সেরা ভিডিও এডিট করার সফটওয়্যার – [মোবাইল এবং পিসির]

ভিডিও এডিট করার সফটওয়্যার : যেহুতু আপনি এই আর্টিকেলে চলে এসেছেন। সেহুতু ধরে নিবো যে আপনার মনে ভিডিও এডিট করার অসীম আগ্রহ আছে।

ভিডিও এডিট করার সফটওয়্যার
ভিডিও এডিট করার সফটওয়্যার

আর সেই আগ্রহ থেকে আপনি জানতে চান যে, আজকের দিনে জনপ্রিয় ভিডিও এডিট করার সফটওয়্যার কোন গুলো।

কেননা আপনার কাছে যদি ভালো মানের কোনো ভিডিও এডিট করার apps না থাকে। তাহলে কিন্তুু আপনি আপনার এডিট করা ভিডিওকে আর্কষনীয় করতে পারবেন না।

আর আপনার ভিডিও যদি ভালো মানের না হয়৷ তাহলে আপনার ভিডিও দেখে মানুষ ততোটা প্রশংসা করবে না।

এছাড়াও আজকের দিনে কোনো একটি ভিডিও কে মানসম্মত ভাবে এডিট করতে হলে। আপনাকে অবশ্যই ভিডিও এডিট করার সফটওয়্যার গুলো সম্পর্কে বেশ ভালোভাবে জানতে হবে।

আর আজকের এই আর্টিকেলটি মূলত সেই উদ্দেশ্যেই লেখা হয়েছে।

আপনার জন্য আরো লেখা…

যেন আপনার মতো মানুষ গুলো ভিডিও এডিট করার apps গুলোর মাধ্যমে খুব প্রফেশনাল মানের ভিডিও এডিট করতে পারে। সেই দিক বিবেচনা করেই আজকে বিস্তারিত আলোচনা করবো।

💡PRO TIPS: আজকের আলোচিত এই ভিডিও এডিট করার apps গুলোর mod Version গুলো অনেকেই ডাউনলোড করতে পারে না।

আপনি আসলে কিভাবে এই Video Editing Apps Mod Version Download করবেন। সে বিষয়েও পর্যায়ক্রমে আলোচনা করবো। 

ভিডিও এডিটিং কি? (What is Video Editing?)

যেহুতু আপনি ভিডিও এডিট করার সফটওয়্যার গুলো সম্পর্কে জানতে এসেছেন। সেহুতু সবার আগে আপনাকে ধারনা রাখতে হবে যে, ভিডিও এডিটিং আসলে কাকে বলে।

যদি আপনি এই বিষয়টা বুঝতে পারেন। তাহলে পরবর্তী আলোচনা গুলো আপনার বুঝতে অনেক বেশি সুবিধা হবে। 

তো একটি সাধারন Video Record থেকে একটি Edit করা Video এর অনেক পার্থক্য রয়েছে। কেননা, যখন আপনি কোনো কিছুকে ভিডিও চিএের মাধ্যমে ধারন করবেন ৷

তখন সেই ভিডিওতে সাধারন ভাবে শুধুমাএ ভিডিও তে ধারন করা অবজেক্ট গুলোকেই দেখা যাবে।

কিন্তুু এই সাধারন ভিডিও গুলোকে যখন ইডিট করা হবে। তখন কিন্তুু ঐ আগের মতো Record Video এর মতো সাধারন অবস্থাতে থাকবে না।

তখন ঐ ভিডিওতে পূর্বের তুলনায় অনেক গুন বেশি আর্কষনীয়তা পাবে। যা দেখে আপনারও বেশ ভালো লাগবে। এর পাশাপাশি অন্য কেউ আপনার ভিডিও দেখতেও আগ্রহ প্রকাশ করবে।

তো ভিডিও এডিটিং কাকে বলে! এটি যদি আমি  আপনাকে যদি এককথায় বলতে যায়।

তাহলে বলবো যে, কোনো একটি ভিডিওকে রেকর্ড করার পরে উক্ত ভিডিওকে আর্কষনীয় করার উদ্দেশ্য বাড়তি কিছু অংশ যুক্ত করা এবং অপ্রয়োজনীয় অংশ গুলোকে সেই ভিডিও থেকে সরিয়ে ফেলার কাজ কে বলা হবে Video Editing. 

কেন ভিডিও এডিটিং জরুরী?

দেখুন, আপনি অনলাইন বলেন আর অফলাইন বলেন। বর্তমানে সময়ে কিন্তুু একজন দক্ষ ভিডিও এডিটর এর ব্যাপক চাহিদা রয়েছে।

কেননা, আজকের দিনে প্রায় সব শ্রেনীর মানুষ ভিডিও দেখতে পছন্দ করে থাকে। যদি আপনি শতকরা হিসেব করেন, তাহলে বলবো যে এখন ১০০ জন মানুষ এর মধ্যে প্রায় ৯০ জন মানুষ ই ভিডিও দেখতে পছন্দ করে।

তবে প্রশ্ন হলো যে, মানুষ কি সব ধরনের ভিডিও দেখতে পছন্দ করে? – এর উওরে বলবো না! বরং মানুষ শুধুমাএ সেইসব ভিডিও গুলো দেখতে পছন্দ করে।

যে ভিডিও গুলো তাদের কাছে ভালো মনে হয়। আর একটি ভিডিও কে মানুষের নিকট পছন্দের অংশ হিসেবে তুলে ধরতে হলে অবশ্যই সেই Video কে মানসম্মত ভাবে Edit করতে হবে।

এছাড়াও বর্তমান সময়ে এমন অনেক ভিডিও শেয়ারিং প্লাটফর্ম তৈরি হয়েছে। যেখানে আপনি আপনার প্রতিভা দেখিয়ে প্রচুর পরিমান টাকা অনলাইন থেকে ইনকাম করে নিতে পারবেন।

যেমন, ইউটিউব হলো তার বাস্তব উদাহরন। যেখানে আপনি যদি একজন দক্ষ ভিডিও মেকার হতে পারেন। তাহলে কিন্তুু আপনি Youtube থেকেই বিপুল পরিমান টাকা আয় করে নিতে পারবেন।

💡PRO TIPS: ভিডিও শেয়ারিং প্লাটফর্ম হিসেবে শুধু ইউটিউব নয়। বরং ইউটিউব এর মতো এমন অনেক প্লাটফর্ম আছে। যেখানে আপনি ভিডিও মেকার হিসেবে কাজ করতে পারবেন ৷ এবং সেখান থেকে আপনি অনলাইন থেকে আয় করে নিতে পারবেন।

ভিডিও এডিটিং কিভাবে শিখব? | How To Learn Video Editing? 

উপরোক্ত আলোচনা গুলো জানার পর আপনাদের মনে একটি প্রশ্ন জাগতে পারে৷ তাহলো, কিভাবে আপনি ভিডিও এডিটিং শিখবেন।

কেননা, এই কাজ গুলো মূলত বিভিন্ন এডিটিং সফটওয়্যার এর মাধ্যমে করা হয়ে থাকে ৷ এখন আপনি যদি সেই সফটওয়্যার গুলোকে ঠিকমতো বুঝতে না পারেন ৷

তাহলে আপনি আশানুরূপ Video Edit করতে পারবেন না।

আমাদের মধ্যে এমন অনেক মানুষ আছেন, যারা এই ভিডিও এডিটিং এর কাজটা কে অনেক সহজ মনে করে থাকে। কেননা, তারা তাদের ফোনে যে এপস গুলো ব্যবহার করে Video ইডিট করে।

সেগুলো তুলনামূলক ভাবে অনেক বেশি সহজ হয়ে থাকে। তাই তারা মনে করে যে এই কাজগুলো তে শেখার মতো তেমন কিছু নেই। কিন্তুু তাদের এই ধারনা কিন্তুু সম্পূর্ন ভুল।

কেননা, ভিডিও এডিটিং হলো বিরাট একটা সেক্টর। যেখানে আপনি কাজ করতে চাইলে আপনাকে অবশ্যই বিভিন্ন বিষয়ে যথেষ্ট ধারনা রাখতে হবে।

কেননা, আপনি যখন প্রফেশনাল মানের ভিডিও এডিট করবেন। তখন আপনাকে Adobe Premiere Pro কিংবা After Effect এর মতো বড় বড় সফটওয়্যার এ কাজ করতে হবে।

আর এই ভিডিও এডিটিং করার সফটওয়্যার গুলোর সাথে আপনি চাইলেও খুব সহজে পরিচিত হতে পারবেন না।

তবে প্রশ্ন হলো যে, কিভাবে আপনি ভিডিও এডিটিং শিখবেন? – আর কোন মাধ্যমে আপনি অন্যদের তুলনায় অনেক দ্রুততার সাথে ভিডিও এডিটিং শিখতে পারবেন? –

চলুন এবার সে নিয়ে একটু জেনে নেয়া যাক।

আপনার জন্য আরো লেখা…

সত্যি বলতে আজকের দিনে শেখার জন্য বিভিন্ন ধরনের সোর্স রয়েছে। যেমন, আপনি যদি একেবারে প্রফেশনাল ভাবে Video Editing শিখতে চান।

তাহলে আপনি বিভিন্ন অভিজ্ঞ ব্যক্তি কিংবা কোনো ভালো আইটি সেন্টারে কোর্স করার মাধ্যমেও শিখে নিতে পারবেন ৷ কেননা, এখানে আপনাকে হাতে কলমে দেখিয়ে এই কাজগুলো কে শেখানো হবে।

অপরদিকে এই কোর্স গুলো করতে বেশ ভালো পরিমান টাকা ব্যয় করতে হবে। আবার এমন অনেক মানুষ আছেন যারা ভিডিও এডিটিং শেখার জন্য এতো বেশি টাকা খরচ করতে চাইবেন না।

সেক্ষেএে আপনি অনলাইন এর আরও বিভিন্ন সোর্স থেকেও শিখে নিতে পারবেন। যেমন, আপনার জন্য ইউটিউব বা গুগল অনেক বেশি কার্যকরী ভূমিকা পালন করে থাকবে। 

ভিডিও এডিট করার সফটওয়্যার

উপরের আলোচনা থেকে আপনি ভিডিও এডিটিং সম্পর্কে অনেক অজানা তথ্য জানতে পেরেছেন।

আশা করা যায় আপনি উপরোক্ত তথ্য গুলো বেশ ভালোভাবে বুঝতে পেরেছেন। তবে এবার আপনাকে জেনে নিতে হবে যে, বর্তমান সময়ে ভিডিও এডিট করার সফটওয়্যার কোনগুলো।

এর পাশাপাশি আপনি আরও কিছু তথ্য সম্পর্কে জানতে পারবেন ৷ তাহলো একজন নতুন মানুষ যদি ভিডিও এডিটিং করতে চায় ৷

আর আপনি যদি মোবাইলে ভিডিও এডিটিং সফটওয়্যার খুজে থাকেন তাহলে আপনার জন্য এই লেখা অনেক হেল্পফুল হবে।

তাহলে তাকে কোন সফটওয়্যার দিয়ে শুরু করা উচিত ৷ সে নিয়েও আমি এখন পর্যায়ক্রমে আলোচনা করার চেস্টা করবো।

চলুন তাহলে এবার সেই ভিডিও এডিট করার apps গুলোর সাথে পরিচিত হওয়া যাক। 

০১| Kinemaster – Pro (Best Video Editing Apps)

মোবাইলে ভিডিও এডিট করার Apps হিসেবে Kinemaster এর ভূমিকা অপরিসীম। যারা মূলত টুকটাক মোবাইল দিয়ে ভিডিও এডিট করে ৷

তারা কোনো না কোনো সময়ে অবশ্যই Kinemaster এর কথা শুনে থাকবে। কেননা, আমার দেখামতে বর্তমান সময়ে কাইনমাস্টার এর মতো ফিচার আর অন্য কোনো এপসে দেয়া হয়নি।

আপনি যদি সেইসব ইউটিউবার এর দিকে লক্ষ্য করেন। যারা মূলত মোবাইল দিয়ে ইউটিউব সেক্টরে কাজ করছে।

তাহলে দেখতে পারবেন যে, তাদের মধ্যে প্রায় সবাই ভিডিও ইডিট করার জন্য এই এপস টিকে ব্যবহার করছে। আর সত্যি বলতে যখন আমার কোনো ভিডিও এডিট করার প্রয়োজন পড়ে।

তখন আমিও এই Kinemaster নামক এপসটি ব্যবহার করে থাকি।

তবে ভিডিও এডিট করার Software হিসেবে উক্ত এপসটি কে ব্যবহার করার পেছনে বেশ কিছু কারন রয়েছে। তার মধ্যে অন্যতম হলো, এর সহজ ইন্টারফেস।

অর্থ্যাৎ আপনি যদি ভিডিও এডিটিং এ একেবারে অ আ ক খ জ্ঞানটুকুও না থাকে। তারপরও আপনার এই Apps এ কাজ করতে তেমন কোনো অসুবিধা হবে না।

আর সমস্যা হলো যে এই ভিডিও এডিট করার apps টি শুধুমাএ মোবাইল অর্থ্যাৎ Android Mobile গুলোর জন্য উন্মুক্ত করে দেয়া হয়েছে।

বর্তমান সময়ে কম্পিউটার এর জন্য এখনও সেভাবে কাজ করা হয়নি ৷ তবে ভবিষ্যতে হয়তবা আপনি এই Kinemaster কে আপনার কম্পিউটারেও ব্যবহার করতে পারবেন।   

০২| FilmoraGo – Free Video Editor

আপনি ভিডিও এডিট করার সফটওয়্যার বলুন কিংবা ভিডিও এডিট করার apps বলুন। এই দুইদিক থেকে বেশ ভালো একটা পজিশনে আছে Filmora Go নামক ভিডিও এডিট করার Software টি।

কেননা, অন্যান্য সফটওয়্যার গুলোর সাথে এটি সমান তালে প্রতিযোগীতা করে আসছে। আর যখন আপনি এটি ব্যবহার করবেন। তখন আপনি নিজেই এই বিষয়টি বুঝতে পারবেন।

সবচেয়ে ভালো দিক হলো যে, এই Filmora Go আপনি মোবাইল ডিভাইস এবং কম্পিউটার ডিভাইস এই দুটোতেই ব্যবহার করতে পারবেন।

আর এতো বড় একটা ভিডিও এডিট করার সফটওয়্যার হওয়ার পরেও এটিকে এমনভাবে ডিজাইন করা হয়েছে।

যার ফলে আপনি খুব সহজেই এটিকে আয়ও করতে পারবেন এবং অল্প সময় এর মধ্যেই আপনি এর মাধ্যমে অনেক ভালো ভাবে ভিডিও এডিট করে নিতে পারবেন।

তবে এই সফটওয়্যার এমন অনেক ফিচার রয়েছে। যার মাধ্যমে আপনি অনেক সহজভাবে ভিডিও ইডিট করে নিতে পারবেন।

তবে আপনি যদি আরও প্রফেশনাল ভাবে ভিডিও এডিট করতে চান। তাহলে আপনাকে Filmora Go এর প্রিমিয়াম মেম্বার হতে হবে।

তাহলে আপনি পূর্বের তুলনায় অনেক বেশি পরিমানে ফিচার ব্যবহার করতে পারবেন। এবং আপনার এডিট করা ভিডিও কে আর্কষনীয় করে তুলতে পারবেন। 

০৩| VivaVideo – editor and photo movie

মোবাইল দিয়ে মাএ কয়েক মিনিটে যেকোনো ভিডিও কে আর্কষনীয় করে তোলার জন্য উপযুক্ত একটি ভিডিও এডিট করার apps হলো Viva Video.

যার মাধ্যমে একজন নতুন মানুষও খুব অল্প সময়ের মধ্যে যে কোনো ধরনের ভিডিও কে ইডিট করে নিতে পারবে।

সত্যি বলতে আপনি ফেসবুকে বিভিন্ন ধরনের স্ট্যাটাস ভিডিও দেখে থাকবেন। যেগুলো তে কখন একটি পিকচার এর উপরে বিভিন্ন ধরনের Effect দিয়ে সাথে একটি অডিও গান যুক্ত করে আপলোড করে দেয়া হয়।

আর যেহুতু আপনিও ফেসবুক ব্যবহার করেন। সেহুতু আপনার নিউজফিডেও এমন অনেক ধরনের ভিডিও এসে থাকবে। 

আর এটা তো আমরা সবাই জানি যে, এই ধরনের ভিডিও গুলোতে প্রচুর পরিমানে ভিউ হয়ে থাকে। আর একটি ভিডিও তে তখনি ভিউ হয়।

যখন সেই ভিডিওটি আর্কষনীয় হয়। আর এই আর্কষনীয় ভিডিও তৈরি করার কাজটি আপনি সহজেই করতে পারবেন ৷ এই Viva Video Apps এর মাধ্যমে।

এই এপসে আপনি বিভিন্ন ধরনের ভিডিও ব্যবহার করার সুযোগ পাবেন। এছাড়াও ভিডিও কে নানা রকম ফিল্টার দিতে পারবেন।

এর পাশাপাশি আরও অনেক ধরনের স্টিকার পাবেন। যেগুলোর বেশিরভাগ ই আপনি একেবারে বিনামূল্যে ব্যবহার করতে পারবেন।

তো চাইলে আপনি এই এপস টি একবার হলেও ব্যবহার করে দেখতে পারেন। আশা করি আপনারও অনেক ভালো লাগবে। 

০৪| Power Director -Create Your Video

যদি আপনি ভালো কোনো ভিডিও এডিট করার সফটওয়্যার এর সাথে তুলনা করেন। তাহলে সবার আগে যে নামটি আসবে।

তা হলো Power Director Video Editor এর নাম। আর যারা মূলত টুকিটাকি ভিডিও এডিট করার কাজ করে। তারা কোনো একটা সময়ে অবশ্যই এই সফটওয়্যার এর নাম শুনে থাকবেন।

এটি হলো এমন একটি ভিডিও এডিট করার Software. যার মাধ্যমে আপনি অনেক প্রফেশনাল মানের ভিডিও ইডিট করে নিতে পারবেন।

কেননা, এই সফটওয়্যার এর সহজ ইন্টারফেস এর সাথে সাথে রয়েছে নজর কারানো কিছু ফিচার। যেগুলো দেখে আপনি মুগ্ধ না হয়ে থাকতে পারবেন না।

আপনি আরো পড়ুন…

সব ধরনের আর্কষনীয় ফিচার এর পাশাপাশি আপনি এই সফটওয়্যার এর নিজস্ব একটি Audio Library দেখতে পারবেন। যে মিউজিক গুলো আপনি একেবারে ফ্রিতেই ব্যবহার করতে পারবেন ৷

যা আপনার প্রজেক্ট সম্পন্ন করতে অনেক গুন সহায়তা করবে।

আর একটা কথা, সেটি হলো এই Power Director নামক ভিডিও এডিট করার সফটওয়্যার টি আপনি মোবাইল ডিভাইস থেকে শুরু করে কম্পিউটার ডিভাইস পর্যন্ত আপনি সব খানেই ব্যবহার করতে পারবেন।

তো চাইলে আপনি এই সফটওয়্যার টিও একবার ব্যবহার করে দেখতে পারেন। 

Best Video Editing App For Mobile & Computer Device 

বর্তমান সময়ে এমন অনেক ধরনের সফটওয়্যার বা এপস আছে। যেগুলোর মাধ্যমে আপনি অনেক ভালো মানের ভিডিও ইডিট করতে পারবেন ৷

কিন্তুু আমি যদি প্রত্যেকটা সফটওয়্যার কে বিস্তারিত ভাবে আলোচনা করি। তাহলে আর্টিকেলটা অনেক বেশি বড় হবে।

তাই আপনার সময় বাঁচানোর জন্য আমি বেশ কিছু ভিডিও এডিট করার Software এর লিস্ট দিচ্ছি। আপনি নিজে থেকে এই সফটওয়্যার গুলোর ফিচার দেখে নিতে পারবেন। যেমনঃ- 

  • Adobe Premiere Clip
  • Quik video editor
  • Magisto – editor & slideshow maker

ভিডিও এডিটিং সফটওয়্যার for Computer

এছাড়াও আপনি যদি কম্পিউটার অথবা ল্যাপটপ থেকে কোন ধরনের ভিডিও এডিট করতে চান তাহলে নিচের সফটওয়্যার গুলোর মাধ্যমে ভিডিওগুলো অনেক ধরনের একটা মাধ্যমে এডিট করে নিতে পারবেন।

অন্য একটি আর্টিকেলে আমি দেখাবো ভিডিও এডিটিং এর জন্য কম্পিউটার এর কোন সফটওয়্যার টি বেস্ট এবং নতুন যারা ভিডিও এডিটিং শিখবে তারা কোন সফটওয়্যার ব্যবহার করবে।

  • Camtasia Studio 
  • Filmora
  • Adobe Premiere Elements
  • Adobe Premiere Pro CC
  • Sony Vegas

তো উপরোক্ত এপস বা সফটওয়্যার গুলো অনেক মানসম্মত। আর আপনি যদি এগুলো ব্যবহার করেন।

তাহলে আশা করা যায় যে, আপনিও অন্যদের মতো অনেক আর্কষনীয় ভিডিও এডিট করে নিতে পারবেন৷ 

আজকে আমরা কি কি শিখলাম? 

আজকে আপনি কি কি শিখলেন ৷ আপনার কি মনে আছে নাকি ভুলে গেছেন? -হুমমম! আপনি যেন ভুলে না যান। সেজন্য পুনরায় আরেকবার আজকের আলোচিত বিষয় গুলো রিপিড করবো।

আজকে আমরা এমন অনেক গুরুত্বপূর্ণ বিষয় সম্পর্কে জেনেছি। যেমনঃ 

  • ছবি এডিট করার সফটওয়্যার
  • মোবাইল দিয়ে ভিডিও এডিটিং সফটওয়্যার
  • সেরা ভিডিও এডিটিং সফটওয়্যার
  • ফ্রি ভিডিও এডিটিং সফটওয়্যার
  • মোবাইলে ভিডিও এডিটিং সফটওয়্যার ২০২১
  • ভিডিও এডিটিং কিভাবে শিখব

তো আশা নয় বরং আমার বিশ্বাস আছে যে, আপনি উপরোক্ত বিষয় গুলো বেশ ভালোভাবে বুঝতে পেরেছেন। এবং আজকের আলোচিত ভিডিও এডিট করার সফটওয়্যার গুলো আপনার অনেক ভালো লাগবে। 

ভিডিও এডিট করার সফটওয়্যার নিয়ে আমাদের শেষকথা 

আজকের আর্টিকেলে আমি ভিডিও এডিট করার সফটওয়্যার গুলো নিয়ে স্টেপ বাই স্টেপ আলোচনা করার চেস্টা করেছি। 

আমার বিশ্বাস আছে আমার এই সহজ লেখনি থেকে আপনি আলোচিত বিষয় গুলো বেশ ভালোভাবেই বুঝতে পেরেছেন।

তবে হ্যাঁ! এরপরও যদি আপনার মনে আরও কোনো প্রশ্ন থাকে। কিংবা আরও কোনো বিষয় সম্পর্কে জানতে চান। তাহলে নিচের দিকে ছোট্ট করে একটা কমেন্ট করে জানাবেন।

আমি যথাসাধ্য চেষ্টা করবো আপনার সমস্যার সমাধান করার।

আর এমন সব ইন্টারেস্টিং টিপস এন্ড ট্রিকস পেতে অবশ্যই Bangla it blog এর সাথেই থাকবেন। ধন্যবাদ 

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই লেখা কপি করবেন না!
Scroll to Top
Share via
Copy link
Powered by Social Snap