ওয়েব ডিজাইন কি ? | কিভাবে ওয়েব ডিজাইন শিখে আয় করবেন

ওয়েব ডিজাইন কিঃ সত্যি বলতে, আমি আপনার মতোই একজন মানুষকে খুজছি। যে মানুষটা ওয়েব ডিজাইন সম্পর্কে জানতে চায়। আজকের আর্টিকেলে আমি, “ওয়েব এবং ডিজাইন”- এই দুটো বিষয় নিয়ে আলোচনা করবো। এছাড়াও ” Web Desinge কি , কিভাবে ওয়েব ডিজাইন শিখবেন এবং ওয়েব ডিজাইন শিখে কিভাবে ইনকাম করবেন”।

যাবতীয় বিষয়গুলো নিয়ে বিষদভাবে লেখার চেস্টা করবো। সেজন্য সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি ধৈর্য সহকারে পড়বেন।

ওয়েব ডিজাইন কি
ওয়েব ডিজাইন কি

দেখুন ওয়েবসাইটের চাহিদা দিন দিন বেড়েই চলছে। আপনি বর্তমানে যে লেখাটি পড়ছেন। সেটিও একটি ওয়েবসাইটের মাধ্যমে পড়তে পারছেন। এছাড়াও আপনার দৈনন্দিন ব্যবহার করা Facebook, Google, YouTube সেগুলোও কিন্তুু একেকটা ওয়েবসাইট।

বর্তমানে ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসে ওয়েব ডিজাইন সেক্টরের বেশ দাপট রয়েছে। যারা এই সেক্টরে ফ্রিল্যান্সিং করে, তারা ওয়েব ডিজাইনের প্রতিটা প্রজেক্টের জন্য 50$ থেকে 1000$ পর্যন্ত ইনকাম করে থাকে।

শুধু ফ্রিল্যান্সিং নয়, যদি আপনি এই সেক্টরে নিজেকে দক্ষ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে পারেন। তাহলে শুধু Local Job করেও নিজের একটা সফল ক্যারিয়ার গড়তে পারবেন।

তবে ওয়েব ডিজাইনিং করে সফল ক্যারিয়ার গড়ার আগে আপনাকে এই সেক্টর সম্পর্কে ভালোভাবে বুঝতে হবে। জানতে হবে, কিভাবে ওয়েব ডিজাইন শিখতে হয়, কিভাবে ওয়েব ডিজাইন করে ইনকাম করতে হয়। 

ওয়েব ডিজাইন কি?

বর্তমান সময়ে লক্ষ লক্ষ ওয়েবসাইট রয়েছে। এই ওয়েবসাইট গুলো ভিন্ন ভিন্ন কাজে ব্যবহার করা হয়। এছাড়াও প্রতিটা ওয়েবসাইটের গঠনশৈলীও ভিন্ন ধরনের।

যারা মূলত এই ওয়েবসাইট গুলো ডিজাইন করে, তাদেরকে বলা হয় “ওয়েব ডিজাইনার“। এবং একটা ওয়েবসাইট ডিজাইন করতে যে যে কাজ গুলো করা হয়, সেই কাজ গুলোকে বলা হয় “ওয়েব ডিজাইন“।

যেমন ধরুন, বর্তমানে আমরা যে Facebook ব্যবহার করি। এই ফেসবুক আজ এতোটা জনপ্রিয় হওয়ার পেছনে মূল কারন হলো, ফেসবুকের আর্কষনীয় ডিজাইন। সত্যি বলতে ফেসবুকের ডিজাইন এমনভাবে তৈরি করা হয়েছে।

যেন সব ধরনের মানুষের তা বোধগম্য হয়। ফেসবুকের Message, Post, Like, Comment, Notification দিয়ে ওয়েবসাইটিকে এমনভাবে তৈরি করা হয়েছে। যেন সবাই সেই ডিজাইনের প্রতি মুগ্ধ হয় এবং সব ধরনের মানুষ যেন সেই ডিজাইনেই অভ্যস্ত হয়।

আপনার জন্য আরো পোস্ট…

আবার গুগলের কথাও চিন্তা করে দেখুন। Google বর্তমানে পৃথিবীর সেরা একটি সার্চ ইন্জিন। অথচ গুগলের ডিজাইনের দিকে তাকালেই দেখতে পারবেন, কত স্মুথ এবং প্রোপার Way তে ডিজাইন করা হয়েছে। যেন যে কোনো মানুষ গুগলকে দেখেই বুঝতে পারে যে, এটা একটা Search engine. 

ঠিক তেমনি কোনো ওয়েবসাইটের কোথায় কোন Colour দিতে হবে, কোথায় কোন Option থাকবে, কোন কোন স্থানে Image ব্যবহার করতে হবে ইত্যাদি কাজগুলো হলো ওয়েব ডিজাইনের অর্ন্তভুক্ত। আর এই কাজগুলো সেই সব মানুষ করতে পারে, যে মানুষ গুলো ওয়েব ডিজাইন সেক্টরের সাথে যুক্ত।

তবে আপনার মনে এখন প্রশ্ন জাগতে পারে যে, ওয়েব ডিজাইন এবং ওয়েব ডেভলপমেন্ট কি এক জিনিস? – এই প্রশ্নের উওরে আমি বলবো, না! এই দুটোই ভিন্ন ভিন্ন বিষয়। কেন এই দুটো ভিন্ন বিষয়, এবার সে সম্পর্কে একটু জেনে নেয়া যাক। 

ওয়েব ডিজাইন ও ডেভলপমেন্ট কি?

আমাদের মধ্যে অনেকেই আছেন, যারা ওয়েব ডিজাইন ও ওয়েব ডেভলপমেন্ট কে একই বিষয় মনে করে। যেহুতু এই দুটোই বিষয়েই “Web” রিলেটেড। সেহুতু এই এমন মনে করাটাও স্বাভাবিক। কিন্তুু আদতে এই দুটো বিষয় কখনই এক নয়।

যেমন, আমি একটু আগেই বলেছি, কোন একটি ওয়েবসাইটের কোন কোন স্থানে কি Colour দিতে হবে, কোথায় কোন Option বসাতে হবে। ওয়েবসাইটের কোন স্থানে Image ব্যবহার করতে হবে ইত্যাদি বিষয় গুলোর পূর্বপরিকল্পনা অনুযায়ী সাজানোর কাজগুলোকে বলা হয় ওয়েব ডিজাইন। 

কিন্তুু ওয়েব ডেভলপমেন্ট বিষয়টি সম্পূর্ণ আলাদা। যখন কোনো একটি ওয়েবসাইটের ডিজাইন সম্পন্ন করার পর। সেই ওয়েবসাইটকে Develope করা হয়। তখন ডেভলোপ করার সেই কাজ গুলোকে বলা হয়, Web Development. বিষয়টি আরেকটু ক্লিয়ার করে বলি।

দেখুন, আপনি আপনার নিজের পছন্দমতো একটি ওয়েবসাইট তৈরি করলেন। এখন কিছুদিন পর আপনার মনে হলো, আপনার তৈরি করা সেই ওয়েবসাইটে আরও কিছু Feature যুক্ত করতে হবে।

এখন আপনি যে আপনার ওয়েবসাইটে নতুন ফিচার যুক্ত করবেন, আপনার তৈরি করা ওয়েবসাইটের ডিজাইনকে আরও মনোমুগ্ধকর করার জন্য নতুন নতুন Section যুক্ত করবেন। এই কাজগুলোই হলো ডেভলোমেন্টের অন্তর্ভুক্ত। 

তবে এটা জেনে রাখা উচিত যে, ওয়েব ডিজাইন এবং ডেভলপমেন্টে যে ব্যবধান রয়েছে। সেই ব্যাবধান ততোটাও গভীর নয়। শুধু এটুকু মাথায় রাখবেন যে, ওয়েব ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্টের মধ্যে পার্থক্য রয়েছে। তবে তা খুব সামান্য।

আর আমার কথায় যদি কেউ দ্বিমত পোষন করেন। তাহলে আপনাকে বলছি, শুনুন। একজন ওয়েব ডিজাইনার কিন্তুু “ডিজাইন এবং ডেভলপমেন্ট“- এই দুটো কাজেই করতে পারে।

কারন যখন আপনি এটা বুঝতে পারবেন যে, একটা ওয়েবসাইটকে দৃষ্টিনন্দন করার জন্য কেমন ডিজাইন দরকার। তখন আপনি এটাও বুঝতে পারবেন যে,  একটা ওয়েবসাইটকে কিভাবে ডেভলোপ করতে হয়। 

ওয়েব ডিজাইন কাদের জন্য উপযুক্ত

আমি সচারাচর একটি কথা বলে থাকি যে, সব কাজ সবাই করতে পারেনা। বরং যারা উপযুক্ত শুধুমাএ তাদের দিয়েই নির্দিষ্ট কাজ সম্পন্ন করা সম্ভব।

ঠিক তেমনি যে কেউ চাইলেই ওয়েব ডিজাইনের কাজ করতে পারবে না। যদি আপনি ওয়েব ডিজাইন শিখতে চান। ওয়েব ডিজাইন সেক্টরে কাজ করে নিজের একটা সফল ক্যারিয়ার গড়তে চান। তাহলে আপনার ভেতরে কিছু গুনাবলি থাকতে হবে। যেমন,

কোডিং এর প্রতি ভালোবাসা

এটি সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ একটি পয়েন্ট। দেখুন, ওয়েব ডিজাইনের Mother Subject হলো, কোডিং। বিভিন্ন Code / Programme Language ছাড়া একজন ওয়েব ডিজাইনার হওয়ার স্বপ্ন দেখা নিছক বোকামি।

ঘন্টার পর ঘন্টা, রাতের পর রাত কম্পিউটারের সামনে বসে অনবরত Coding করে দৃষ্টিনন্দন ডিজাইন তৈরি করাই হলো একজন ওয়েব ডিজাইনারের মূল কাজ। তাই যদি আপনার ভেতরে Code/Programme এর প্রতি টান থাকে। তাহলে ওয়েব ডিজাইনে আপনাকে স্বাগতম। 

ক্রিয়েটিভ ডিজাইনিং আইডিয়া

আমরা সবাই জানি, প্রযুক্তি দিন দিন উন্নত হচ্ছে। সেই সাথে বাড়ছে প্রতিযোগীতা। তাই বর্তমান সময়ে তারাই টিকে থাকবে, যাদের ভেতরে ক্রিয়েটিভিটি আছে। সেদিক থেকে বিবেচনা করলে ওয়ান ডিজাইন সেক্টরেও আপনাকে যথেষ্ট Creative হতে হবে।

আপনার ডিজাইন হতে হবে অন্যতম। তাহলেই আপনি এই সেক্টরে রাজত্ব করতে পারবেন। অন্যথায় ধুঁকে ধুঁকে অন্যদের সফলতা দেখে দেখে দিন পার করতে হবে। 

অদম্য ইচ্ছাশক্তি

প্রবাদে আছে, “ইচ্ছা থাকলে উপায় হয়”। এ নিয়ে আমারও কোনো দ্বিমত নেই। যদি আপনি ওয়েব ডিজাইন শিখতে চান।  তাহলে আপনার ভেতরেও ডিজাইন শেখার প্রতি অদম্য ইচ্ছাশক্তি থাকতে হবে।

আপনার মনোবলকে এমনভাবে তৈরি করতে হবে, “যেভাবেই হোক আপনি একজন দক্ষ ওয়েব ডিজাইনার হবেন”। তাহলেই আপনি এই সেক্টরে ভালো কিছু করতে পারবেন। 

কেন ওয়েব ডিজাইন শিখবেন?

তার আগে একটা কথা বলুন তো, কেন আপনি ওয়েব ডিজাইন শিখতে চান না? এর চাহিদা কম? নাকি ইনকাম কম? কোনটা! দেখুন ওয়েব ডিজাইন হলো ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসের সবচেয়ে সম্মানজনক একটি পেশা। কারন কি জানেন?

এর মূল কারন হলো, যতোদিন ইন্টারেট থাকবে, ততোদিন ওয়েবসাইট থাকবে। আর যতোদিন ওয়েবসাইট থাকবে, ততোদিন একজন ওয়েব ডিজাইনারের প্রয়োজন হবে। তাহলে ভেবে দেখুন, কেন আপনি ওয়েব ডিজাইন শিখবেন!

আর যদি ইনকামের দিকে ফোকাস রাখেন। তাহলেও বলবো, ইনকামের জন্যও ওয়েব ডিজাইন সবচেয়ে উপযুক্ত। যদি আপনি ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস গুলোতে একটু সুদৃষ্টি দেন।

আপনার জন্য আরো আর্টিকেল…

তাহলে আপনি নিজেই দেখতে পারবেন যে, ছোট ছোট প্রজেক্টের জন্য, একজন ওয়েব ডিজাইনারকে কি পরিমান $ (Dollar) দেয়া হয়।

শুধু কি ফ্রিল্যান্সিং! যদি আপনি চান যে ফ্রিল্যান্সিং না করেও ইনকাম করবেন। তাহলে বিভিন্ন Local Job করেও আপনি বিপুল পরিমানে ইনকাম করতে পারবেন। বিভিন্ন স্কুল-কলেজ, ব্যবসা-প্রতিষ্ঠানের জন্য এখন একটি ওয়েবসাইট থাকা বাধ্যতামূলক হয়ে পড়েছে।

আপনি আপনার ডিজাইনিং দক্ষতার জোরে এইসব লোকাল জব করেও যথেষ্ট পরিমান ইনকাম জেনারেট করতে পারবেন। 

কিভাবে ওয়েব ডিজাইন শিখবেন?

ওয়েব ডিজাইন যেমন পুরো পৃথিবী জুড়ে বিস্তৃত। ঠিক তেমনি ওয়েব ডিজাইন শেখারও অনেক সোর্স রয়েছে। আপনি চাইলে অফলাইন কিংবা অনলাইন যেকোনো একটি মাধ্যমে শিখতে পারবেন। এবার আমরা সেই মাধ্যম গুলো সম্পর্কে জেনে জানবো। 

আইটি সেন্টার থেকে ওয়েব ডিজাইন শিখুন

আপনি চাইলে একাডেমিক ভাবে ওয়েব ডিজাইন শিখতে পারবেন। আপনার শহরের আশেপাশে এমন অনেক আইটি প্রতিষ্ঠান রয়েছে। আপনি বিশ্বস্ত এবং স্বনামধন্য কোনো প্রতিষ্ঠান থেকে কোর্স ভিওিক ওয়েব ডিজাইন শিখে নিতে পারবেন। 

হয়তবা এভাবে শিখতে হলে আপনাকে মোটা অংকের টাকা গুনতে হবে। সেজন্য অবশ্যই যাচাই-বাছাই করার পর নিজের বিবেচনায় ভালো কোনো আইটি সেন্টারে যুক্ত হয়ে ওয়েব ডিজাইন শিখতে পারবেন।

তবে মনে রাখবেন, কোনো আইটি সেন্টারে যুক্ত হওয়ার আগে, অবশ্যই সেই প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নিবেন। কারন বর্তমান সময়ে অলিতে-গলিতে এমন অনেক প্রতিষ্ঠান রয়েছে। যারা কাজ শেখার নাম করে বাটপারি করে। তাই এইদিকে বেশ সতর্ক থাকার চেস্টা করবেন। 

অনলাইন থেকে ওয়েব ডিজাইন শিখুন

সবচেয়ে মজার বিষয় হলো, যদি আপনি কোনো প্রকার টাকা ব্যয় না করে, সম্পূর্ণ বিনামূল্যে ওয়েব ডিজাইন শিখতে পারবেন। অনলাইনে এমন অনেক সোর্স রয়েছে, যেখান থেকে নিজের ঘরে বসে শিখে নিতে পারবেন। 

ওয়েব ডিজাইন শেখার জন্য কিছু জনপ্রিয় ওয়েবসাইট রয়েছে। যেমনঃ 

  1. W3schools.com
  2. Codeacademy.org
  3. Treehouse
  4. Stackoverflow
  5. Udacity.com
  6. Google Developers
  7. Lynda
  8. Killer PHP

এগুলো ছাড়াও আরও অনেক ওয়েবসাইট আছে। যেখানে আপনি ওয়েব ডিজাইন সম্পর্কিত যাবতীয় বিষয় সম্পর্কে শিখতে পারবেন। এবং আপনি যা শিখবেন, সেগুলো প্রাকটিস করার সুযোগ সুবিধাও পাবেন।

এখানে আমি একটা গুরুত্বপূর্ণ কথা বলবো। আমি ব্লগিং করছি প্রায় কয়েক বছর আগে থেকেই।  ২০১৮/১৯ সালের দিকে আমিও আপনার মতো ওয়েব ডিজাইন শেখার জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছিলাম।

কেন সেই ভুত আমার মাথায় চেপেছিলো, তা বলতে পারবো না। তবে মনে মনে সিন্ধান্ত নিয়েছিলাম যে, ওয়েব ডিজাইন শিখেই ছাড়বো ৷

কিন্তুু সে সময়ে কোর্স কিংবা কোনো আইটি সেন্টারে গিয়ে ওয়েব ডিজাইন শেখাটা আমার পক্ষে খুব দুস্কর ছিলো ৷ এরপর যেকোনোভাবে আমি W3schools এর সন্ধান পাই। শুরুতেই এই ওয়েবসাইটটি আমার ভীষন রকমের ভালো লাগে ৷ 

W3schools এমন একটা ওয়েবসাইট, যেখানে ওয়েব ডিজাইনের প্রতিটা বিষয় বেশ সাজানো রয়েছে। আপনি চাইলে Basic থেকে এডভান্স লেভেল পর্যন্ত যেকোনো ধরনের Code কে রান করাতে পারবেন। এর পাশাপাশি অনলাইনের মাধ্যমে যেকোনো কোডিং এর প্রাকটিসও করতে পারবেন। 

কোর্স করে ওয়েব ডিজাইন শিখুন

বর্তমান সময়ে কোনো কিছু শেখার অন্যতম মাধ্যম হলো অনলাইনের কোর্স কিনে নেয়া। যারা যে বিষয়ে এক্সপার্ট, তারা সেই বিষয়ে কোর্স তৈরি করে। তারপর সেই কোর্স অনলাইনের বিভিন্ন প্ল্যাটফর্মে বিক্রি করে থাকে।

যদি আপনার সামর্থ্য থাকে, তাহলে আপনিও ঘরে বসে কোর্স দেখে দেখে ওয়েব ডিজাইন শিখতে পারবেন। কোর্স বিক্রি করে এমন কিছু বিশ্বস্ত ওয়েবসাইট রয়েছে। যেমনঃ

  1. Udemy
  2. Skillshare
  3. Teachable
  4. Podia
  5. Thinkific
  6. Kajabi
  7. LearnWorlds
  8. Mighty Networks

আপনার সুবিধার জন্য একটা ডিসক্লেইমার। দেখুন,বর্তমানে কোর্স সেল করা অনেক চিটার বাটপারের সংখ্যা অতিমাএায় বেড়ে গেছে। তাই কোর্স কেনার আগে অবশ্যই সাবধানতা অবলম্বন করবেন।

আর বাংলাদেশের কোর্স কেনার আগে, সেই ব্যাক্তি/প্রতিষ্ঠান বিশ্বস্ত কিনা, তা বিবেচনা করবেন। তারপর কোর্স কিনবেন। কারন এখন অনেক গ্রুপ/পেজের লোভনীয় কমেন্ট বা পোষ্ট দেখার পর। আপনার মনে সেই কোর্স কিনের নেয়ার ইচ্ছা জাগতে পারে।

কিন্তুু কোর্স কেনার আগে নিজের ইচ্ছাকে নয় বরং নিজের বুদ্ধির জোর দিয়ে বিবেচনা করবেন। নাহলে, আপনার কোর্স কেনার টাকা এবং সময় দুটোই জলের সাথে মিশে যাবে ৷ 

ওয়েব ডিজাইনের কি কি শিখবেন?

শিক্ষার কোনো শেষ নেই। আপনি যতো বেশি শিখবেন, আপনার জ্ঞান ততো বেশি বৃদ্ধি পাবে। ঠিক তেমনি ওয়েব ডিজাইন এমন একটি সেক্টর। যেখানে শেখার কোনো শেষ নেই।

তবে প্রাথমিক অবস্থায় আপনাকে যেসব বিষয়ে ধারনা রাখতে হবে। সেই বিষয়গুলো সম্পর্কে একটু আলোচনা করবো। 

  • HTML (এইচটিএমএল)

html কে বলা হয় mother of coding. অর্থ্যাৎ html ব্যাতীত ওয়েব ডিজাইন কল্পনা করা অসম্ভব। সে যে কেউ হোক না কেন, ওয়েব ডিজাইনে পা রাখার আগে, তাকে অবশ্যই html শিখতে হবে।

বলা বাহুল্য যে, যেকোন একটি ওয়েবসাইট কে সর্বপ্রথম html দিয়ে কাঠামো তৈরি করা হয়। এরপর সেই কাঠামো বিভিন্ন কোডিং এবং প্রোগ্রামিং এর সাহায্য মডিফাই ও ডেভেলপমেন্ট করা হয়।

যেমন ধরুন, মানুষের কাঠামো তৈরি করতে যেমন কঙ্কাল থাকে। ঠিক তেমনি কোনো একটি ওয়েবসাইটের কঙ্গাল সাদৃশ্য হলো html. তাই ওয়েবসাইটের কাঠামো তৈরি করার জন্য আপনাকে অবশ্যই html সম্পর্কে ধারনা থাকতে হবে। 

  • CSS (সিএসএস) 

html শেখার পর দ্বিতীয় ধাপে আপনাকে Css শিখতে হবে। কারন, কোনো একটি ওয়েবসাইট কে বিভিন্ন কালারের সংমিশ্রণে আর্কষনীয় করতে Css এর কোনো জুড়ি নেই। Css দিয়ে কোনো একটি ওয়েবসাইটকে বিভিন্ন Colour যুক্ত করে মডিফাই করা সম্ভব।

এখানে html আর css এর মধ্যে একটা মধুর সম্পর্ক দেখতে পারবেন। যেমন, html একটা ওয়েবসাইটের Body তৈরি করে। আর css দিয়ে সেই Body কে কালার ফুল করা হয়।

যেমন আমি শুরুতেই বলছি, html হলো কোনো একটি ওয়েবসাইটের কঙ্গাল স্বরুপ। যাকে আমরা কোনো ওয়েবসাইট এর ভিওি বলতে পারি। তবে এটা সত্যি যে, শুধুমাএ html দিয়ে তৈরি করা ওয়েবসাইট কে ভিষন বাজে দেখাবে। সেজন্য html দিয়ে গঠন কাঠামো তৈরি করার পর Css এর মাধ্যমে কালারফুল করতে হবে। 

[PRO Tips: সেজন্য আপনাকে প্রথমে html শিখতে হবে, তারপর css শিখতে হবে। ]

  • ফটোশপ ব্যাসিক (Photoshop)

  হুমম, ওয়েব ডিজাইন শিখতে গেলে আপনাকে Photoshop সম্পর্কে ধারনা থাকতে হবে। তবে মনে রাখবেন, আপনার শুধু ফটোশপ এর Basic ধারনা থাকলেই চলবে। 

এখন আপনার মনে প্রশ্ন জাগতে পারে যে, ওয়েব ডিজাইন শিখতে তো কোডিং জানতে হয়। কিন্তুু আপনি ফটোশপ কেন শিখবেন! তাহলে শুনুন…

আপনার জন্য আরো লেখা…

কোনো একটি ওয়েবসাইট তৈরি করার আগে, সেই ওয়েবসাইটের ডিজাইন কেমন হবে। তার একটি প্রাথমিক ডিজাইন তৈরি করতে হয়। আর এই প্রাথমিক ডিজাইন (Demo) ফটোশপের মাধ্যমে তৈরি করা যায়।

তাই যদি আপনার ব্যাসিক ধারনা থাকে, তাহলে আপনি যে কোনো ওয়েবসাইটের Demo Design তৈরি করতে পারবেন।

[দেখুনঃ Photoshop সম্পর্কে অনেক ভিডিও আছে YoTube এ। আপনি কয়েকটা ভালো টিউটোরিয়াল দেখলেই Photoshop এর ব্যাসিক ধারনা পেয়ে যাবেন]

আপাততো ওয়েব ডিজাইনের ব্যাসিক লেভেল এ এইটুকু শিখলেই যথেষ্ট। এরপর আপনি নিজেই সবকিছুই বুঝতে পারবেন।

তবে ওয়েব ডিজাইন শিখতে হলে, আপনাকে প্রচুর প্রাকটিস করতে হবে। দৈনিক কিছুটা সময় বের করে কোডিং করার পেছনে ব্যয় করতে হবে।

ওয়েব ডিজাইন শিখে ইনকাম করার উপায় কি?

আপনি যদি একজন দক্ষ ওয়েব ডিজাইনার হয়ে থাকেন। তাহলে ভিন্ন ভিন্ন উপায়ে ইনকাম করতে পারবেন। তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য কিছু উপায় হলোঃ

  1. ফ্রিল্যান্সিং
  2. লোকাল জব
  3. নিজের ওয়েবসাইটে
  4. কোর্স সেল  

আমার জানামতে এই ৪ টি মাধ্যম থেকে ইনকাম করতে পারবেন। যেহুতু আমাদের মূল উদ্দিন ইনকাম করা। তাই একটু বিস্তারিত আলোচনা করা উচিত। 

ফ্রিল্যান্সিং থেকে ইনকাম

আপনি ওয়েব ডিজাইন শিখার পর, ফ্রিল্যান্সিং করে বিপুল পরিমাণ ইনকাম জেনারেট করতে পারবেন। আপনি জানলে অবাক হবেন, যারা Web ডিজাইনার। তারা ছোট ছোট প্রজেক্টের জন্য মিনিমাম 50$ থেকে 500$ পর্যন্ত ইনকাম করে থাকে।

তবে মনে রাখবেন, ফ্রিল্যান্সিং করতে হলে অবশ্যই আপনাকে দক্ষ Web Designer হতে হবে। কেননা Freelancing Market গুলোতে একমাএ সেই মানুষ গুলো টিকে থাকতে পারে। যারা নিজস্ব সেক্টরে এক্সপার্ট।

আপনাদের সুবিধার জন্য নিচে কয়েকটি জনপ্রিয় ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট এর নাম দেয়া হলো। যেগুলোতে ওয়েব ডিজাইন এন্ড ডেভেলপমেন্টর কাজ করে বড় পরিমাণের অর্থ আয় করতে পারবেন।

  • Upwork.
  • Fiverr.
  • Freelancer.
  • Toptal.
  • 99designs.
    PeoplePerHour.
  • Guru.Dribbble.

লোকাল জব করে ইনকাম

দেখুন বর্তমান সময়ে ওয়েবসাইটের চাহিদা দিন দিন বেড়েই চলছে। স্কুল-কলেজ থেকে শুরু করে শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান পর্যন্ত,  সবক্ষেত্রেই ওয়েবসাইটের প্রয়োজন হয়। এই সুবাধে আপনি এসব প্রতিষ্ঠানে জব করেও প্রচুর পরিমান টাকা ইনকাম করতে পারবেন। 

নিজের ওয়েবসাইট থেকে ইনকাম

এটি হলো ইনকাম করার সবচেয়ে সহজ পদ্ধতি। যদি আপনার ডিজাইনিং সম্পর্কে দক্ষ অভিজ্ঞতা থাকে। তাহলে নিজের জন্য একটা আর্কষনীয় ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারবেন। এরপর সেই ওয়েবসাইটকে এফিলিয়েট অথবা ব্লগিং করেও ইনকাম করতে পারবেন।

এছাড়াও বর্তমানে ই-কমার্সের চাহিদা বাড়ছে, আপনি একটা অনলাইপ শপ খুলে Product Sell করে ইনকাম করতে পারবেন।

কোর্স সেল করে ইনকাম

যখন আপনি ওয়েব ডিজাইনে দক্ষতা অর্জন করবেন। তখন অনেকেই আপনার কাজের প্রতি ভালোলাগা জন্মাতে পারে। আপনার কাছ থেকে অনেকেই গাইড নিতে চাইবে। সেই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে আপনি তাদের কাছে কোর্স সেল করেও ইনকাম করতে পারবেন। 

ওয়েব ডিজাইন শেখার সফটওয়্যার

ওয়েব ডিজাইন শিখতে গেলে আপনাকে প্রচুর কোডিং মনে রাখতে হয়। আর কোড মনে রাখার সবচেয়ে উপযুক্ত পন্থা হলো প্রাকটিস/অনুশীলন করতে হবে। আপনি চাইলে যেকোনো পদ্ধতিতে অনুশীলন করতে পারবেন।

তবে বর্তমানে ডিজাইনিং এক্সপার্টরা ভিন্ন ভিন্ন সফটওয়্যার ব্যবহার করে থাকে। তেমন কিছু সফটওয়্যার এর নাম হলোঃ

  • Notepad++
  • Adobe Dreamweaver
  • Visual Studio Code
  • UltraEdit
  • Atom
  • Brackets
  • TextPad 

এগুলো ছাড়াও আরও অনেক ভালো সফটওয়্যার রয়েছে। যেখানে আপনি বিভিন্ন কোডিং এর প্রাকটিস করতে পারবেন।

তবে আমার রেকমেন্ড করবো Notepad++ কে। কেননা, এই Software টির ইন্টারফেস এবং ব্যবহারগত দিক থেকে যথেস্ট ফ্রেন্ডলি মনে হয়েছে আমার কাছে।

এই কোড ইডিটর দিয়ে আপনি Basic থেকে Advanced Level এর যে কোনো কোড প্রাকটিস করতে পারবেন। এছাড়াও যে কোনো কোডের ইনপুট করার পর সাথে সাথে আউটপুটও দেখতে পারবেন। 

মোবাইল দিয়ে ওয়েব ডিজাইন শিখার উপায়

সত্যি কি মোবাইল দিয়ে ওয়েব ডিজাইন করা সম্ভব? এই প্রশ্নের জবাবে বলবো,হ্যাঁ! মোবাইল দিয়েও ওয়েব ডিজাইন করা সম্ভব। বর্তমান সময় প্রযুক্তি অনেকটা এগিয়ে গেছে। সেই সাথে বাড়ছে মোবাইলের Feature.

যার মাধ্যমে বিভিন্ন Apps এ আপনি ওয়েব ডিজাইন রিলেটেড বিভিন্ন কোডিং প্রাকটিস করতে পারবেন ৷ মোবাইলে Code Practice করার কিছু ভালো Apps এর নাম হলো, 

  • Code Editor 

আমার দেখা মোবাইল দিয়ে Coding Practice করার সবচেয়ে ভালো Apps হলো code editor. এই এপসটি সরাসরি গুগল প্লে স্টোর থেকে ডাউনলোড করতে পারবেন। এই এপসটি এখন পর্যন্ত ১ লক্ষেরও বেশিবার ডাউনলোড করা হয়েছে।

যদি আপনি মোবাইল দিয়ে ওয়েব ডিজাইন শিখতে চান, তাহলে নিচের লিংক থেকে সরাসরি ডাউনলোড করতে পারবেন। 

Download Here

  • Decoder Compiler IDE

মোবাইল দিয়ে ওয়েব ডিজাইন শেখার আরেকটি জনপ্রিয় Apps হলো Decoder Compiler IDE. এই এপসটিকেও আপনি সরাসরি গুগল প্লে স্টোর থেকে ডাউনলোড করতে পারবেন। বলা বাহুল্য যে, এই Apps টি ১ মিলিয়ন এর বেশিবার ডাউনলোড করা হয়েছে।

এছাড়াও প্লে স্টোরে এর রেটিং রয়েছে 4.5 যদি আপনি এই এপসটি ডাউনলোড করতে চান। তাহলে নিচের লিংক থেকে সরাসরি ডাউনলোড করতে পারবেন। 

Download Here

  • Web Code

এই এপসটি জনপ্রিয়তার দিক থেকে কোনো অংশেই কম নয়। মোবাইল দিয়ে ওয়েব ডিজাইন শেখার জন্য উপযুক্ত একটি Android Apps. এই এপসটি আপনি গুগল প্লে স্টোরে পেয়ে যাবেন। এই এপসের রেটিং রয়েছে ৪.০ যদি আপনি এই এপসটি সরাসরি ডাউনলোড করতে চান। তাহলে নিচের লিংক থেকে সরাসরি ডাউনলোড করতে পারবেন। 

Download Here

তবে মোবাইল দিয়ে যারা ওয়েব ডিজাইন শিখতে চান। তাদের উদ্দেশ্য কিছু কথা বলবো, দেখুন মোবাইল দিয়ে শুধুমাএ ওয়েব ডিজাইনের Basic শিখতে পারবেন। যেমন, html ও css এর মতো সাধারন বিষয় গুলো শিখে নিতে পারবেন।

কিন্তুু যদি আপনি প্রফেশনালি ওয়েব ডিজাইন শিখতে চান। তাহলে আপনার কাছে অবশ্যই একটি কম্পিউটার বা ল্যাপটপ থাকতে হবে।

আপনি আরো পড়ুন…

কারন যখন আপনি ব্যাসিক থেকে এডভান্সড লেভেল এ পৌঁছাবেন ৷ তখন আপনাকে বড় বড় কোডিং সলভ করতে হবে। এই কোডগুলো মোবাইলের মাধ্যমে মেইনটেইন করা একেবারে অসম্ভব। কিন্তুু শুধুমাএ ব্যাসিক লেভেল এর কাজ গুলো মোবাইল দিয়ে সম্পন্ন করতে পারবেন।

ওয়েব ডিজাইন এর ভবিষ্যৎ সম্ভাবনা

দেখুন, কেউ গ্যারান্টি দিয়ে কোনো কিছুর ভবিষ্যৎ বলা সম্ভব না। তবে আমার অভিজ্ঞতা অনুযায়ী বলবো, ওয়েব ডিজাইনের ভবিষ্যৎ যথেষ্ট আশানুরূপ। বিষয়টা একটু খুলে বলি… 

একটু চিন্তা করে দেখুন তো, মার্ক জাকারবার্গ যখন ফেসবুক নামের সেই ওয়েবসাইটটি তৈরি করেছিলো। সেদিন কি সে এটা জানতো যে, তার তৈরি করা Facebook একদিন বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় একটি Social media তে পরিনত হবে।

আবার গুগলের কথাটাই চিন্তা করে দেখুন। Google সামান্য একটা সার্চ ইঞ্জিন,অথচ বর্তমান সময়ের অনলাইন প্ল্যাটফর্মের প্রায় ৭০ শতাংশ দখল করে আছে। শুধু গুগল বা ফেসবুকেই নয়! এমন হাজারো ওয়েবসাইট রয়েছে। যা আজকের দিনে জনপ্রিয়তার শীর্ষে রয়েছে।

কিন্তুু এইসব কিছুর পেছনে যার মূল ভূমিকা রয়েছে, সেটি হলো ওয়েব ডিজাইন। দেখুন আপনি যদি একজন দক্ষ ডিজাইনার হতে পারেন। তাহলে শুধু ইনকাম নয়, বরং আপনি নিজেই একটা প্ল্যাটফর্ম তৈরি করতে পারবেন৷ যা গোটা বিশ্বকে চমকে দিতে পারে।

আর যদি আপনি এটা ভেবে থাকেন যে, ভবিষ্যতে ওয়েব ডিজাইনের চাহিদা থাকবে কিনা। তাহলে বলবো, এসব অহেতুক চিন্তাভাবনা। কারন, যতোদিন অনলাইন থাকবে, ততোদিন ওযেব ডিজাইনের চাহিদাও থাকবে।

শুধু একটা কথা মনে রাখবেন, আপনি যেকোনো একটি কাজে শতভাগ দক্ষতা অর্জন করুন।এরপর আপনাকে আর পেছনে তাকাতে হবেনা। হোক সেটা ওয়েব ডিজাইন অথবা গ্রাফিক্স ডিজাইন। 

আমার শেষকথাঃ

আমি মনে করি আপনার মনের যত ধরনের প্রশ্ন ছিল ওয়েব ডিজাইন এন্ড ডেভেলপমেন্ট নিয়ে সেগুলোর উত্তর পেয়ে গেছেন। এমনকি ওয়েব ডিজাইনিং শিখে কোথায় কাজ করবেন কিভাবে কাজ করবেন এইসকল সুন্দর বর্ণনা একটার পর একটা বোঝার জন্য খুব সুন্দরভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে।

এরপরও যদি আপনাদের কোন প্রশ্ন বা আর্টিকেলটি কিরকম লেগেছে অবশ্যই আমাদের ওয়েবসাইটের আর্টিকেল বক্স এর নিচে কমেন্ট করে জানাতে পারেন অথবা কোন সাজেশন থাকলে জানাতে পারেন।

আমাদের ব্লগ সাইটে মূলত ইন্টারনেট থেকে আয় করা এবং ব্লগিং রিলেটেড যত ধরনের উপায় আছে সকল কিছু আমরা শেয়ার করব। অনলাইন থেকে আয় এবং ব্লগ নিয়ে আমাদের ওয়েবসাইটে অনেকগুলো আর্টিকেল রয়েছে আপনি চাইলে পড়তে পারেন।

5 thoughts on “ওয়েব ডিজাইন কি ? | কিভাবে ওয়েব ডিজাইন শিখে আয় করবেন”

  1. Good day,

    My name is Eric and unlike a lot of emails you might get, I wanted to instead provide you with a word of encouragement – Congratulations..

    thankes for this inportant information..

  2. খুব সুন্দর ভাবে বোঝিয়েছে। ভাল লেগেছে আপনার বাংলা আইটি ব্লগ সাইটের লিখা গুলা।

  3. ব্যাসিক জিনিস গুলা পাড়বেন তবে প্রফেশনাল ভাবে কাজ করতে গেলে পিসি লাগবেই

  4. বাংলা আইটি ব্লগ থেকে ওয়েবডিজাইন নিয়ে অনেক কিছু জানতে পারলাম। ধন্যবাদ আপনাকে খুব সহজ ভাষায় লিখার জন্য।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: কপি করা যাবে না !!
Scroll to Top
Share via
Copy link
Powered by Social Snap