ডলার ইনকাম করার অ্যাপ এর নাম | Dollar Income apps 2023

ডলার ইনকাম করার অ্যাপ : বর্তমান সময়ে অনলাইন থেকে ইনকাম করার কাজটা অনেক সহজ হয়ে গিয়েছে। কেননা, এখন যদি আপনার কাছে একটি এন্ড্রয়েড মোবাইল থাকে।

ডলার ইনকাম করার অ্যাপ এর নাম | Dollar Income apps 2023
ডলার ইনকাম করার অ্যাপ

তাহলে আপনি সেই মোবাইলে বেশ কিছু অ্যাপস ইন্সস্টল করে ডলার ইনকাম করতে পারবেন। আর আজকের আর্টিকেলে আমি আপনাকে সেরকম কিছু ডলার ইনকাম করার অ্যাপস এর সাথে পরিচয় করিয়ে দেয়ার চেষ্টা করবো।

যে অ্যাপস গুলো থেকে আপনি স্বল্প কিছু কাজের বিনিময়ে অনলাইন থেকে ইনকাম করতে পারবেন। তো আপনি যদি সেই ডলার ইনকাম করার অ্যাপ গুলো সম্পর্কে জানতে চান।

তাহলে আপনাকে আজকের পুরো লেখাটি মন দিয়ে পড়তে হবে।

তাই আর দেরী না করে চলুন, সরাসরি মূল আলোচনা তে ফিরে যাওয়া যাক কিভাবে ডলার ইনকাম করা যায় অথবা ডলার আয় করার এপ নাম কোন গুলা।

সত্যি কি অ্যাপ থেকে ডলার ইনকাম করা যায়?   

তো এখন অনেকের মনে প্রশ্ন জাগতে পারে যে, সত্যি কি অ্যাপ থেকে ডলার ইনকাম করা যাবে কিনা। আর আপনার মনেও যদি এই ধরনের প্রশ্ন জেগে থাকে।

তাহলে আমি আপনাকে বলবো যে, আপনার হাতে যদি একটি এন্ড্রয়েড মোবাইল থাকে। এবং সেই মোবাইলে যদি ভালো মানের ইন্টারনেট কানেকশন থাকে।

আপনি আরো দেখতে পারেন…

তাহলে আপনি কোনো প্রকার ঝামেলা ছাড়াই বিভিন্ন অ্যাপস এর মধ্যে কাজ করে ডলার ইনকাম করতে পারবেন। আর যখন আপনি ডলার ইনকাম করা যাবে কিনা সে চিন্তায় বিভোর হয়ে আছেন।

তখন কিন্তুু আপনার মতো এমন অনেক মানুষ আছেন। যারা ইতিমধ্যে বিভিন্ন অ্যাপসে কাজ করে প্রচুর পরিমান ডলার ইনকাম করে আসছে।

তবে ডলার ইনকাম করতে গেলে অবশ্যই আপনাকে বিশ্বস্ত অ্যাপস গুলোতে কাজ করতে হবে। যে অ্যাপ গুলোতে আপনি সহজ সহজ কাজ করতে পারবেন।

এবং আপনি আপনার কাজের বিনিময়ে যে ডলার ইনকাম করতে পারবেন। সেই ডলার গুলো বিশ্বস্ততার সাথে উইথড্র করতে পারবেন। 

Fiverr – Freelance Service 

সবার শুরুতে আমি আপনাকে এমন একটি এন্ড্রয়েড অ্যাপস এর সাথে পরিচয় করিয়ে দিবো। যেখানে কাজ করে আপনি হাজার হাজার ডলার ইনকাম করতে পারবেন।

আর সেই এন্ড্রয়েড অ্যাপস এর নাম হলো, Fiverr – Freelance Service. আর বর্তমান বিশ্বের প্রায় বিভিন্ন দেশের মানুষ এই অ্যাপস এর মধ্যে কাজ করে তাদের জীবিকা নির্বাহ করছে।

তবে আপনি যদি এই অ্যাপস থেকে ডলার ইনকাম করতে চান। তাহলে আপনার মধ্যে কোনো না কোনো স্কিল থাকতে হবে।

যেমন, গ্রাফিক্স ডিজাইন, ওয়েব ডিজাইন, এসইও, কন্টেন্ট রাইটিং ইত্যাদি। কেননা, এখানে যারা কাজ করে, তাদের বলা হয় ফ্রিল্রান্সার।

আর আপনিও যদিও একজন ফ্রিল্যান্সার হয়ে ডলার ইনকাম করত চান। তাহলে আপনারও কোনো না কোনো কাজে দক্ষতা থাকতে হবে।

আর আপনি সেই দক্ষতার বিনিময়ে অনলাইনে কাজ করবেন। আর উক্ত কাজের মাধ্যমে আপনি Fiverr – Freelance Service অ্যাপস থেকে ডলার ইনকাম করতে পারবেন।

Upwork For Freelancer  

অ্যাপস থেকে ডলার ইনকাম করার আরো একটি জনপ্রিয় অ্যাপস এর নাম হলো, Upwork For Freelancer. যেখানে আপনি যদি আপনার দক্ষতার পরিচয় দিতে পারেন।

তাহলে আপনাকে আর পেছনে ফিরে তাকাতে হবেনা। বরং আপনি উক্ত অ্যাপস থেকে এতো বেশি টাকা ইনকাম করতে পারবেন। যা আপনার কল্পনার চাইতেও অনেক বেশি হবে। 

তবে এখানেও কাজ করতে গেলে আপনার ফ্রিল্যান্স ভিত্তিক বিভিন্ন কাজে নিজেকে দক্ষ হিসেবে গড়ে তুলতে হবে।

আর তারপর আপনি সেই কাজগুলো উক্ত অ্যাপস এর মাধ্যমে করতে পারবেন। এভাবে আপনি যতো বেশি কাজ করতে পারবেন। আপনার ডলার ইনকাম এর পরিমান ঠিক ততোবেশি বৃদ্ধি পাবে। 

Freelancer: Hire & Find Jobs 

আপনি একটা বিষয় জানলে অবাক হয়ে যাবেন। আর সেই বিষয়টি হলো, বর্তমান বিশ্বে যারা ফ্রিল্যান্সিং সেক্টর এর সাথে যুক্ত আছে।

তাদের প্রায় অধিকাংশ মানুষ এই প্ল্যাটফর্ম এর মধ্যে কাজ করে থাকে। তো উক্ত প্লাটফর্ম থেকে মোবাইল এর জন্য বিশেষ একটি অ্যাপস রিলিজ করা হয়েছে।

যে অ্যাপস টি আপনি আপনার মোবাইল থেকে ব্যবহার করতে পারবেন। আর আপনার যদি ফ্রিল্যান্স রিলেটেড কোনো কাজে দক্ষতা থাকে।

তাহলে আপনি নিজের ঘরে বসে উক্ত অ্যাপস থেকে দেশ ও বিদেশের বিভিন্ন মানুষের সাথে কাজ করতে পারবেন।

আর নিজের ঘরে বসে অনলাইনে কাজ করেই আপনি হাজার হাজার ডলার আয় করতে পারবেন। তবে অন্যান্য অ্যাপস এর মতো উক্ত অ্যাপস এর পেমেন্ট নিয়ে আপনাকে তেমন একটা ভাবতে হবেনা।

কেননা, উপরে আপনি যে সকল অ্যাপস এর লিংক দেখতে পাচ্ছেন। মূলত এগুলো হলো গোটা বিশ্বের মধ্যে জনপ্রিয় এবং বিশ্বস্ত অ্যাপ। যেগুলো থেকে অনায়াসেই নিজের দক্ষতার উপর ভিত্তি করে টাকা আয় করা যায়। 

Shutterstock – Stock Photos an

আমাদের মধ্যে এমন অনেক মানুষ আছেন। যারা আসলে ছবি আঁকতে কিংবা ছবি তুলতে অনেক পছন্দ করে। তো আপনিও যদি তাদের মধ্যে এমন একজন হয়ে থাকেন।

তাহলে আপনার জন্য ডলার ইনকাম করার উপযুক্ত একটি অ্যাপস এর নাম হবে, Shutterstock. কেননা, এখানে আপনি আপনার ছবি বিক্রি করে প্রচুর ডলার ইনকাম করতে পারবেন। 

তো এখন আপনার মনে প্রশ্ন জাগতে পারে যে, ভাই এখানে কে আপনার ছবি কেনার জন্য আসবে? তো যদি আপনার মনে এমন প্রশ্ন জাগে।

তাহলে আমি আপনাকে বলবো যে, পৃথিবীর বিভিন্ন মানুষ প্রতিদিন এখান থেকে বিভিন্ন ধরনের ছবি, ভিডিও, অডিও ক্রয় করে থাকে।

আর আপনিও যদি মানুষের ভালো লাগার মতো প্রডাক্ট রাখতে পারেন। তাহলে আপনার প্রডাক্ট কেনার জন্য অনেকেই আগ্রহ প্রকাশ করবে। 

Swagbucks: Surveys for Money

এতক্ষন ধরে আমি আপনাকে যেসকল ডলার ইনকাম করার অ্যাপস সম্পর্কে বলেছি। সেই অ্যাপস গুলো তে কাজ করার জন্য আপনার অবশ্যই কোনো না কোনো কাজে দক্ষ হতে হবে।

কিন্তুু এবার আমি আপনাকে এমন একটি ডলার আয় করার অ্যাপস এর সাথে পরিচয় করিয়ে দিবো। যে অ্যাপস এর মধ্যে থেকে ডলার ইনকাম করার জন্য আপনার খুব বেশি দক্ষতার প্রয়োজন হবেনা।

কেননা, এখানে আপনি এমন অনেক ধরনের কাজ দেখতে পারবেন। যে কাজ গুলো শিখতে আপনার কোনো ধরনের প্রশিক্ষন নিতে হবেনা।

বরং আপনি মাত্র কয়েকদিন এর মধ্যে উক্ত কাজ গুলো করে। উক্ত অ্যাপস থেকে প্রচুর পরিমান ডলার ইনকাম করে নিতে পারবেন।

আপনি আরোও জানতে পারেন…

তো এখানে আপনি অনেক সহজ সহজ কাজ করতে পারবেন। যেমন, গেম খেলা, ভিডিও দেখা, বিভিন্ন ধরনের সার্ভে করা ইত্যাদি।

আর এই সহজ সহজ কাজ গুলো করেই আপনি প্রতিামসে বেশ ভালো পরিমান ডলার উক্ত অ্যাপস থেকে আয় করতে পারবেন। 

Banana Bucks – Take surveys. Get paid

অ্যাপ থেকে ডলার ইনকাম করার আরো একটি জনপ্রিয় অ্যাপস এর নাম হলো, Banana Bucks. তবে আপনি যদি উক্ত অ্যাপস থেকে ডলার আয় করতে চান।

তাহলে আপনাকে সার্ভে জব করতে হবে। আর সার্ভে জব খুব একটা কঠিন কিছু নয়। বরং আপন যদি কয়েকদিন সময় নিয়ে সার্ভে জব করার নিয়ম গুলো প্রাকটিস করতে পারেন।

তাহলে আপনার আর উক্ত কাজটি করতে কোনো ধরনের সমস্যা হবেনা। আর এখানে যদি আপনি সময় নিয়ে বিভিন্ন ধরনের সার্ভে গুলো সঠিক ভাবে করতে পারেন।

তাহলে আপনি এতো বেশি ডলার আয় করতে পারবেন। যা দেখে আপনিও রীতিমতো অবাক হয়ে যাবেন। তাই অ্যাপ থেকে ডলার ইনকাম করতে চাইলে একবার হলেও উক্ত অ্যাপসটি ব্যবহার করে দেখবেন। 

Toloka: Earn online  

কোনো প্রকার দক্ষতা ও অভিজ্ঞতা ছাড়াই যদি আপনি অ্যাপ থেকে ডলার আয় করতে চান। তাহলে আপনার জন্য উপযুক্ত একট অ্যাপস হবে, Toloka.

কেননা, এখানে আপনাকে অনেক ছোটো ছোটো টাস্ক প্রদান করা হবে। আর আপনি খুব সহজ এই টাস্ক গুলো করার মাধ্যমে টাকা আয় করতে পারবেন।

তবে আপনি যদি উক্ত অ্যাপস থেকে মোটামুটি মানের ডলার আয় করতে চান। তাহলে কিন্তুু আপনাকে দীর্ঘ সময় ব্যয় করে কাজ করতে হবে।

কারণ, এখানে যেমন সহজ কাজের বিনিময়ে ডলার প্রদান করা হয়। তেমনিভাবে কাজের উপর ডিপেন্ড করে এখানে খুব কম পারিশ্রমিক প্রদান করা হয়। 

Google Opinion Rewards

বর্তমান সময়ে আপন সার্ভে করে ডলার ইনকাম করার অনেক অ্যাপ দেখতে পারবেন। তবে এবার আমি আপনাকে গুগলের নিজস্ব একটি অ্যাপস সম্পর্কে বলবো।

যেখানে গুগল নিজে থেকে আপনাকে সার্ভে করার কাজ প্রদান করবে। আর আপনি উক্ত সার্ভে গুলো করে ডলার আয় করতে পারবেন। 

তো এখানে কাজ করে আপনি ডলার ইনকাম করতে পারলেও। সেগুলো আপনি উইথড্র করতে পারবেন না।

কেননা, এখান থেকে আপনি যে সকল ডলার আর্ন করতে পারবেন। সেগুলো আপনি গুগল রেওয়ার্ড এর কাজে ব্যবহার করতে পারবেন। 

Make Money – Cash Earning App 

আমাদের মধ্যে এমন অনেক মানুষ আছেন। যারা আসলে অনেক সহজ কাজ করার মাধ্যমে ডলার ইনকাম করতে চায়।

তো আপনিও যদি তাদের মধ্যে একজন হয়ে থাকেন। তাহলে আপনার জন্য উপযুক্ত একটি ডলার ইনকাম করার অ্যাপ হলো, Make Money – Cash Earning App.

তো এখানে আপনি প্রতিদিন ছোটো ছোটো অনেক কাজ করতে পারবেন। আর সেই কাজ এর বিনিময়ে আপন প্রতিদিন অল্প অল্প করে ডলার ইনকাম করতে পারবেন।

আর এভাবে যখন আপনি সারামাস ধরে উক্ত কাজ গুলো করবেন। তখন আপনি মাসশেষে একটা ভালো পরিমান ডলার ইনকাম করে নিতে পারবেন। 

Dollar Pie – Play & Earn Money

আমরা অনেক সময় শুনতে পাই যে, গেম খেলে কিংবা ভিডিও দেখে ডলার ইনকাম করা যায়। তো আমরা অনেকেই এই কথা গুলো বিশ্বাস করতে চাইনা।

তবে এবার আমি আপনাকে এমন একটি অ্যাপস এর নাম বলবো। যে অ্যাপস থেকে আপনি এই ধরনের কাজ করে ডলার আয় করতে পারবেন।

আর সেই অ্যাপস এর নাম হলো,   Dollar Pie – Play & Earn Money. যেখানে আপনি গেম খেলে, কুইজ এর উত্তর দিয়ে, স্পিন করার মাধ্যমে টাকা আয় করতে পারবেন।

তাই যদি আপনি কোনো দক্ষতা ছাড়াই অ্যাপ থেকে ডলার আয় করতে চান। তাহলে আপনি উক্ত অ্যাপস এর মধ্যে কাজ করার চেষ্টা করুন।

Honeygain: Passive Income – Effortlessly

ইন্টারনেটে সময় কাটানোর সময়ে যদি আপনি কিছু  Doller আয় করতে পারতেন কেমন হত?

আপনি কি জানেন HoneyGain নামক একটি অ্যাপ আছে যেখানে আপনার ইন্টারনেট সংযোগ ব্যবহার করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন?

HoneyGain একটি প্রযুক্তিগত প্ল্যাটফর্ম যা আপনার ইন্টারনেট সংযোগ ব্যবহার করে ডেটা সংগ্রহ করে। এই ডেটার ভিত্তিতে প্রতিমাসে আপনি টাকা আয় করতে পারেন।

এই আপ্স সহজেই ইনস্টল করা যায় এবং আপনার নেটওয়ার্ক সংযোগ দিয়ে কাজ করা যায়।

HoneyGain অ্যাপ ডেটা সংগ্রহ করে অনলাইনের বিভিন্ন প্ল্যাটফর্মে ব্যবহার করে, যেমন বিজ্ঞাপন পর্যালোচনা, মার্কেট রিসার্চ, ওয়েব টেস্টিং ইত্যাদি।

তাই প্রতিদিনের নরমাল ইন্টারনেট ব্রাউজিং করে আপনি  ডলার ইনকাম করতে পারবেন।

যদি আপনি সহজেই ইন্টারনেট ব্যবহার করে টাকা ইনকাম করতে ইচ্ছুক হন, তাহলে HoneyGain অ্যাপটি আপনার জন্য আয় করার একটি উপায় হতে পারে।

Earn Free Cash Online | Make Extra Money With ySense

আপনি যদি রেফার করার কাজে দক্ষ হয়ে থাকেন। তাহলে আপনার জন্য ডলার ইনকাম করার উপযুক্ত একটি অ্যাপস হবে, ysense.com.

এর কারণ হলো, উক্ত অ্যাপস এর মধ্যে আপনি যতো বেশি রেফার করতে পারবেন। আপনার ডলার ইনকাম এর পরিমান ঠিক ততোবেশি বৃদ্ধি পাবে।

আপনি আরোও জানতে পারেন…

তবে রেফার ছাড়াও উক্ত ডলার ইনকাম অ্যাপস এর মধ্যে আপনি আরো অনেক ধরনের কাজ দেখতে পারবেন। 

আর তার মধ্যে অন্যতম একট কাজ হলো সার্ভে করা। যেখানে আপনাকে বিভিন্ন ধরনের প্রশ্ন করা হবে। আর আপনি সেই প্রশ্ন গুলোর উত্তর দেওয়ার বিনিময়ে টাকা আয় করতে পারবেন।

তো যদি আপনি এই অ্যাপস এর মধ্যে একটু সময় ব্যয় করে কাজ করতে পারেন। তাহলে আপনি প্রতিমাসে একটা ভালো এমাউন্ট এর অর্থ উপার্জন করতে পারবেন। 

আপনার জন্য আমাদের কিছুকথা

প্রিয় পাঠক, আজকের আলোচনা তে যেসকল ডলার ইনকাম অ্যাপ নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে। সেই অ্যাপস গুলো আমি নিজে ট্রাই করিনি।

তাই যদি আপনি উক্ত অ্যাপস গুলোতে কাজ করে ডলার ইনকাম করতে চান। তাহলে অবশ্যই ভালোভাবে যাচাই করার পর কাজ শুরু করবেন।

আর আপনি যদি আরো ডলার ইনকাম অ্যাপ সম্পর্কে জানতে চান। তাহলে আপনি নিচে কমেন্ট করে জানিয়ে দিন। এতক্ষন ধরে আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ। ভালো থাকুন,সুস্থ থাকুন। 

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top
Scroll to Top
Share via
Copy link