ভিডিও এডিটিং কিভাবে শিখব | How to learn video editing

ভিডিও এডিটিং কিভাবে শিখব : যদি আপনি ভিডিও এডিটিং শিখতে চান তাহলে সবার আগে আপনার মনে একটি প্রশ্ন জেগে থাকবে।

ভিডিও এডিটিং কিভাবে শিখব | How to learn video editing
ভিডিও এডিটিং কিভাবে শিখব

আর সেই প্রশ্ন টি হল যে, ভিডিও এডিটিং কিভাবে শিখব, ভিডিও এডিটিং এর জন্য সবচেয়ে ভাল সফটওয়্যার কোনটি এবং ভিডিও এডিটিং বই pdf দিয়ে শিখা যাবে কিনা।

আর যদি আপনি এই প্রশ্নের উত্তর খোঁজার জন্য আমার এই আর্টিকেলে প্রবেশ করে থাকেন। তাহলে আমি আপনাকে বলব যে, আপনি একবারে সঠিক জায়গাতে চলে এসেছেন।

কারণ আজকের এই গুরুত্বপূর্ণ আর্টিকেল এর মাধ্যমে আমি ভিডিও এডিটিং রিলেটেড যে বিষয় গুলো রয়েছে। যেমন, বাংলা ভিডিও এডিটিং টিউটোরিয়াল কোথায় পাবেন।

প্রফেশনাল ভিডিও এডিটিং শিখার উপায়, ভিডিও এডিটিং সফটওয়্যার ডাউনলোড করার উপায়, মোবাইল দিয়ে ভিডিও এডিটিং শিখুন সম্পূর্ণ ফ্রি কোর্স দিয়ে এসব গুলো বিষয় শেয়ার করার চেষ্টা করব।

এর পাশাপাশি কিভাবে আপনি একজন নতুন ব্যক্তি হিসেবে ভিডিও এডিটিং শিখতে পারবেন। তা নিয়ে স্টেপ বাই স্টেপ আলোচনা করব।

আর সেজন্য আপনাকে পুরো আর্টিকেল টি মনোযোগ দিয়ে পড়তে হবে।

বর্তমান সময়ে আপনি যদি স্কিল এর কথা চিন্তা করে দেখেন। তাহলে আপনি যে নামটি সবার প্রথমে শুনতে পারবেন। সেটি হল ভিডিও এডিটিং।

আপনার জন্য আরোও লেখা…

কারণ সময় যত অতিবাহিত হচ্ছে, আমরা মানুষ হিসেবে ভিডিও দেখার চাহিদা ঠিক তত বেশি বৃদ্ধি পাচ্ছে।

আর এই সুযোগ কে কাজে লাগিয়ে আপনি যদি আপনার ভিডিও এডিটিং করার দক্ষতা কে ব্যবহার করতে পারেন।

তাহলে কিন্তু আপনি এই দক্ষতার বিনিময়ে প্রচুর পরিমাণ টাকা অনলাইন থেকে ইনকাম করে নিতে পারবেন।

কিন্তু এই টাকা আয় করার আগে আপনাকে পূর্ণাঙ্গ ভাবে প্রফেশনাল মানের ভিডিও এডিটিং করা শিখতে হবে।

আর হয়তোবা আপনিও ভিডিও এডিটিং করার মাধ্যমে অনলাইন থেকে টাকা আয় করতে চান। এবং সে কারণে আপনার মনে এ প্রশ্নটি জেগেছে যে, ভিডিও এডিটিং কিভাবে শিখব।

যেহেতু আজকের এই আর্টিকেলে ভিডিও এডিটিং শিখুন সবচেয়ে সহজ নিয়মে নিজের মেধা দিয়েই এই বিষয় টি নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব।

সেহেতু আপনার হাতে একটু সময় নিয়ে আজকের এই পুরো আর্টিকেল টি মনোযোগ দিয়ে পড়তে হবে।

আর আপনি যদি এই আর্টিকেল টি পড়েন তাহলে আমার দীর্ঘ বিশ্বাস থাকবে যে, আজকের পর থেকে আপনার ভিডিও এডিটিং এবং ভিডিও এডিটিং কোর্স সম্পর্কে যেসব অজানা বিষয় ছিল।

তার সব গুলোই জানা হয়ে যাবে। তো চলুন সরাসরি মূল আলোচনা তে ফিরে যাওয়া যাক।

Video editing কি ?

প্রিয় পাঠক, কিভাবে আপনি ভিডিও এডিটিং শিখবেন। তা নিয়ে আজকে অবশ্যই বিস্তারিত আলোচনা করব।

তবে এই ভিডিও এডিটিং কি সে সম্পর্কে আপনার একটু ধারণা নেয়া উচিত। কারণ আপনি যে বিষয় টি সম্পর্কে বিস্তারিত জানবেন।

সে বিষয়টির শুরু থেকে শেষ অব্দি আপনার জেনে নিতে হবে। তাই চলুন এবার জেনে নেওয়া যাক যে, ভিডিও এডিটিং কি। এবং তারপরে আমরা জানবো যে, ভিডিও এডিটিং কিভাবে শিখব।

সহজ কথা বলতে গেলে, ভিডিও এডিটিং হল এটি প্রক্রিয়া। যেখানে আপনি বিভিন্ন প্রকার এলিমেন্ট কে একত্র করে একটি পূর্ণাঙ্গ ভিডিও তৈরি করবেন।

যেমন, একটি ভিডিও তৈরি করতে বিভিন্ন এলিমেন্ট এর প্রয়োজন হয়ে থাকে। একটি ভিডিও এর মধ্যে কখনো কখনো ইমেজ ব্যবহার করা হয়।

ছোট ছোট ক্লিপ ব্যবহার করা হয়। সেই ভিডিও তে বিভিন্ন প্রকারের সাউন্ড ব্যবহার করা হয়। এর পাশাপাশি একটি ভিডিওর মধ্যে আমরা যেসব ইফেক্ট দেখতে পাই, সে গুলো ব্যবহার করতে হয়।

তো দর্শকদের কথা বিবেচনা করে যখন আপনি একটি ভিডিও কে বিভিন্ন প্রকার এলিমেন্ট এর সাহায্য তৈরি করবেন। তখন তাকে বলা হবে, ভিডিও এডিটিং।

আর আপনি এই ভিডিও এডিটিং যত দক্ষতার সাথে করতে পারবেন। আপনার সেই ভিডিও টি তত বেশি আকর্ষণীয় হবে।

কেননা ভিডিও এডিটিং এর মাধ্যমেই নির্ভর করে যে সেই ভিডিওটি আসলে দর্শকদের কাছে কত বেশি আকর্ষণীয় মনে হবে।

ভিডিও এডিটিং কেন জরুরি ?

উপরের আলোচনা থেকে আপনি জানতে পারলেন যে, ভিডিও এডিটিং কি। তো এখন আপনাকে জানতে হবে যে, ভিডিও এডিটিং কেন জরুরী।

অর্থাৎ একটি ভিডিও কে তৈরি করার জন্য কেন সেই ভিডিও টি এডিটিং করতে হবে। আর আপনি যদি এই বিষয় টি সম্পর্কে জানতে চান।

তাহলে আপনাকে নিচের আলোচিত আলোচনায় নজর রাখতে হবে। কারণ এবার আমি সেই বিষয় টি নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব।

যাতে করে আপনার ভিডিও এডিটিং সম্পর্কে কোন কিছু অজানা না থাকে।

দেখুন আপনি আপনার স্মার্টফোন দিয়ে যেসব ভিডিও তৈরি করেন। সেই ভিডিও গুলোর সাথে যদি আপনি সিনেমার ভিডিও গুলোর কথা চিন্তা করেন।

তাহলে কিন্তু আপনি অনেকটাই পার্থক্য লক্ষ্য করতে পারবেন। কারণ আমরা আমাদের মোবাইল এর ক্যামেরা দিয়ে যেসব ভিডিও করি।

সেই ভিডিও গুলোর সাথে সিনেমা তে দেখানোর ভিডিওর কোন প্রকার মিল থাকবে না। কেননা সেই ভিডিও গুলো অনেক দক্ষতা সম্পন্ন ভিডিও এডিটর এর মাধ্যমে এডিটিং করা হয়।

আর এই বিষয় টি আরো সহজ ভাবে বোঝার জন্য আপনাকে জানতে হবে যে। একটি ভিডিও তে আসলে কোন কোন বিষয় গুলো এডিটিং করা হয়।

প্রথমত ক্যামেরা দিয়ে একটি ভিডিও শুট করা হয়। এবং পরবর্তী সময়ে বিভিন্ন সফটওয়্যার এর মাধ্যমে উক্ত ভিডিও টি এডিটিং করা হয়।

এবং যখন সেই ভিডিও টি এডিটিং করা হয়। তখন সেই ভিডিওটি কে যেন দর্শকদের মাঝে আরো আকর্ষণীয় মনে হয়। সে জন্য বিভিন্ন প্রকারের এলিমেন্ট যুক্ত করা হয়।

যেমন, সেই ভিডিওর কোন অংশে কোন প্রকার সাউন্ড ব্যবহার করলে সেই ভিডিও টি আরো বেশি আকর্ষণীয় হবে।

এর পাশাপাশি একটি ভিডিও এর কোন কোন অংশে ট্রানজেকশন ব্যবহার করতে হবে, কি কি ইফেক্ট ব্যবহার করা হবে।

তা মূলত ভিডিও এডিটিং করার সময় নির্বাচন করা হয়ে থাকে।

তো ভিডিও এডিটিং কেন জরুরি এই প্রসঙ্গে আমি বলবো যে। কোন একটি ভিডিও কে পূর্বের তুলনায় আরও বেশি প্রাণবন্ত করার জন্য। সেই ভিডিও টি এডিটিং করতে হয়।

আর এই ভিডিও এডিটিং এর মাধ্যমে মূলত সেই ভিডিও এর মাধুর্য কে আরো কয়েক গুন বাড়িয়ে দেওয়া হয়। যার কারণে ভিডিও এডিটিং অত্যন্ত জরুরী একটি বিষয়।

আশা করি এই বিষয় সম্পর্কে আপনার পরিষ্কার ধারণা চলে এসেছে।

ভিডিও এডিটিং কিভাবে শিখব ?

যদি আপনি ভিডিও এডিটিং করতে চান। তাহলে আপনাকে বেশ কিছু ধাপ অতিক্রম করতে হবে। কেননা ভিডিও এডিটিং করার এমন কিছু বিষয় রয়েছে।

যে গুলো অবশ্যই আপনার সঠিক ভাবে অনুসরণ করা উচিত। আর এবার আমি সেই বিষয় গুলো নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব। এবং চেষ্টা করব এই বিষয় গুলো কে ধাপে ধাপে বুঝিয়ে বলার।

তো যাদের মনে মূলত এই ধরনের প্রশ্ন ঘুরপাক খায় যে, ভিডিও এডিটিং কিভাবে শিখব। তাদের জন্য এবার এর আলোচনা টি অত্যন্ত জরুরী।

তাই অবশ্যই এই আলোচিত আলোচনা গুলো মন দিয়ে পড়ার চেষ্টা করবেন।

নিজের একটি এডিটিং সেটআপ তৈরি করুন

যখন আপনি নিজেকে ভিডিও এডিটিং এর সাথে যুক্ত করবেন। তখন অবশ্যই আপনার ব্যক্তিগত একটি সেটআপ থাকতে হবে।

যেমন ধরুন, আপনি যদি একতারা বাজাতে চান। তাহলে অবশ্যই আপনার কাছে একতারা থাকতে হবে। যাতে করে আপনি খুব সহজ ভাবে অনুশীলন করে একতারা বাজার শিখতে পারেন।

ঠিক সেভাবে আপনি যদি ভিডিও এডিটিং করতে চান। তাহলে অবশ্যই আপনার ভিডিও এডিটিং সেটআপ থাকতে হবে।

যদি না থাকে তাহলে আপনার উচিত যে অতি দ্রুততার সাথে এরকম একটা সেটআপ তৈরি করে নেয়া।

এখন হয়তোবা আপনি ভাবছেন যে, ভিডিও এডিটিং করার জন্য এই সেটআপ এর মধ্যে কি কি থাকতে হবে। তো যদি আপনি এই বিষয় টি ভেবে থাকেন।

তাহলে আমি আপনাকে বলব যে, আপনার কাছে অবশ্যই একটি ভালো মানের কম্পিউটার থাকতে হবে। কেননা ভিডিও এডিটিং করার জন্য যে সব সফটওয়্যার ব্যবহার করা হয়।

সেই সফটওয়্যার গুলো কোন ভাবেই নিম্নমানের কম্পিউটার দিয়ে রান করা সম্ভব নয়। এর পাশাপাশি সেই কম্পিউটারের সাথে অনেক ভালো মানের একটি সাউন্ড সিস্টেম থাকতে হবে।

যদি আপনি আপনার কাছে থাকা সেই কম্পিউটার দিয়ে ভিডিও এডিটিং এর কাজ করতে চান।

তাহলে অবশ্যই সেই কম্পিউটার টি অনেক দ্রুত গতি সম্পন্ন ইন্টারনেট কানেকশনের সাথে সংযুক্ত থাকতে হবে।

সবশেষে আপনার উক্ত কম্পিউটারে অনেক ভালো মানের ভিডিও এডিটিং সফটওয়্যার ইন্সটল থাকতে হবে।

যে সফটওয়্যার গুলোর মাধ্যমে আপনি নিজের ঘরে বসে ভিডিও এডিটিং করার কাজ গুলো করতে পারবেন।

মূলত এ গুলোই আপনার সেটআপ এর মধ্যে থাকা উচিত। যে গুলো নিয়ে উপরে আলোচনা করা হয়েছে।

একটি free অথবা paid course এর সাথে যুক্ত হতে হবে

আমাদের মধ্যে এমন অনেক মানুষ আছেন। যারা মূলত নিজের ঘরে বসে ভিডিও এডিটিং এর কাজ গুলো শিখতে চান।

তো আপনার মনেও যদি নিজের ঘরে বসে ভিডিও এডিটিং করার কাজ শেখার ইচ্ছা থাকে তাহলে আমি আপনাকে বলব যে, আপনি ভিডিও এডিটিং এর কোর্স করা উচিত।

কারণ বর্তমান সময়ে এমন অনেক অভিজ্ঞ ব্যক্তিরা আছেন। যারা মূলত দীর্ঘদিন থেকে ভিডিও এডিটিং এর সাথে যুক্ত আছেন।

আর যেহেতু তারা দীর্ঘদিন থেকে ভিডিও এডিটিং এর কাজ করছেন। সেহেতু তাদের এই বিষয় টি সম্পর্কে অনেক অভিজ্ঞতা হয়েছে।

আর তাদের মধ্যে থাকা এই অভিজ্ঞতা গুলো কে অন্যদের মাঝে শেয়ার করার জন্য। সেই ব্যক্তিরা বিভিন্ন প্রকারের কোর্স তৈরি করে থাকে।

আপনি আরোও পড়তে পারেন…

এখন আপনি যদি সেই কোর্স গুলো কিনে নেন। তাহলে আপনি সেই কোর্সে থাকা ভিডিও দেখে দেখে ভিডিও এডিটিং এর যাবতীয় কাজ গুলো শিখে নিতে পারবেন।

মূলত আপনি যদি কোর্সের মাধ্যমে শিখতে চান। তাহলে আপনাকে আর ঘরের বাইরে যাওয়ার প্রয়োজন পড়বে না।

বরং আপনি নিজের ঘরে বসে নিজের সময় মত এই ভিডিও এডিটিং এর কাজ শিখতে পারবেন।

ভিডিও এডিটিং সফটওয়্যার কোনগুলা (PC)

ভিডিও এডিটিং কিভাবে শিখব সে বিষয় টি নিয়ে উপরে বিস্তারিত ভাবে আলোচনা করা হয়েছে। এবং ভিডিও এডিটিং করার জন্য যে বিষয় গুলো মাথায় রাখা উচিত।

তার প্রত্যেকটি বিষয় নিয়ে উপরে বিস্তারিত বলা হয়েছে। তো এখন আপনাকে গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয় সম্পর্কে জেনে নিতে হবে।

আর সে বিষয় টি হল, ভিডিও এডিটিং সফটওয়্যার কোন গুলো। অর্থাৎ আপনি যে ভিডিও এডিটিং করবেন।

তার জন্য অবশ্যই আপনাকে কোন না কোন সফটওয়্যার ব্যবহার করতে হবে। আর সেই সফটওয়্যার গুলো সম্পর্কে জেনে নেয়া টা আপনার জন্য অত্যন্ত প্রয়োজনীয় একটি বিষয়।

যদিওবা মানসম্মত ভিডিও এডিটিং করার জন্য আপনি বর্তমান সময়ে বিভিন্ন প্রকারের ভিডিও এডিটিং সফটওয়্যার দেখতে পারবেন।

এবং আপনি চাইলে সে গুলোর মধ্যে যে কোনো এক বা একাধিক সফটওয়্যার ব্যবহার করে ভিডিও এডিটিং এর কাজ গুলো করতে পারবেন।

কিন্তু এবার আমি আপনাকে সেই সফটওয়্যার গুলোর সাথে পরিচয় করিয়ে দেয়ার চেষ্টা করব। যে গুলো বর্তমান সময়ে অধিকাংশ ভিডিও এডিটররা ব্যবহার করে থাকেন। যেমন:

  1. Adobe After Effect
  2. Final Cut Pro
  3. Adobe Premiere Pro
  4. Filmora

উপরে আমি ভিডিও এডিটিং করার মোট চার টি সফটওয়্যার এর নাম উল্লেখ করেছি। তবে এগুলো ছাড়াও কিন্তু আপনি আরো অনেক ধরনের ভিডিও এডিটিং করার সফটওয়্যার পাবেন।

আর আপনি চাইলে আপনার পছন্দমত যে কোন মানসম্মত সফটওয়্যার কে ব্যবহার করে ভিডিও এডিটিং করতে পারবেন।

কিভাবে Mobile দিয়ে ভিডিও এডিট করবেন ?

বর্তমান সময়ে কম্পিউটার ব্যবহারকারীর তুলনায় মোবাইল ব্যবহারকারী অনেক বেশি রয়েছে।

তো চাইলে এই মোবাইল ব্যবহারকারীরা খুব সহজেই তাদের হাতে থাকা স্মার্টফোন দিয়ে ভিডিও এডিটিং করতে পারবে।

কেননা বর্তমান সময়ে কম্পিউটারের পাশাপাশি মোবাইলের জন্য বিভিন্ন প্রকারের ভিডিও এডিটিং অ্যাপস তৈরি হয়েছে। যেগুলোর মাধ্যমে অনেক মানসম্মত ভিডিও এডিটিং করা সম্ভব।

আর আপনি যদি আপনার মোবাইল দিয়ে ভিডিও এডিটিং করতে চান। তাহলে অবশ্যই আপনাকে গুগল প্লে স্টোর থেকে ভিডিও এডিটিং করার অ্যাপস গুলো ডাউনলোড করতে হবে।

এবং কিভাবে সেই অ্যাপস গুলো ব্যবহার করতে হয় সেই সম্পর্কে আপনাকে ধারণা নিতে হবে। আর তারপরেই আপনি আপনার মোবাইল দিয়ে ভিডিও এডিটিং করতে পারবেন।

ভিডিও এডিটিং সফটওয়্যার কোনগুলা ?

উপরে আলোচনা তে আমি আপনাকে বেশ কিছু ভিডিও এডিটিং করার সফটওয়্যার এর সাথে পরিচয় করিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেছি।

তবে যারা মোবাইল ব্যবহার করে। তাদের জন্য এবার আমি মানসম্মত কিছু ভিডিও এডিটিং অ্যাপস এর সাথে পরিচয় করিয়ে দেয়ার চেষ্টা করব।

চলুন এবার তাহলে জেনে নেয়া যাক মোবাইল দিয়ে ভিডিও এডিটিং করার জন্য মানসম্মত অ্যাপস কোন গুলো।

  1. InShot
  2. Capcut
  3. Youcut
  4. Kinemaster
  5. VFly
  6. VivaVideo

উপরে আমি মোবাইল দিয়ে ভিডিও এডিটিং করার মোট পাঁচটি অ্যাপস এর নাম উল্লেখ করেছি। আপনি চাইলে মোবাইল দিয়ে ভিডিও এডিটিং করার জন্য এই অ্যাপস গুলো ব্যবহার করতে পারবেন।

যে গুলোর মাধ্যমে মোবাইল দিয়ে অনেক আকর্ষণীয় ভিডিও এডিটিং করা সম্ভব।

ভিডিও এডিটরদের কাজের প্ল্যাটফর্ম কোন গুলো?

এতক্ষণের আলোচনা থেকে আপনি ভিডিও এডিটিং কিভাবে শিখব সে সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জানতে পেরেছেন।

তবে এই তথ্য গুলো জানার পরে এখন আপনার মনে একটি প্রশ্ন জেগে থাকতে পারে যে। ভিডিও এডিটরদের কাজের প্লাটফর্ম কোন গুলো।

মূলত যখন আপনি ভিডিও এডিটিং এর কাজ গুলো যথাযথ ভাবে শিখতে পারবেন। তখন আপনি এই ভিডিও এডিটিং এর কাজ কোথায় পাবেন সেই নিয়ে অনেকের মনে প্রশ্ন জেগে থাকতে পারে।

চলুন এবার তাহলে সে সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক।

দেখুন ফ্রিল্যান্সিং প্ল্যাটফর্মে আপনি বিভিন্ন প্রকারের কাজ দেখতে পারবেন। আর সেইসব কাজ গুলোর মধ্যে এই ভিডিও এডিটিং হল জনপ্রিয় একটি কাজ। যার প্রচুর পরিমাণে ডিমান্ড রয়েছে।

কারণ বর্তমান সময়ে মানুষ ভিডিও দেখতে পছন্দ করে। আর একটি ভিডিও মানুষ তখনই দেখবে, যখন সেই ভিডিও টি সঠিক ভাবে এডিটিং করা হবে।

আর যদি আপনার এই ভিডিও এডিটিং করার পূর্ণাঙ্গ দক্ষতা থাকে। তাহলে আপনাকে আর কাজ নিয়ে ভাবতে হবে না। বরং আপনি বিভিন্ন সোর্স থেকে কাজের অফার পাবেন।

তবে আপনি যদি একান্ত ভাবে জানতে চান যে। ভিডিও এডিটরদের কাজের প্লাটফর্ম কোন গুলো। তাহলে আমি আপনাকে বলব যে, আপনাকে কাজ করার জন্য সর্বপ্রথম ফ্রিল্যান্সিং প্ল্যাটফর্ম গুলো তে যেতে হবে।

আর যখন আপনি ফ্রিল্যান্সিং প্ল্যাটফর্ম গুলো তে যাবেন। তখন আপনি দেখতে পারবেন যে, সেই প্ল্যাটফর্ম গুলো তে প্রচুর পরিমাণে ভিডিও এডিটিং এর কাজের অফার দেওয়া আছে।

এবং সেই সময় আপনি উক্ত কাজ গুলো করার মাধ্যমে অনলাইন থেকে টাকা আয় করতে পারবেন।

একজন ভিডিও এডিটরের মাসিক আয় কত?

দেখুন আপনি আসলে ভিডিও এডিটিং করে মোট কত টাকা মাসে আয় করতে পারবেন। সেটা কখনোই স্পষ্ট করে বলা সম্ভব নয়।

কারণ যদি আপনার দক্ষতা থাকে এবং আপনি যদি ভাল কোন প্রজেক্ট নিয়ে কাজ করতে পারেন। তাহলে আপনি এক মাসেই লক্ষ টাকা পর্যন্ত আয় করে নিতে পারবেন।

অপর দিকে আপনার যদি ভিডিও এডিটিং সম্পর্কে দক্ষতার মধ্যে ত্রুটি থাকে। সেক্ষেত্রে আপনি কোন টাকা ইনকাম করতে পারবেন না।

একজন ভিডিও এডিটরের ক্যারিয়ার কেমন হতে পারে?

দেখুন আপনি যেকোনো কাজ সঠিকভাবে করতে পারবেন। সেই কাজে আপনি আপনার ক্যারিয়ার গড়ে নিতে পারবেন।

যেমন ধরুন, আপনি যদি একজন কন্টেন্ট রাইটার হতে পারেন। তাহলে আপনি সেই কন্টেন্ট রাইটারের মাধ্যমে আপনার ক্যারিয়ার গড়ে নিতে পারেন।

ঠিক একইভাবে যখন আপনি দক্ষতা সম্পন্ন একজন ভিডিও এডিটর হিসেবে প্রমাণ করতে পারবেন। তখন আপনি এই কাজটি করার মাধ্যমে নিজের ক্যারিয়ার গড়তে পারবেন।

ভিডিও এডিটিং এর জন্য সবচেয়ে ভাল সফটওয়্যার কোনটি?

সত্যি কথা বলতে ভিডিও এডিটিং করার জন্য বিভিন্ন রকমের সফটওয়্যার রয়েছে। আর এই সফটওয়্যার গুলো মূলত ভিন্ন ভিন্ন কাজে ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

যেমন ধরুন, কিছু কিছু সফটওয়্যার রয়েছে যে সফটওয়্যার গুলোতে অনেক ভাল মানের ইফেক্ট রয়েছে। আবার এমন অনেক সফটওয়্যার রয়েছে যেগুলোর মাধ্যমে আপনি অনেক ভাল ট্রানজেকশন খুঁজে পাবেন।

তো কোন সফটওয়্যারটা আসলে ভালো সেটা নির্ভর করবে। আপনি আসলে কোন ধরনের ভিডিও কে এডিট করতে চাচ্ছেন।

ভিডিও এডিটিং শিখতে কত দিন লাগে?

ভিডিও এডিটিং শিখতে কতদিন লাগে এ বিষয়ে স্পষ্টভাবে কোন কিছুই বলা সম্ভব নয়। কারণ ভিডিও এডিটিং হল এমন একটি সেক্টর, যেখানে শেখার কোন শেষ নেই।

একজন দক্ষ ভিডিও এডিটর হতে অনেক সময় এবং অনুশীলন করা লাগে। ভিডিও  এডিটের মূল বিষয়গুলি শিখতে কতক্ষণ সময় লাগে তা ব্যক্তিভেদে পরিবর্তিত হয়।

তবে বেশিরভাগ লোকেরা তুলনামূলকভাবে দ্রুত গতিতে উঠতে পারে।

যারা ইতিমধ্যেই ফটো এডিটিং এর মত অন্যান্য ধরনের এডিটিং এর সাথে পরিচিত তারা হয়তো দেখতে পাবেন যে তারা ভিডিও এডিটিং এর মূল বিষয়গুলো আরো দ্রুত শিখে নিতে পারে।

যাদের কোন ধরনের  এডিটিংরের পূর্ব অভিজ্ঞতা নেই তাদের দড়ি শিখতে একটু বেশি সময় লাগতে পারে।

অর্থাৎ আপনি যত ভালো মানের ভিডিও এডিট করতে চাইবেন। আপনাকে তত বেশি সফটওয়্যার সম্পর্কে ঘাটাঘাটি করতে হবে।

আপনি আরোও দেখতে পারেন…

আর সময় যত অতিবাহিত হচ্ছে প্রতিনিয়ত তত নতুন নতুন সফটওয়্যার এর উদ্ভব হচ্ছে।

তাই আপনি আপনি যদি জানতে চান যে, ভিডিও এডিটিং শিখতে কতদিন লাগে। তাহলে আমি আপনাকে কোন প্রকার উত্তর দিতে পারবো না।

আমাদের শেষকথা

প্রিয় পাঠক, যারা আসলে জানতে চেয়েছিলেন যে ভিডিও এডিটিং কিভাবে শিখব। তাদের জন্য আজকে অনেক গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা করা হয়েছে।

তাই আপনি অবশ্যই এই আলোচিত আলোচনা গুলো মনোযোগ দিয়ে পড়বেন। এবং আপনি যদি ভিডিও এডিটিং সম্পর্কিত আরো কিছু জানতে চান।

তাহলে অবশ্যই নিচে কমেন্ট করে জানিয়ে দিবেন।

Leave a Comment

Your email address will not be published.

HandsUp! কপি করা যাবে না বস!

Scroll to Top
Share via
Copy link
Powered by Social Snap