ফ্রি ওয়েবসাইট তৈরি : বিনামূল্যে ওয়েবসাইট তৈরি করার ৬টি প্লাটফর্ম

ফ্রি ওয়েবসাইট তৈরি : আজকের আর্টিকেলটি তাদের জন্য অনেক হেল্পফুল হবে। যারা মূলত ফ্রী ওয়েবসাইট তৈরি করতে চান। বিশেষ করে যারা ব্লগিং শুরু বা শিখতে চাচ্ছে তাদের জন্য সেরা আর্টিকেল হবে।

কারন আজকের আর্টিকেলে আমি শুধু একটি নয় বরং বেশ কয়েকটি ফ্রী ওয়েবসাইট তৈরি করার উপায় সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করবো।

ফ্রি ব্লগ সাইট\ওয়েবসাইট বানানোর সাইট
ফ্রি ব্লগ সাইটওয়েবসাইট বানানোর সাইট

আমাদের মধ্যে এমন অনেকেই আছেন, যারা ভাবেন যে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য অনেক কোডিং জানতে হয়।

কিন্তুু বর্তমান সময়ে এমন অনেক প্লাটফর্ম চলে এসেছে। যার মাধ্যমে আপনি কোনো প্রকার কোডিং বা সিএসএস না জেনেই একেবারে প্রফেশাল দের মতো ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারবেন।

তাছাড়া বর্তমান সময়টা হলো প্রযুক্তির যুগ। আর সেজন্য আমাদের নিজস্ব একটা ওয়েবসাইট থাকা ভীষন জরুরি হয়ে পড়েছে।

হতে পারে আপনার ব্যক্তিগত কোনো কাজে কিংবা প্রতিষ্ঠানিক কোনো কাজে একটি ওয়েবসাইট খুব গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে।

এছাড়াও যখন আপনার একটি ওয়েবসাইট থাকবে। তখন আপনি অনেক দিক থেকে বেনিফিট পাবে ৷। যেমন, আপনি অন্যদের তুলনায় খুব দ্রুততার সাথে জনপ্রিয়তা অর্জন করতে পারবেন।

কিংবা আপনার যদি কোনো ব্যবসা বা প্রতিষ্ঠান থাকে। তাহলে সেই প্রতিষ্ঠানের কোনো পন্যের প্রচার বা প্রসারের জন্য একটি ওয়েবসাইট অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।

এছাড়াও আপনি যদি অনলাইন থেকে ইনকাম করতে চান। তাহলেও আপনি একটি ওয়েবসাইট তৈরি করার মাধ্যমে খুব সহজেই অনলাইন থেকে ইনকাম করতে পারবেন।

তো চলুন এবার জেনে নেয়া যাক, যে কিভাবে আপনি একটি ফ্রী ওয়েবসাইট তৈরি করবেন। 

ওয়েবসাইট কি? (What is Website)

সাধারনত ওয়েবসাইট হলো কোনো একটি Web Server এ রাখা ব্যক্তিগত বিষয় যেমন, ভিডিও, অডিও, ইনফোগ্রাফিক, এনিমেশন এর সমষ্টিকে বোঝায়।

যা বিভিন্ন কোডিং বা প্রোগ্রামিং এর মাধ্যমে তৈরি করা হয়ে থাকে। যেমন, Html, Css, Programming এর মাধ্যমে তৈরি করা হয়ে থাকে।

আপনার জন্য আরো লেখা...

আর কোনো একটি ওয়েবসাইট এর Access নেয়ার জন্য অবশ্যই একটি Domain, একটি Hosting এবং সবশেষে সেই সাইটের ডিজাইন করতে হবে।

এবং পরবর্তীতে সেই সাইটকে কোনো সার্ভারের সাথে যুক্ত করতে হবে। এবং উক্ত সাইটকে চলমান করতে হবে। 

ফ্রী ওয়েবসাইট কি? (What is free website)

একোক্ষনে আপনি জানলেন যে, ওয়েবসাইট কি। এবার আপনি জানবেন আসলে ফ্রী ওয়েবসাইট কাকে বলে।

দেখুন একটি ওয়েবসাইট তৈরি করতে কিন্তুু অনেক প্রকার Coding এবং Programming এর প্রয়োজন পড়ে। এরপর কিন্তুু একটি ওয়েবসাইট তৈরি করা হয়ে থাকে।

এখন আপনি যদি এই কোডিং বা প্রোগ্রামিং জেনে থাকেন। তাহলে তা আপনার জন্য ভালো। তবে আপনি যদি এই বিষয় গুলো না জানেন, তাহলে কিন্তুু আপনাকে অন্য কোনো এক্সপার্ট এর মাধ্যমে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করতে হবে।

এখন প্রশ্ন হলো যে, কখন আমরা একটি ওয়েবসাইট তে ফ্রি ওয়েবসাইট বলবো?

এবার এই বিষয়টি একটু ক্লিয়ার হওয়া যাক। দেখুন আমি উপরে বলেছি যে, কোনো একটি Website তৈরি করার জন্য আপনাকে একজন ওয়েব ডিজাইনার এর মাধ্যমে করিয়ে নিতে হবে।

এখন একজন ওয়েব ডিজাইনার কে দিয়ে এই কাজটি করাতে হলে। আপনাকে বেশ ভালো পরিমানে অর্থ ব্যয় করতে হবে। কিন্তুু এমন অনেক প্লাটফর্ম আছে, যেখান থেকে আপনি একদম বিনামূল্যে একটি প্রফেশনাল ওয়েবসাইট তৈরি করে নিতে পারবেন।

এবং এর বিনিময়ে তারা আপনার কাছ থেকে কোনো প্রকার টাকা চাইবে না। মূলত এজন্যই এগুলোকে বলা হয়, Free Website.

মূলত এই প্লাটফর্ম গুলোতে বিভিন্ন ওয়েব ডিজাইনার এর সাহায্য পূর্বে থেকেই এই কোডিং গুলো করা হয়ে থাকে। যার কারনে আপনি যখন এই প্লাটফর্ম গুলো থেকে কোনো একটি ওয়েবসাইট তৈরি করতে চাইবেন।

তখন আপনাকে তেমন কোনো পরিশ্রম করতে হবে না।

আপনাকে শুধু Drag & Drop এর মাধ্যমে খুব সহজেই একটি ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারবেন। এবং এর পাশাপাশি আপনি মাএ কয়েকবার ক্লিক করেই উক্ত ওয়েবসাইট কে কাস্টমাইজড করতে পারবেন। 

কেন ফ্রি ওয়েবসাইট তৈরি করবেন?

দেখুন, এখন আপনার মনে একটি প্রশ্ন জাগতে পারে যে, মানুষ যদি এতো টাকা ব্যয় করে ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারে। তাহলে আপনি কেন ফ্রি ওয়েবসাইট তৈরি করবেন?

সত্যি বলতে আপনি মূলত বিনামূল্যে ওয়েবসাইট তৈরি করার বেশ কিছু কারন থাকবে। প্রথমত আপনি ইতিমধ্যেই জেনে গেছেন যে, একটি ওয়েবসাইট তৈরি করতে হলে আপনাকে বিভিন্ন Coding এবং Programme জানতে হবে।

এখন এই বিষয় গুলো শিখতে হলে আপনাকে বেশ কিছুটা সময় ব্যয় করতে হবে। কিন্তুু অনেকেই আছে যারা, এই সময়টা ব্যয় করার ইচ্ছে থাকবে না। সেক্ষেএে আপনাকে বিনামূল্যে ওয়েবসাইট তৈরি করার উপায় গুলোকে ফলো করতে হবে।

দ্বিতীয়ত, আপনি যদি এই কাজটি কোনো ওয়েব ডিজাইনার কে দিয়ে করিয়ে নিতে চান। তাহলে কিন্তুু আপনাকে মোটা অংকের টাকা গুনতে হবে। কারন বর্তমান সময়ে একজন ওয়েব ডিজাইনার এর ডিমান্ড কিন্তুু অনেক বেশি।

এখন সবার কিন্তুু এই টাকা ব্যয় করার সামর্থ্য নেই। আবার যার সামর্থ্য থাকবে, তার আবার এতো টাকা ব্যয় করার ইচ্ছে নাও থাকতে পারে। সেক্ষেএেও কিন্তুু আপনাকে ফ্রি ওয়েবসাইট তৈরি করার মাধ্যম গুলোকে ফলো করতে হবে।

তো মোটকথা আপনি যদি এই প্লাটফর্ম গুলোকে ফলো করেন। এবং এই প্লাটফর্ম গুলোর মাধ্যমে ওয়েবসাইট তৈরি করেন। তাহলে কিন্তুু আপনি নিজেই অনেক বেশি বেনিফিট পাবেন।  

কিভাবে ফ্রি ওয়েবসাইট তৈরি করবেন?

তো চলুন এবার আমরা মূল টপিকে ফিরে যাই। আমরা এতোক্ষণে জানলাম যে, ওয়েবসাইট কি এবং ফ্রি ওয়েবসাইট কি। সেই ধারাবাহিকতায় এবার আমরা জানবো, কিভাবে আপনি একটি ফ্রি ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারবেন।

বর্তমানে অনলাইনে এমন অনেক ধরনের প্লাটফর্ম আছে। যার মাধ্যমে আপনি কোনো প্রকার অর্থ ব্যয় না করে। সামান্য কয়েক মিনিটের মধ্যেই একটি Professional Website তৈরি করে নিতে পারবেন।

কিন্তুু সবগুলো প্লার্টফর্ম থেকে ওয়েবসাইট তৈরি করার সিন্ধান্ত নেয়াটা ঠিক হবে না। কারন এমন অনেক প্লাটফর্ম আছে, যারা আপনাকে শুরুর দিকে একটি Website তৈরি করার সুযোগ দিবে।

কিন্তুু একটা সময় গিয়ে যখন আপনি পপুলারিটি অর্জন করতে পারবেন। তখন কিন্তুু আপনাকে আর পূর্বের মতো সুবিধা ভোগ করতে দিবে না।

অর্থ্যাৎ, তখন সেই প্লাটফর্ম গুলো আপনার থেকে কিছু পরিমান ইনকাম করতে চাইবে। সে সময় আপনি অনেক বিপাকে পড়ে যাবেন।

আপনি আরো পড়ুন…

আবার এমনও হতে পারে যে, আপনার পরিশ্রম দিয়ে তৈরি করা ওয়েবসাইট টি আর সচল নাও থাকতে পারে। তবে আজকের আলোচনায় শুধুমাএ ৬ টি প্লাটফর্ম সম্পর্কে জানবো।

যেখানে আপনি পুরোপুরি বিশ্বাসের সাথে ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারবেন। এর পাশাপাশি আপনার সাইটের সিকিউরিটি নিয়েও কোনো প্রকার চিন্তা করার প্রয়োজন পড়বে না।

আর শুধু আপনি নন, বরং আপনার চেয়েও অনেক বড় বড় কোম্পানি বা ব্লগাররা তাদের ওয়েবস্টার তৈরি করার জন্য এসব প্লাটফর্ম গুলোকে ব্যবহার করে থাকে।

তাই ওরা যদি এই প্লাটফর্ম গুলোর উপরে এতো বেশি বিশ্বাস রাখতে পারে। তাহলে আপনি কেন পারবেন না!

তো ফ্রিতে ওয়েবসাইট তৈরি করা যায়। এমন কিছু প্লাটফর্মের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো, 

#01- Google Blogger দিয়ে ফ্রি ওয়েবসাইট তৈরি করার উপায়

সত্যি বলতে Blogger.com  হলো, গুগলের নিজস্ব একটি প্রোডাক্ট। অর্থ্যাৎ, এই প্লাটফর্মে যা কিছু করা হয়, তা সম্পূর্ন গুগল নিজে থেকেই পরিচালনা করে থাকে।

এইদিক থেকে আপনি চোখ বন্ধ করেই গুগলের উপর বিশ্বাস রেখে আপনার মনের মতো একটি ওয়েবসাইট তৈরি করে নিতে পারবেন। 

blogger ফ্রি ওয়েবসাইট প্লাটফর্ম
blogger ফ্রি ওয়েবসাইট প্লাটফর্ম

সবচেয়ে মজার বিষয় হলো, আপনি যদি Google Blogger এর মাধ্যমে ওয়েবসাইট তৈরি করতে চান। তাহলে আপনাকে কোনো প্রকার কোডিং দক্ষতার প্রয়োজন পড়বে না।

আর দক্ষতা না থাকার পরেও আপনি খুব সহজেই একটি Professionally Website তৈরি করে নিতে পারবেন। শুধুমাএ একটি জিমেইল একাউন্ট দিয়ে লগ ইন করেই এই কাজটি খুব সহজেই করতে পারবেন।

অপরদিকে কিন্তুু গুগলের Blogger ছাড়াও আরও অনেক ধরনের প্রোডাক্ট রয়েছে। যেগুলোর মধ্যে কিছু কিছু বিশ্বব্যাপি ব্যবহার করতে পারে না।

যেমন,কিছু প্রোডাক্ট আছে যেগুলো বাংলাদেশীদের জন্য উন্মুক্ত করা হয়নি। আবার এমন অনেক প্রোডাক্ট আছে, যেগুলো আবার টাকা দিয়ে কিনে নিতে হয়।

কিন্তুু Blogger হলো এমন একটি প্রোডাক্ট। যা আপনি পৃথিবীর যে কোনো স্থান থেকে সম্পূর্ন বিনামূল্যে ব্যবহার করতে পারবেন। এবং এর জন্য আপনাকে কোনো প্রকার Hosting খরচ করতে হবে না।

অর্থ্যাৎ, আপনার ওয়েবসাইট এর হোস্টিং এর খরচ গুগল নিজেই ব্যয় করবে।

আর আপনিও যদি এই সুবিধা গুলো ভোগ করতে চান। তাহলে আপনাকে ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য উক্ত প্লাটফর্ম কে ব্যবহার করতে হবে। তাহলেই আপনি এই সুবিধা গুলো ভোগ করতে পারবেন। 

#02- Google Sites দিয়ে ফ্রি ওয়েবসাইট তৈরি করার উপায়

আপনি উপরে গুগল ব্লগার সম্পর্কে জানতে পেরেছেন। এবার আপনি গুগলের আরও একটি নিজস্ব প্রোডাক্ট সম্পর্কে জানতে পারবেন ৷

এবং সেই প্রোডাক্টের নাম হলো, sites.google.com. মূলত এটি এমন একটি প্লাটফর্ম, যার মাধ্যমে আপনি খুব সহজেই আপনার মনের মতো ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারবেন।

এই প্লাটফর্মটি সর্বপ্রথম লন্চ করা হয়েছিলো, ২০০৮ সালে। কিন্তুু শুরুর দিকে এই প্লাটফর্ম টি তেমন একটা জনপ্রিয়তা অর্জন করতে পারেনি।

কারন সেই সময়ে এই প্লাটফর্মে বেশ কিছু প্রতিবন্ধকতা ছিলো। যার মাধ্যমে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করা গেলেও। সেই সাইটকে তেমন কাস্টমাইজ করার সুবিধা ছিলো না।

কিন্তুু পরবর্তীতে গুগল এই প্রোডাক্টকে আরও বেশি আর্কষনীয় করার চেস্টা করে। এবং এর মধ্যে আরও বেশি ফিচার যুক্ত করে। ২০১৬ সালে গুগল পুনরায় তাদের প্রোডাক্টকে রিডিজাইন করে। এবং এর মধ্যে আরও নতুন নতুন অংশ জুড়ে দেয়।

আপনি যদি Google Sites দিয়ে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করেন। তাহলে সবচেয়ে বড় সুবিধা হলো, এজন্য আপনাকে কোনো প্রকার কোডিং বা প্রোগ্রামিং জানার প্রয়োজন পড়বে না।

আপনি শুধুমাএ ড্রাগ এন্ড ড্রপ করে মাএ কয়েক মিনিটের মধ্যেই আপনার পছন্দমতো একটি ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারবেন।

এছাড়াও, প্রথম দিকে যখন Google Sites লন্চ করা হয়েছিলো। সেই সময়ে উক্ত সাইট গুলোতে ডোমেইন যুক্ত করার কোনো সুবিধা পাওয়া যেত না। সেই কারনে অনেকেই এই প্লাটফর্মকে ব্যবহার করতে চাইতো না।

কিন্তুু ২০১৬ সালের নতুন আপডেট আসার পর থেকে আর এই সমস্যায় পড়তে হয়নি। কারন এখন থেকে আপনি এই প্লাটফর্ম এর মাধ্যমে ওয়েবসাইট তৈরি করলেও আপনি এখন থেকে উক্ত সাইট গুলোতে Domain যুক্ত করতে পারবেন।

[💡NOTE: গুগল এখনও এই প্লাটফর্মকে নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে। এর এই প্লাটফর্ম কে ব্যাবহার করে। তারা যেন আরও সুবিধা ভোগ করতে পারে৷ সেই লক্ষ্যে এখনও কাজ করে যাচ্ছে গুগল]

#03- Wix থেকে ফ্রি ওয়েবসাইট তৈরি করার উপায়

Google Blogger এর পর থেকেই যদি অন্য কোনো প্লাটফর্মের কথা আসবে। তাহলে আসবে Wix এর নাম। কারন জনপ্রিয়তার দিক থেকে Google Blogger এর পরেই রয়েছে Wix এর অবস্থান।

বর্তমান বিশ্বে Wix কে মোট ১১০ মিলিয়ন এরও বেশি ব্যবহারকারী রয়েছে।

wix ফ্রি ওয়েবসাইট বানানোর প্লাটফর্ম
wix ফ্রি ওয়েবসাইট বানানোর প্লাটফর্ম

মূলত Wix হলো একটি ক্লাউড ভিত্তিক ওয়েব ডেভেলপমেন্ট প্ল্যাটফর্ম। এই প্লাটফর্ম এর সবচেয়ে বড় সুবিধা হলো, যদি আপনি এর মাধ্যমে ওয়েবসাইট তৈরি করেন।

তাহলে আপনি আর্কষনীয় ডিজাইনের থিম ব্যবহার করতে পারবেন। এই থিম গুলোর মাধ্যমে আপনি শুধুমাএ Drag & Drop করে খুব সহজেই চোখ ধাধানো ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারবেন।

আপনি যদি চান যে কোনো প্রকার দক্ষতা ছাড়াই খুব কম সময়ের মধ্যে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করবেন৷ তাহলে Wix হবে আপনার জন্য সবচেয়ে উপযুক্ত মাধ্যম। 

#04- Weebly দিয়ে ফ্রি ওয়েবসাইট তৈরি করার উপায়

যদি আপনার কোনো ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান থাকে। তাহলে Weebly হবে আপনার জন্য উপযুক্ত প্লাটফর্ম। কারন এই প্লাটফর্ম কে কাজে লাগিয়ে আপনি খুব দ্রুততার সাথে একটি Business Website তৈরি করতে পারবেন।

ফ্রি ওয়েবসাইট বানান
weebly ওয়েবসাইট প্লাটফর্ম

আপনি জানলে অবাক হবেন যে, বর্তমানে প্রায় বেশিরভাগ অনলাইন শপ থেকে শুরু করে ব্লগ বা সুন্দর ওয়েবসাইট গুলো মূলত Weebly কে ব্যবহার করে থাকে।

তবে Weebly এর এতো বেশি ব্যবহারকারী হওয়ার বেশ কিছু কারন রয়েছে। তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য কিছু কারন সম্পর্কে জেনে নেয়া যাক।

এবং উক্ত টুলস গুলো বিভিন্ন Third-party থেকে নিতে হয়। কিন্তুু আপনি যদি Weebly ব্যবহার করেন। তাহলে আপনাকে তেমন থার্ড পার্টি টুলস ব্যবহার করার প্রয়োজন পড়বে না।

কারন এই প্লাটফর্ম থেকে আপনি অনেক ধরনের এসইও টুলস পেয়ে যাবেন। তবে এতো সুবিধা দেয়ার বিনিময়ে কিছু কিছু ক্ষেএে আপনাকে সামান্য কিছু অর্থ ব্যয় করার প্রয়োজন পড়বে।

যেমন কিছু কিছু টুলস আছে, যেগুলো আপনাকে কিনে নিতে হবে। আর এজন্যই Weebly তাদের সার্ভিসকে দুটি ভাগে ভাগ করেছে।

একটি হলো Free Service এবং অন্যটি হলো Paid Service. এখন আপনি যদি শতভাগ সুবিধা ভোগ করতে চান। সেক্ষেত্রে আপনাকে Paid Service ব্যবহার করতে হবে। 

#05- Webnode দিয়ে ফ্রি ওয়েবসাইট তৈরি করার উপায়

ব্যবসায়িক হোক কিংবা ব্যক্তিগত, Webnode.com থেকে আপনি যে কোনো ধরনের ফ্রি ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারবেন। অপরদিকে আপনি এই প্লাটফর্ম থেকে যেকোনো দেশের ভাষা দিয়ে ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারবেন।

সেটা হোক ইংরেজি ভাষায় কিংবা বাংলা ভাষায়।

webnode ফ্রি ওয়েবসাইট বানানোর প্লাটফর্ম
webnode ফ্রি ওয়েবসাইট বানানোর প্লাটফর্ম

এছাড়াও আপনি যদি ই-কমার্স জাতীয় ওয়েবসাইট তৈরি করতে চান। তাহলে Weebly এর মতো Webnode দিয়েও খুব সহজেই তৈরি করে নিতে পারবেন।

কারন, এই প্লাটফর্ম থেকে তৈরি করা ওয়েবসাইট গুলো এন্ড্রয়েড, আইওএস এবং ম্যাক সহো সব ধরনের ডিভাইসের জন্য উপযুক্ত।

আরেকটি বিষয় হলো, আপনি যেমন Google Blogger কে মোবাইল দিয়েই পরিচালনা করার সুযোগ পাবেন৷ ঠিক তেমনিভাবে Webnode প্লাটফর্মে যদি ওয়েবসাইট তৈরি করে থাকেন। তাহলেও কিন্তুু আপনি এই সুবিধা ভোগ করতে পারবেন। 

 

তাই যারা মোবাইল ইউজার, তাদের জন্য এই প্লাটফর্মটিও বেশ উপযুক্ত হবে বলে আমি মনে করি। 

#06- WordPress দিয়ে ফ্রি ওয়েবসাইট তৈরি করার উপায়

বিশ্বের যতোগুলো ওয়েবসাইট তৈরির প্লাটফর্ম আছে। তার মধ্যে অন্যতম হলো, ওয়ার্ডপ্রেস। কারন WordPress হলো বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় সিএমএস (Content Management System) সফটওয়্যার।

আর সেজন্যই অসংখ্য ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য WordPress কে ব্যবহার করা হয়ে থাকে। তবে ওয়ার্ডপ্রেসের দুটি ভার্সন আছে।

Wordpress দিয়ে ফ্রি ওয়েবসাইট বানানো
ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে ফ্রি ব্লগসাইট

একটি হলো পেইড ভার্সন আর অন্যটি হলো ফ্রি ভার্সন। মূলত যেটি টাকা দিয়ে ব্যবহার করতে হয়, সেটি হলো wordpress.com অর্থ্যাৎ, আপনি এই ভার্সনটিকে কোনো প্রকার বিনিময় ছাড়াই ব্যবহার করতে পারবেন।

অপরিদকে আপনি যদি অর্থ ব্যয় করতে চান। সেক্ষেএে আপনাকে পেইড ভার্সনটি ব্যবহার করতে হবে।

আর ওয়ার্ডপ্রেসের পেইড ভার্সনের নাম হলো, WordPress.org অর্থ্যাৎ, এই ভার্সনটি ব্যবহার করতে হলে আপনাকে নিজে থেকে হোস্টিং কিনতে হবে। এবং এরপর এই প্লাটফর্মটি ব্যবহার করতে হবে।

আপনি আরো দেখুন…

তবে আপনি যদি প্রফেশনালি কাজ করতে চান। তাহলে আমার দৃষ্টিকোন থেকে আপনার পেইড ভার্সন ব্যবহার করা উচিত। তাহলে আপনি আপনার ওয়েবসাইট এর যাবতীয় ডাটা গুলো নিজের কাছে রাখতে পারবেন।

এর পাশাপাশি ওয়েবসাইট এর সম্পূর্ণ কন্ট্রোল আপনার নিজের কাছেই থাকবে। 

আমাদের শেষকথা 

সবশেষে এটাই বলবো যে, আপনি যদি চান যে ১০ টাকা ব্যয় না করেও একটি ফ্রি ওয়েবসাইট তৈরি করবেন। তাহলে আপনার জন্য উপযুক্ত প্লাটফর্ম হবে Google Blogger.

কারন এখানে আপনাকে হোস্টিং এবং ডোমেইন কেনা ছাড়াই একটি ফ্রি ওয়েবসাইট তৈরি করার সুযোগ সুবিধা দিবে। এছাড়াও যেহুতু এটা গুগলের নিজস্ব প্রোডাক্ট, সেহুতু আপনি খুব কম সময় কাজ করে এই সাইট থেকে ইনকামও করতে পারবেন।

আর এমন সব নতুন নতুন তথ্য জানতে চাইলে বাংলা আইটি ব্লগের সাথে থাকবেন। তাহলে আপনাকে টেকনোলজি সম্পর্কে এক্সপার্ট করার দায়িত্ব থাকবে আমাদের উপর। ধন্যবাদ

আমি নিলয় হাসান-এই ব্লগের প্রতিষ্ঠাতা পাশাপাশি লেখালেখির কাজটাও করি। অনলাইনে প্রযুক্তির বিষয় নিয়ে যা জানি তা মানুষের মাঝে শেয়ার করার ইচ্ছায় এ ব্লগ টি তৈরি করা।

1 thought on “ফ্রি ওয়েবসাইট তৈরি : বিনামূল্যে ওয়েবসাইট তৈরি করার ৬টি প্লাটফর্ম”

  1. নাইমুল ইসলাম

    সকল আর্টিকেল কি আপনি নিজেই লিখেন?

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: কপি করা যাবে না !!
Scroll to Top
Share via
Copy link
Powered by Social Snap