ইনস্টাগ্রাম মার্কেটিং কি ? কিভাবে ইনস্টাগ্রাম মার্কেটিং করতে হয় ?

ইনস্টাগ্রাম মার্কেটিং কি ? : কেন আপনার Instagram Marketing করা উচিত? এবং কিভাবে আপনি ইনস্টাগ্রাম মার্কেটিং করবেন? আজকের আর্টিকেলে এই সমস্ত বিষয়গুলো স্টেপ বাই স্টেপ আলোচনা করবো। 

দেখুন, বর্তমান সময়ে এমন অনেক ব্যক্তি আছেন যারা কোনো না কোনো ব্যবসার সাথে জড়িত। কেউবা অফলাইনে বিজনেস করে নিজের ক্যারিয়ার গড়ছে।

ইনস্ট্রাগ্রাম মার্কেটিং কি
ইনস্ট্রাগ্রাম মার্কেটিং কি

আবার কেউবা অনলাইন বিজনেস করে নিজের ক্যারিয়ার গড়ছে। এখন আপনিও যদি বিজনেস করে নিজের ক্যারিয়ার গড়তে চান। তবে বিজনেস সেক্টরে আপনাকে সু স্বাগতম।

কোনো বিজনেস এর শুরু থেকে টাকা ইনকাম করা পর্যন্ত একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো, Marketing.

কারন যে ব্যক্তিরা সঠিকভাবে মার্কেটিং করতে পারে। একমাএ সেই ব্যক্তিরাই সফলতা অর্জন করতে পারে। অন্যথায় আপনি যদি সঠিকভাবে Marketing করতে না পারেন।

তাহলে আপনাকেও ব্যার্থতার দলে নাম লেখাতে হবে।

তবে কোনো বিজনেস এর জন্য Marketing যে কতটা গুরুত্বপূর্ণ। সে নিয়ে আজকে কোনো আলোচনা করবো না।

বরং যদি আপনার কোনো বিজনেস থাকে৷ তাহলে সেই বিজনেস এর জন্য কিভাবে আপনি মার্কেটিং করবেন ৷ সে নিয়ে আলোচনা করাই হবে আজকের আর্টিকেল এর মূল উদ্দেশ্য।

আর সেই উদ্দেশ্য পূরনের জন্য আজকে আমরা জানবো Instagram Marketing সম্পর্কে। যেখানে আপনার যে কোনো বিজনেস এর মার্কেটিং করতে পারবেন।

এবং তার বিনিময়ে আপনি আপনার বিজনেস এর জন্য হিউজ পরিমান অডিয়্যান্স কে টার্গেট করতে পারবেন।

তো ভিয়ার আজকের আলোচনার মূল টপিক হলো, ইনস্টাগ্রাম মার্কেটিং। যদি আপনার Instagram Marketing সম্পর্কে জানার আগ্রহ থাকে। তাহলে আজকের পুরো আর্টিকেলটি মনোযোগ দিয়ে পড়বেন।

তাহলে আজ থেকে আপনার Instagram মার্কেটিং সম্পর্কে কোনো বিষয় অজানা থাকবে না। 

ইনস্টাগ্রাম কি? (What is Instagram) 

সবার আগে আপনাকে জানতে হবে যে, ইনস্টাগ্রাম কাকে বলে। কেননা, আপনি যে প্লাটফর্ম থেকে মার্কেটিং করবেন। সেই প্লাটফর্ম সম্পর্কে যদি পরিস্কার ধারনা না থাকে।

তাহলে আপনি সেখানে মার্কেটিং করে কখনই সফলতা অর্জন করতে পারবেন না।

তো Instagram হলো একটি সোশ্যাল মিডিয়া। আমরা যেমন দৈনন্দিন জীবনে বিভিন্ন ধরনের সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করি যেমন, Facebook, Youtube, Twitter ইত্যাদি। ঠিক তেমনি ইনস্টাগ্রাম হলো একটি সোশ্যাল মিডিয়া।

আপনার জন্য আরো লেখা… 

আমরা যেমন অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গুলোতে Video, Photo এবং Text স্ট্যাটাস অন্যান্য বন্ধুদের সাথে শেয়ার করি। ঠিক তেমনিভাবে ইনস্টাগ্রামে আপনি আপনার পার্সোনাল ভিডিও, ফটো এবং টেক্সট স্ট্যাটাস শেয়ার করতে পারবেন।

এটি সর্বপ্রথম প্রতিষ্ঠিত হয়েছিলো ২০১০ সালে। উইকিপিডিয়া এর তথ্য অনুযায়ী Kevin Systrom এবং Mike Krieger নামক দুইজন ব্যক্তি এই সোশ্যাল মিডিয়া টি উদ্ধাবন করেছিলেন।

এবং পরবর্তীতে যখন ইনস্টাগ্রাম জনপ্রিয়তা অর্জন করেছিলো। তখন বিশ্বের বিখ্যাত সোশ্যাল মিডিয়া Facebook ইনস্টাগ্রামকে $1 Billion ডলার দিয়ে কিনে নেয়।

এবং এরপর থেকে ইনস্টাগ্রাম কে Facebook এর আওতায় পরিচালনা করা হয়।

তবে মজার বিষয় হলো, Instagram শব্দটি দুটি শব্দের সমন্বয়ে গঠিত। উইকিপিডিয়া এর তথ্য অনুযায়ী Instant Camera এবং Telegram এ দুটো শব্দের মিলিত রুপ হলো, Instagram. 

মার্কেটিং কি? (What is Marketing)

ইনস্টাগ্রাম মার্কেটিং কি সম্পর্কে অবশ্যই আলোচনা করবো। তবে তার আগে আপনার জানা উচিত যে, Marketing আসলে কাকে বলে।

যখন কোনো বিজনেস এর প্রসার করার জন্য যে প্রচার করা হয়। সহজ কথায় তাকে বলা হয় মার্কেটিং। যেমন, আমরা TV তে কোনো প্রোগ্রাম দেখার সময় আমরা বিভিন্ন ধরনের Advertise (বিজ্ঞাপন) দেখে থাকি ৷

কখনওবা সাবানের বিজ্ঞাপন দেখি আবার কখনওবা নতুন মোবাইল এর বিজ্ঞাপন দেখি। তো যারা মূলত এই বিজ্ঞাপন গুলো দেখায় ৷

তারা মূলত আমাদের মতো মানুষদের টার্গেট করে মার্কেটিং করছে। যেন মানুষ তাদের পন্য সম্পর্কে জানতে পারে। এবং মানুষ তাদের পন্য গুলো ব্যবহার করতে আগ্রহী হয়।

ঠিক একইভাবে যখন আপনার কোনো বিজনেস থাকবে। এবং আপনার বিজনেস এর পন্য গুলো সম্পর্কে যেন মানুষ জানতে পারে ৷ সেজন্য আপনি আপনার পন্যের প্রচার করার জন্য যে যে কাজ গুলো করবেন।

এককথায় এই সব গুলো কাজ কে বলা হয় মার্কেটিং। 

ইনস্টাগ্রাম মার্কেটিং কি? 

যাক আপনি মার্কেটিং কি সে সম্পর্কে ইতিমধ্যেই জেনে গেছেন ৷ তো এবার আপনাকে জানতে হবে যে Instagram marketing আসলে কি। আর কেন আপনাকে ইন্সটাগ্রাম মার্কেটিং করতে হবে।

তো আমরা জানলাম যে, যখন কোনো বিজনেস এর প্রসারের জন্য যেসব প্রচার করা হয়। সহজ কথায় তাকে বলা হয় মার্কেটিং। এখন আপনি চাইলে আপনার বিজনেস এর প্রচার করার জন্য ভিন্নভাবে মার্কেটিং করতে পারবেন।

যেমন, আপনি চাইলে আপনার বিজনেস এর বিজ্ঞাপন টিভিতে প্রচার করতে পারবেন অথবা অনলাইন এর কোনো প্লাটফর্মে আপনার বিজনেস এর বিজ্ঞাপন প্রচার করতে পারবেন ৷

তো যখন আপনি আপনার বিজনেস বা বিজনেস এর কোনো পন্যের প্রচার করার জন্য ইনস্টাগ্রাম কে ব্যবহার করবেন। তখন তাকে বলা হবে, Instagram Marketing. 

কেন ইনস্টাগ্রাম মার্কেটিং করব?

এখন এতোকিছু জানার পর আপনার মনে প্রশ্ন জাগতে পারে যে, ভাই মার্কেটিং করার এতো গুলো Source থাকার পরেও আপনি কেন ইনস্টাগ্রামে মার্কেটিং করবেন? এখানে মার্কেটিং করলে কি কি বেনিফিট পাওয়া যাবে?

যদি আপনার মনেও এমন প্রশ্ন জেগে থাকে। তাহলে কিছু কথা আপনাকে অবশ্যই জেনে নিতে হবে। তো যদি আপনি মার্কেটিং করার জন্য Instagram কে বেছে নেন।

তাহলে আপনি অনেক সুবিধা ভোগ করতে পারবেন। যেমন, 

ইনস্টাগ্রাম একটি জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়া

Instagram is a popular social media. হুমমম বর্তমান সময়ে অনেক গুলো জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়া রয়েছে। আর এ নিয়ে আমিও কোনো দ্বিমত পোষন করতে পারবো না।

তবে জনপ্রিয়তার দিক থেকে ইনস্টাগ্রাম যে কোনো অংশে পিছিয়ে নেই। সেটাও কিন্তুু মাথায় রাখতে হবে।

আপনি জানলে অবাক হয়ে যাবেন কারন, বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় Statistics Analysis ওয়েবসাইট Statista এর জরিপ অনুযায়ী ইনস্টাগ্রাম এর ২০১৭ সালে মোট ইউজার এর সংখ্যা ছিলো 593 Million.

তার ঠিক এক বছর পর অর্থ্যাৎ ২০১৮ সালে 706 Million ইউজার এর গন্ডি পেরিয়ে গেছে।

শুধু তাই নয় বরং ২০১৯ এবং ২০২০ সালে ইনস্টাগ্রাম এর মোট ইউজার এর সংখ্যা ছিলো প্রায় 766 – 854 Million. এবং এই ইউজার সংখ্যা ক্রমাগত বেড়েই চলেছে।

সবচেয়ে বড় কথা হলো, আপনি যদি এতো বেড়ি ইউজার কে নিয়ে মার্কেটিং করার চিন্তা করেন। তাহলে আপনার সফলতা পাওয়ার সম্ভাবনা অনেক অংশে বেড়ে যাবে। 

Close To Audience (Instagram Marketing)

সবচেয়ে বড় কথা হলো, ইনস্টাগ্রাম কে কেন্দ্র করে আপনি যদি মার্কেটিং করার চিন্তা করেন। তাহলে প্রথমত আপনি হিউজ পরিমান অডিয়্যান্স কে টার্গেট করতে পারছেন।

আর যেই সেক্টরে অনেক বেশি ভিজিটর থাকে, সেই সেক্টরে মার্কেটিং করার পথ আরও প্রশস্ত হয়।

আর এই প্লাটফর্মে এতো মিলিয়ন মিলিয়ন ইউজার থাকার কারনে আপনি খুব সহজেই তাদেরকে কাছে পাবেন। যেমন ধরুন, আপনি কোনো একটি প্রোডাক্ট নিয়ে ইনস্টাগ্রামে মার্কেটিং করতে চাচ্ছেন।

তাহলে আপনি যদি Paid Promot করেন। তাহলে আপনি খুব সহজেই আপনার কাঙ্খিত অডিয়্যান্স এর নিকট পৌঁছাতে পারবেন।

তো এগুলো ছাড়াও আপনি আরও অনেক ধরনের সুবিধা ভোগ করতে পারবেন। মূলত যখন আপনি এই প্লাটফর্ম এ এসে মার্কেটিং এর প্রক্রিয়া শুরু করবেন।

তখন আপনি নিজে থেকেই এই বিষয় গুলো বুঝে নিতে পারবেন। 

কিভাবে ইনস্টাগ্রাম মার্কেটিং শুরু করবো?

তো এবার আসা যাক মূল টপিকে। আসলে আপনি যে মার্কেটিং করতে চাচ্ছেন। সেটি করার জন্য আপনাকে কি কি কাজ করতে হবে। এবার সেগুলো নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করবো।

তো যদি আপনি উপরোক্ত আলোচনা গুলো স্কিপ করে থাকেন ৷ তাহলে এখান থেকে একটু মনোযোগ দিয়ে পড়ার চেস্টা করুন ৷ নাহলে আপনার অনেক কিছু অজানা থেকে যাবে।

আপনার জন্য আরো আর্টিকেল…

তার আগে একটা কথা বলে রাখি। সেটি হলো প্রত্যেকটি কাজের কিন্তুু একেকটা করে ধাপ থাকে। আপনি যদি কোনো কাজ শেষ করতে চান। তাহলে আপনাকে প্রত্যেকটি ধাপ সঠিকভাবে অনুসরন করতে হবে।

ঠিক তেমনি ভাবে যখন আপনি Instagram Marketing করতে চাইবেন। তখনও আপনাকে বেশ কিছু ধাপ অতিক্রম করতে হবে। যেমন, 

Make A Professional Instagram Profile

দেখুন সবার আগে আপনাকে একটি প্রফেশনাল ইনস্টাগ্রাম প্রোফাইল তৈরি করতে হবে। কারন আপনার কোম্পানি কেমন তা যেন আপনার প্রোফাইল দেখেই মানুষ অনুমান করতে পারে।

তাই সবার আগে লক্ষ্য রাখতে হবে যেন, আপনার তৈরি করা প্রোফাইলটি একেবারে প্রফেশনাল হয়।

[💡PRO TIPS: যদি আপনি না জানেন যে, কিভাবে একটি প্রফেশনাল প্রোফাইল তৈরি করতে হয়। তাহলে সবার আগে আপনাকে অন্যান্য কোম্পানি বা প্রতিষ্ঠান এর যেসব প্রোফাইল আছে।

সেগুলোর দিকে যথেষ্ট গুরুত্বের সাথে খেয়াল রাখতে হবে ৷ তাদের একটিভিটি নিয়মিত পর্যবেক্ষন করতে হবে।]

এখন আপনার মনে প্রশ্ন জাগতে পারে যে, ভাই Professional Profile তো পরের কথা ৷ এই সোশ্যাল মিডিয়া তে আমরা কিভাবে আমাদের Account তৈরি করবো? তো চলুন এবার সে নিয়ে আলোচনা করা যাক।

তো যদি আপনি একটি ইনস্টাগ্রাম একাউন্ট তৈরি করতে চান। তাহলে আপনাকে নিচে উল্লেখিত স্টেপ গুলো অনুসরন করতে হবে। 

Step For Create A Professional Instagram Profile

STEP-1:সবার আগে আপনাকে আপনার পছন্দের একটি ব্রাউজার অপেন করতে হবে। এরপর ব্রাউজার এর সার্চ বক্স থেকে টাইপ করতে হবে (www.Instagram.com)

STEP-2:এরপর আপনি সরাসরি ইনস্টাগ্রাম এর অফিশিয়াল ওয়েবসাইট এ চলে যাবেন। এখন আপনি চাইলে উক্ত ওয়েবসাইট থেকে পরবর্তী কাজ গুলো করতে পারবেন।

অথবা তাদের পাবলিশ করা এপস ডাউনলোড করে সেখান থেকে পরবর্তী কাজ গুলো করতে পারবেন।

STEP-3:তো এবার আপনাকে একটি একাউন্ট তৈরি করতে হবে। সেজন্য আপনি Sign Up নামের একটি বাটন দেখতে পারবেন ৷ আপনাকে সেই বাটনে ক্লিক করতে হবে।

STEP-4:তো যখন আপনি সাইন আপ বাটনে ক্লিক করবেন ৷ তখন আপনি Account Create করার আরও বেশ কিছু অপশন দেখতে পারবেন।

যেমন, আপনি আপনার Facebook ID দিয়েও একাউন্ট তৈরি করতে পারবেন। অথবা আপনার পারসোনাল Phone Number দিয়েও একাউন্ট তৈরি করতে পারবেন। 

[NOTE: এখানে একাউন্ট তৈরি করার অনেক গুলো অপশন থাকলেও আপনি এখানে আপনার Gmail ID দিয়ে একাউন্ট তৈরি করবেন। এবং সেই জিমেইল টি ব্যবহার করবেন।

যেটা আপনি Business Email হিসেবে সিলেক্ট করছেন। মানে সেই জিমেইল টি যেন আপনার কোম্পানির নামে হয়।]

ব্যাস উপরোক্ত স্টেপ গুলো অনুসরন করলে আপনি খুব সহজেই একটি Instagram Account Create করতে পারবেন।

তবে এবার প্রশ্ন হলো যে, আমরা একাউন্ট তো তৈরি করে ফেললাম। কিন্তুু আমাদের তৈরি করা একাউন্টটি Professional কিনা, তা বুঝবো কিভাবে?

দেখুন এতোক্ষন পর্যন্ত আপনি শুধুমাএ একটি একাউন্ট তৈরি করতে পেরেছেন। এবার আপনি জানবেন যে, ইনস্টাগ্রাম একাউন্টকে প্রফেশনাল করার জন্য কি কি করতে হবে। 

প্রফেশনাল ইনস্টাগ্রম প্রফাইল বানানোর টিপস

Tips For Make Your Instagram Profile Like Professional. তো যখন আপনার একটি ইনস্টাগ্রাম একাউন্ট তৈরি করার কাজ সম্পন্ন হবে।

TIPS-4:আপনার প্রোফাইল অপশন এর আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ হলো, Username. যার মাধ্যমে কাস্টমার খুব সহজেই আপনাকে খুজে নিতে পারবে।

তো সবসময় চেস্টা করবেন সেই username টি যেন খুব ছোট হয়। এবং আপনার বিজেনেস এর নামে ইউজার নেম হয়।

TIPS-5:এরপর আপনাকে একটি Profile Picture সেট আপ করতে হবে। যদি আপনার কোম্পানির নিজস্ব কোনো Logo থাকে। তাহলে আপনি সেই লোগো কে Profile Picture হিসেবে সেট করতে পারবেন।

এর পাশাপাশি আপনাকে আপনার বিজনেস রিলেটেড একটি Bio লিখে দিতে হবে।

TIPS-6:সবশেষে আপনার সদ্য তৈরি করা ইনস্টাগ্রাম একাউন্ট টিকে একটি Business Account এ কনভার্ট করে নিতে হবে। তাহলে আপনি আরও অন্যান্য ফিচার গুলোর সুবিধা ভোগ করতে পারবেন।

ইনস্টাগ্রামের পারসোনাল একাউন্ট কে বিজনেস একাউন্টে রুপান্তর করার জন্য নিচের স্টেপ গুলো অনুসরন করতে হবে।

Setting→Account→Switch To Professional Account

কিভাবে ইনস্টাগ্রাম মার্কেটিং করতে হয়?

তো যখন আপনি সফলভাবে উপরোক্ত স্টেপ গুলো সম্পন্ন করতে পারবেন। তখন ধরে নিবেন যে আপনি ইনস্টাগ্রাম মার্কেটিং এর অনেকটা ধাপ এগিয়ে এসেছেন।

তো এবার আপনাকে জানতে হবে যে, আসলে Instagram Marketing কিভাবে করতে হয়।

মূলত এই সেক্টরে যারা একেবারে অভিজ্ঞ ব্যক্তি। তাদের মতে আপনি মোট দুইভাবে ইনস্টাগ্রাম মার্কেটিং করতে পারবেন। যথাঃ 

  1. Free Instagram Marketing 
  2. Paid Instagram Marketing

তো আপনি যদি কোনো প্রকার অর্থ ব্যয় না করেই মার্কেটিং করতে চান। তাহলে আপনাকে Free Package এর উপায় গুলো অবলম্বন করতে হবে।

আর আপনি যদি মার্কেটিং করার জন্য ইনভেস্ট করতে চান। তাহলে আপনাকে Paid Package কে নির্বাচন করতে হবে।

এখন হয়তবা আপনি ভাবছেন যদি ফ্রিতেই মার্কেটিং করা যায়। তাহলে আপনি কিসের জন্য ইনভেস্ট করে মার্কেটিং করবেন, তাইতো?

আপনি আরো পড়ুন…

তাহলে শুনুন, উপরোক্ত দুটি মার্কেটিং করার উপায় গুলো কিন্তুু ভিন্ন। অর্থ্যাৎ, ফ্রিতে মার্কেটিং করতে চাইলে আপনাকে সময় ও শ্রম ব্যয় করতে হবে। আর আপনি যদি পেইড মার্কেটিং করেন। তাহলে আপনাকে অর্থ ব্যয় করতে হবে। 

আমার মনে হয় এই দুটো পদ্ধতি নিয়ে একটু বিস্তারিত আলোচনা করা উচিত। যেন আপনার এই বিষয় গুলো বুঝতে সুবিধা হয়। 

কিভাবে ফ্রিতে ইন্সটাগ্রাম মার্কেটিং করে?

এবার আমরা জানবো যে, যদি আপনি ফ্রিতে ইনস্টাগ্রাম মার্কেটিং করতে চান। তাহলে আপনাকে কি কি কাজ করতে হবে। এবং এই পদ্ধতিতে মার্কেটিং করলে আপনি কি কি সুবিধা ভোগ করতে পারবেন।

তবে মূল আলোচনায় যাওয়ার আগে আপনাকে একটা কথা বলা উচিত। সেটি হলো, যেহুতু আপনি ফ্রিতে মার্কেটিং করবেন। সেহুতু আপনাকে প্রচুর পরিমানে শ্রম দিতে হবে।

অর্থ্যাৎ, অর্থ ব্যয় করে যে কাজ গুলো করা যায়। আপনাকে সেই কাজ গুলো শ্রম দিয়ে করতে হবে।

এখন আপনার মনে প্রশ্ন জাগতে পারে যে, ভাই আমি সময় দিবো এবং শ্রম দিবো। কিন্তুু আমাকে আসলে কি কি করতে হবে? তো এবার সেগুলো নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা যাক। 

Increase Your Instagram Followers

আপনি ইনস্টাগ্রামে পেইড মার্কেটিং করুন কিংবা ফ্রি মার্কেটিং করুন। সবার আগে আপনাকে আপনার Instagram Profile এর ফলোয়ার বৃদ্ধি করতে হবে।

কারন যতোক্ষন না আপনি আপনার একাউন্ট এর ফলোয়ার বাড়াতে পারবেন না। ততোক্ষণ আপনি সফলভাবে মার্কেটিং করতে পারবেন না।

মনে করুন আপনার একাউন্টে মোট ১ হাজার ফলোয়ার আছে। এখন আপনি যদি ফ্রি ইনস্টাগ্রাম মার্কেটিং করেন। তাহলে আপনার বিজনেস সম্পর্কে শুধুমাএ ১ হাজার লোক জানতে পারবে।

ঠিক একইভাবে আপনার প্রোফাইলে যদি ১ লক্ষ ফলোয়ার থাকে। তাহলে কিন্তুু আপনার বিজনেস সম্পর্কে ১ লক্ষ মানুষ জানতে পারবে।

তাই মার্কেটিং শুরু করার আগে আপনাকে আপনার Account এর ফলোয়ার বাড়াতে হবে। 

Increase Your Profile Activity

দেখুন মনে করুন আপনি একটা Instagram Account তৈরি করলেন। এরপর আপনি সেই একাউন্টে আর কোনো কাজ করলেন না। এর মানে আপনার একাউন্টে কোনো একটিভিটি নেই।

যার কারনে আপনার কোনো ফলোয়ার বাড়বে না। এর পাশাপাশি আপনি সেই একাউন্টে আশানুরূপ মার্কেটিং করতে পারবেন না।

তো এবার আপনার মনে প্রশ্ন জাগতে পারে যে, কিভাবে আপনি আপনার Profile এর একটিভিটি বৃদ্ধি করবেন? তাহলে শুনুন,

সাধারন ভাষায় একটিভিটি বলতে আপনি আপনার একাউন্ট কে কি পরিমানে Active রাখছেন। সেই পরিমান কে বলা হয় একটিভিটি। যেমন, আপনি যদি আপনার একাউন্টে নিয়মিত পোষ্ট পাবলিশ করেন।

এবং সেই পোষ্টে ইউজারদের মধ্যে একটা Communities তৈরি করতে পারেন। এর মানে হলো আপনার একাউন্ট টি যথেষ্ট একটিভ।

তবে মার্কেটিং করার জন্য আপনি ফেসবুকের মতো শুধু আজেবাজে পোষ্ট পাবলিশ করলে হবে না। এখানে আপনাকে সেই সব বিষয় নিয়ে পোষ্ট পাবলিশ করতে হবে। যে বিষয় গুলো আপনার মার্কেটিং এর সাথে সম্পর্ক যুক্ত।

যেমন, আপনি যদি কেক এর মার্কেটিং করেন। তাহলে আপনাকে শুধুমাএ কেক সম্পর্কিত পোষ্ট পাবলিশ করতে হবে। 

Connected With Other User

দেখুন সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো যখন আপনি আপনার নতুন একাউন্ট এর মাধ্যমে ইনস্টাগ্রাম মার্কেটিং করা শুরু করবেন।

তখন আপনার মার্কেটিং এর সাথে সম্পর্কযুক্ত এমন পুরাতন জনপ্রিয় ইউজার এর সাথে যথেষ্ট যোগাযোগ রাখতে হবে।

যেন তারা আপনার একাউন্ট এর পরিচিতি বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে।

এতে করে আপনার একাউন্ট এর পরিচিতি বৃদ্ধি পাওয়ার পাশাপাশি আপনি নতুন কিছু ফলোয়ার বৃদ্ধি করতে পারবেন। যা আপনার মার্কেটিং ক্যারিয়ার কে এক ধাপ এগিয়ে দিতে সহায়তা প্রদান করবে। 

Understand Your Followers 

যখন আপনার একাউন্টে মোটামুটি পর্যায়ে কিছু পরিমান ফলোয়ার চলে আসবে। তখন আপনি একটা বিষয় লক্ষ্য করতে পারবেন।

সেটি হলো যারা আপনার ফলোয়ার তারা আপনার পাবলিশ করা পোষ্ট গুলো তে লাইক বা কমেন্ট করবে।

তখন আপনাকে সেই ফলোয়ার দের ফিডব্যাক অর্থ্যাৎ কমেন্ট গুলোকে যথেষ্ট গুরুত্ব দিতে হবে। তারা যখন আপনার কোনো পোষ্টে কমেন্ট করবে। তখন আপনাকে তাদের কমেন্ট গুলোর রিপ্লে দিতে হবে।

এতে করে যারা আপনার ফলোয়ার থাকবে। তারা আপনার প্রতি বিশ্বস্ততা জন্মাতে শুরু করবে। এবং সেই ফলোয়ার গুলো আরও অন্যান্য মানুষকে আপনার কোম্পানি বা বিজনেস সম্পর্কে জানাতে শুরু করবে।

আর এভাবে আপনি আপনার কমিউনিটি কে আরও বেশি পরিমানে বৃদ্ধি করতে পারবেন। 

পেইড ইন্সটাগ্রাম মার্কেটিং কিভাবে করে

আপনি এতোক্ষনে জানলেন যে, কিভাবে ফ্রিতে ইনস্টাগ্রাম মার্কেটিং করবেন। আশা করি উপরোক্ত আলোচনা গুলি খুব ক্লিয়ারভাবে বুঝতে পেরেছেন।

আর যদি না বুঝে থাকেন, তাহলে উপরের লেখা গুলো আরও একবার পড়ে নিন। তা নাহলে আপনার অনেক বিষয় অজানাই থেকে যাবে।

তো এবার আমরা জানবো যে, যদি আপনার ইনভেষ্ট করার মতো সামর্থ্য থাকে। তাহলে আপনি কিভাবে পেইড ইনস্টাগ্রাম মার্কেটিং করবেন।

আপনি যদি চান যে অর্থ ব্যয় করে পেইড মার্কেটিং করবেন। তাহলে আপনাকে তেমন শ্রম ব্যয় করতে হবে না। বরং আপনি Paid Promotion এর মাধ্যমে এই কাজ গুলো খুব সহজেই করে নিতে পারবেন।

এবং খুব দ্রুত আপনার পরিচিতি বৃদ্ধি করে নিতে পারবেন।

যেমন, আপনি আপনার কোনো বিজনেস এর প্রচার করার জন্য Instagram কে অর্থ প্রদান করলেন। এবং আপনি বলে দিলেন যে, আপনার বিজনেস সম্পর্কে যেন ৫০ হাজার মানুষ জানতে পারে।

ব্যাস! আপনার কাজ শুধ এইটুকুই।

এরপর আপনার বিজনেস এর প্রচার করার দায়িত্ব সম্পুর্ন ইনস্টাগ্রাম এর। তারা নিজে থেকে আপনার পন্যের প্রচার করবে। এবং এর ফলে আপনি খুব সহজেই আপনার বিজনেস এর প্রসার করতে পারবেন। 

Bonus Tips For Instagram Marketing 

এবার আপনার জন্য Instagram Marketing সম্পর্কে কিছু বোনাস টিপস রয়েছে। যেগুলো আপনাকে অন্য কোনো ব্লগার কখনোই বলবে না। এই টিপস গুলো শুধুমাত্র এক্সপার্ট ব্যক্তিদের কাছে অবগত থাকে।

যদি আপনি সেই টিপস গুলো সম্পর্কে জানতে চান। তাহলে নিচের আলোচনা গুলো মনোযোগ দিয়ে পড়ার চেস্টা করুন।

TIPS-1: যখন আপনার ইনস্টাগ্রাম একাউন্টটি নতুন অবস্থায় থাকবে। তখন আপনার সদ্য তৈরি করা Account এর ফলোয়ার এর রেশিও অনেক কম থাকবে।

তাই বলে আবার আপনি হতাশ হয়ে পড়বেন না। লেগে থাকুন, তাহলে একদিন আপনি লক্ষ লক্ষ ফলোয়ার এ পৌঁছে যাবেন। 

TIPS-2: যখন আপনি আপনার Instagram Account এ কোনো পোষ্ট পাবলিশ করবেন। তখন আস্তে আস্তে আপনার পোষ্টে লাইক, কমেন্ট আসতে শুরু করবে। তো আপনার পোষ্টে যারা লাইক বা কমেন্ট করবে।

তাদেরকে আপনি এক এক করে Follow করা শুরু করে দিবেন। এবং শুরুর দিকে আপনাকে এই কাজটি একনাগারে করে যেতে হবে।

TIPS-3: হ্যশট্যাগ (#) খুব গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। আপনাকে এই বিষয়টি কে যথেষ্ট গুরুত্ব দিতে হবে। আপনি আপনার একাউন্ট এ যে পোষ্ট গুলো করবেন।

আপনাকে সেই পোষ্ট গুলোতে #Hash_Tag ব্যবহার করতে হবে। যেন এর মাধ্যমে ইউজাররা আপনাকে খুব সহজেই খুজে নিতে পারে।

TIPS-4: পোষ্ট করার দিকে যথেষ্ট নজর রাখবেন। আপনি কোনোদিন ৫-১০ টা পোষ্ট করলেন। আবার কোনোদিন একটা পোষ্ট করলেন না। এমনটা কখনই করার চেস্টা করবেন না।

চেস্টা করবেন দৈনিক নির্দিষ্ট একটা সময়ে ১-২ বা ৩ টা পোষ্ট করার। আবার দিনে অতিরিক্ত পোষ্ট করলে ফলোয়ার রা আপনার প্রতি বিরক্তি ভাব জন্মাতে পারে। তাই এই দিকটা মাথায় রাখার চেস্টা করবেন।

TIPS-5: হাতে একটু সময় নিয়ে পিন্টারেস্ট থেকে আপনার বিজনসে রিলেটেড ভালো কোয়ালিটির Picture কালেক্ট করার চেস্টা করবেন। যেন সেই পিকচার গুলো ফলোয়ার দের কাছে আর্কষনীয় মনে হয়। 

আমাদের শেষকথা

আজকের আর্টিকেলে আমরা জানতে পারলাম যে, “ইনস্টাগ্রাম মার্কেটিং কি” এবং কেন আপনার Instagram Marketing করা উচিত। 

এর পাশাপাশি আমরা জানতে পেরেছি যে, একজন বিগেনার হিসেবে কিভাবে আপনি ইনস্টাগ্রাম মার্কেটিং করবেন। তার জন্য আপনাকে কি কি করতে হবে। 

এবং সবশেষে আপনি কিছ টিপস সম্পর্কে জেনেছেন। যা আপনার ইনস্টাগ্রাম মার্কেটিং এ অনেক বেশি পরিমানে সহায়তা প্রদান করবে।

তবে এরপরও যদি আপনার মনে কোনো প্রশ্ন থাকে। তাহলে অবশ্যই একটা কমেন্ট করে জানাবেন। আমি চেস্টা করবো আপনাকে হেল্প করার।

বাংলা আইটি ব্লগের সাথে থাকুন। ধন্যবাদ

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: কপি করা যাবে না !!
Scroll to Top
Share via
Copy link
Powered by Social Snap