ডার্ক ওয়েব কি | Dark web এ কি কি কাজ করা হয় | Dark web in bengali

Dark web কি : প্রিয় বন্ধুরা, আমাদের এই ওয়েবসাইটে প্রতিনিয়ত টেকনোলজি রিলেটেড নতুন নতুন আর্টিকেল পাবলিশ করা হয়।

ডার্ক ওয়েব কি | Dark web এ কি কি কাজ করা হয় | Dark web in bengali
ডার্ক ওয়েব কি

এবং প্রত্যেকটা আর্টিকেল থেকে আপনারা টেকনোলজি সম্পর্কিত অনেক অজানা বিষয় সম্পর্কে জানতে পারেন।

আর সেই ধারাবাহিকতা বজায় রাখার জন্য আজকের আর্টিকেলে আমি আপনাদের সাথে ডার্ক ওয়েব কি বা ডার্ক ওয়েব মানে কি বিস্তারিত আলোচনা করব।

আমরা যারা ইন্টারনেট ব্যবহার করি, তাদের মধ্যে অধিকাংশ মানুষের মনে Dark Web নিয়ে নানা ধরনের প্রশ্ন রয়েছে। এর পাশাপাশি ডার্ক ওয়েব সম্পর্কে সঠিক ধারণা না থাকার কারণে।

আমাদের মধ্যে এমন অনেক মানুষ আছেন, যারা এই ডার্ক ওয়েব কে নিয়ে বিভিন্ন রকম মন্তব্য করে থাকে। তবে সেই মন্তব্য গুলোর মধ্যে কিছু সঠিক আবার কিছু কিছু মন্তব্যে যথেষ্ট পরিমাণ ভুল আছে।

কারণ আপনি এমন অনেক মানুষকে খুঁজে পাবেন, যারা মূলত মনে করে যে এই dark web শুধুমাত্র খারাপ কাজের উদ্দেশ্যে ব্যবহার করা হয়।

তো যে মানুষ গুলো মনে করেন যে dark web শুধুমাত্র খারাপ কাজের জন্য ব্যবহার করা হয়ে থাকে। তাদের ধারণা সম্পূর্ণ ভুল, কারণ ডার্ক ওয়েব শুধুমাত্র খারাপ কাজের জন্য ব্যবহার করা হয় না।

বরং একটি দেশের বিভিন্ন রকম ডকুমেন্টস গুলোকে সুরক্ষিত রাখার কাজেও কিন্তু এই ডার্ক ওয়েব ব্যবহার করা হয়।

যেমন ধরুন, কোনো একটি দেশের সেনা বাহিনীর বিভিন্ন রকম ডকুমেন্টস গুলো সর্ব সাধারণের জন্য এক্সেস দেওয়া হয় না। সে ক্ষেত্রে কিন্তু এই ধরনের প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস গুলো ডার্ক ওয়েব এর মাধ্যমে সংরক্ষিত করে রাখা হয়।

তবে আমি এটা বলব না যে, ডার্ক ওয়েব শুধুমাত্র ভালো কাজের জন্য ব্যবহার করা হয়। কারণ প্রত্যেকটা প্ল্যাটফর্মের একটা খারাপ দিক রয়েছে এবং ভালো দিক রয়েছে।

আপনার জন্য আরোও লেখা…

তবে এই সব গুলো দিক নিয়ে আজকের এই আর্টিকেলে বিস্তারিত ভাবে আলোচনা করা হবে। তাই আপনার মনে যদি এই ডার্ক ওয়েব সম্পর্কে জানার ইচ্ছা থাকে।

তাহলে চেষ্টা করবেন আজকের পুরো আর্টিকেল টি মনোযোগ সহকারে পড়ার। কারণ আজকের এই আর্টিকেলে ডার্ক ওয়েব সম্পর্কিত আপনাদের মনে যে সকল প্রশ্ন রয়েছে।

তার সব গুলো প্রশ্নের উত্তর দেয়ার চেষ্টা করব। এর পাশাপাশি আমি আপনাদের দেখানোর চেষ্টা করব যে, কিভাবে আপনি আপনার মোবাইল অথবা কম্পিউটার থেকে এই ডার্ক ওয়েব এর মধ্যে প্রবেশ করবেন।

ডার্ক ওয়েব কি (What is dark web in Bengali)

আজকের এই আর্টিকেলে আমি আপনাদের ডার্ক ওয়েব সম্পর্কিত সব কিছু বিষয় নিয়ে আলোচনা করব। তবে সবার শুরুতে আপনাকে জেনে নিতে হবে যে ডার্ক ওয়েব কি (Dark web কি)।

কেননা যখন আপনি জানতে পারবেন যে ডার্ক ওয়েব কি, তখন আপনার পরবর্তী আলোচনা গুলো বুঝতে সুবিধা হবে। তাহলে চলুন সবার শুরুতেই জেনে নেওয়া যাক যে, এই ডার্ক ওয়েব কি (Dark web ki).

যদি আমি আপনাকে খুব সহজ ভাবে বুঝিয়ে বলার চেষ্টা করি যে, ডার্ক ওয়েব কি। তাহলে আমি আপনাকে বলবো যে, ইন্টারনেট এর বৃহৎ অংশের মধ্যে যে অংশটুকু বিভিন্ন রকম সার্চ ইঞ্জিন এর মাধ্যমে ইন্ডেক্স হয় না।

মূলত সেই ইন্ডেক্স না হওয়া অংশটুকু কে বলা হয়ে থাকে, ডার্ক ওয়েব। অর্থাৎ যদি আমরা ইন্টারনেট এর পরিমাণ কে শতভাগ হিসাবে ধারণা করি।

তাহলে সেই শতভাগ এর মধ্যে মাত্র কয়েক অংশ আমরা আমাদের কাজের জন্য ব্যবহার করতে পারি।

কিন্তু এর বাইরে আরও ইন্টারনেট এর বিরাট একটা অংশ আমাদের অজানা থেকে যায়। মূলত এই অজানা অংশটুকু কে বলা হয়ে থাকে ডার্ক ওয়েব।

যারা মূলত ইন্টারনেট নিয়ে নিয়মিত গবেষণা করে। তাদের ভাষ্যমতে আমরা সাধারন মানুষ ইন্টারনেট এর শুধুমাত্র 4%-10% পারসেন্ট অংশকে ব্যবহার করতে পারি।

এবং বর্তমান সময়ে আমরা আমাদের মোবাইল অথবা কম্পিউটার ডিভাইসের মাধ্যমে শুধুমাত্র এই চার ভাগ ইন্টারনেট এর অংশ থেকে নিজের প্রয়োজনীয় কাজ গুলো করে থাকি।

আর এই সামান্য অংশটুকু কে বলা হয়ে থাকে, সারফেস ওয়েব। তবে ইন্টারনেট এর 100 ভাগের মধ্যে আমরা শুধুমাত্র এই চার ভাগ ব্যবহার করতে পারলেও।

এর বাইরে কিন্তু ইন্টারনেট এর আরো 96 ভাগ অংশ রয়েছে। আর সেই বড় অংশ জুড়ে রয়েছে ডিপ ওয়েব এবং ডার্ক ওয়েব।

সত্যি বলতে ডার্ক ওয়েব এর মধ্যে এমন কিছু ওয়েবসাইট রয়েছে। যেগুলো আমাদের ব্যবহার করা ব্রাউজার গুলো থেকে কখনোই এক্সেস নেয়া সম্ভব নয়।

কেননা এই ধরনের ব্রাউজার থেকে উক্ত ডার্ক ওয়েবের ওয়েবসাইট গুলো কে একেবারে লুকিয়ে রাখা হয়েছে। যাতে করে সাধারণ মানুষ কোন ভাবেই সেই ওয়েবসাইট গুলো তে পৌঁছাতে না পারে।

আর সে কারণেই মূলত এই ডার্ক ওয়েব এর মধ্যে যেসব তথ্য থাকে। সেই তথ্য গুলো কিন্তু কখনোই গুগল, ইয়াহু এর মত সার্চ ইঞ্জিন গুলোতে ইন্ডেক্স হয় না।

যার ফলে আমরা সাধারণ ভাবে সেই ডার্কওয়েব এ থাকা তথ্য গুলো কে জানতে পারি না।

Dark web কিভাবে কাজ করে ?

উপরের আলোচনা থেকে আপনি জানতে পারলেন যে ডার্ক ওয়েব কি। আশা করি এই আলোচনা থেকে আপনারা মনে ডার্ক ওয়েব সম্পর্কিত যে ধারণা ছিল।

সেটি পুরোপুরি ভাবে পরিষ্কার হয়ে গেছে। কারণ উপরের আলোচনায় আমি ডার্ক ওয়েব কি সেই বিষয়টি কে খুব সহজ ভাবে বুঝিয়ে বলার চেষ্টা করেছি।

তবে এখন হয়তবা আপনার মনে আরও একটি প্রশ্ন জেগে থাকতে পারে যে। এই ডার্ক ওয়েব আসলে কিভাবে কাজ করে। সচরাচর ক্ষেত্রে আমরা যখন আমাদের মধ্য থেকে কোন একটি ওয়েবসাইটে প্রবেশ করি।

তখন কিন্তু আমরা সেই ওয়েবসাইটে থাকা তথ্য গুলো কে দেখতে পাই। কিন্তু এই ডার্ক ওয়েব এর মধ্যে তো সহজে এক্সেস নেওয়া সম্ভব নয়, তাহলে এই ডার্ক ওয়েব আসলে কিভাবে কাজ করে!

চলুন এবার তাহলে সে বিষয়টি সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা যাক।

যখন আমাদের ইন্টারনেট ব্যবহার করার প্রয়োজন হয়ে থাকে। তখন কিন্তু আমরা আমাদের এই ডিভাইস থেকে বিভিন্ন ধরনের ব্রাউজার ব্যবহার করি।

এবং সেই ব্রাউজারের মাধ্যমে ইন্টারনেট এর জগতে প্রবেশ করতে পারি। কিন্তু আপনি যদি এই ডার্ক ওয়েব এর মধ্যে প্রবেশ করতে চান।

তাহলে কিন্তু আপনার ডিভাইসে থাকার সাধারণ ব্রাউজার গুলো দিয়ে আপনি কখনই এই ডার্ক ওয়েব এর মধ্যে প্রবেশ করতে পারবেন না।

কারণ এই ধরনের সাধারণ ব্রাউজার গুলো কে কখনোই ডার্ক ওয়েবের মধ্যে প্রবেশ করার এক্সেস দেওয়া হয় না। তবে এখন হয়তো বা আপনি ভাবছেন যে কিভাবে আপনি এই ডার্ক ওয়েবের মধ্যে প্রবেশ করবেন।

তো আপনি যদি আপনার ডিভাইস থেকে এই ডার্ক ওয়েব এর মধ্যে প্রবেশ করতে চান। তাহলে অবশ্যই আপনার ডিভাইসে নির্দিষ্ট একটি ব্রাউজার থাকতে হবে।

এবং সেই ব্রাউজারের নাম হল টর ব্রাউজার (Tor Browser). মূলত এটি হল এমন এক ধরনের ব্রাউজার। যার মাধ্যমে আপনি ডার্ক ওয়েবের যেকোনো ধরনের ওয়েবসাইটে এক্সেস নিতে পারবেন।

তবে আপনি এই ব্রাউজারের মাধ্যমে খুব সহজেই ডার্ক ওয়েব এর মধ্যে প্রবেশ করতে পারলেও। যখন আপনি সেই ডার্ক ওয়েবে প্রবেশ করবেন।

তখন আপনি একটা বিষয় লক্ষ্য করলে দেখতে পারবেন যে। এর মধ্যে থাকা ওয়েবসাইট গুলোতে যেসব এক্সটেনশন ব্যবহার করা হয়। সেগুলো কিন্তু সম্পূর্ণ ভিন্ন।

কারণ আমরা যখন কোন একটি ওয়েবসাইটের মধ্যে প্রবেশ করেন। তখন সেই ওয়েবসাইটে থাকার ডোমেইন এর মধ্যে বেশ কিছু কমন এক্সটেনশন থাকে যেমন, com/info/net/org/ ইত্যাদি।

কিন্তু আপনি যদি ডার্ক ওয়েব এর মধ্যে প্রবেশ করেন। তাহলে প্রত্যেকটা ওয়েবসাইটের শেষে আপনি শুধুমাত্র একটি এক্সটেনশন দেখতে পারবেন। আর সেই এক্সটেনশন এর নাম হলো Onion.

আর এই ডোমেইন এক্সটেনশন টির মূল বৈশিষ্ট্য হলো এটি এক ধরনের এনক্রিপটেড ডোমেইন। যার ফলে আমাদের সাধারন সার্চ ইঞ্জিন গুলো এই ধরনের ওয়েবসাইট এর মধ্যে থাকা তথ্য গুলোকে নিজের মধ্যে ইনডেক্স করতে পারে না।

এই কারণে ডার্ক ওয়েব এর মধ্যে যেসব ওয়েবসাইট আছে। সেই ওয়েবসাইট এ থাকা তথ্য গুলো আমাদের মধ্যে অজানাই থেকে যায়।

ডার্ক ওয়েব এ কি কি কাজ হয় ?

আর্টিকেল এর শুরুতেই আমি আপনাকে একটা কথা বলেছি। আর সেই কথাটি হলো, প্রত্যেকটা প্ল্যাটফর্মের যেমন ভাল দিক থাকে।

ঠিক তেমনি ভাবে প্রতিটা প্ল্যাটফর্ম এর কোন না কোন খারাপ দিক থাকে। আর আপনি যদি ডার্ক ওয়েব এর দিকে লক্ষ করেন।

তাহলে আপনি এই বিষয়টি বেশ ভালোভাবে বুঝতে পারবেন। কেননা ডার্ক ওয়েব কে মূলত ভাল কাজে ব্যবহার করার পাশাপাশি খারাপ কাজের জন্য ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

এখন হয়তবা আপনার মনে একটি প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে যে। এতদিন আপনি জেনে এসেছেন ডার্ক ওয়েব এর মধ্যে শুধুমাত্র ক্রাইম, হ্যাকিং এই জাতীয় বিষয় গুলো থাকে।

এখন  আপনি আমার কাছ থেকে শুনছেন যে, ডার্ক ওয়েব এর মধ্যে আবার ভালো কাজ হয়। তবে সেই খারাপ এবং ভালো কাজ গুলো আসলে কি কি।

মনে করুন, আপনি আমাদের বাংলাদেশের একজন সরকার। এবং আপনি এই দেশকে পরিচালনা করেন। এখন আপনার এমন অনেক গুরুত্বপূর্ণ বিষয় থাকবে যে গুলো আসলে আপনি আপনার দেশের মানুষকে জানাতে চাইছেন না।

কিংবা আপনি সেই তথ্য গুলো কে অন্য কোন দেশের মানুষ কে জানাতে চান না। সে ক্ষেত্রে আপনি এই ধরনের তথ্য গুলো কে কিভাবে ইন্টারনেট এর মধ্যে আবদ্ধ করে রাখবেন।

তো এই পরিস্থিতি তে আপনার জন্য সবচেয়ে উপযুক্ত একটি প্ল্যাটফর্ম হবে, ডার্ক ওয়েব। কেননা এটি হলো এমন এক ধরনের অনলাইন প্লাটফর্ম।

যেখানে আপনি আপনার প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস এবং তথ্যকে খুব সহজেই গোপন করে রেখে দিতে পারবেন। যে তথ্য গুলো কোনো ভাবেই সর্ব সাধারণের সামনে আর আসবে না।

আবার বিষয়টি কে আর একটু আলাদা ভাবে চিন্তা করে দেখুন। মনে করুন আপনি একজন বড় মাপের হ্যাকার। এবং আপনি কোন একটি দেশের গুরুত্বপূর্ণ কোন তথ্য কিংবা সেই দেশের কোন একটি বড় ব্যাংক হ্যাকিং করেছেন।

সে ক্ষেত্রে আপনি এই হ্যাকিং করা তথ্য গুলো কে কোথায় জমা করে রাখবেন! যদি আপনি সারফেস ওয়েব এর মধ্যে আপনার এই ডকুমেন্ট গুলো জমা করে রাখেন।

তাহলে কিন্তু সেই ডকুমেন্ট গুলো চুরি হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকবে। কিন্তু আপনি যদি আপনার সেই হ্যাক করা তথ্য গুলো কে পুনরায় ডার্ক ওয়েবের মধ্যে জমা করে রাখেন।

তাহলে কিন্তু সেই তথ্য গুলো চুরি হওয়ার সম্ভাবনা একে বারেই থাকবে না।

আপনি আরোও পড়তে পারেন…

একটা কথা বলা বাহুল্য যে, বর্তমান বিশ্বে সব উন্নত দেশ গুলো তে থাকা বিখ্যাত ব্যক্তিরা। তাদের প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস থেকে শুরু করে তাদের দেশ এবং জাতির জন্য অনেক তথ্য কে। তারা এই ডার্ক ওয়েবের মধ্যে লুকায়িত করে রাখে।

আর অধিকাংশ দেশের সেনাবাহিনী সহ ডিফেন্স এর মধ্যে থাকা তথ্য গুলো এই ডার্ক ওয়েব এর মধ্যে গোপন করে রাখা হয়।

যে গুলো সম্পর্কে আর অন্য কেউ জানতে পারে না। তবে এটি হলো ডার্ক ওয়েবের ভালো একটা দিক। কিন্তু এর বাইরে ডার্ক ওয়েবের বড় একটা অংশ জুড়ে খারাপ দিক রয়েছে।

চলুন সেই খারাপ দিকটা সম্পর্কে এবার একটু আলোকপাত করা যাক।

দেখুন ডার্ক ওয়েব এর মধ্যে যেসব খারাপ দিক রয়েছে। সেগুলোর মধ্যে অন্যতম হলো, ক্রাইম। কারণ বিশ্বের যেসব বড় বড় ক্রাইম গুলো হয়।

তাদের মধ্যে অধিকাংশ ক্রাইম এর আলাপ আলোচনা গুলো এই ধরনের ডার্ক ওয়েব এর মধ্যে সংঘটিত হয়ে থাকে। যার কারণে এই ধরনের ডার্কওয়েবে থাকা বিষয় গুলো সম্পর্কে তারা ছাড়া আর অন্য কোন মানুষ জানতে পারেনা।

যেমন ধরুন, আপনি বাংলাদেশের বসে আছেন এবং বাংলাদেশ থেকে অন্য কোন দেশের মানুষের সাথে বড় একটা ক্রাইম করার জন্য আলোচনা করলেন।

সে ক্ষেত্রে কিন্তু আপনাদের আলোচিত আলোচনা গুলো ফাঁস হওয়ার কোনো সুযোগ থাকবে না। কেননা সেই ডার্ক ওয়েব এর মধ্যে আপনাদের ওয়েবসাইট কে এমনভাবে লুকায়িত করা হবে।

যাতে করে এই ওয়েবসাইটে আপনারা ছাড়া আর কেউ এক্সেস নিতে পারবে না।

এর পাশাপাশি আপনি ডার্ক ওয়েব এর মধ্যে এমন কিছু ওয়েবসাইট দেখতে পারবেন। যেখানে মূলত পর্নোগ্রাফির দিক থেকে অনেক জঘন্যতম অংশে ভরপুর রয়েছে।

যেমন ধরুন, বর্তমান বিশ্বের প্রত্যেকটা দেশে শিশু যৌন হল মারাত্মক একটা আইন বিরোধী কাজ। কিন্তু আপনি যদি ডার্ক ওয়েব এর মধ্যে প্রবেশ করেন।

তাহলে এই ডার্ক ওয়েব এর মধ্যে এমন কিছু কিছু ওয়েব সাইট আছে। যেখানে আমাদের শিশু যৌন এর ভিডিও গুলো পাবলিশ করা হয়।

এবং সেই ওয়েবসাইট গুলো তে আপনি এই ধরনের বিকৃত মস্তিষ্কের পর্ন ভিডিও দেখতে পারবেন। এর পাশাপাশি আরও এমন অনেক ধরনের ওয়েবসাইট পাবেন।

যেখানে মূলত আরো বিকৃত যৌনাচারের ভিডিও দেখতে পাওয়া যাবে। মূলত এ গুলোই হল ডার্ক ওয়েব এর বেশ কিছু খারাপ দিক।

ডার্ক ওয়েব কিভাবে ব্যবহার করতে হয় ?

উপরের আলোচনা থেকে আপনি ডার্ক ওয়েব সম্পর্কিত বিভিন্ন বিষয় সম্পর্কে জেনে নিতে পেরেছেন। সবার শুরুতেই আপনি জানতে পেরেছেন যে ডার্ক ওয়েব কি।

এরপর আপনি জেনেছেন যে ডার্ক ওয়েব এর মধ্যে কি কি কাজ করা হয়। এবং এই dark web আসলে কিভাবে কাজ করে। আশা করি উপরে আলোচিত বিষয় গুলো আপনি খুব সহজ ভাবে বুঝতে পেরেছেন।

তবে এবার আপনাকে আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় সম্পর্কে জেনে নিতে হবে। আর সেই বিষয় টি হলো ডার্ক ওয়েব কিভাবে ব্যবহার করতে হয়।

অর্থাৎ আপনি যদি আপনার ডিভাইস থেকে ডার্ক ওয়েব ব্যবহার করতে চান। তাহলে আপনাকে আসলে কি কি কাজ করতে হবে। তো চলুন এবার জেনে নেওয়া যাক যে কিভাবে ডার্ক ওয়েব ব্যবহার করতে হয়।

কিভাবে মোবাইল দিয়ে ডার্ক ওয়েব ব্যবহার করব?

  1. সবার আগে আপনাকে আপনার মোবাইল ফোন থেকে গুগল প্লে স্টোরে যেতে হবে।
  2. যখন আপনি গুগল প্লে স্টোরে যাবেন তখন আপনাকে একটি অ্যাপস ইনস্টল করে নিতে হবে।
  3. আর সেই অ্যাপস এর নাম হলো Tor Browser 
  4. যখন আপনি সেই অ্যাপসটি আপনার ফোনে ইন্সটল করে নিবেন। তখন আপনি উক্ত অ্যাপসটি ওপেন করবেন।
  5. পরবর্তী সময়ে আপনি ডার্ক ওয়েবের বিভিন্ন ওয়েবসাইট এর লিঙ্ক এই ব্রাউজার এর মধ্যে প্রবেশ করাবেন। এবং সরাসরি আপনি ডার্ক ওয়েবের মধ্যে থাকা সেই ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে পারবেন।

কিভাবে কম্পিউটার দিয়ে ডার্ক ওয়েব ব্যবহার করব?

  1. আপনি যদি আপনার কম্পিউটার থেকে এই ডার্ক ওয়েব এর মধ্যে প্রবেশ করতে চান। তাহলে প্রথমে আপনাকে একটি সফটওয়্যার ইন্সটল করে নিতে হবে।
  2. এই সফটওয়্যার এর নাম হলো Tor Browser.
  3. যখন আপনি উক্ত সফটওয়্যারটি আপনার কম্পিউটারে ইনস্টল করবেন। তখন আপনি সেই সফটওয়ারটি ওপেন করবেন।
  4. মনে রাখবেন যখন আপনি এই সফটওয়্যারটি আপনার কম্পিউটারে ওপেন করবেন। তখন কোনভাবেই আপনি এই সফটওয়্যারটি কে ফুল স্ক্রিন মোড করবেন না।
  5. এর পরবর্তী ধাপে আপনি ডার্ক ওয়েবের বিভিন্ন ওয়েবসাইটের লিংক কপি করে উক্ত ব্রাউজার এর মধ্যে প্রবেশ করাবেন। এবং তারপরে আপনি সেই ওয়েবসাইটে সরাসরি ভিজিট করতে পারবেন।

দেখুন ডার্ক ওয়েবে প্রবেশ করার জন্য আপনাকে নির্দিষ্ট একটি ব্রাউজার ব্যবহার করতে হবে। এবং সেই ব্রাউজারটি অবশ্যই আপনার ডিভাইসে ইন্সটল থাকতে হবে।

আর যখন আপনি আপনার ডিভাইসে উক্ত ব্রাউজারটি ইনস্টল করবেন। ঠিক তখনি আপনি সেই ব্রাউজার কে কাজে লাগিয়ে ডার্ক ওয়েবের বিভিন্ন ওয়েবসাইটে ভিজিট করতে পারবেন।

DarkNet Markets কি ?

আমাদের মধ্যে এমন অনেক মানুষ রয়েছেন। যাদের মনে একটি প্রশ্ন আছে। আর সেই প্রশ্ন টি হল যে, ডার্ক ওয়েব থেকে ইনকাম করা সম্ভব কি না।

তবে আপনি একজন সাধারন মানুষ হিসেবে এই ডার্ক ওয়েব থেকে ইনকাম করতে পারবেন কিনা। সে সম্পর্কে আমি আপনাকে কোন প্রকার ধারণা দিতে পারবো না।

কিন্তু আমি একটা বিষয় সম্পর্কে আপনাকে ধারণা দিতে পারব। আর সেটি হল যে, আপনি ডার্ক ওয়েব এর মধ্যে একটি কমার্শিয়াল ওয়েবসাইট দেখতে পারবেন।

যেটি মূলত Tor/I2P মাধ্যমে পরিচালনা করা হয়। তবে কমার্শিয়াল ওয়েবসাইটে আপনি বিভিন্ন ধরনের অবৈধ পণ্য সামগ্রী কিনে নিতে পারবেন।

যে পণ্য সামগ্রী গুলো সম্পূর্ণভাবে বেআইনি। আর এই ধরনের বেআইনি কোনো লেনদেন করার বিশেষ একটি কমার্শিয়াল ওয়েবসাইট কে বলা হয়ে থাকে DarkNet Markets.

ডার্ক ওয়েব নিয়ে সতর্কতা

উপরের এই আলোচনা থেকে আপনি কি ডার্ক ওয়েব সম্পর্কিত বিভিন্ন বিষয় সম্পর্কে জানার পর। এবাল আপনি সেই ডার্ক ওয়েব এর মধ্যে প্রবেশ করার ইচ্ছা পোষণ করতে পারেন।

কারণ মানুষ হিসেবে আমরা সেই সব বিষয় গুলোর প্রতি একটু বেশি আকৃষ্ট হই। যে বিষয় গুলো সম্পূর্ণভাবে অবৈধ। আর সে কারণেই যখন আপনি এই ডার্ক ওয়েব সম্পর্কে চমৎকার সব তথ্য গুলো জানতে পারবেন।

তখন সচরাচর ক্ষেত্রে আপনার এই ডার্ক ওয়েব এর ভেতরে থাকা বিভিন্ন ওয়েবসাইট ভিজিট করার ইচ্ছা জাগতে পারে।

কিন্তু যদি আপনি এই ডার্ক ওয়েব এর মধ্যে প্রবেশ করতে চান। তাহলে আপনাকে আগে থেকেই বেশ কিছু সতর্কতা মূলক বিষয়ে জেনে নিতে হবে।

কারন আমি বারবার একটা কথা বলেছি যে, ডার্ক ওয়েবের মধ্যে যেমন ভালো দিক আছে। ঠিক তেমনি ভাবে খারাপ দিক রয়েছে।

আর একজন সাধারন মানুষের ক্ষেত্রে যখন ডার্ক ওয়েবের মধ্যে প্রবেশ করতে যাবেন। তখন অবশ্যই সেই মানুষটি কে এই ডার্ক ওয়েব নিয়ে সতর্কতা মূলক বিষয় গুলো সম্পর্কে পরিষ্কার ভাবে জেনে নিতে হবে।

আর আপনি যদি কোন ভাবে এই সতর্কতামূলক বিষয়গুলো না জেনেই ডার্ক ওয়েবের মধ্যে প্রবেশ করেন। সেক্ষেত্রে কিন্তু আপনি নানা ধরনের ক্ষতির সম্মুখীন হতে পারেন।

চলুন এবার তাহলে সেই ডার্ক ওয়েব নিয়ে সতর্কতামূলক বিষয়গুলো সম্পর্কে বিস্তারিতভাবে জেনে নেওয়া যাক।

Viruses

আপনি জানলে অবাক হয়ে যাবেন যে ডার্ক ওয়েব এর মধ্যে এমন বেশ কিছু ওয়েবসাইট আছে। যে ওয়েবসাইট গুলোতে আপনি প্রবেশ করার সাথে সাথেই আপনার ডিভাইসে অটোমেটিক ভাবে বিভিন্ন ধরনের ভাইরাস প্রবেশ করবে।

আর আপনি যদি অসাবধানতা বশত সেই ওয়েবসাইট গুলোতে প্রবেশ করেন। তাহলে কিন্তু আপনি নিজেই নিজের ক্ষতি করে বসবেন।

Hackers 

ডার্ক ওয়েবের আরো একটি মজার তথ্য রয়েছে। সেটি হলো এই ডার্ক ওয়েব এর মধ্যে বেশির ভাগ সময়ে হ্যাকাররা সক্রিয় থাকে। যার কারণে আপনি যদি কোন ভাবে সেই হ্যাকারদের ফাঁদে পা দেন।

সেক্ষেত্রে কিন্তু আপনি আপনার ডিভাইসে থাকা সকল ধরনের তথ্যগুলো হ্যাকারের হাতে দিয়ে দিবেন।

আর যদি কোনো কারণবশত সেই হ্যাকারদের হাতে আপনার তথ্য চলে যায়। তাহলে কিন্তু আপনি নানা ধরনের ক্ষতির সম্মুখীন হবেন।

Webcam hijacking

এই ধরনের ডার্ক ওয়েব এর মধ্যে আরো একটি পরিচিত বিষয় হলো আপনার ডিভাইসে থাকা ক্যামেরা কিংবা ওয়েবক্যাম হ্যাক করা।

যার মাধ্যমে আপনি যখন তাদের ওয়েবসাইটে প্রবেশ করবেন। তখন সেই ওয়েবসাইটে প্রবেশ করার সাথে সাথে আপনার ওয়েবক্যাম হ্যাক করার পারমিশন চাইবে।

আর আপনি যদি ভুলবশত সেই পারমিশন দিয়ে ফেলেন। তাহলে কিন্তু আপনার ক্যামেরা তে সংঘটিত হওয়ার সকল বিষয় গুলো তাদের হাতে চলে যাবে।

ডার্ক ওয়েব লিংক কি বা কেমন ?

আপনি যদি সাধারণ ভাবে কোনো একটি ওয়েবসাইটে প্রবেশ করেন। তাহলে দেখতে পাবেন যে সেই ওয়েবসাইট গুলোর শেষে পরিচিত কিছু ডোমেইন এক্সটেনশন থাকে।

যেমন, com/net/org/info ইত্যাদি। কিন্তু আপনি যদি ডার্ক ওয়েব এর মধ্যে কোন ওয়েবসাইটে প্রবেশ করেন। তাহলে এই এক্সটেনশন এর দিক থেকে একটু ভিন্নতা লক্ষ্য করতে পারবেন।

আপনি আরোও পড়তে পারেন…

কারণ ডার্ক ওয়েবের মধ্যে যেসব ওয়েবসাইট রয়েছে। সেসব গুলো ওয়েবসাইটের শেষে আপনি (.onion) নামের একটি ডোমেইন এক্সটেনশন দেখতে পারবেন।

এবং আপনি এই ডোমেইন এক্সটেনশনটি প্রায় ডার্ক ওয়েবের মধ্যে থাকা সকল ওয়েবসাইট এর শেষে দেখা যায়।

ডার্ক ওয়েব নিয়ে কিছু কথা

ডার্ক ওয়েব হলো এমন একটি বিষয় যা নিয়ে আমাদের মনে বিভিন্ন রকমের প্রশ্ন সৃষ্টি করেছে। তবে এই প্রশ্নগুলো থেকে আমাদের মধ্যে ডার্ক ওয়েব নিয়ে নানা ধরনের ভুল ধারণা তৈরী হয়েছে।

আর এই ভুল ধারণা গুলো কে পরিষ্কার ভাবে তুলে ধরার জন্য আজকের এই আর্টিকেলটি লেখা হয়েছে। কারণ আজকের এই আর্টিকেল থেকে আপনি ডার্ক ওয়েব কি?

এবং তার ওয়েব কিভাবে কাজ করে এর পাশাপাশি ডার্ক ওয়েব নিয়ে যত গুলো অজানা বিষয় রয়েছে। তার সব গুলো বিষয় সম্পর্কে পরিষ্কারভাবে জেনে নিতে পারবেন।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

HandsUp! কপি করা যাবে না বস!

Scroll to Top
Share via
Copy link
Powered by Social Snap