তখন দেখবেন সবাই আপনার সাইট বা ব্যবসা নিয়ে কথা বলছে।

অফলাইন কৌশলগুলির মাধ্যমে এটি করা চ্যালেঞ্জ হতে পারে কারণ আপনার মার্কেটিং এর উপর আপনার খুব বেশি নিয়ন্ত্রণ থাকবে না। কিন্তু অনলাইন মার্কেটিং এর মাধ্যমে আপনি কয়েকশ মানুষের কাছে আপনার ব্যবসা প্রকাশ করতে পারবেন।অনলাইন ক্রমাগত আপনার ব্যবসায়ের জন্য মার্কেটিং করবে।

ভিজিটর 24/7 টাইম আপনার ওয়েবসাইট বা আপনার সামাজিক মিডিয়া অ্যাক্সেস করতে পারে। এর অর্থ হল আপনার ব্যবসা বা কাজ সর্বদা আপনার ভিজিটরের কাছে দৃশ্যমান।

এছাড়াও, আপনি আপনার ভিজিটরদের কাছে পৌঁছাতে এবং আপনার ব্র্যান্ডের দৃশ্যমানতা বাড়াতে অন্যান্য ডিজিটাল মার্কেটিং পদ্ধতি ব্যবহার করতে পারেন। মার্কেটিং কৌশলগুলির মধ্যে প্রোডাক্ট মার্কেটিং, সামাজিক মিডিয়া মার্কেটিং এবং এমনকি ভিডিও মার্কেটিং অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

ইন্টারনেট আপনার ব্যবসায়ের জন্য আশীর্বাদ স্বরূপ। ব্র্যান্ডের দৃশ্যমানতার অর্থ হল আরও বেশি মানুষ আপনার ব্যবসায়ের সাথে পরিচিত হচ্ছে। ভিজিটর যখন আপনার ব্যবসায়ের সাথে পরিচিত হয় তখন তারা চায় তাদের চাহিদার পন্য যেন সব সময় আপনার মাধ্যমে পায় এবং নতুন ধরনের আইডিয়ার মাধ্যমে আপনার পন্য তা যাচাই করতে চায়।

৬। অনলাইন মার্কেটিং আপনাকে মাল্টিটাস্ক করার অনুমতি দেয়

অনলাইন মার্কেটিং একসাথে একাধিক প্রচার ব্যবস্থার দক্ষতা রাখে। অনলাইন মার্কেটিং আপনার পক্ষে উচ্চ স্তরের গ্রাহকদের গ্রহণ এবং তাদের একটি অভিজ্ঞতা সরবরাহ করার প্রক্রিয়া  সহজ করে তোলে।

আপনি আপনার ওয়েবসাইটে লক্ষ লক্ষ গ্রাহকদের একসাথে হ্যান্ডেল করতে পারবেন।আপনার ওয়েবসাইট একাধিক লেনদেন করতে পারে, যা আপনাকে আপনার ব্যবসায়ের জন্য আরও ভিজিটর পেতে সহায়তা করে।

এটি আপনার ব্যবসায় প্রসারের একটি দারুন সুযোগ।এছাড়াও, আপনি একবারে একাধিক মার্কেটিং প্রচার করতে পারেন। এর অর্থ আপনি একই সময়ে একাধিক চ্যানেলের মাধ্যমে শীর্ষে পৌঁছে আপনার ব্যবসায়ের সর্বাধিকতা অর্জন করতে পারেন। আপনি অনলাইন মার্কেটিং এ বিনিয়োগ করে আরও মূল্যবান স্থান অর্জন করতে পারবেন।

৭। আপনার প্রতিযোগীরা অনলাইন মার্কেটিং  করছে

আপনি যদি আপনার প্রতিযোগীদের সাথে প্রতিযোগিতায় থাকতে চান তবে আপনাকে অবশ্যই অনলাইন মার্কেটিং এ সময় বিনিয়োগ করতে হবে। আপনার প্রতিযোগীরা ইতিমধ্যে বিভিন্ন অনলাইন পদ্ধতিতে বিনিয়োগ করছে এবং নতুন লিড অর্জনের জন্য কাজ করছে।

যদি আপনি অনলাইন মার্কেটিং এ বিনিয়োগ না করে থাকেন তবে আপনি আপনার প্রতিযোগিদের থেকে পিছনে থাকবেন। আপনার প্রতিযোগীদের সাথে তাল মিলিয়ে চলতে আপনাকে অবশ্যই একটি কার্যকর অনলাইন মার্কেটিং প্রচারণা প্রতিষ্ঠা করতে হবে।এটি আপনাকে লিড পেতে এবং আপনার প্রতিযোগীদের থেকে এগিয়ে থাকতে সাহায্য করবে।

অনলাইন মার্কেটিং এর সুবিধা

কোনও ব্যবসা বা পণ্য মার্কেটিং এর জন্য অনলাইন চ্যানেলগুলি ব্যবহারের মূল সুবিধা হল যে কোনও চ্যানেলের প্রভাব পরিমাপ করার দক্ষতা বৃদ্ধি করা যায়, পাশাপাশি বিভিন্ন চ্যানেলের মাধ্যমে প্রাপ্ত ভিজিটর কোন ওয়েবসাইট বা ল্যান্ডিং  পেজে যাচ্ছে তা জানা যায়।

যে ভিজিটর অর্থ প্রদানের মাধ্যমে গ্রাহকে রূপান্তর হয়ে যায়। ভিজিটরের মাধ্যমে আরও নির্ধারণ করা যায় যে চ্যানেলগুলি গ্রাহকদের জন্য অনেক মূল্যবান।বেশি বেশি ভিজিটর অর্জনে সবচেয়ে কার্যকর হল ওয়েবসাইট বা মোবাইল অ্যাপ। 

কিভাবে অনলাইনে মার্কেটিং করব?

অনলাইনে মার্কেটিং আজ জনপ্রিয়। প্রতিটা প্রতিষ্ঠান, ছোট ব্যবসা, সাইট, ব্র্যান্ড সবাই চায় অনলাইনের মাধ্যমে প্রচার করে ভিজিটর বাড়াতে হয় তার জন্য করতে হয় নানা কাজ।

তবে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হল এই ধারা বজায় রাখতে হলে দিতে হবে সময়। আপনি যদি একটি কাজে সময় না দেন তাহলে কিন্তু কখনও সাফল্যে পৌঁছাতে পারবেন না।

তাই আপনার উচিত দিনে ৩ থেকে ৪ ঘন্টা শুধু অনলাইন মার্কেটিং এ সময় দেয়া। তো জেনে নেই কিভাবে করবেন অনলাইন মার্কেটিং-

১. আপনার গ্রাহকদের উপর লক্ষ রাখুন

আপনার সাইটে একজন ভিজিটর কি চান নতুন কিধরনের বিষয় জানতে চান, তা জানতে হবে। কারণ আপনি যদি পছন্দ না জানেন তাহলে ভিজিটর আপনার সাইটে দিন দিন কমে যাবে। তাই আপনার সব সময় ভিজিটরের প্রতিটি বিষয় সম্পর্কে জ্ঞান রাখতে হবে।

আরো পড়তে পারেন…

২. আপনার মার্কেটিং ফ্রেমওয়ার্কটি তৈরি করুন

আগে মার্কেটাররা প্রচারাভিযানের ক্ষেত্রে গ্রোথ ফ্রেমওয়ার্কের কথা চিন্তা করত। কীভাবে আপনার মার্কেটিং এর কৌশলটিকে আপনার ব্র্যান্ডের জন্য একটি টেকসই ভিত্তি বানাবেন তা হল ফ্রেমওয়ার্ক।

অর্থাৎ,আপনাকে মার্কেটিং করার আগে অবশ্যই একটি প্ল্যান করে নিতে হবে। এতে আপনার অনলাইন মার্কেটিং করতে সহজ হবে।

৩. আপনার ব্র্যান্ডের গল্পটি জানান

একটি শক্তিশালী স্টোরিটেলিং আপনার ব্যবসা বা সাইটকে করে তুলতে পারে সবার থেকে আলাদা। আপনি আপনার ব্র্যান্ডের পিছনের গল্প যদি আপনার ভিজিটরদের জানাতে পারেন।

আপনার পন্য বা কাজের গল্প অল্প কথায় তাদের জানান এমন ভাবে জানান যেন তারা আপনার গল্প জেনে আনন্দিত হয়।  এবং আপনার সাইটে বার বার ভিজিট করতে আগ্রহী হয়।।

৪. আপনার সাইটে ট্র্যাফিক হল ভিত্তি

আপনার কাছে বিশ্বের সবচেয়ে আশ্চর্যজনক ওয়েব স্টোরফ্রন্ট, ব্লগ বা পণ্য থাকতে পারে। তবে আপনি যদি ট্র্যাফিক না পেয়ে থাকেন তবে আপনার ব্যবসায়ের প্রসার হবে না।

আপনার পোস্টটিতে ভিজিটদের আনার জন্য এই পোস্টটি আপনাকে এমন ভাবে মার্কেটিং করতে হবে যেন একজন ভিজিটরের মনে আগ্রহ তৈরি হয় আপনার ব্র্যান্ড নিয়ে।

৫. অপ্টিমাইজেশন ভিত্তি

ট্র্যাফিক আনতে হলে অপ্টিমাইজেশন করতে হবে। আপনার সাইট এ ভিজিটর আনার প্রধান শর্ত হল অপ্টিমাইজ করা।আপনাকে সাইটে ভালো কন্টেন্ট রাখতে হবে।

তার জন্য কিওয়ার্ড সেট করতে হবে। একজন ভিজিতর কি ধরনের সার্চ করে তা আপনাকে বুঝতে হবে।তবেই সম্ভব অপ্টিমাইজ করা।

ওয়েবসাইট দ্বারা মার্কেটিং

একটি ওয়েবসাইট হল সমস্ত ডিজিটাল মার্কেটিং এর ক্রিয়াকলাপের কেন্দ্রস্থল।এটি একটি খুব শক্তিশালী চ্যানেল, তবে এটি বিভিন্ন মার্কেটিং প্রচারণা চালানোর জন্য প্রয়োজনীয় মাধ্যমও বটে।

একটি ওয়েবসাইটের একটি ব্র্যান্ড, পণ্য এবং পরিষেবা নিখুত উপায়ে উপস্থাপন করা উচিত। ওয়েবসাইট মার্কেটিং খুব দ্রুত প্রচার হয়, মোবাইল-বান্ধব এবং ব্যবহারে সহজ ।

পে-পার-ক্লিক (পিপিসি) বিজ্ঞাপন

পিপিসি বিজ্ঞাপন মার্কেটারদের অর্থ প্রদানের মাধ্যমে বিজ্ঞাপন বেশ কয়েকটি ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের কাছে পৌঁছাতে সক্ষম করে।

মার্কেটাররা গুগল, বিং, লিংকডইন, টুইটার, পিনট্রেস্ট বা ফেসবুকে পিপিসি প্রচার করে এবং পণ্য বা পরিষেবাদি সম্পর্কিত শর্তাবলী ভিজিটরদের কাছে বিজ্ঞাপনগুলি শো করতে পারে।

পিপিসি প্রচার করার মাধ্যমে ব্যবহারকারীদের ডেমোগ্রাফিক বৈশিষ্ট্যের উপর ভিত্তি করে বয়স বা লিঙ্গ অনুসারে বা তাদের নির্দিষ্ট আগ্রহ বা অবস্থান লক্ষ্য করে বিজ্ঞাপন প্রচার করা হয়। সর্বাধিক জনপ্রিয় পিপিসি প্ল্যাটফর্ম হল গুগল বিজ্ঞাপন এবং ফেসবুক বিজ্ঞাপন।

ইমেল মার্কেটিং করা

ইমেল মার্কেটিং এখন পর্যন্ত সর্বাধিক কার্যকর ডিজিটাল মার্কেটিং মাধ্যম। অনেকে স্প্যাম ইমেল বার্তার সাহায্যে ইমেল মার্কেটিং কে বিভ্রান্ত করে, তবে ইমেল মার্কেটিং সম্পর্কে এটিই একমাত্র ভ্রান্ত ধারনা নয়।

ইমেল মার্কেটিং আপনার সম্ভাব্য গ্রাহকদের বা আপনার ব্র্যান্ডে আগ্রহী ব্যক্তিদের সাথে যোগাযোগের মাধ্যম।

অনেক ডিজিটাল মার্কেটাররা তাদের ইমেল লিস্টগুলিতে লিড যুক্ত করতে অন্য সমস্ত ডিজিটাল মার্কেটিং চ্যানেল ব্যবহার করেন এবং তারপরে ইমেল মার্কেটিং এর মাধ্যমে তারা গ্রাহকদের এই লিডগুলিকে পরিণত করার জন্য গ্রাহক ফানেল তৈরি করে।

সামাজিক মিডিয়া মার্কেটিং

একটি সামাজিক মিডিয়া মার্কেটিং প্রচারের প্রাথমিক লক্ষ্য ব্র্যান্ড সচেতনতা এবং সামাজিক বিশ্বাস প্রতিষ্ঠা করা।

সোশ্যাল মিডিয়া গ্রাহকদের প্রশ্ন উত্তরের জন্য একটি সুবিধাজনক প্ল্যাটফর্ম, যার মাধ্যমে আপনি যেমন পন্য বা সাইট মার্কেটিং করতে পারবেন। তেমনি আপনার ক্লায়েন্ট, গ্রাহক বা ভিজিটরের সাথে যোগাযোগ করতে পারবেন।

আপনি সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এর মাধ্যমে খুব সহজে আপনার সাইট বা ব্র্যান্ড সবার মাঝে মার্কেটিং করতে পারবেন। কারণ এখন বর্তমানে স্যোশাল মিডিয়া সবচেয়ে বেশি শক্তিশালী প্রচার মাধ্যমে।

ফ্রি অনলাইন মার্কেটিং করার উপায় 

ফ্রি অনলাইন মার্কেটিং করার অনেক উপায় আছে। তবে যাই করুন না কেন আপনাকে জানতে হবে এবং জেনে কাজ করতে হবে। নয়ত শুধু শুধু আপনার সময় নষ্ট হবে কিন্তু কাজ হবে না। তাই অনলাইন মার্কেটিং করার আগে সব কিছু জেনে তারপর করবেন।

যদি ফ্রি অনলাইন মার্কেটিং করতে চান তাহলে সবার আগে আপনাকে একটি ব্লগ তৈরি করতে হবে। এরপর নির্দিষ্ট সামাজিক মিডিয়া প্ল্যাটফর্মগুলিতে বিজ্ঞাপন দিন উদাহরণ হিসাবে ফেসবুক বিজ্ঞাপন, ইনস্টাগ্রাম বিজ্ঞাপন। সার্চ ইঞ্জিন আপনার ডিজিটাল মার্কেটিং এ সাহায্য করবে।

আপনার ভিজিটরদের জন্য কী সেরা কাজ করে তা নির্ধারণ করতে বিভিন্ন প্রচারাভিযানের সাহায্য নিন। এছাড়া আপনি পডকাস্ট করতে পারেন এবং ইমেইল মার্কেটিং করতে পারেন।

কিছু ফ্রি অনলাইন মার্কেটিং সম্পর্কে ধারনা দেয়ার চেষ্টা করা হল

১. ইমেল ডেটা ক্যাপচার

আপনার ওয়েবসাইটের ভিজিটরদের কাছ থেকে ইমেল ডেটা ক্যাপচার করার একটি পদ্ধতি রয়েছে তা নিশ্চিত করুন।আপনার সাইটে ইমেল সাইন আপ সিস্টেম করুন এবং গ্রাহকের ডেটাবেস তৈরি করতে শুরু করুন।

তারপরে আপনি বিজ্ঞাপনের জন্য ইমেল মার্কেটিং বা ফেসবুকে কাস্টম ভিজিটর তৈরির মতো মার্কেটিং এর জন্য এই ডেটা ব্যবহার করতে পারবেন।

 ২. ইমেল মার্কেটিং

আপনি ডেটা পেয়েছেন, এখন মেলচিম্পের সাথে ইমেইল অ্যাকাউন্ট স্থাপন করে শুরু করুন এবং সেই ইমেলগুলিতে মার্কেটিং শুরু করুন। অতিরিক্ত প্রচার হওয়া এড়াতে এবং প্রাপকদের কাছে সব সময় উপকারী ইমেইল সরবরাহ করুন। 

৩. ভিডিও মার্কেটিং

ভিডিও মার্কেটিং করতে হলে খুব সাধারন একটি ভিডিও বানান। আপনার সাইট সম্পর্কে বানাতে পারেন বা সিপিএ মার্কেটিং করে থাকলে সেসকল নিয়েও বানাতে পারেন। ইউটিউব এ চ্যানেল তৈরি করে বানাতে পারেন আপনার পছন্দের ভিডিও আর সাথে লিংক সেট করুন আপনার সাইটের।

৪. ফেসবুকে পোস্ট করুন

ফেসবুক বর্তমান সময়ের সবচেয়ে শক্তিশালী মাধ্যম। ফেসবুকের মাধ্যমে আপনি যেকোন কিছু খুব কম সময়ে প্রচার করতে পারবেন। বর্তমানে প্রচুর গ্রুপ আছে যেখানে আপনি আপনার সাইট নিয়ে প্রচার করতে পারেন।

৫. টুইটারে বিশেষজ্ঞদের সাথে আলাপ করুন

টুইটার সবার জন্য নয়, তবে এটি সম্পূর্ণ  আলাদা একটি প্ল্যাটফর্ম মার্কেটিং এর জন্য। এটি বিশেষজ্ঞদের এবং গ্রাহকদের সাথে সরাসরি কথা বলার জন্য দুর্দান্ত একটি প্ল্যাটফর্ম। কারণ এটি এমন এক সিস্টেমের জায়গা যেখানে যে কেউ কারও সাথে কথা বলতে পারে।

৬. একটি ইনস্টাগ্রাম তৈরি করুন

সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মগুলির মধ্যে একটি জনপ্রিয় মাধ্যম  ইনস্টাগ্রাম। যদি আপনার ব্যবসায়ের মধ্যে ভিজ্যুয়াল উপস্থিতি থাকে। তবে নিশ্চিত হয়ে নিন যে আপনি একটি শক্তিশালী ইনস্টাগ্রাম ্মার্কেটিং প্ল্যাটফর্ম তৈরিতে সময় ব্যয় করছেন। মনে রাখবেন যে এটি একটি ভিজ্যুয়াল প্ল্যাটফর্ম, প্রতিটি পোস্ট আকর্ষনীয় হওয়া চাই।

৭. Pinterest দিয়ে ওয়েবসাইট ট্র্যাফিক জেনারেট করুন

Pinterest অনেক ব্যবসায়ের জন্য উপযুক্ত নয়, তবে কারও কারও পক্ষে সত্যিই ভাল কাজ করতে পারে। আপনি উল্লেখযোগ্য ওয়েবসাইট ট্র্যাফিক জেনারেট করতে পারেন। আপনার টার্গেট ব্যবহারকারীরা কী পছন্দ করেন সে সম্পর্কে আরও জানতে পারবেন।

৮. লিংকডইনে আপনার নেটওয়ার্ক তৈরি করুন

আপনার ব্যবসা যদি কোনও বি টু বি সংস্থা হয় তবে লিংকডইনে আপনার জন্য তা নিশ্চিত হন। এটি আপনার নেটওয়ার্ক তৈরির জন্যও দুর্দান্ত এক জায়গা।

লিংকডইনে আপনি যেমন অনেক মানুষের সাথে পরিচিত হতে পারবেন তেমনি আপনি আপনার মার্কেটিং প্ল্যাটফর্ম তৈরি করতে পারবেন।

অবশ্যয় পড়ুন…

৯. গুগল পোস্ট ব্যবহার শুরু করুন

সার্চ ইঞ্জিনের ফলাফল অনুযায়ী জানা যায় গুগল পোস্ট মার্কেটিং করার সবচেয়ে নির্ভরযোগ্য জায়গা। তাই আজ থেকে মার্কেটিং করতে হলে ব্যবহার করুন গুগল পোস্ট।

পেইড অনলাইনে মার্কেটিং করার উপায়

অনলাইন মার্কেটিং ফ্রি করার পাশাপাশি পেইড সিস্টেমে করা যায়। পেইডে করার কারণ হল পেইড অনলাইন মার্কেটিং আরও কম সময়ে প্রচার করে ভিজিটরের কাছে অনলাইনে মার্কেটিং থেকে।

যার জন্য পেইড অনলাইন মার্কেটিং করে থাকে।  বিভিন্ন ব্র্যান্ড কি ধরনের পেইড মার্কেটিং হয় তাহলে জেনে নেইঃ

১. পিপিসি

পে-পার-ক্লিক (পিপিসি) এখন বেশ কয়েক বছর ধরে জনপ্রিয় একটি পেইড বিজ্ঞাপনের স্থান। যেখানে খুব দ্রুত একটি সাইটের বিজ্ঞাপন করা সম্ভব। আপনি যখনই কোনও সোশ্যাল মিডিয়া পোস্ট তৈরি করছেন, প্রতি ক্লিক এ (পিপিসি) বিজ্ঞাপন বা মার্কেটিং এর মাধ্যমে আপনার ব্যবসায়ের সাথে যোগাযোগ করার সুযোগ তৈরি করে দিচ্ছেন।

আপনি বেশ কয়েকটি ডিজিটাল মার্কেটিং চ্যানেলের মাধ্যমে গ্রাহকদের কাছে পৌঁছাতে পারেন।

২. সামাজিক মিডিয়া মার্কেটিং

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মার্কেটিং করার শক্তি হল পোস্ট। গত কয়েক বছরে দ্রুত এই বিষয়টি বৃদ্ধি পেয়েছে, বিশেষত ফেসবুকের মতো সামাজিক মিডিয়া সাইটগুলি ব্যবহারকারীদেরকে আগের চেয়ে বেশি পেইড মার্কেটিং এ আগ্রহী করে তুলেছে।

৩. ব্যানার বিজ্ঞাপন

এখন ব্যানার বিজ্ঞাপন কেবলমাত্র ডেস্কটপ ডিভাইসে নয়, মোবাইল ডিভাইসে যেমন স্মার্টফোন এবং ট্যাবলেট এ দেখানো হয়। সাইটের উপরে দেখবেন লম্বা করে বিভিন্ন বিষয়ে ছাড় বা অফারের সুন্দর ব্যানার প্রদর্শন করা হয়। এটিই ব্যানার বিজ্ঞাপন এবং মাধ্যমে প্রচুর মার্কেটিং হয়ে থাকে।

মার্কেটিং আর অনলাইন মার্কেটিং এর পার্থক্য কি ?

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের উত্থানের সাথে সাথে ট্রেডিশনাল মার্কেটিং প্রায়ই মার্কেটারদের দ্বারা অবমূল্যায়ন করা হয়।তবে, গ্রাহকের প্রতিদিনের জীবনে এখনও ট্রেডিশনাল মার্কেটিং এর একটি জায়গা রয়েছে। ট্রেডিশনাল মার্কেটিং ম্যাগাজিনে এবং বেশির ভাগ সময় টিভিতে প্রচার হয়ে থাকে।

ট্রেডিশনাল মার্কেটিং এর মাধ্যম গুলা রয়েছে:

  • Outdoor (Billboards, bus/taxi wraps, posters etc)
  • Broadcasting (TV, Radio etc)
  • Print (Magazines, newspapers etc)
  • Direct Mail (catalogues etc)
  • Telemarketing (Phone, text message)
  • Window display and signs
সুবিধাঃ
  • মান সম্পূর্ন এবং বুঝতে সহজ
  • প্রায়ই বিনোদনমূলক
  • গ্রাহক যদি আগ্রহী সংখ্যক হয় তবে সে প্রচার সফল
অসুবিধাঃ
  • প্রচার ব্যবস্থা নির্দিষ্ট
  • অনেক ব্যয়বহুল

বর্তমান সময় অনলাইন মার্কেটিং এর সময়। মানুষ এখন বেশি অনলাইনে সময় কাটায়। ফলে মার্কেটিং এর সহজ একটি মাধ্যম হল অনলাইন মার্কেটিং। অনলাইন মার্কেটিং এর মাধ্যম গুলার মধ্যে রয়েছে: সামাজিক মিডিয়া ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম সহ আরো অনেক ওয়েবসাইট।

ওয়েবসাইট বিষয়বস্তু মার্কেটিং

  • Social media (Facebook, Instagram etc)
  • Website
  • Content marketing
  • Affiliate marketing
  • Inbound marketing
  • Email marketing
  • PPC (pay per click
  • SEM (Search engine marketing)

আরো পড়ুন…

সুবিধাঃ

  • প্রচার করা সহজ
  • কোন খরচ হয় না
  • কম সময়ে প্রচার হয়
  • মাধ্যম অনেক

অসুবিধাঃ

  • ডিজিটাল বিজ্ঞাপনগুলি অনেক সময় বিরক্তিকর হিসাবে গণ্য করা হয়
  • কম সময় স্থায়ী
  • ধারাবাহিক ভাবে দিতে হয়
  • সময় অনেক দিতে হয়

আমাদের ক্যারিয়ার গড়ার বিভিন্ন উপায় আজ তৈরি হয়েছে। অনলাইন মার্কেটিং আজ আমাদের দেখাচ্ছে কিভাবে নিজের সাইট বা ব্যবসাকে প্রসারিত করা সম্ভব।

আপনি আপনার ব্যবসা বা সাইটকে দ্রুত সবার মাঝে যানাতে চাইলে করতে পারেন অনলাইন মার্কেটিং। অনলাইন মার্কেটিং করে আপনি মাসে প্রচুর আয় করতে পারবেন। তাহলে আর দেরি কেন আজই শুরু করুন অনলাইন মার্কেটিং।

আমাদের শেষ কথা

আমাদের বাংলা আইটি ব্লগ সাইটে প্রতিনিয়ত অনলাইন আয় সম্পর্কে বিভিন্ন আর্টিকেল প্রকাশ করেছি। আপনি যদি অনলাইনে আয় সম্পর্কে আরো জানতে চান তাহলে অন্য আর্টিকেল গুলা পড়ে নিতে পারেন। এছাড়াও এসসিও এবং ব্লগিং বিষয়ে বিভিন্ন্য কথা আমদের ব্লগে লিখা লিখি হয়েছে।

আপনার যদি আমাদের ব্লগ সম্পর্কে বা আর্টিকেল বিষয়ে জানতে চান তাহলে কমেন্ট এর মাদ্ধমে জিজ্ঞাসা করতে পারেন। আমরা সেই প্রশ্নের উত্তর দিয়ে দিব।

আমি নিলয় হাসান-এই ব্লগের প্রতিষ্ঠাতা পাশাপাশি লেখালেখির কাজটাও করি। অনলাইনে প্রযুক্তির বিষয় নিয়ে যা জানি তা মানুষের মাঝে শেয়ার করার ইচ্ছায় এ ব্লগ টি তৈরি করা।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: কপি করা যাবে না !!
Scroll to Top
Share via
Copy link
Powered by Social Snap