অনলাইন ক্লাস কি ? | (Online Class কি) | অনলাইন ক্লাস কিভাবে হয় ? 

অনলাইন ক্লাস কি : ২০২০ সালে করোনা ভাইরাস আসার পরে অনলাইন ক্লাস বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠছে।

কেননা, এই সময়ে দেশের সব গুলো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ছিলো। যার কারনে লেখাপড়া করার একটি মাত্র উপায় ছিলো। আর সে উপায়টির নাম হলো অনলাইন ক্লাস

অনলাইন ক্লাস কি ? অনলাইন ক্লাস কিভাবে হয় ? 
অনলাইন ক্লাস কি ? অনলাইন ক্লাস কিভাবে হয় ?

যার মাধ্যমে ছাত্রছাত্রীদের অনলাইনে ক্লাস করানো হতো। কিন্তুু আমাদের মধ্যে এমন অনেক মানুষ আছেন।

যারা এখনও জানেনা যে, অনলাইন ক্লাস কি এবং কিভাবে অনলাইনে ক্লাস করা যায়। কিন্তুু প্রযুক্তির এই সময়ে এসেও যদি কেউ Online Class সম্পর্কে জানতে না পারে।

তাহলে বলবো, সেই মানুষ গুলোর এখনও অনেক বিষয়ে অজানা রয়ে গেছে। আর আজকের আর্টিকেল টি মূলত সেই উদ্দেশ্যেই লেখা হয়েছে।

যদি আপনি আজকের পুরো আর্টিকেল টি মনোযোগ দিয়ে পড়েন। তাহলে আপনি অনলাইন ক্লাস রিলেটেড অনেক অজানা তথ্য সম্পর্কে জানতে পারবেন। যেমনঃ

  1. অনলাইনে কিভাবে ক্লাস করব? 
  2. অনলাইনে কিভাবে ক্লাস নিতে হয়? 
  3. অনলাইন ক্লাস করার নিয়ম কি কি? 
  4. অনলাইনে কিভাবে ক্লাস করতে হয়? 
  5. কিভাবে অনলাইনে ক্লাস করব? 
  6. মাধ্যমিক অনলাইন ক্লাস কি? 
  7. অনলাইন ক্লাস অ্যাপ কি? 
  8. অনলাইন ক্লাস বাংলাদেশ
  9. অনলাইন ক্লাস করার নিয়ম কি? 
  10. অনলাইন ক্লাস ভিডিও কি?

আপনি আরো দেখতে পারেন…

তো আপনি যদি উপরের বিষয় গুলো সম্পর্কে বিষদ ভাবে জানতে চান। তাহলে আজকের এই আর্টিকেল টি আপনার জন্য অনেক বেশি হেল্পফুল হবে।

কেননা, আজকে আমি Online Class এর অদ্যোপান্ত নিয়ে প্রত্যেকটা বিষয় স্টেপ বাই স্টেপ আলোচনা করবো। 

অনলাইন ক্লাস কি? (What is online class?)

অনলাইন ক্লাস কিভাবে হয় সে সম্পর্কে আমরা পরে আলোচনা করবো। তবে সবার আগে আপনাকে জেনে নিতে হবে যে, আসলে অনলাইন ক্লাস কি।

তাহলে পরবর্তী আলোচনা গুলো আপনার বুঝতে অনেক সুবিধা হবে। তো চলুন এবার সে বিষয়ে জেনে নেয়া যাক। 

সহজ কথায় অনলাইন এর মাধ্যমে লেখাপড়া করার পুরো প্রক্রিয়া কে বলা হয় অনলাইন ক্লাস

যেখানে আপনি স্কুল কলেজে না গিয়েও লেখাপড়া করার সকল কার্যক্রম পরিচালিত করতে পারবেন। এবং স্কুল কলেজে না গিয়েও আপনি অনলাইন এর মাধ্যমে পড়াশোনা করতে পারবেন।

আমরা যেমন লেখাপড়া করার জন্য আমাদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যাই। এরপর সেই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এর শিক্ষক শিক্ষিকারা ক্লাস নেয়। ঠিক একইভাবে আপনি ঘরে বসে এই কাজ গুলো করতে পারবেন ৷

তবে এরজন্য আর আপনাকে সরাসরি শিক্ষাঙ্গনে যাওয়ার প্রয়োজন পড়বে না।

বরং আপনি নিজের ঘরে বসে ইন্টারনেট কানেকশন এর মাধ্যমে এই যাবতীয় কাজ গুলো করতে পারবেন। মূলত একেই বলা হয় অনলাইন ক্লাস। 

কেন অনলাইন ক্লাস করবেন?

যেহুতু আজকে আমাদের মূল টপিক হলো অনলাইন ক্লাস নিয়ে। সেহুতু আপনার মনে একটি প্রশ্ন জেগে থাকবে। সেটি হলো, কেন একজন মানুষের অনলাইন ক্লাস করা উচিত?

আর এই Online Class করলে কি কি সুবিধা পাওয়া যায়? তো চলুন এবার সে বিষয়েও একটু ধারনা নেয়া যাক।

দেখুন, প্রথমত বলবো যে এই অনলাইন ক্লাসের শুরু হয়েছিলো সেই করোনা ভাইরাস আসার পর থেকে। সেই সময়ে এই ভাইরাসের প্রকোপ এতোটাই বেশি ছিলো।

যার কারনে গোটা বিশ্বকে একেবারে থমকে যেতে হয়েছিলো। আর যার বিরাট একটা প্রভাব এসে পড়ছিলো শিক্ষা ব্যবস্থার উপরে।

সে সময়ে দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কে একেবারে অনির্দিষ্ট কালের জন্য বন্ধ করে দেয়া হয়েছিলো। যার দরুন শিক্ষাব্যবস্থা একবারে ভেঙ্গে যাওয়ার উপক্রম হয়েছিলো।

আর ঠিক সেই সময়ে দেশের সরকার এই অনলাইন ক্লাস করার অনুমোদন দেয়। যেখানে ছাত্র-ছাত্রীর  স্কুল কলেজে না আসলেও অনলাইন এর মাধ্যমে ক্লাস করতে পারতো। 

তবে এই অনলাইন ক্লাস এর সুবিধা যে শুধু করোনা ভাইরাসের সময়েই কাজে দিয়েছে। বিষয়টা কিন্তুু এমন নয় বরং এই Online Class এর নানাবিধ সুযোগ সুবিধা রয়েছে।

তার মধ্যে অন্যতম সুবিধা হলো এই পদ্ধতিতে পড়াশোনা করলে ছাত্র-ছাত্রীদের স্কুল কলেজে যাওয়ার কোনো প্রয়োজন পড়বে না।

এতে করে শিক্ষার্থীরা নিজের ঘরে বসে পড়াশোনা করতে পারবে। যার দরুন রাস্তাঘাটে ট্রাফিক জ্যামের পরিমান কিছুটা হলেও কম পড়বে।

এছাড়াও এই পদ্ধতিতে যেহুতু নিজের ঘরে বসেই পড়াশোনা করার সুযোগ রয়েছে। সেহুতু দুরবর্তী শিক্ষার্থীদের আর বাসা ভাড়া নিয়ে কোনো টেনশন করার দরকার হবেনা।

তো এইসব সুযোগ সুবিধার জন্যই মূলত অনলাইন ক্লাস করা উচিত। যাতে করে আপনি অনলাইন এর মাধ্যমে পড়াশোনার সকল প্রকার কার্যক্রম পরিচালনা করতে পারবেন। 

অনলাইন ক্লাস করার জন্য কি কি দরকার?

উপরের আলোচনা থেকে আপনি জানতে পারলেন যে, অনলাইন ক্লাস কি এবং কেন একজন মানুষ এই Online Class করবে।

তো এইসব জানার পর আপনাকে আরও একটি বিষয়ে জেনে নিতে হবে। তা হলো, যদি আপনি কোনো কারনবশত অনলাইনে ক্লাস করতে চান। তাহলে আপনার কি কি দরকার হবে।

তো আপনি যদি সরাসরি স্কুল কলেজে না গিয়ে অনলাইন এর মাধ্যমে ক্লাস করতে চান। তাহলে কিন্তুু আপনার বেশ কিছু ইকুইপমেন্ট এর দরকার হবে।

যদি আপনার নিকট সেইসব ইকুইপমেন্ট থাকে। তাহলে আপনিও খুব সহজেই অন্যদের মতো এই অনলাইনে ক্লাস করতে পারবেন। যেমনঃ

০১| একটি মানসম্মত ডিভাইস 

যেহুতু আপনি অনলাইনের মাধ্যমে পড়াশোনা করার মতো কাজটি পরিচালনা করবেন ৷ সেহুতু অনলাইন জগতে প্রবেশ করার জন্য অবশ্যই আপনার হাতে একটি ইলেকট্রনিক ডিভাইস থাকতে হবে।

যার মাধ্যমে আপনি অনলাইন জগতে প্রবেশ করতে পারবেন। এখন হয়তবা আপনার মনে প্রশ্ন জাগতে পারে যে, এই মানসম্মত ডিভাইস বলতে আমি কি বুঝিয়েছি। তাহলে শুনুন…..

ইন্টারনেট কানেকশন দিয়ে অনলাইন জগতে পা রাখার জন্য। আপনার হাতে অবশ্যই একটি মোবাইল কিংবা কম্পিউটার এর প্রয়োজন হবে।

যার মাধ্যমে আপনি ইন্টারনেট কানেকশন এর সাথে যুক্ত হতে পারবেন। এবং এর মাধ্যমে আপনি অনলাইন জগতে প্রবেশ করতে পারবেন৷ 

০২| অনলাইন ক্লাস করার সফটওয়্যার 

যদি আপনি অনলাইনে ক্লাস করতে চান। তাহলে একটি ভালো ডিভাইস থাকার পাশাপাশি আরও কিছু ইকুইপমেন্ট এর দরকার হবে।

আর সেটি হলো আপনার এক বা একাধিক অনলাইন ক্লাস করার সফটওয়্যার এর প্রয়োজন হবে।

মূলত যেগুলোর মাধ্যমে আপনি ইন্টারনেট কানেকশন দিয়ে আপনার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এর সাথে যুক্ত হতে পারবেন।

এই সফটওয়্যার গুলো এতোটাই শক্তিশালী যে, আপনি এগুলো প্রবেশ করার পর সরাসরি আপনার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এর সাথে কানেক্ট হতে পারবেন।

এর পাশাপাশি এই সফটওয়্যার গুলোর মাধ্যমে আপনার প্রতিষ্ঠান এর শিক্ষিক শিক্ষিকারা পাঠদান করতে পারবে।

শুধু তাই নয়, পাঠদান এর পাশাপাশি আপনি সরাসরি তাদের সাথে কমিউনিকেশন করতে পারবেন ৷ 

অনলাইন ক্লাস কিভাবে করতে হয়?

এতোক্ষন ধরে যে বিষয় গুলো আলোচনা করা হয়েছে। সেই আলোচনায় আমি অনেক গুরুত্বপূর্ণ বিষয় গুলো সমন্ধে ক্লিয়ার ধারনা দেয়ার চেস্টা করেছি।

যেমন, সবার শুরুতে আমি বলেছি যে, অনলাইন ক্লাস কি এবং একজন মানুষ যদি তার প্রয়োজনে অনলাইন ক্লাস করতে চায়। তাহলে তার কি কি ইকুইপমেন্ট এর প্রয়োজন হবে।

তো আশা নয় বরং আমার বিশ্বাস আছে যে, উপরে আলোচিত বিষয় গুলি আপনি বেশ ভালোভাবে বুঝতে পেরেছেন।

এবং এই বিষয় গুলো জানার পর আপনার আরও একটি বিষয়ে ধারনা নেয়া উচিত। সেটি হলো, অনলাইন ক্লাস কিভাবে করতে হয়

তো চলুন এবার সে বিষয়ে বিস্তারিত জেনে নেয়া যাক।

যদি আপনি নিজের ঘরে বসে অনলাইন থেকে ইন্টারনেট কানেকশন দিয়ে ক্লাস করতে চান ৷ তাহলে আপনাকে বেশ কিছু ধাপ অনুসরন করতে হবে। যেমনঃ

  1. সবার আগে আপনাকে Online Class করার জন্য যেসব অ্যাপস বা সফটওয়্যার এর দরকার হবে। সেগুলোকে সংগ্রহ করতে হবে। 
  2. এরপর উক্ত Apps বা Software গুলো আপনার ডিভাইসে ইনস্টল করে নিতে হবে। 
  3. যখন আপনি আপনার ডিভাইসে উক্ত এপস গুলো কে ইনস্টল করবেন। তখন আপনার প্রথম কাজ হবে সেগুলো তে আপনার একটি পারসোনাল Gmail Account দিয়ে লগ ইন করা। 
  4. এরপর আপনার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে দেয়া লিংক বা কোড এর মাধ্যমে তাদের সাথে যুক্ত হতে হবে। 
  5. যখন আপনি আপনার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এর সাথে যুক্ত হবেন। তখন থেকে আপনি একবারে অনায়াসে অনলাইন এর মাধ্যমে ক্লাস করতে পারবেন ৷

সত্যি বলতে অজানা বশত এই কাজ গুলো আপনার কাছে অনেক কঠিন মনে হতে পারে ৷ কিন্তুু আপনি যদি একবার এই পদ্ধতি গুলো নিজের হাতে ট্রাই করে দেখেন।

তাহলে এই কঠিন কাজগুলো কে অনেক বেশি সহজ মনে হবে। কেননা, এগুলো যতো কঠিন মনে হয়, ঠিক ততোটা কঠিন নয়।

প্রয়োজন শুধু নিজে নিজে একবার হলেও চেস্টা করে দেখা। 

অনলাইন ক্লাস করার অ্যাপ (Online Class Apps)

তো উপরের আলোচনা থেকে আপনি জানলেন যে, অনলাইন ক্লাস করার জন্য সবার আগে আপনাকে সেইসব অ্যাপস বা সফটওয়্যার গুলোকে সংগ্রহ করতে হবে।

যেগুলোর মাধ্যমে অন্যান্য মানুষেরা Online Class করে থাকে ৷ কিন্তুু আপনি যেহুতু একেবারে নতুন তাই এই Online Class Apss গুলো কে খুজে পাওয়া বেশ কঠিন মনে হতে পারে ৷

আর আপনি যেন কোনো প্রকার অসুবিধায় না পড়েন ৷ সেজন্য এবার আমি আপনাকে এমন কিছু জনপ্রিয় অনলাইন ক্লাস করার সফটওয়্যার এর সাথে পরিচয় করিয়ে দিবো।

যেগুলোর মাধ্যমে আপনি বিশ্বের যে কোনো প্রান্ত থেকে বসে থেকে ক্লাস করতে পারবেন ৷ আর এই সফটওয়্যার গুলো এতোটাই সহজ ও ইউজার ফ্রেন্ডলি।

আপনার যদি অনলাইন সম্পর্কে খুব বেশি ধারনা না থাকে ৷ তারপরেও আপনি অনায়াসেই এগুলো কে ব্যবহার করতে পারবেন।

০১| Zoom Live Meeting 

এটি হলো এমন এক ধরনের পাওয়ারফুল সফটওয়্যার। যার মাধ্যমে আপনি সরাসরি লাইভ ক্লাসে যুক্ত হতে পারবেন। আমরা যেভাবে স্কুল কিংবা কলেজে পাঠদান করে থাকি।

ঠিক তেমনি ভাবে আপনি এই অনলাইন ক্লাস করার সফটওয়্যার দিয়ে একেবারে সরাসরি Live Online Class করতে পারবেন।

আর এ কারনে আজকের দিনে Zoom Live Meeting সফটওয়্যার টি অনেক বেশি জনপ্রিয় হয়ে উঠছে।

আপনি আরো পড়তে পারেন…

Zoom নামক এই ইউসফুল সফটওয়্যার টি আপনি যে কোনো ধরনের ডিভাইসে ব্যবহার করতে পারবেন ৷ যদি আপনার কাছে একটি কম্পিউটার ডিভাইস থাকে।

তাহলেও আপনি এটি অনায়াসেই ব্যবহার করতে পারবেন। আবার আপনার কাছে যদি কোনো এন্ড্রয়েড ফোন থাকে।

তাহলেও আপনি এটিকে আপনার ফোনে ইনস্টল করে খুব সহজেই ব্যবহার করতে পারবেন ৷ 

কিভাবে Zoom দিয়ে অনলাইন ক্লাস করবেন? 

উক্ত লাইভ ক্লাস করার সফটওয়্যার এ আপনি মোট দুই ধরনের পদ্ধতি দেখতে পারবেন। তার মধ্যে একটি হলো, Host. মানে যে আপনাকে অনলাইনে পাঠদান করাবে ৷ তাকে বলা হবে হোষ্ট।

আর একটি হলো স্টুডেন্ট পোর্টাল। যেখানে শিক্ষক শিক্ষিকারা কি কি পাঠদান করাচ্ছে। সেটা ছাত্র ছাত্রীরা সরাসরি দেখতে পারবে।

এবং এর পাশাপাশি তারা তাদের শিক্ষকদের উক্ত বিষয় সংক্রান্ত নানা প্রশ্ন করতে পারবে।

তো যদি আপনি Zoom এর মাধ্যমে অনলাইন ক্লাস করতে বা করাতে চান। তাহলে আপনাকে বেশ কিছু পদ্ধতি অনুসরন করতে হবে। যেমনঃ

  1. সবার আগে আপনাকে Zoom নামক এই পাওয়ারফুল সফটওয়্যার টি আপনার নিজস্ব ডিভাইসে ইনস্টল করে নিতে হবে। 
  2. এরপর যখন আপনি উক্ত সফটওয়্যার কে আপনার ডিভাইসে ইনস্টল করবেন ৷ তখন সেটিকে Open করতে হবে। 
  3. যখন আপনি অপেন করবেন তখন আপনার একটি Gmail Account এর প্রয়োজন হবে। যে জিমেইল টি দিয়ে লগ ইন করতে হবে। 
  4. এরপর আপনি আরও একটি নতুন অপশন দেখতে পারবেন। সেটি হলো আপনি কি এই সফটওয়্যার দিয়ে ক্লাস করাতে চান নাকি আপনি নিজে ক্লাস করতে চান ৷
  5. সেটা আপনি আপনার প্রয়োজন অনুসারে সিলেক্ট করে নিতে হবে। 
  6. তো যদি আপনি শিক্ষক বা শিক্ষিকা হয়ে থাকেন। তাহলে আপনাকে Host নামক অপশনে ক্লিক করতে হবে। এবং ক্লিক করার সাথে সাথে আপনাকে একটি লিংক দেওয়া হবে।
  7. যে লিংক এর মাধ্যমে আপনি আপনার ছাত্র ছাত্রীদের কে আপনার ক্লাসে যুক্ত করিয়ে নিতে পারবেন। 
  8. তবে আপনি যদি শিক্ষার্থী হয়ে থাকেন। তাহলে আপনাকে ঐ শিক্ষকদের দেওয়া Class Link সংগ্রহ করতে হবে। তারপর সেই লিংকে ক্লিক করার পর আপনি আপনার কাঙ্খিত ক্লাসে যুক্ত হতে পারবেন।

তো আমরা জানামতে অনলাইনে সরাসরি ক্লাস করার জন্য Zoom নামক অ্যাপস বা সফটওয়্যার টি অনেক বেশি কার্যকরী ৷

এবং বর্তমান সময়ে বেশিরভাগ মানুষ অনলাইন ক্লাস করার জন্য এটিকে ব্যবহার করে থাকে ৷ তাই চাইলে আপনিও এই সফটওয়্যার কে ব্যবহার করতে পারেন। 

০২| Google Classroom 

বাস্তবিক জীবনে আমরা যেমন, প্রতিদিন স্কুলে বা কলেজে যাই। যাওয়ার পর নানা ধরনের কাজ করার প্রয়োজন হয়।

যেমন, ক্লাসে উপস্থিতি দেয়া, স্যারদের কাছ থেকে প্রয়োজনীয় নোট গুলো সংগ্রহ করা এবং ক্লাসে স্যার বা ম্যামদের বিভিন্ন ধরনের এসাইনমেন্ট জমা দেয়া।

তো এই কাজ গুলো করার জন্য অন্যতম একটি সফটওয়্যার হলো Google Classroom. যার মাধ্যমে আপনি উপরোক্ত কাজ গুলো একবারে খুব সহজেই সম্পন্ন করতে পারবেন।

তবে বলে রাখা ভালো যে, উপরে Zoom Live Meeting নামক সফটওয়্যারে আপনি যেমন সরাসরি ক্লাস করার সুযোগ পাবেন। সেই সুযোগটা কিন্তুু আপনি এই Google Classroom এ পাবেন না।

কেননা, এই সফটওয়্যার কে এমনভাবে ডেভলপ করা হয়েছে। যেন এর মাধ্যমে শিক্ষিকরা তাদের ছাত্রদের প্রয়োজনীয় নোট কিংবা উপস্থিতি নিতে পারে।

এবং ছাত্র-ছাত্রীরা যেন এই সফটওয়্যার এর মাধ্যমে তাদের প্রয়োজনীয় নোট, এসাইনমেন্ট এবং পরীক্ষার খাতা জমা দিতে পারে। 

Google Classroom দিয়ে অনলাইন ক্লাস কিভাবে হয়? 

এই সফটওয়্যার এর নাম শুনেই হয়তবা আপনি বুঝে গেছেন যে, এটি হলো গুগল এর নিজস্ব একটি পন্য।

আর সেদিক থেকে বলা যায় যে, আপনি শুধুমাত্র  কয়েকটি ক্লিক করার মাধ্যমেই উক্ত সফটওয়্যার কে ব্যবহার করতে পারবেন। যেমনঃ

  1. আপনি যদি অনলাইন ক্লাস করার জন্য এই দরকারি সফটওয়্যার কে ব্যবহার করতে চান। তাহলে সবার আগে আপনাকে আপনার ডিভাইসে উক্ত সফটওয়্যার কে ইনস্টল করে নিতে হবে। 
  2. এরপর আপনার একটি Gmail Account এর প্রয়োজন হবে। যার মাধ্যমে আপনি একটি Google Classroom Account তৈরি করে নিতে পারবেন। 
  3. যখন আপনি একটি জিমেইল একাউন্ট এর মাধ্যমে একটি প্রোফাইল তৈরি করবেন। তখন আপনার ক্লাস করার জন্য কিছু Class Code এর প্রয়োজন হবে। 
  4. এই Class Code গুলো আপনি আপনার ক্লাসের শিক্ষকদের নিকট পেয়ে যাবেন। এবং সেই কোড গুলো দিয়ে সাবমিট করার পর আপনি আপনার কাঙ্ক্ষিত ক্লাস টিচারদের সাথে যুক্ত হতে পারবেন।

তো আপনি ছাত্র-ছাত্রী হোন কিংবা শিক্ষক। যদি আপনি একেবারে সহজ পদ্ধতিতে অনলাইন ক্লাস রিলেটেড কাজ গুলো করতে চান।

তাহলে এই Google Class Room নামক সফটওয়্যার টি আপনার কাজকে অনেক বেশি সহজ করে দিবে। 

০৩| Google Duo

এটি হলো বর্তমান সময়ের সবচেয়ে হাই কোয়ালিটি সম্পন্ন Video Calling Apps. যার মাধ্যমে আপনি একই সাথে অনেক গুলো মানুষের সাথে যুক্ত হতে পারবেন।

আর আপনি যদি এই সফটওয়্যার টি আপনার অনলাইনে ক্লাস করার ক্ষেত্রে ব্যবহার করেন। তাহলে আপনি একইসাথে প্রায় পুরো ক্লাস এর ছাত্র ছাত্রীদের সাথে যুক্ত হতে পারবেন।

যদি আপনার ইন্টারনেট কানেকশন অনেক ভালো থাকে। তাহলে অবশ্যই আমি এই সফটওয়্যার কে ব্যবহার করার জন্য রেকমেন্ড করবো।

কেননা, এর মাধ্যমে আপনি একই সাথে প্রায় ৩২ জন মানুষের সাথে যুক্ত হতে পারবেন।

এবং আমরা যেমন সরাসরি ক্লাস করি। সেই ক্লাসের মজাটা আপনি এর মাধ্যমে পূরন করতে পারবেন। 

Google Duo অনলাইন ক্লাস কিভাবে হয়? 

উপরে আপনি যে এপস গুলো ব্যবহার করার নিয়ম বলেছি। প্রায় একই নিয়মে আপনি এই সফটওয়্যার টি ব্যবহার করতে পারবেন।

তবে আপনার বোঝার সুবিধার জন্য আমি ব্যবহার করার নিয়ম গুলো কে একটু স্বল্প আকারে আলোচনা করবো। যেমনঃ

  1. সবার আগে আপনাকে উক্ত সফটওয়্যার টি ডাউনলোড করে নিতে হবে। যদি আপনি মোবাইল ইউজার হয়ে থাকেন। তাহলে আপনি Google Play Store এ উক্ত অ্যাপস টি পেয়ে যাবেন। 
  2. তো উক্ত এপস বা সফটওয়্যার টি আপনার ডিভাইসে ইনস্টল করে নিতে হবে। 
  3. এরপর আপনার একটি Gmail Account এর প্রয়োজন হবে। যা দিয়ে আপনি একটি Google Duo একাউন্ট তৈরি করতে পারবেন। 
  4. তো এরপর আপনাকে আরও কিছু নির্দেশনা দেওয়া হবে। যেগুলো অনুসরন করে আপনি খুব সহজেই অনলাইন ক্লাস করতে পারবেন।

আশা করি উপরে আলোচিত অনলাইন ক্লাস করার সফটওয়্যার গুলো সমন্ধে বেশ ভালোভাবে বুঝতে পেরেছেন।

কেননা, এই সফটওয়্যার গুলোকে কিভাবে ব্যবহার করতে হয়। তার প্রত্যেকটা বিষয়কে আমি স্টেপ বাই স্টেপ আলোচনা করেছি।  

অনলাইন ক্লাস করার ওয়েবসাইট

উপরে আমি শুধু কয়েকটা অনলাইন ক্লাস করার এপস নিয়ে আলোচনা করেছি। কিন্তুু মজার বিষয় হলো এই সফটওয়্যার গুলো বাদেও এমন অনেক ধরনের ওয়েবসাইট রয়েছে।

যেগুলো মূলত অনলাইন ক্লাস করার ওয়েবসাইট হিসেবে পরিচিত। যার মাধ্যমে আপনি কোনো প্রকার সফটওয়্যার ব্যবহার করা ছাড়াই খুব সহজে অনলাইন ক্লাস করতে পারবেন।

শুধু তাই নয়, যদি আপনি একজন শিক্ষক হয়ে থাকেন।

তাহলে আজকের এই ওয়েবসাইট গুলো আপনার জন্য অনেক বেশি হেল্পফুল হবে৷ তো চলুন এবার সেই জনপ্রিয় ওয়েবসাইট গুলো সম্পর্কে জেনে নেয়া যাক। 

০১| Online Class From Youtube 

আমরা সবাই কমবেশি ইউটিউব এর সাথে পরিচিত। কেননা, এটি হলো বর্তমান বিশ্বের সবচেয়ে বড় ভিডিও শেয়ারিং প্লাটফর্ম।

কিন্তুু আপনি কি জানেন, এই ইউটিউব এর মাধ্যমে অনলাইন ক্লাস করানো সম্ভব? – হুমমম! আপনি ঠিকই দেখেছেন।

আজকের দিনে আপনার মতো অনেক শিক্ষক আছেন, যারা মূলত টিচিং করার জন্য জনপ্রিয় এই সোশ্যাল প্লাটফর্ম কে ব্যবহার করে থাকে।

তো যদি আপনি একজন শিক্ষক হয়ে থাকেন ৷ তাহলে আপনি যে বিষয়ে পারদর্শী।

সেই বিষয়ে ইউটিউব প্লাটফর্মে ভিডিও আপলোড বা লাইভ স্ট্রিমিং করতে পারবেন।

আর আপনার সেই ভিডিও গুলো লাখ লাখ স্টুডেন্টরা দেখে উপকৃত হবে। সেই সাথে আপনিও বাড়তি কিছু টাকা ইউটিউব থেকে ইনকাম করতে পারবেন ৷ 

০২| Udemy Online Course Seller 

আজকের দিনে মানুষ ক্রমাগত ভাবে অনলাইন এর উপর নির্ভর হয়ে পড়ছে। যার দরুন আজকের দিনে অনলাইনে থাকা কোর্স গুলোর ব্যাপক জনপ্রিয়তা পেয়েছে।

আপনি জানলে অবাক হয়ে যাবেন কারন এই অনলাইন কোর্স গুলো অনেক ভালো দামে সেল করা হয়ে থাকে।

তো আপনি যদি আপনার দক্ষ বিষয়ে কোনো ধরনের কোর্স তৈরি করেন। তাহলে আপনি সেই কোর্স গুলোকে Udemy নামক জনপ্রিয় এই প্লাটফর্মে শেয়ার করতে পারবেন ৷

আপনার জন্য আরো লেখা…

এবং আপনার কোর্স গুলো যদি মানসম্মত হয়। তাহলে সেই কোর্স গুলো খুব দ্রুত সেল হয়ে যাবে। এবং আপনি সেখান থেকে বেশ ভালো পরিমান টাকা ইনকাম জেনারেট করে নিতে পারবেন ৷ 

০৩| Make Your Own Website 

যদি আপনি অনলাইন ক্লাস করার জন্য কোনো ধরনের সফটওয়্যার বা ওয়েবসাইট এর ডিপেন্ড করতে না চান ৷ তাহলে আপনার জন্য উপযুক্ত একটি মাধ্যম হবে নিজস্ব একটি ওয়েবসাইট তৈরি করা।

যার মাধ্যমে আপনি অফলাইনে শিক্ষকতা করার পাশাপাশি অনলাইন এর মাধ্যমেও শিক্ষকতা করতে পারবেন।

এবং এই ওয়েবসাইট থেকেও বাড়তি কিছু টাকা আয় করে নিতে পারবেন। 

অনলাইন ক্লাস করা নিয়ে আমাদের শেষকথা

আজকের এই ছোট্ট আর্টিকেলে আমি অনলাইন ক্লাস রিলেটেড যা কিছু আছে ৷

তার সবগুলো বিষয় নিয়ে একেবারে বিস্তারিত ভাবে আলোচনা করেছি।

আশা করি অনলাইন ক্লাস কিভাবে হয় সে নিয়ে আপনার মনে আর কোনো ধরনের প্রশ্নের অবকাশ থাকবে না।

তবে এরপরও যদি আপনার আরও কোনো সমস্যা হয়ে থাকে। তাহলে আমাকে কমেন্ট করে জানাবেন।

কেননা, আমি সর্বদাই একটিভ আছি আপনার সমস্যার সমাধান করার জন্য ৷

আর এমন সব গুরুত্বপূর্ণ তথ্য সম্পর্কে জেনে নিতে হলে অবশ্যই Bangla it blog এর সাথে থাকবেন।

এই আর্টিকেলের শেষ পর্যন্ত আসার জন্য আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ। 

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

HandsUp! কপি করা যাবে না বস!

Scroll to Top
Share via
Copy link
Powered by Social Snap