মোবাইল দিয়ে অনলাইনে আয় করার উপায় ২০২১

মোবাইল দিয়ে অনলাইনে টাকা ইনকাম করার উপায় নিয়ে বিস্তারিত আমি এই পোষ্ট এর মাধ্যমে সম্পূর্ণ গাইড দিব। এখানে খুব সহজ ভাবে আপনাকে কিছু ধারনা দেওয় হবে যা অনুসরণ করলে আপনি মোবাইল ব্যবহার করে ইনকাম করতে পারবেন।

একটি কথা না বললেই না, কোনো কিছুই কষ্ট আর  ইচ্ছা না থাকলে জীবনে কিছুই পাওয়া যায়না। আর, তার জন্যই আপনাকেও মোবাইল দিয়ে অনলাইন থেকে টাকা আয় করার জন্য অল্প পরিশ্রম করতেই হবে।

অনেকেই আছেন একদম নতুন যারা কিনা অনলাইন থেকে আয় করার অনেক আগ্রহ কি

মোবাইল দিয়ে আয় করার সহজ উপায়
মোবাইল দিয়ে আয় করার সহজ উপায় ২০২১

ন্তু সঠিক গাইডলাইন এর অভাবে আপনি কিভাবে শুরু করবেন বোঝতে পারছেন না । তাদের জন্য আমরা এই বাংলা আইটি ব্লগ এ ধারাবাহিক ভাবে সকল গাইডলাইন দিয়ে সাহাজ্য করব।

এই আধনিক যোগে অনেকেই ইন্টারনেট কে জীবনের পেশা হিসাবে বেসে নিয়েছে । কারণ অনলাইন থেকে আজকাল অনেক কিছুই করা যায় যা, অনেকেই ধারণা রাখে না।

আমাদের অনেকের ইচ্ছা অনালাইন থেকে আয় করব কিন্ত অনেকেই  ভাবে আমারতো ল্যাপটপ বা কম্পুউটার নেই তাহলে কিভাবে আয় করব।

আরো পড়ুন…

অনেকের মাঝে এরকম  প্রশ্ন ঘুরপাক করে । কিভাবে মোবাইল দিয়ে টাকা আয় করব? আসলেই কি অনলাইন থেকে আয় সম্ভব মোবাইল দিয়ে? কত টাকা আয় করা যাবে? আমি কি সব কাজ মোবাইল দিয়ে করতে পারব?

যাদের মাথায় এমন প্রশ্ন আছে তাদের জন্য আমি এই পোস্ট থেকে সকল উত্তর এবং সহজ রাস্তা বলে দিব। যে কিভাবে আপনি শুধু মোবাইল ব্যবহার করে আয় করবেন।

মোবাইল দিয়ে অনলাইনে টাকা ইনকাম করার উপায়

মোবাইল দিয়ে  অনলাইন এ ইনকামের কয়েকটি উপায় নিয়ে আলোচনা করব যা উপর কাজ করে একটি ভালো পরিমাণের টাকা আয় করতেছে।

আমিতো আপনাদের নিচে আয় করার উপাই  গুলো দেখিয়ে দিব, আপনি কত টাকা আয় করবেন সেটা আপনার কাজ আর কঠুর পরিশ্রমের  উপরে নির্ভর করে।

আমি জেনে রাখুন, আমাদের দেওয়া গাইডলাইন গুলি দিয়ে লোকেরা ১৫০০- ৫০০০ হাজার টাকা  প্রতি মাসে আয় করছেন। আপনার সময়কে ফেসবুক এ চ্যাটিং ও গেমস খেলে শেষ না করে স্কিল ডেভেলপ করে আয় করুন।

তাহলে চলুন নিছে থেকে আমরা জেনে নেই কিভাবে মোবাইল দিয়ে অনলাইন থেকে কিভাবে আয় করতে পারি জেনে নেই।

 ওয়েবসাইটে দ্বারা ব্লগ্গিং করে আয়

শুনে হয়তো অবাক হচ্ছেন যে মোবাইল দিয়ে কিভাবে ওয়েবসাইট তৈরি করে আবার সেখান থেকে টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

মোবাইল দিয়ে ব্লগিং করে আয়
মোবাইল দিয়ে ব্লগিং করে আয়

এতে অবাক হওয়ার কিছু নেই আপনি যদি ব্লগ সাইট অথবা ওয়েবসাইট সম্পর্কে সামান্য আইডিয়া থাকে তাহলে আপনি মোবাইল থেকে আপনি নিজের জন্য একটি ব্লগ সাইট বানাতে পারেন হতে পারে এটি একটি ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েব সাইট অথবা ব্লগারের ফ্রি ওয়েবসাইট।

Blogger থেকে ফ্রি ওয়েবসাইট

আপনি যদি এই ব্লগ সাইট রিলেটেড সম্পর্কে নতুন হয়ে থাকেন এবং অভিজ্ঞ কম হন তাহলে আমি আপনাকে সাজেস্ট করব যে গুগলের ফ্রি সার্ভিস ব্লগস্পট (Blogger.com)থেকে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করে নিতে পারেন খুব ইজিলি.  ওয়েবসাইট তৈরি করার পর আপনাকে একটি টপ লেভেল ডোমেইন ক্রয় করতে হবে।

বাংলাদেশের এখন অনেক কোম্পানি রয়েছে যারা বিকাশে পেমেন্ট এর মাধ্যমে আসছে ৬০০-৮৫০ টাকার ভিতরে একটি টপ লেভেল ডোমেইন প্রদান করে। টপ লেভেল ডোমেইন বলতে যেগুলোকে আমরা বুঝি  WebsiteName.Com,  WebsiteName.Net,  DomainName.Info, DomainName.Org, 

আরো অনেক ধরনের ডোমেইন নেমের এক্সটেনশন রয়েছে যেগুলো নিয়ে আমরা পরবর্তীতে আলোচনা করবো।

আপনি গুগল ব্লগার থেকে ফ্রি একটি ব্লগ সাইট বানিয়ে তাতে আর্টিকেল পাবলিশ করে আপনি খুব সহজেই Google Adsense,  Affiliate marketing  এবং Sponsor এর মাধ্যমে আপনি খুব সহজেই একটি ভালো  পরিমাণের টাকা আয় করতে  পারবেন ।

WordPress থেকে ওয়েবসাইট তৈরি করা

আপনি যদি ওয়েবসাইট সম্পর্কে একটু মোটামুটি ভালো বোঝেন তাহলে আমি আপনাকে সাজেস্ট করব যে ওয়ার্ডপ্রেস থেকে ডোমেইন এবং হোস্টিং কিনে ওয়েবসাইট তৈরি করতে। এখন এই বর্তমান সময়ে বাংলাদেশে অনেক প্রোভাইডার রয়েছে যারা বিকাশ রকেট এবং নগদ এর মাধ্যমে আপনাকে হোস্টিং এবং ডোমেইন খুব সহজেই ক্রয় করতে পারবেন

কেননা ওয়েবসাইট অনেক ইজি ভাবে আপনি সকল কিছু করতে পারবেন এসইও রিলেটেড সকল কাজ আপনি খুব সহজেই বিভিন্ন ধরনের প্লাগিন এবং অনেক সিস্টেমের দ্বারা ওয়ার্ডপ্রেসকে আপনি খুব সহজেই Google এ জায়গা করে নিতে পারবেন।

ওয়েবসাইট খোলার পর আপনাকে অবশ্যই ইউনিক কন্টেন্ট পাবলিশ করতে হবে। তারপর যখন আপনি মোটামুটি কিছু ভিজিটর পেয়ে যাবেন।

তখন আপনি Google Adsense এপ্লাই করে Google Adsense Approve  হওয়ার পর Google Ads আপনার ওয়েবসাইটে বসিয়ে আয় করতে পারবেন এর পাশাপাশি আপনি এফিলিয়েট এবং স্পন্সর এর মাধ্যমে খুব সহজেই  আয় করতে পারবেন।

ইউটিউব থেকে আয় করা

বর্তমানে সারাবিশ্বে সোশ্যাল শেয়ারিং এর ভিতরে ইউটিউব একটি অনেক বড় ভিডিও শেয়ারিং প্ল্যাটফর্ম এখানে এমন কিছু নেই যে আপনি খুঁজে পাবেন না। ইউটিউব থেকে আপনি আপনার পড়াশোনা ব্যবসায়িক এবং পারিবারিক এবং স্বাস্থ্য সম্পর্কে সকল কিছু তথ্য খুব সহজে ইউটিউব থেকে পেয়ে যাবেন ।

শুধু তাই নয় বিনোদনমূলক অনেক কিছুই আপনি ইউটিউব থেকে পেয়ে যাবেন। আপনি কি মনে করেন যে ইউটিউবে এগুলো আপনাআপনিই চলে এসেছে অবশ্যই নয়। এখানে আমার এবং আপনার মত লোকেরাই ভিডিও আপলোড করে এবং তা থেকে ইনকাম করে কি চোখ কপালে উঠে গেল।

ইউটিউব এর নতুন একটি রোজ চালু করেছে গত বছর তা হলো ইউটিউবে আপনাকে ১০০০ সাবস্ক্রাইবার এবং ৪০০০ ঘন্টা ওয়াচ টাইম পূরণ করতে হবে। আপনার এর রোজ গোলাপ ফিলাপ হয়ে গেলে আপনি গুগল এডসেন্স এর দ্বারা আপনার ভিডিওতে মনিটাইজেশন চালু করে আয় করতে পারবেন

কিভাবে ইউটিউব থেকে আয় করা যায়

এটাই সত্যি Youtube থেকে আপনি সহজে আয় করতে পারবেন এর জন্য লাগবে আপনাকে ধৈর্য এবং সময়। দেখা যাক কিভাবে আপনি মোবাইল দিয়ে ইউটিউব থেকে টাকা আয় করতে পারবেন।

সর্বপ্রথম আপনাকে যা করতে হবে আপনার নিজের একটি ইউটিউব চ্যানেল থাকতে হবে আর যদি না থাকে তাহলে খুব সহজেই ইউটিউব থেকে আপনার জিমেইল লগইন করে আপনার নিজের ইউটিউব চ্যানেল বানিয়ে নিতে পারবেন। আপনার হাতে থাকায় স্মার্ট মোবাইল দিয়ে স্ক্রিন রেকর্ডার অ্যাপস এর সাহায্যে খুব সহজে আপনার স্কিনের করা ভিডিওগুলো রেকর্ড করতে পারবেন।

Funny ভিডিও করে আপলোড করা

আপনি খুব সহজেই আপনার একটি মোবাইল ফোন দিয়ে আপনার বন্ধু-বান্ধব মিলে ফানি ভিডিও তৈরি করে তা খুব সহজেই ইউটিউবে আপলোড করবেন।

এবং আপনি মোবাইল দিয়ে সকল প্রকার ভিডিও এডিটিং করতে পারবেন এবং ইউটিউব থেকেই ফানি ভিডিওর জন্য সাউন্ড ডাউনলোড করে তা সহজেই ভিডিওতে সেট করতে পারবেন।

ফটো এডিটিং টিউটোরিয়াল

বর্তমান সময়ে ফটো এডিটিং এর উপর মানুষের আগ্রহ বেড়ে চলছে এবং এর একটি বিরাট অংশ প্রভাব ফেলে সোশ্যাল মিডিয়া। অনেকেই চায় যে তাদের ছবি সুন্দরভাবে ইডিটিং করে সোশ্যাল মিডিয়াতে আপলোড করতে এবং এর বেশিরভাগ অংশই মোবাইল ইউজার তারা মোবাইল থেকে ফটো এডিটিং এর জন্য বিভিন্ন রকম ভিডিও সার্চ করে।

আপনি যদি ফটো এডিটিং এর উপর দক্ষতা থাকে তাহলে খুব সহজেই আপনি ফটো এডিটিং এর ভিডিও আপলোড করে একটি ভালো সারা পাবেন।

মনিটাইজেশন এর জন্য আপনার চ্যানেল টি প্রস্তুত হলে গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে খুব সহজেই আপনার ভিডিওতে অ্যাপ চালু করে আয় করতে পারবেন।

বিভিন্ন অ্যাপস রিভিউ ভিডিও

বর্তমান সময়ে অনেক ধরনের অ্যাপস রয়েছে যা মানুষের সম্পর্কে খুব একটা পরিচিত নয় এবং তা কিভাবে ব্যবহার করে সেটাও জানেনা। আপনি চাইলে সেসব অ্যাপস এর ব্যবহার এবং উপায়গুলো স্ক্রিন রেকর্ডার এর সাহায্যে ভিডিও করে সেগুলো ইউটিউবে আপলোড করতে পারেন।

দিনের পর দিন গুগল প্লে স্টোরে অনেক ডেভলপার নতুন নতুন অ্যাপস নিয়ে আসছে এবং তা খুব সহজে মানুষের মাঝে তুলে ধরার জন্য আপনি স্ক্রিন রেকর্ডার সাহায্যে ভিডিও রেকর্ড করে তা আপনার চ্যানেলে আপলোড করবেন।

মোবাইল গেমস রিভিউ

বর্তমান সময়ে সবারই কম বেশি স্মার্টফোন রয়েছে এবং সকলেই মোবাইলে গেম খেলতে পছন্দ করে। আর এই সময়ে পাবজি এবং ফ্রী ফায়ার গেম নামক যে গেমটি রয়েছে এটার প্রতি অনেক আকর্ষণ রয়েছে।

আপনি চাইলে এই কাজগুলো কিভাবে প্লে করতে হয়। কিভাবে কি কোরতে খুঁটিনাটি বিষয়গুলো নিয়ে স্ক্রিন রেকর্ডার এর সাহায্যে খুব সহজে মোবাইল থেকে ভিডিওগুলো আপলোড করতে পারবেন।

এবং অন্যান্য নতুন গেম পুরাতন গেমগুলোর সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা নিয়ে ভিডিও তৈরি করে আপনি ইউটিউবে আপলোড করতে পারেন এবং দেখবেন একটা সময় আপনার সাবস্ক্রাইব হয়ে গেছে এবং গোপাল মনিটাইজেশনের জন্য প্রস্তুত হয়ে গেছে আপনার চ্যানেল।

আরো পড়ুন…

পড়াশোনা বিষয়ক ভিডিও

পড়াশোনা বিষয়ক ভিডিয়ো তৈরি করে সেগুলো আপলোড করতে পারেন আপনি ভাবছেন যে কিভাবে পড়াশোনা বিষয়ক ভিডিও আপলোড করবেন। খুব সহজেই আপনি আপনার মোবাইল ব্যাবহার করে ভিডিও করে কিভাবে পড়াশোনার উপর ভিডিও তৈরি করতে পারবেন।

কিভাবে পড়াশুনা করলে ভালো রেজাল্ট পাওয়া যায় এবং বিভিন্ন রকম টিপস এবং ট্রিকস শেয়ার করে খুব সহজেই আপনি ভিডিও তৈরি করতে পারেন।  বিভিন্ন রকম প্রশ্নের উত্তর নিয়ে খুব সহজেই আপনি আপনার মোবাইল ব্যাবহার করে ভিডিও তৈরি করতে পারবেন।

আপনি ইচ্ছা করলে ম্যাথ ইংলিশ এবং অন্যান্য বিষয়গুলো মোবাইলের মাধ্যমে ভিডিও করে সেগুলো আপলোড করতে পারেন।

ফেসবুক থেকে আয় করা

ফেসবুক আমরা অনেকেই জানি যে ফেসবুক কি? অধিকাংশ মানুষ জানেই না যে ফেসবুক থেকেও আয় করা যায় বেশিরভাগ মানুষই জানে ফেসবুক হল সোশ্যাল শেয়ারিং প্ল্যাটফর্ম এবং এটিতে শুধু প্রোফাইলে ছবি আপলোড শেয়ারিং এবং চ্যাটিং এর মধ্যে সীমাবদ্ধ।

কিন্তু বর্তমান সময়ে ফেসবুকের একটি বিরাট অংশ হলো বিজনেস প্রমোট করা। সময়ের সাথে তাল মিলিয়ে ফেসবুকে এখন ব্যবসার একটি বিরাট অংশ হয়ে দাঁড়িয়েছে। এখানে আপনি আপনার ব্যবসার বিজ্ঞাপন দিতে পারবেন এবং নিজের পেজ থেকে মনিটাইজ করে আয় করতে পারবেন।

আপনি যদি ফেসবুক থেকে আয় করতে চান তাহলে আপনার নিজস্ব একটি ফেসবুক পেজ লাগবে । শুধু ফেসবুক পেজ থাকলে হবেনা তাতে লাইক এবং ফলো আর থাকতে হবে।

গত কয়েক বছর থেকে ফেসবুক তাদের মনিটাইজেশন সিস্টেম চালু করেছে। যার জন্য আপনি গুগল এডসেন্স এর মত  Facebook Page  মনিটাইজেশন এর মাধ্যমে আয় করতে পারবেন।

ফেসবুকে কিভাবে টাকা আয় করা যায়

কিভাবে ফেসবুক থেকে আয় করতে পারবেন এ বিষয়ে সংক্ষিপ্ত কিছু আলোচনা করা যাক। কে আয় করতে পারবেন তার ভিতরে ফেসবুক পেজ মনিটাইজেশন অন্যতম।

অন্য পদ্ধতি অবলম্বন করে ফেসবুক থেকে আয় করতে পারবেন কিন্তু সেগুলোর ভেতর থেকে ফেসবুক পেজ মনিটাইজেশন করার সিস্টেম টা কি আমি রিকমেন্ড করব। ফেসবুক পেজকে মনিটাইজেশন করতে হলে অবশ্যই আপনার পেজে আপনার নিজের কন্টেন্ট ভিডিও আপলোড করতে হবে।

ফেসবুক পেজ থেকে আয় করার উপাই

সবার প্রথমে আপনাকে একটা টপিক বেছে নিতে হবে এবং তার উপর আপনাকে ভিডিও কনটেন্ট তৈরি করতে হবে আর আপনি এসব সকল কাজ আপনার মোবাইল দিয়ে ব্যবহার করতে পারবেন ।

মোবাইল দিয়ে এসব ভিডিও করতে পারবে এবং আপনি খুব সহজেই আপনার ফেসবুক পেজ থেকে আপলোড করতে পারবেন। আর আপনার ফেসবুক পেজ কে ফেসবুক থেকে মনিটাইজেশন করার জন্য অবশ্যই আপনার পেজের লাইক ফলোয়ার ১০০০০ হাজার হতে হবে এবং এক মাসের ভিউজ ৩০০০০ হাজার থাকতে হবে।

সব ঠিকঠাক থাকলে আপনি আপনার পেজ কে ফেসবুক থেকে মনিটাইজেশন করতে পারবেন এবং ফেসবুক এডস এর মাধ্যমে আয় করতে পারবেন। আর এই ফেসবুক পেজ মনিটাইজেশন সার্ভিসটি কিন্তু গুগল এডসেন্স এর সাথে কোন সম্পর্ক নেই। ফেসবুক পেজ মনিটাইজেশন একমাত্র ফেসবুক কর্তৃপক্ষ থেকে এপ্রোভ নিতে হবে।

ফেসবুকের গ্রপ থেকে আয়

আপনি খুব সহজে ফেসবুক গ্রপ থেকে আয় করতে পারবেন । ভাবছেন কীভাবে আবার ফেসবুক গ্রপ থেকে আয় করা যায়? আপনি খুব সহজে ফেসবুক গ্রুপ থেকে আয় করতে পারবেন তবে আপনার নিজের একটি ফেসবুক গ্রপ থাকতে হবে এবং তাতে অধিক সংখ্যক মেম্বার থাকতে হবে।

আপনি সেই গ্রপ ব্যবহার করে বিভিন্ন প্রকার পণ্য প্রমোট করতে পারবেন এবং আপনি চাইলে সেই গ্রপ এ ই-কমার্স ব্যবসা করতে পারবেন। বিভিন্ন প্রকার পণ্যদ্রব্যের ছবি আপলোড করে সাথে প্রাইস এবং কন্টাক্ট নাম্বার দিয়ে প্রমোট করতে পারবেন।

আর এসব আপনি শুধুমাত্র আপনার হাতে থাকা স্মার্ট মোবাইল থেকে খুব সহজেই করতে পারবেন।

আর আপনার গ্রপ যদি ভাল একটিভ মেম্বার থাকে তাহলে খুব সহজেই আপনি আপনার গ্রপ কে রেন্ট হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন। যদি সহজ ভাষায় বলে আপনার গ্রপে যদি এক লক্ষ মেম্বার থাকে বা তার উপরে থাকে।

তাহলে অনেকেই আপনাকে গ্রপে ভাড়া দিতে বলবে তার বিনিময়ে আপনি তাদের কাছ থেকে নির্দিষ্ট পরিমাণের অর্থ আয় করতে পারবেন প্রতিমাসে।

গ্রপ ভাড়া বলতে বোঝায় যে, আপনি তাদেরকে মডারেটর পাওয়ার দিবেন এবং তারা সেই গ্রপে বিভিন্ন প্রকার পণ্য দ্রব্য এবং ওয়েবসাইট লিংক শেয়ার করবে এবং তা থেকে আপনাকে প্রতি মাসে একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ প্রদান করতে হবে।

মোবাইল এ ছবি তুলে বিক্রি করে আয়

মোবাইল এ ছবি তুলে বিক্রি করে আয় করা যায় এতে চোখ উপরে তোলার মতো কিছু নেই। আপনি ইচ্ছা করলে আপনার মোবাইল থেকে ছবি তুলে তা এইচডি আকারে এবং সামান্য এডিটিং করে খুব সহজে অনলাইন মার্কেটপ্লেসে সেল করতে পারবেন।

বর্তমান সময়ে এরকম অনেক ওয়েবসাইট রয়েছে যাতে আপনি ছবি আপলোড করার পর সেখান থেকে কেউ ক্রয় অথবাত ডাউনলোড করার পর আপনাকে একটা নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ প্রদান করবে। আর আপনি যে অর্থ বিভিন্ন প্রকার মাধ্যমে রিসিভ করতে পারবেন অথবা ব্যাংকের মাধ্যমেও আপনি তুলতে পারবেন।

আর এই কাজগুলো আপনি খুব সহজেই মোবাইল ফোনের মাধ্যমে করতে পারবেন। ছবি বিক্রি করে আয় করতে পারবেন এরকম কিছু বিশ্বস্ত সাইট আমি আপনাদেরকে নিচে রিকমেন্ড করব যেগুলো ১০০% পেমেন্ট করে।

  • https://contributor.stock.adobe.com/
  • https://www.bigstockphoto.com/sell-your-images.html
  • https://submit.shutterstock.com/
  • https://www.alamy.com/contributor/
  • https://www.fotolia.com/
  • https://www.istockphoto.com/

Android apps থেকে আয় করা

অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস থেকে আয় করা যায় এটা ঠিক। তবে লং টাইম আই করার জন্য আমি কখনো অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস এর প্রতি আপনাদেরকে সাজেস্ট  করবো না কেননা এটা থেকে আয় করার চান্স খুব কম। তবে ছোট ছোট কাজ করে পেমেন্ট নেওয়ার জন্যে এন্ড্রয়েড এপস আপনারা কাজ করতে পারেন।

আপনি গুগল এবং ইউটিউব খুঁজলে অনেক ধরনের অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস পাবেন যেখানে থেকে আপনারা খুব অল্প পরিমানে আয় করতে পারবেন। কিন্তু কিছুদিন পর দেখা যায় যে তারা আর পেমেন্ট করে না সে জন্য আপনাদেরকে বলবো যে এনড্রয়েড এপস এর প্রতি খুব বেশি নির্ভরশীল না হয় ভালো।

বিভিন্ন ধরনের পিটিসি সাইট রয়েছে এবং ইনভেস্ট করা হয় এরকম অনেক সাইট রয়েছে আমি আপনাদেরকে ভালোর জন্য বলতেছে যে সকল ওয়েবসাইট ইনভেস্ট করলে কিছু অংশ টাকা পাবেন কিন্তু তার থেকে বেশি অংশ উধাও হয়ে যাবে।

  • Google Opinion Rewards
  •  Champ Cash
  • Meesho
  • Cointiply
  • frapp
  • AppBuks
  • Loco
  • Perk app

সর্বোপরি বলব যে অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস অথবা পিটিসি ওয়েবসাইটের প্রতি আগ্রহ না দেখি অন্যান্য বিষয়গুলো আলোচনা করেছে তার প্রতি আপনি যোগ দিতে পারেন।

লিংক ছোট করা ওয়েবসাইট থেকে আয়

আপনি কি কখনো শর্ট লিংক কথা শুনেছেন ? আমি মনে করি অবশ্যই আপনি শর্ট লিংকের কথা শুনেছেন।  অনেক সময়ই দেখেছেন যে কখনও কখনও আমাদের ফ্রেন্ড অথবা অন্য কেউ শর্ট লিংক করে আমাদেরকে কোন কিছু সেন্ড করে।

এর ভিতরে কিছু ওয়েবসাইট রয়েছে যেগুলো থেকে  আপনি খুব সহজেই লিংক শটের এর মাধ্যমে আপনি আয় করতে পারবেন।

আমি নিচে কিছু ওয়েবসাইটের  নাম দিয়ে দিচ্ছি আপনি প্রত্যেকটিতে একটি করে অ্যাকাউন্ট খুলবেন এবং বিভিন্ন প্রকার অ্যাপস গেমস এবং প্রয়োজনীয় সকল কিছু লিংকের মাধ্যমে আপনাদের বন্ধু অথবা অন্যদেরকে শেয়ার করবেন।

যখনই আপনার বন্ধু অথবা অন্য যে কেউ সেই লিঙ্কে প্রবেশ করবে সেখানে কিছু অ্যাপস দেখতে পাবে এবং সে অ্যাডগুলোতে এ ক্লিক দেওয়ার পর আপনার একাউন্টে কিছু পরিমাণ অর্থ প্রদান করা হবে সেসব সাইট এবং একটি নির্দিষ্ট অ্যামাউন্ট হওয়ার পর আপনি সেই অর্থগুলো আপনার ব্যাংক অথবা অন্য কোন একাউন্টে ট্রান্সফার করে নিতে পারবেন।

আরে সকল ছোট ছোট কাজগুলো আপনি খুব সহজেই মোবাইল ব্যবহার করে করতে পারবেন।

আমরা অবশ্যই আপনার প্রশ্নটিই গুরুত্বসহকারে উত্তর দেয়ার চেষ্টা করব যত তাড়াতাড়ি সম্ভব আমরা পারি। আমাদের পোস্টটি যদি ভালো লেগে থাকে অবশ্যই আপনি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করবেন ।

2 thoughts on “মোবাইল দিয়ে অনলাইনে আয় করার উপায় ২০২১”

  1. নাম নেই আমার

    ভাই আপনি কি বাংলাদেশি? আপনি বাংলাদেশের গর্ব৷ এডসেন্স এপ্রুভ করান। সবটি সাইট বিট করেন। আর নিজের সাইটরে র‍্যাংকে আনেন। আপনার পরিকল্পনা বুঝেছি। ধীরে ধীরে আপনার আর্টিকেল র‍্যাংক করছে। সবসময় দৃষ্টি রাখা,
    অজানা!

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: কপি করা যাবে না !!
Scroll to Top
Share via
Copy link
Powered by Social Snap