ভার্চুয়াল ক্লাসরুম কি এবং ভার্চুয়াল ক্লাসরুমের সুবিধা কী

ভার্চুয়াল ক্লাসরুম কি : একটি ভার্চুয়াল ক্লাসরুম হল একটি অনলাইন শিক্ষার পরিবেশ ।

একটি ভার্চুয়াল ক্লাসরুমে, শিক্ষার্থী এবং শিক্ষকরা কম্পিউটার বা অন্যান্য ডিজিটাল ডিভাইসে ইন্টারনেট ব্যবহার করে একে অপরের সাথে যোগাযোগ করে।

ভার্চুয়াল ক্লাসরুম কি এবং ভার্চুয়াল ক্লাসরুমের সুবিধা কী
ভার্চুয়াল ক্লাসরুম কি

একটি ভার্চুয়াল ক্লাসরুমে, শিক্ষার্থীরা লাইভ লেকচারে অংশ নিতে পারে, আলোচনায় অংশ নিতে পারে এবং অ্যাসাইনমেন্ট জমা দিতে পারে।

ভার্চুয়াল ক্লাসরুম শিক্ষার্থীদের শেখার জন্য একটি নমনীয় এবং সুবিধাজনক উপায় প্রদান করে।

ভার্চুয়াল ক্লাসরুমগুলি সিঙ্ক্রোনাস বা অ্যাসিঙ্ক্রোনাস শেখার জন্য ব্যবহার করা যেতে পারে।

সিঙ্ক্রোনাস লার্নিং রিয়েল-টাইমে সঞ্চালিত হয়, যখন অ্যাসিঙ্ক্রোনাস লার্নিং শিক্ষার্থীদের নিজেদের সুবিধামত উপকরণ অ্যাক্সেস করতে দেয়।

আপনি আরোও দেখুন…

আজকের আর্টিকেল থেকে জানতে পারবেন, ভার্চুয়াল ক্লাস কাকে বলে, ভার্চুয়াল ক্লাসরুম কাকে বলে, কিভাবে ভার্চুয়াল ক্লাসরুমে যুক্ত হওয়া যায়।

Virtual Classroom কি নিয়ে বিস্তারিত জানতে পারবেন এই আর্টিকেল এর মাধ্যমে।

ভার্চুয়াল ক্লাসরুম বলতে কি বুঝ

অনেকেই জানতে চাই যে ভার্চুয়াল ক্লাসরুম কি বা ই-ক্লাসরুম কাকে বলে।  একটি ভার্চুয়াল ক্লাসরুম হল একটি অনলাইন শিক্ষার পরিবেশ যা শিক্ষার্থীদের লাইভ ক্লাসে যোগ দিতে বা রেকর্ড করা বক্তৃতা অ্যাক্সেস করতে দেয়। একটি ই-ক্লাসরুম হল এক ধরনের ভার্চুয়াল ক্লাসরুম যা শিক্ষার্থীদের তাদের প্রশিক্ষকদের সাথে সংযোগ করতে ভিডিও কনফারেন্সিং ব্যবহার করে। 

পৃথিবীর যেকোন প্রান্তে বসে অনলাইনের মাধ্যমে যে ক্লাস পরিচালনায় অংশগ্রহণ করা হয় তাকেই ভার্চুয়াল বলে।

আর যেই মাধ্যম বা সফটওয়্যার ব্যবহারের মাধ্যম ক্লাসগুলো পরিচালনা করা হয় তাকে ভার্চুয়াল ক্লাসরুম বলে।

অর্থাত কোন একটা নির্দিষ্ট স্থান বা সফটওয়্যার থেকে যে ক্লাসগুলা পরিচালনা করা হয় তাকে অনলাইন ভার্চুয়াল ক্লাসরুম বলে।

ভার্চুয়াল ক্লাসরুমের সুবিধা কী?

প্রযুক্তি আমাদের জীবনের একটি বড় অংশ হয়ে উঠেছে এবং এটি আমাদের জীবনযাপন, কাজ এবং শেখার উপায় পরিবর্তন করছে।

ভার্চুয়াল ক্লাসরুম Virtual Classroom হল শিক্ষার একটি নতুন উপায় যা প্রযুক্তির সাহায্যে আবির্ভূত হয়েছে।

একটি ভার্চুয়াল ক্লাসরুমে, শিক্ষার্থী এবং শিক্ষকরা অনলাইনে সংযুক্ত থাকে এবং তারা রিয়েল-টাইমে একে অপরের সাথে যোগাযোগ করতে পারে।

ভার্চুয়াল ক্লাসরুমের অনেক সুবিধা রয়েছে যার মধ্যে রয়েছে।

  • বিশ্বের যে কোন জায়গা থেকে Virtual Classroom এ যুক্ত হওয়া যায়।
  • বিশ্বজুড়ে সহপাঠী এবং প্রশিক্ষকদের সাথে যোগাযোগ করা যায়।
  • অনলাইনে এর মাধ্যমে ঘরে বসেই ভার্চুয়াল ক্লাসরুমে যুক্ত হওয়া যায়।
  • মোবাইল অথবা কম্পিউটার মাধ্যমে ভার্চুয়াল ক্লাসরুমে খুব সহজেই ইন্টারনেট কানেকশনের মাধ্যমে জয়েন করা যায়।
  • ভার্চুয়াল ক্লাসরুম এর মাধ্যমে খুব সহজেই অনেকগুলা ছাত্রছাত্রীদের সঙ্গে নিয়ে ক্লাস করা যায়।
  • ভার্চুয়াল ক্লাসরুম এর মাধ্যমে বিভিন্ন প্রকার হোমওয়ার্ক জমা দেয়া যায়।
  • এই ক্লাসরুম এর মাধ্যমে শিক্ষককে খুব সহজেই প্রশ্ন করা যায়।
  • ভার্চুয়াল ক্লাসরুম এর জন্য কোন জায়গাতে সরাসরি উপস্থিত হতে হবে না।
  • একটি নির্দিষ্ট সময়ে সবাইকে অনলাইন ভার্চুয়াল ক্লাসরুম এ উপস্থিত থাকতে হয়।
  • যদি ফেসবুকের মাধ্যমে অনলাইন ভার্চুয়াল লাইভ ক্লাস পরিচালনা করে । তাহলে ক্লাস পরিচালনার পরবর্তী সময়ে ক্লাসগুলো দেখে নেয়া যাবে।
  • কিছু কিছু ক্ষেত্রে অনলাইন ভার্চুয়াল ক্লাসরুমে ব্ল্যাকবোর্ড ব্যবহার করে স্টুডেন্টদেরকে বিভিন্ন বিষয়ে উপদেশ দেয়া হয়।

ভার্চুয়াল ক্লাসরুমের অসুবিধা কী?

ভার্চুয়াল ক্লাসরুম হল এক ধরনের অনলাইন শিক্ষা যা সাম্প্রতিক বছরগুলিতে ক্রমশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে।

যাইহোক, ভার্চুয়াল ক্লাসরুমের কিছু অসুবিধা রয়েছে যা এই ধরনের শিক্ষার পরিবেশ ব্যবহার করার আগে বিবেচনা করা উচিত।

ভার্চুয়াল ক্লাসরুম ব্যবহার করার সুবিধা এবং অসুবিধা উভয়ই আছে। কিছু অসুবিধার মধ্যে রয়েছে

  • প্রথমত ছাত্রছাত্রীরা পড়ার চাপ থেকে মুক্ত থাকে যার জন্য অনেক সময় পড়াশুনায় মনোযোগী কম হয়।
  • অনেক কিছু বুঝতে অসুবিধা হয় যার জন্য পড়াশোনায় পিছিয়ে যায়।
  • অনেক সময় প্র্যাকটিক্যালি অনেক বিষয়ে বুঝাতে সক্ষম হওয়া যায়না।
  • ইন্টারনেট জনিত সমস্যার কারণে অনলাইন ভার্চুয়াল ক্লাস করার সময় অনেকেরই অনেক ধরনের সমস্যা হয়।
  • অনেক সময় অনেক বিষয় নিয়ে বিভ্রান্তির সৃষ্টি হয় এবং মতবিনিময় করার সমস্যা সৃষ্টি হয়।
  • দেশের অনেক শিক্ষার্থী আছে যারা এখনো ভার্চুয়াল অনলাইন ক্লাস সিস্টেমটিকে সিরিয়াসলি নিতে পারছে না।
  • কোনো কারণবশত আপনি যদি ক্লাসে উপস্থিত হতে না থাকেন তাহলে সেই ক্লাসটা মিস করবেন।
  • অনেক সময় অনলাইন ভার্চুয়াল ক্লাসের সময় স্টুডেন্টরা ক্লাস ফাকি দিয়ে থাকে।
  • বিভিন্ন প্রশ্ন পত্রের উত্তর অনলাইন থেকে সার্চ করে স্যার কে ফাইল জমা দিয়ে দেয়।
  • দীর্ঘ সময় মোবাইল এবং কম্পিউটার এর দিকে তাকিয়ে থাকার ফলে বিভিন্ন প্রকার চোখের সমস্যা হয়।

এছাড়াও আরও বিভিন্ন ধরনের সমস্যা রয়েছে অনলাইন ভার্চুয়াল ক্লাসের সুবিধার পাশাপাশি অনেক অসুবিধা আছে।

ভার্চুয়াল ক্লাসরুমের বৈশিষ্ট্যগুলি কী কী?

একটি ভার্চুয়াল শ্রেণীকক্ষে, শিক্ষার্থী এবং শিক্ষকরা কোর্সের উপাদান এবং সম্পূর্ণ অ্যাসাইনমেন্ট নিয়ে আলোচনা করতে অনলাইনে মিলিত হন।

ভার্চুয়াল ক্লাসরুমে সাধারণত এমন বৈশিষ্ট্য থাকে যা ছাত্র এবং শিক্ষকদের মধ্যে মিথস্ক্রিয়া করার অনুমতি দেয়, যেমন মেসেজিং এবং ভিডিও কনফারেন্সিং।

কিছু ভার্চুয়াল ক্লাসরুমে এমন বৈশিষ্ট্যও রয়েছে যা শিক্ষার্থীদের মধ্যে সহযোগিতার জন্য অনুমতি দেয়, যেমন আলোচনা বোর্ড এবং গ্রুপ চ্যাট।

আমি কিভাবে একটি ভার্চুয়াল ক্লাসরুম ব্যবহার করতে পারি?

আর্টিকেল এর উপরে আমরা জানতে পেরেছি ভার্চুয়াল ক্লাসরুম কি, ভার্চুয়াল ক্লাসরুম এর সুবিধা ও অসুবিধাসমূহ। এখন আলোচনা করব।

কিভাবে ভার্চুয়াল ক্লাসরুম ব্যবহার করতে করতে পারব এবং কিভাবে ভার্চুয়াল ক্লাসরুম যুক্ত হতে পারি এ নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব।

ভার্চুয়াল ক্লাসরুমে আমরা বিভিন্ন উপায়ে বিভিন্ন ব্রাউজার এবং সফটওয়্যার ব্যবহার করে খুব সহজেই ভার্চুয়াল ক্লাসগুলোতে যুক্ত হওয়া যায়।

এই ভার্চুয়াল ক্লাসরুম এ ব্যবহৃত সফটওয়্যার এবং ব্রাউজার ব্যবহার করার জন্য কিছু কিছু সফটওয়্যার ফ্রি ব্যবহার করা যায়।

আবার কিছু সফটওয়্যার রয়েছে যেগুলো সীমিত আকারে ব্যবহার করা যায়।

আপনার জন্য আরোও লেখা…

কিন্তু আপনি যদি সম্পূর্ণ সফট্ওয়ারে ফ্যাসিলিটি গ্রহণ করতে চান তাহলে অবশ্যই পেইড সফটওয়্যার সফটওয়ারের সাবস্ক্রিপশন কিনতে হয়।

তবে সচরাচর আমাদের বাংলাদেশে যে সফটওয়ার অথবা ব্রাউজারগুলো ব্যবহার করা হয় সেগুলো হলো।

Facebook group

আমাদের দেশে করোনা ভাইরাস 19 কর্মকান্ডের সময় যখন স্কুল-কলেজ-মাদ্রাসা সম্পূর্ণ বন্ধ করে দেয়া হলো।

তার কিছুদিন পরেই সরকার ঘোষণা দিল যে অনলাইনের মাধ্যমে ক্লাস পরিচালনা করার জন্য যাতে করে শিক্ষাক্ষেত্রে ছাত্রছাত্রীরা পিছিয়ে না পড়ে।

বিভিন্ন স্কুল, কলেজ, ইউনিভার্সিট এবং অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকরা অনলাইনের মাধ্যমে শিক্ষাদান করা শুরু করেন।

তাদের বেশিরভাগই ফেসবুক গ্রুপে ছাত্র-ছাত্রীদের যুক্ত করে ফেসবুক গ্রুপের মাধ্যমে লাইভ ক্লাস করানো হতো।

কারণ ফেসবুক গ্রুপের মাধ্যমে লাইভ ক্লাস করানো একদম ফ্রি শুধু মাত্র ইন্টারনেট কানেকশনের মাধ্যমে গ্রুপে যুক্ত হওয়ার পরে লাইভ ক্লাস করা যায়।

এবং বিভিন্ন ধরনের লাইভ ক্লাসে প্রশ্ন করা যায় এবং কমেন্টের মাধ্যমে শিক্ষককে বিভিন্ন প্রশ্ন জিজ্ঞাসা করা যায়।

সব থেকে বড় কথা হল যে কেউ শুধুমাত্র মোবাইলের মাধ্যমে ইন্টারনেট কানেকশন দিয়ে ফেসবুক গ্রুপে যুক্ত হয়ে ক্লাশ করা যায়।

সকল ছাত্র-ছাত্রীদের নির্দিষ্ট একটি সময়ে দেয়া হয় সেই নির্দিষ্ট সময়ে ফেসবুক গ্রুপে একটিভ থাকতে হয়।

কোনো কারণবশত ফেসবুক লাইভ ক্লাস ম্যাচ মিস করে ফেললে পরবর্তী সময়ে লাইভ ভিডিও থেকে যে কেউ ডাউনলোড করে দেখতে পারবে।

শুধুমাত্র স্কুল-কলেজ নয় বিভিন্ন প্রকার প্রশিক্ষণ বা কোর্সের জন্য ফেসবুক গ্রুপ ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

Google meet

Google Meet হল একটি ভিডিও কনফারেন্সিং অ্যাপ যা Google তৈরি করেছে। এটি ওয়েবে পাওয়া যায়, সেইসাথে Android এবং iOS ডিভাইসে।

100 জন পর্যন্ত অংশগ্রহণকারী একটি Meet ভিডিও কলে যোগ দিতে পারবেন।

Google Meet HD ভিডিও এবং অডিও অফার করে, যা অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে স্পষ্ট যোগাযোগের অনুমতি দেয়।

এছাড়াও স্ক্রিন শেয়ারিং এবং রিয়েল-টাইম ক্যাপশনের মতো বৈশিষ্ট্য রয়েছে, যা উপস্থাপনা বা গ্রুপ প্রকল্পের জন্য সহায়ক হতে পারে।

সামগ্রিকভাবে, যে কেউ একটি নির্ভরযোগ্য এবং সহজেই ব্যবহারযোগ্য ভিডিও কনফারেন্সিং অ্যাপ খুঁজছেন তাদের জন্য Google Meet একটি দুর্দান্ত বিকল্প।

Google meet হচ্ছে গুগলের বিভিন্ন প্রকার সার্ভিস এর মধ্যে একটি। খুব সহজেই বিভিন্ন প্রকার মিটিং এবং স্কুল কলেজের ক্লাস পরিচালনা করা যায়।

গুগোল মিট ব্যবহার করার জন্য অবশ্যই আপনার একটি গুগোল অ্যাকাউন্ট থাকতে হবে।

মহামারীর কারণে অনেক স্কুল এবং বিশ্ববিদ্যালয় অনলাইন শিক্ষার দিকে স্যুইচ করে, সবার মনে প্রশ্ন হল Google Meet এর সাথে কতক্ষণ ক্লাস করা যেতে পারে? উত্তর আসলে বেশ সহজ.

আপনি যখন গুগোল মিটে ক্লাস করবেন অথবা মিটিং করবেন সর্বোচ্চ ফ্রিতে 60 মিনিট সময় নিয়ে মিটিং করতে পারবেন।

এবং আপনার যদি ৬০ মিনিটের বেশি প্রয়োজন হয় তাহলে পরবর্তীতে আবার নতুন করে গুগোল মিটে ক্লাস শুরু করতে হবে।

Zoom

জুম হল একটি নিরাপদ এন্ড-টু-এন্ড এনক্রিপ্ট করা ভিডিও কনফারেন্সিং অ্যাপ্লিকেশন। এটি Windows, Mac, iOS এবং Android সহ একাধিক প্ল্যাটফর্মে  ব্যবহার করতে পারবেন।

জুম এইচডি ভিডিও এবং অডিও মানের অফার করে। উপরন্তু, এটি স্ক্রিন শেয়ারিং, গ্রুপ চ্যাট এবং হোয়াইটবোর্ডিংয়ের মতো বৈশিষ্ট্যগুলি অফার করে।

জুম অনলাইন ক্লাস এবং মিটিং এর জন্য একটি জনপ্রিয় পছন্দ।

এটি সেট আপ এবং ব্যবহার করা সহজ এবং এটি মৌলিক বৈশিষ্ট্যগুলির জন্য বিনামূল্যে ৷ আপনি জুম ব্যবহার করতে পারেন অনলাইন ক্লাস, কাজের মিটিং বা শুধু বন্ধু এবং পরিবারের সাথে দেখা করার জন্য।

জুম বিনামূল্যে ব্যবহার করার 40-মিনিটের সময়সীমা রয়েছে, অর্থাৎ এই এপ থেকে আপনি ফ্রিতে যদি ৪০ মিনিটের বেশি সময় নিয়ে ক্লাস বা ভিডিও কল করতে পারবেন না।

40 মিনিট পর অটোমেটিক আপনার মিটিংটি ডিসকানেক্ট হয়ে যাবে এবং পরবর্তীতে আপনি আবার নতুন করে 40 মিনিট ক্লাস করতে পারবেন।

তবে আপনি যদি একাধারে 40 মিনিটের বেশি ব্যবহার করতে চান তাহলে অবশ্যই আপনাকে নির্দিষ্ট পরিমাণে টাকা দিয়ে সাবস্ক্রিপশন ফি কিনতে হবে।

আর ফ্রিতে জুম অ্যাপে 100 জন সদস্য নিয়ে ভিডিও কনফারেন্সিং ভিডিও ক্লাস করা যায়। এর বেশ সদস্য অথবা স্টুডেন্ট নিয়ে যদি আপনি ক্লাস করতে চান তাহলে অবশ্যই সাবস্ক্রিপশন ফি কিনতে হবে।

ভার্চুয়াল ক্লাসরুম নিয়ে আমাদের শেষ কথা

উপরের আর্টিকেল থেকে আপনি জানতে পেরেছেন যে ভার্চুয়াল ক্লাসরুম কি একটি ভার্চুয়াল ক্লাসরুম এর কাজ কি এবং ভার্চুয়াল ক্লাসরুম ব্যবহার করে কি কি করা যায়।

এবং বিভিন্ন প্রকার ভার্চুয়াল ক্লাসরুম এর সম্পর্কে জানতে পারেন এবং কিভাবে যুক্ত হয়ে ক্লাস করতে হয় এ সম্পর্কে জানতে পেরেছেন।

এছাড়াও ভার্চুয়াল ক্লাসরুম এর সুবিধা অসুবিধা নিয়ে আলোচনা করেছি এবং এরপর যদি আপনাদের কোন প্রশ্ন থাকে তাহলে অবশ্যই কমেন্ট বক্সে জানিয়ে দিবেন।

আপনি আরোও পড়তে পারেন…

আমরা আপনার কমেন্টের উত্তর দেয়ার চেষ্টা করব। বাংলা আইটি ব্লগে আমরা প্রতিনিয়ত নতুন নতুন টেকনোলজি নিয়ে আর্টিকেল শেয়ার করি।

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পর্কে এবং অনলাইনে ইনকাম সম্পর্কে আরো বিস্তারিত জানতে আমাদের ওয়েবসাইট নিয়মিত ভিজিট করুন।

আপনার প্রয়োজন অনুযায়ী বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে থেকে আপনার না জানা বিষয় সম্পর্কে আর্টিকেল পড়ে জেনে নিতে পারেন।

2 thoughts on “ভার্চুয়াল ক্লাসরুম কি এবং ভার্চুয়াল ক্লাসরুমের সুবিধা কী”

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!
Scroll to Top
Share via
Copy link
Powered by Social Snap