স্ক্যানার কি ? স্ক্যানার কত প্রকার ও কি কি ? (What is scanner in Bengali)

স্ক্যানার কি : বর্তমান সময়ে স্ক্যানার দেখেনি এমন মানুষকে খুঁজে পাওয়া কঠিন কারণ আজকের দিনে বিভিন্ন স্থানে এই স্ক্যানার নামক ডিভাইসটিকে দেখতে পাওয়া যায়।

স্ক্যানার কি ? স্ক্যানার কত প্রকার ও কি কি ? (What is scanner in Bengali)
স্ক্যানার কি ? স্ক্যানার কত প্রকার ও কি কি

মূলত কোন ধরনের ফটো থেকে শুরু করে বিভিন্ন ধরনের টেক্সটকে স্ক্যান করার জন্য এই উন্নত মানের ডিভাইসটিকে ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

তবে আমাদের মধ্যে এমন অনেক মানুষ আছেন যারা মূলত এই স্ক্যানার এবং ফটোকপি মেশিন কে একই বিষয় মনে করে থাকে। যদি আপনি এরকম মনে করে থাকেন তাহলে বলব যে আপনার ধারণা সম্পূর্ণ ভুল।

কারণ একটি স্ক্যানার এবং একটি ফটোকপি মেশিন কখনো এক হতে পারেনা।

অবশ্য একটি ফটোকপি মেশিনের যে কাজ এবং একটি স্ক্যানার মেশিনের যে কাজ, এই কাজগুলোর মধ্যে যথেষ্ট পরিমাণে মিল রয়েছে।

তবে এটি স্ক্যানারের মাধ্যমে আপনি কোন একটি ছবি কিংবা কোনো একটি টেক্সট কে হুবহু ক্লিয়ার ভাবে ডিজিটাল ফরম্যাটে রূপান্তর করতে পারবেন।

কিন্তু আপনি চাইলেও একটি ফটোকপি মেশিন দিয়ে কোন টেক্সট বা কোন ছবিকে হুবহু ডিজিটাল ফরম্যাটে রূপান্তর করতে পারবেন না।

এবং কাজের দিক থেকে এই দুটি মেশিনের যথেষ্ট পরিমাণ মিল থাকলেও আউটপুট ফরমেটের দিক থেকে কিন্তু যথেষ্ট পরিমাণ ভিন্নতা রয়েছে।

আপনি আরোও দেখতে পারেন…

আর এই ভিন্নতাকে বোঝার পাশাপাশি ( scanner meaning in Bengali) স্ক্যানার কি  (what is Scanner in bangla) এবং স্ক্যানার এর কাজ কি সে সম্পর্কে বিস্তারিত বলার জন্য মূলত আজকের এই আর্টিকেলটি লেখা হয়েছে।

মূলত আজকের এই আর্টিকেল থেকে আপনি স্ক্যানার কি (Scanner ki)  বা স্ক্যানার কাকে বলে সে সম্পর্কে পূর্ণাঙ্গভাবে জানতে পারবেন।

এর পাশাপাশি স্ক্যানার কত প্রকার ও কি কি এবং কেন ব্যবহার করা হয় সে সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জেনে নিতে পারবেন।

যদি আপনি জানতে চান যে স্ক্যানার কি (Scanner কি), স্ক্যানার এর ব্যবহার কি তাহলে চেষ্টা করবেন আজকের পুরো আর্টিকেলটি মনোযোগ সহকারে পড়ার।

স্ক্যানার  কি ? What is Scanner in bangla?

সবার আগে আপনাকে জেনে নিতে হবে যে, স্ক্যানার কাকে বলে। কেননা যখন আপনি এই বিষয় সর্ম্পকে বিস্তারিত জানবেন তখন আপনার পরবর্তী আলোচনা গুলো বুঝতে সুবিধা হবে।

তো চলুন সবার শুরুতেই জেনে নেয়া যাক যে স্ক্যানার কি এবং এরপর আমরা স্ক্যানার এর ব্যবহার সহ অন্যান্য বিষয়গুলো সম্পর্কে বিস্তারিত জানবো।

সহজ ভাষায় বলতে গেলে স্ক্যানার হলো এক ধরনের ইলেকট্রনিক হার্ডওয়ার ডিভাইস। মূলত এই ডিভাইস কে ইনপুট ডিভাইস ও বলা হয়ে থাকে।

মূলত বিশেষ এই ধরনের ইলেকট্রিক হার্ডওয়ার ইনপুট ডিভাইসের মাধ্যমে আপনি যেকোন ধরনের টেক্সট অথবা যেকোনো ধরনের ইমেজ আপনার প্রয়োজন অনুযায়ী স্ক্যান করে নিতে পারবেন।

এবং আপনার এই স্ক্যান করা সেই ডকুমেন্ট গুলো কে ডিজিটাল ফরম্যাটে রূপান্তর করতে পারবেন।

তো এখন অনেকের মনে প্রশ্ন জাগতে পারে যে স্ক্যান এর মাধ্যমে কোন একটি ডকুমেন্ট কে ডিজিটাল ফরমেট বলতে এখানে কি বোঝানো হচ্ছে।

তাহলে শুনুন মনে করুন আপনি ঢাকায় আছেন এবং আপনার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র গুলো গ্রামের বাড়িতে আছে।

সে ক্ষেত্রে কিন্তু আপনি আপনার সেই প্রয়োজনীয় কাগজ পত্র গুলো ডিজিটাল ফরমেটে এর মাধ্যমে ইমেইল সাহায্য গ্রাম থেকে পাঠানো কাগজপত্র গুলো আপনি ঢাকায় উত্তোলন করতে পারবেন।

স্ক্যানার এর কাজ কি ?

স্ক্যানার কি সে সম্পর্কে আপনি উপরের আলোচনা থেকে বিস্তারিত জানতে পেরেছেন। আশা করি এরপর থেকে স্ক্যানার কি সে সম্পর্কে আর আপনাকে গুগলের সার্চ করতে হবেনা।

তো স্ক্যানার কাকে বলে সেটি জানার পাশাপাশি আপনাকে আরো বেশ কিছু বিষয় সম্পর্কে জেনে নিতে হবে।

তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো স্ক্যানার এর কাজ কি। মূলত ইলেকট্রনিক হার্ডওয়ার এই ডিভাইস কে কি কাজে ব্যবহার করা হয়ে থাকে সে সম্পর্কে জেনে নেয়া গুরুত্বপূর্ণ একটা বিষয়।

তো চলুন এবার তাহলে স্ক্যানার এর কাজ সম্পর্কে পরিষ্কার ধারণা নেওয়া যাক।

  1. সহজ কথায় বলতে গেলে স্ক্যানারের মাধ্যমে কোন ছবি, কোন হাতের লেখা অথবা কোন বস্তুকে ডিজিটাল পদ্ধতিতে রূপান্তর করা হয়ে থাকে।
  2. যদি আপনার কাছে কোন সাদাকালো ছবি থাকে অথবা আপনার কাছে যদি কোন ধরনের রঙিন ছবি থাকে। তাহলে আপনি খুব সহজেই স্ক্যানার নামক এই ডিভাইসটির মাধ্যমে সেই ছবি গুলো কে স্ক্যান করে নিতে পারবেন।
  3. শুধু এই সবই নয় বরং স্ক্যানারের মাধ্যমে আপনি গুরুত্বপূর্ণ কিছু কাজ করতে পারবেন। যেমন আপনার যদি কোন প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট থাকে সেই ডকুমেন্টে কোন ধরনের লেখা অথবা ছবি থাকে, তাহলে আপনি খুব সহজেই সেই ডকুমেন্ট এর কপি বের করতে পারবেন।
  4. স্ক্যানারের মাধ্যমে আপনার কপি করা ফাইল গুলো কে খুব সহজেই ডিজিটাল ফরম্যাটে রুপান্তর করা সম্ভব।
  5. আমাদের সবার নিজস্ব কিছু প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস থাকে, তবে এই ধরনের কাগজের ডকুমেন্ট এর পাশাপাশি সেগুলোও অনলাইন কপি থাকাটা বেশ গুরুত্বপূর্ণ একটা বিষয়।
  6. এবং আপনি এই কাজটি খুব সহজেই স্ক্যানার এর মাধ্যমে করতে পারবেন।
  7. মূলত কোন একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বিভিন্ন ধরনের প্রয়োজনীয় নথিপত্র জমা হয়ে থাকে। এবং সেই নথিপত্র গুলো বিভিন্ন সময় বিভিন্ন রকম অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার ফলে নষ্ট হয়ে যেতে পারে।
  8. তাই স্ক্যানারের মাধ্যমে সেই নথিপত্র গুলো ডিজিটাল ফরম্যাটে রূপান্তর করা সম্ভব।

তো যদিওবা আমি আর্টিকেল লেখার স্বার্থে উপরে আমি বিভিন্ন রকমের স্ক্যানার এর কাজ উল্লেখ করেছি।

তবে উপরোক্ত আলোচনার বিষয় গুলোর মূল যে বিষয়টি হলো, স্ক্যানার কে মূলত বিভিন্ন ধরনের ডকুমেন্ট, টেক্সট অথবা ইমেজকে ডিজিটাল ফরম্যাটে রূপান্তর করার কাজে ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

স্ক্যানার কেন ব্যবহার করা হয়?

উপরোক্ত আলোচনা থেকে আপনি জানতে পারলেন যে স্ক্যানার কি এবং স্ক্যানার এর কাজ কি। তো আশা করি এই আলোচিত আলোচনা থেকে আপনি এই দুটি বিষয় সম্পর্কে পরিষ্কারভাবে জানতে পেরেছেন।

এবার অনেকের মনে প্রশ্ন জাগতে পারে যে স্ক্যানার কেন ব্যবহার করা হয়। যদি আপনার মনে এই প্রশ্নটি জেগে থাকে তাহলে শুনুন,,,

স্ক্যানারকে ব্যবহার করার মূল উদ্দেশ্য হলো বিভিন্ন ধরনের ডকুমেন্টস বা নথিপত্র কে কপি করে ডিজিটাল ফরম্যাটে রূপান্তর করার জন্য।

মূলত বাস্তব জীবনে আমাদের সবার কাছে কোন কোন ডকুমেন্টস থাকে। তো এই ডকুমেন্টস গুলো কোন অনাকাঙ্খিত কারণে নষ্ট হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

আর সেগুলো কে পুনরায় ফেরত পাওয়ার জন্য প্রয়োজন হবে ডিজিটাল ফরমেটের।

আর আপনি স্ক্যানারের মাধ্যমে খুব সহজেই আপনার প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস অথবা নথিপত্র গুলো কে ডিজিটাল ফরম্যাটে রূপান্তর করে দিতে পারবেন।

যার ফলে আপনার উক্ত ডকুমেন্টস গুলো দুর্ঘটনাবশত চিরতরে হারিয়ে যাওয়ার কোন সম্ভাবনা থাকবে না।

স্ক্যানার কত প্রকার ও কি কি?

স্ক্যানার কি সে সম্পর্কে বিস্তারিত জানার পাশাপাশি আপনাকে আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় সম্পর্কে জেনে নিতে হবে।

কারণ বর্তমান সময়ে কিন্তু আপনি বিভিন্ন ধরনের স্ক্যানার দেখতে পারবেন। তো এবার আপনাকে জানতে হবে যে বর্তমান সময়ে মোট কত ধরনের স্ক্যানার এর ব্যবহার প্রচলিত রয়েছে।

তো চলুন এবার তাহলে স্ক্যানার এর প্রকারভেদ সম্পর্কে পরিষ্কার ধারণা নেওয়া যাক।

01| Flatbed scanner

যদি আপনি জানতে চান যে বর্তমান সময়ে সবচেয়ে বেশি কোন ধরনের স্ক্যানার কে ব্যবহার করা হয়।

তাহলে আমি বলব যে বর্তমান সময়ে সর্বাধিক ব্যবহৃত হয় Flatbed scanner, আমরা সচরাচর বাড়িতে কিংবা কোন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে যেসব স্ক্যানার কে দেখতে পাই।

সেগুলো মূলত এই ধরনের স্ক্যানার এর আওতায় পড়ে থাকে। এই ধরনের স্ক্যানার গুলো আপনি টেবিল অথবা মেঝের উপর রেখে আপনার প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট স্ক্যান করতে পারবেন।

মূলত এই ধরনের স্ক্যানিং মেশিন গুলোর উপর নিচের অংশে একটা কাঁচ দেখতে পারবেন।

এবং সেখানে আপনি আপনার যে কোন ধরনের ডকুমেন্টস রেখে দিলেই তা অটোমেটিকলি স্ক্যান হওয়া শুরু করবে।

আপনি আরোও পড়তে পারেন…

02| Sheet feed scanner 

মূলত বর্তমান সময়ে আপনি আকারের দিক থেকে অনেক ছোট ধরনের যেসব স্ক্যানার মেশিন দেখতে পারবেন সে গুলোকে বলা হয়ে থাকে Sheet feed scanner.

আপনি এই ধরনের স্ক্যানার মেশিন দিয়ে শুধুমাত্র সিঙ্গেল পেইজ স্ক্যান করতে পারবেন।

যদি আপনার পুরো একটি বই কে স্ক্যান করার প্রয়োজন হয়ে থাকে সেক্ষেত্রে আপনি এই স্ক্যানার মেশিন কে ব্যবহার করতে পারবেন না।

তবে আপনি যদি অনেক গুলো পেইজ কে সিঙ্গেল সিঙ্গেল ভাবে স্ক্যান করতে চান। সে ক্ষেত্রে এই স্ক্যানার মেশিন গুলো আপনার জন্য গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকবে।

03| Handheld scanner

অনেক ছোট আকারের মেশিন যেমন করতে কোন প্রকার আপত্তি নেই মূলত এ ধরনের স্ক্যানার মেশিন গুলোকে বলা হয়ে থাকে Handheld scanner.

মূলত যখন আপনার কোন বারকোড স্ক্যান করার প্রয়োজন পড়বে তখন এ ধরনের স্ক্যানার মেশিন গুলো বেশ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে।

যেমন আপনি কোন শপিংমলে গেলেন এবং সেখানে যাওয়ার পরে কোন প্রোডাক্ট বারকোড স্ক্যান করার প্রয়োজন পরল।

সে ক্ষেত্রে আপনি এইধরনের স্ক্যানার মেশিন কে ব্যবহার করতে পারবেন এবং খুব সহজেই বারকোড স্ক্যান করে নিতে পারবেন।

04| Drum scanner 

যখন কোন হাই রেজুলেশন যুক্ত ডকুমেন্ট স্ক্যান করার প্রয়োজন হয়ে থাকে তখন যেসব স্ক্যানার মেশিন ব্যবহার করা হয় সেসব স্ক্যানার মেশিন কি বলা হয় Drum scanner.

মূলত এই স্ক্যানার মেশিন এর মাধ্যমে আপনি আপনার প্রয়োজনীয় নথিপত্র গুলোকে অনেক হাই রেজুলেশনের মাধ্যমে স্ক্যান ডিজিটাল ফরম্যাটে রূপান্তর করতে পারবেন।

তবে গুণগত মানের দিক থেকে এই ধরনের স্ক্যানার মেশিন গুলোর দাম অনেক বেশি হয়ে থাকে। আর সে ক্ষেত্রে এ ধরনের স্ক্যানার মেশিন গুলোকে বিশেষ কিছু ক্ষেত্রে ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

স্ক্যানার এর সুবিধা কি কি?

এতক্ষণের আলোচিত আলোচনা থেকে আপনি স্ক্যানার কি এবং স্ক্যানার সম্পর্কিত যেসব গুরুত্বপূর্ণ বিষয় রয়েছে সেই বিষয় গুলো সম্পর্কে জানতে পেরেছেন।

এবার আপনি জানতে পারবেন যে স্ক্যানার এর সুবিধা কি কি অর্থাৎ আপনি যদি স্ক্যানার ব্যবহার করেন সেক্ষেত্রে আপনি কি কি বেনিফিট পাবেন।

এবার তাহলে সেই স্ক্যানার এর সুবিধা গুলো সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নেওয়া যাক।

  1. কোন একটি স্ক্যানার মেশিন আপনার প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট স্ক্যান স্ক্যান অথবা কপি করতে সহায়তা করবে।
  2. আপনার প্রয়োজনীয় কোন ইমেজ অথবা টেক্সট কে হার্ডকপি থেকে সফট কপিতে রূপান্তর করার জন্য একটি স্ক্যানার মেশিন বেশ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে।
  3. কোন একটি স্ক্যানার মেশিন এর সবচেয়ে বড় সুবিধা হলো আপনার প্রয়োজনীয় নথিপত্র গুলোকে ডিজিটাল ফরম্যাটে রূপান্তর করা সম্ভব।
  4. ফলে আপনার এই নথিপত্র গুলো রক্ষণাবেক্ষণ করতে তেমন কোন অসুবিধা হবে না।
  5. এই ধরনের স্ক্যানার মেশিন গুলো পরিচালনা এবং ব্যবহার করা তুলনামূলক ভাবে অনেক সহজ।
  6. একটি স্ক্যানার মেশিন কে ইউএসবি ক্যাবল থেকে শুরু করে বিভিন্ন ধরনের পোস্ট এবং ওয়াইফাই এর মাধ্যমে কানেক্ট করা সম্ভব।
  7. ফলে আপনি যে কোন ডিভাইস থেকে স্ক্যানার মেশিনে আপনার প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস কে পাঠাতে পারবেন।

তো একটি স্ক্যানার মেশিনের যেসব সুযোগ-সুবিধা রয়েছে তা নিয়ে আমি উপর আলোচনা করেছি।

তবে আপনি যদি এই সুযোগ সুবিধা ভোগ করতে চান তাহলে অবশ্যই আপনাকে স্ক্যানার মেশিন কে ব্যবহার করতে হবে।

স্ক্যানার এর অসুবিধা কি কি?

যদিও বা স্ক্যানারের অনেক রকমের সুযোগ-সুবিধা রয়েছে। কিন্তু এর পরেও আপনি স্ক্যানার মেশিন এর বেশ কিছু অসুবিধা লক্ষ্য করতে পারবেন।

তবে এবার জানার বিষয় হল যে একটি স্ক্যানার এর কি কি অসুবিধা রয়েছে। তো চলুন এবার তাহলে সেই বিষয়গুলো সম্পর্কে একটু আলোকপাত করা যাক।

  1. যখন আপনি আপনার প্রয়োজনীয় কোন ডকুমেন্টস কে এই স্ক্যানার মেশিন দিয়ে স্ক্যান করে নিবেন। তখন সেই স্ক্যান করা ফাইল গুলোর কোয়ালিটি একটু হলেও খারাপ হয়ে যায়।
  2. আপনার প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস গুলো যখন স্ক্যান করবে তখন যে ফাইল তৈরি হবে সে ফাইল গুলোর সাইজ অনেক বড় হয়।
  3. আপনি যদি আপনার অনেকগুলো ডকুমেন্টস কে একই সাথে স্ক্যান করতে চান সেক্ষেত্রে আপনাকে অনেকটা সময় ধৈর্য ধরে কাজ করতে হবে।
  4. কারণ একসাথে অনেকগুলো ডকুমেন্ট স্ক্যান করার জন্য বেশ সময়ের প্রয়োজন হয়ে থাকে।

তো একটি স্ক্যানার এর বিভিন্ন সুবিধার পাশাপাশি যেসব সুবিধা রয়েছে সেগুলো নিয়ে আমি উপরে আলোচনা করেছি।

তবে আমার দিক থেকে একটি স্ক্যানার মেশিন এর অসুবিধা রয়েছে তার থেকে সুবিধা গুলোর পরিমাণ অনেক বেশি রয়েছে।

স্ক্যানার এর দাম কি রকম ?

উপরের আলোচনা গুলো থেকে স্ক্যানার মেশিন কি এবং স্ক্যানার মেশিন সম্পর্কে যাবতীয় তথ্য গুলো জানার পর এবার আপনার মনে একটি প্রশ্ন জেগে থাকতে পারে।

আর সেই প্রশ্ন টি হল যে একটি স্ক্যানার এর দাম কিরকম হয়। একটি স্ক্যানার এর দাম মূলত সর্বনিম্ন 10 হাজার টাকা থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ 1 লক্ষ 50 হাজার টাকা পর্যন্ত হয়ে থাকে।

তবে আপনি আসলে কি রকম স্ক্যানার কিনবেন সেটার উপর নির্ভর করে এই দাম কমবেশি হতে পারে।

আপনার জন্য আরোও লেখা…

আমাদের শেষ কথা

প্রিয় পাঠক বর্তমান সময়ে আমাদের প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস গুলো কে স্ক্যান করার জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ যে ইলেকট্রনিক ডিভাইস এর প্রয়োজন হয় সেটি হল স্ক্যানার।

যার মাধ্যমে আমরা আমাদের প্রয়োজনীয় যেকোনো ধরনের নথিপত্র কে স্ক্যান করে সংরক্ষণ করতে পারি।

আর সে কারণেই স্ক্যানার কি সে সম্পর্কে জেনে নেওয়াটা আমাদের জন্য বেশ গুরুত্বপূর্ণ একটা বিষয়।

আর আজকের আর্টিকেলে আমি স্ক্যানার কি সে সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করেছি।

আশা করি আজকের আলোচিত এই আলোচনা থেকে স্ক্যানার কি সে সম্পর্কে পরিষ্কার ধারণা পেয়ে গেছেন।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

HandsUp! কপি করা যাবে না বস!

Scroll to Top
Share via
Copy link
Powered by Social Snap