পডকাস্ট কি ? পডকাস্ট করে ইনকাম করার উপায় 

পডকাস্ট কি – এই সম্পর্কে জানতে চাচ্ছেন? তাহলে আপনি একেবারে সঠিক জায়গাতে চলে এসেছেন। কারন আজকের পর থেকে আপনি পডকাস্ট রিলেটেড যতো তথ্য আছে।

podcast কি এই নিয়ে সকল তথ্য গুলো জানতে পারবেন।

দেখুন, বর্তমান সময়ে আসার পরও যদি আপনি পডকাস্ট কি সে সম্পর্কে না জানেন। তাহলে কিন্তুু আপনি অনেক কিছু মিস করে যাবেন।

পডকাস্ট কি ? পডকাস্ট থেকে ইনকাম করার উপায়
পডকাস্ট থেকে ইনকাম করার উপায়

কেননা, অনলাইন থেকে আয় করার গোপন একটি উপায় আছে। যে উপায় এর নাম হলো, পডকাস্ট।

হুমমম… আপনি ঠিকই শুনেছেন। আজকের দিনে টাকা আয় করার সবচেয়ে গোপন একটি উপায় হলো পডকাস্ট করে আয় করা।

তবে মজার বিষয় হলো, আমাদের এশিয়া মহাদেশ এর অনেক গুলো দেশ এখনও পডকাস্ট কি সেটাই জানে না। আর যেহেতু এখনও অনেক মানুষ এটি সম্পর্কে জানেই না। সেহুতু এই কাজটি তে তুলনামূলক কম প্রতিযোগীতা রয়েছে।

আপনি এই বিষয়ে একেবারে শিওর থাকুন। তাই আপনি যদি অনলাইন ইনকাম করার সূচনালগ্নে থাকেন। তাহলে সবার আগে পডকাস্ট করে ইনকাম করার কথাটা মাথায় রাখবেন।

[💡Tips: সবচেয়ে ভালো দিক হলো, আপনি চাইলে মোবাইল অথবা কম্পিউটার যেকোনো একটি Device দিয়েই পডকাস্ট করেইনকাম করতে পারবেন। ]

তো যদি আপনি পডকাস্ট সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে চান। তাহলে খুব বেশি না হলেও অল্প সময় নিয়ে আজকের পুরো আর্টিকেলটি পড়বেন।

তাহলে পডকাস্ট এর ভূমিকা থেকে শুরু করে একেবারে টাকা আয় করার যতগুলো ধাপ আছে। তার প্রত্যেকটি ধাপ সম্পর্কে জানতে পারবেন। 

আর্টিকেল সূচি

পডকাস্ট কি ? (what is Podcast?)

পডকাস্ট হলো এমন এক ধরন এর অনলাইন প্লাটফর্ম। যেখানে আপনি ভোকাল (Vocal) শেয়ারিং করার মাধ্যমে অর্থ আয় করতে পারবেন।

অর্থ্যাৎ আপনি যখন আপনার নিজের ভয়েজ কে রেকর্ড করে উক্ত প্লাটফর্মে শেয়ার করবেন। তখন তাকে বলা হবে পডকাস্ট।

আমরা সচারচর বিভিন্ন সময় বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়া গুলোতে পিকচার, ভিডিও কিংবা অডিও শেয়ার করে থাকি। কিন্তুু আপনি যদি Podcast এর সাথে যুক্ত হতে চান।

তবে আপনাকে শুধু আপনার ভয়েজ কে রেকর্ড করে তা শেয়ার করতে হবে।

উদাহরন হিসেবে বলা যায়, বর্তমানে আপনি আমার ওয়েবসাইট এই আর্টিকেলটি পড়ছেন। আর আমার এই ওয়েবসাইট টি হলো একটি Text Base ওয়েবসাইট।

অনলাইন ইনকাম নিয়ে আরো লেখা…

অর্থ্যাৎ, আপনি এই সাইটে অন্যান্য বিষয় এর চাইতে (Text) বেশি পরিমানে দেখতে পারবেন।

ঠিক একইভাবে আপনি যখন পডকাস্ট প্লাটফর্ম গুলোতে আপনার নিজের Voice রেকর্ড করা ফাইলটি কে শেয়ার করবেন। তখন ঐ ডিজিটাল ফাইল কে বলা হবে Podcast. 

আপনি কেন পডকাস্ট করবেন? 

পডকাস্ট কি- এ সম্পর্কে জেনে নেয়ার পর আপনাকে জানতে হবে যে, কেন আপনার পডকাস্টিং করা উচিত। আর আপনি যদি সঠিকভাবে Podcasting করতে পারেন। তাহলে আপনি কি কি সুবিধা ভোগ করতে পারবেন?

চলুন এবার সে বিষয়ে বিস্তারিত জেনে নেয়া যাক।

দেখুন, বর্তমানে আমরা সবাই জানি যে এখন অনলাইন থেকেও আয় করা সম্ভব। কারন আমাদের পরিচিত বা অপরিচিত এমন অনেক মানুষ আছেন। যারা মূলত অনেক দিন ধরেই অনলাইন থেকে আয় করে আসছে।

আর অনলাইন থেকে আয় করা এই মানুষ গুলো কিন্তুু একেকজন একেক রকম কাজ করে থাকে। কেউবা ব্লগ সাইট এর মাধ্যমে আয় করে থাকে ৷ আবার কেউবা ইউটিউব এ ভিডিও শেয়ার করার মাধ্যমে আয় করে থাকে।

ঠিক একইভাবে আপনি যদি নিজেকে পডকাস্টিং এর সাথে যুক্ত করতে পারেন। এবং এই প্লাটফর্ম গুলোতে সঠিকভাবে কাজ করতে পারেন। তাহলে কিন্তুু আপনি অনেক দিক থেকে সুবিধা ভোগ করতে পারবেন। যেমন,

০১ঃ নিজের জনপ্রিয় একটা ব্রান্ড তৈরি করতে পারবেন 

Podcasting করার একটি বিশেষ গুন আছে। সেটি হলো, আপনি এই কাজটি করার মাধ্যমে নিজের একটা জনপ্রিয় ব্রান্ড তৈরি করে নিতে পারবেন।

যা তৈরি করার স্বপ্ন আমাদের প্রায় সব মানুষ এর মনে জেগে থাকে। যখন আপনি সঠিকভাবে পডকাস্ট করার জন্য ভালো ভালো ভয়েস ফাইল শেয়ার করবেন।

তখন মানুষ আপনার ফাভল থেকে রেকর্ড করা ভয়েস গুলো শুনবে। আর যখন আপনার রেকর্ড করা ভয়েস গুলো তাদের কাছে ভালো লাগবে ৷ তখন তারা আরও আপনার রেকর্ড করা ভয়েস শোনার জন্য আগ্রহী হয়ে উঠবে।

আর এভাবে আপনি যতো বেশি মানুষ কে আপনার ভয়েস এর প্রতি আগ্রহী করে তুলতে পারবেন। আপনার কমিউনিটি ঠিক ততোই বেশি হয়ে উঠবে।

আর এভাবেই আপনি বৃহৎ একটা কমিউনিটি তৈরি করার মাধ্যমে আপনার নিজের পরিচিতিও বাড়িয়ে নিতে পারবেন। যা আপনার নিজস্ব একটি Brand তৈরি করতে অনেক গুন সাহায্য করবে। 

০২ঃ পডকাস্ট করে আয় করতে পারবেন 

পডকাস্টিং করার সবচেয়ে ভালো দিক হলো, আপনি চাইলে বেশ ভালো পরিমান টাকা পডকাস্ট করে ইনকাম করে নিতে পারবেন। বর্তমানে আপনার বা আমার মতো এমন অনেক মানুষ আছেন।

যারা মূল পডকাস্ট করে বেশ ভালো পরিমান টাকা আয় করে আসছে। তবে অন্যান্য অনলাইন প্লাটফর্ম গুলোর মতো এখানেও আপনি বিভিন্ন উপায়ে ইনকাম জেনারেট করতে পারবেন। যেমন, 

স্পন্সরশীপ থেকে আয় করতে পারবেন 

পডকাস্ট করে আয় করার সবচেয়ে জনপ্রিয় একটি মাধ্যম হলো Sponsorship. যে মাধ্যমটি অবলম্বন করে অনেকেই প্রচুর পরিমান টাকা অনলাইন থেকে আয় করে আসছে।

তাই চাইলে আপনিও এখান থেকে বিপুল পরিমানে অর্থ আয় করে নিতে পারবেন।

তবে যদি আপনি পডকাস্ট করে আয় করতে চান। সেক্ষেএে আপনার হিউজ পরিমানে কমিউনিটি থাকতে হবে। অর্থ্যাৎ, আপনি যে Voice Record করা ফাইল গুলো আপলোড করবেন ৷

সেগুলো শোনার জন্য অনেক মানুষের প্রতি আগ্রহ থাকতে হবে।

আর যখন আপনার কমিউনিটি তে হিউজ পরিমানে ইউজার থাকবে। তখন আপনি বিভিন্ন কোম্পানি কিংবা পন্যের স্পন্সর থেকে অনেক টাকা পডকাস্ট করে ইনকাম করে নিতে পারবেন। 

সাবস্ক্রিপশন থেকে আয় করতে পারবেন 

Sponsor থেকে আয় করার মতো আরও একটি জনপ্রিয় মাধ্যম হলো সাবস্ক্রিপশন থেকে আয় করা। যেখানে আপনি আপনার কমিউনিটি এর ইউজারদের মাধ্যমে Paid Subscription থেকে একটা মোটা অংকের টাকা আয় করে নিতে পারবেন। 

বিষয়টা এমন যে, যখন আপনার আপলোড করা অডিও ফাইল গুলো শোনার জন্য হিউজ পরিমানে ইউজার হবে। তখন আপনি এই পদ্ধতি অবলম্বন করতে পারবেন।

আপনার জন্য আরো লেখা…

যেখানে কেউ যদি আপনার রেকর্ড করা ফাইল গুলো শুনতে চায়। তাহলে তাকে নির্দিষ্ট পরিমান টাকা দিয়ে তারপর আপনার অডিও গুলো শুনতে হবে।

এভাবে আপনি যদি কমপক্ষে ১০০ মানুষের কাছে প্রতি এক মাসের জন্য ২০০/- করে নেন। তাহলে আপনার মাস শেষে আয় এর পরিমান এসে দাড়াবে প্রায় ২০,০০০/- (টাকা)।

আর এভাবে আপনি যতো বেশি ইউজার নিয়ে আসতে পারবেন। আপনার পডকাস্ট করে ইনকাম করার পরিমান ঠিক ততোই বেশি বৃদ্ধি পাবে। 

পেইড প্রমোশন থেকে আয় করতে পারবেন 

আমাদের মধ্যে এমন অনেক মানুষ আছেন। যারা মূলত বিভিন্ন টপিক নিয়ে ব্লগ বা ইউটিউব সেক্টরে কাজ করে থাকেন। আর আমরা সবাই জানি যে, ব্লগ বা ইউটিউব থেকে আয় করার জন্য অনেক বেশি ভিজিটর এর প্রয়োজন হয়ে থাকে।

আবার এমন অনেক মানুষ আছেন, যাদের অনলাইন এর মাধ্যমে সেল করার মতো অনেক ধরনের পন্য আছে। আর এইসব পন্য গুলো কে অনলাইন এর মাধ্যমে বিক্রি করার জন্যও অনেক বেশি কাস্টমার এর প্রয়োজন হয়ে থাকে।

তো আপনি চাইলে পডকাস্টিং প্লার্টফর্মে যারা আপনার নিয়মিত ইউজার থাকবে ৷ সেই ইউজার গুলো কে আপনার ব্লগ বা ইউটিউব চ্যানেলে ডাইভার্ট করে নিতে পারবেন।

অপরদিকে সেই ভিজিটর গুলোকে কাজে লাগিয়ে আপনার অনলাইন পন্য গুলো কে তাদের কাছে সেল করে টাকা আয় করতে পারবেন। 

কিভাবে পডকাস্টিং শুরু করতে হয়? 

প্রত্যেকটা কাজের যেমন শুরু এবং শেষ আছে। ঠিক তেমনিভাবে যদি আপনি পডকাস্ট করতে চান। তাহলে সবার আগে আপনাকে জেনে নিতে হবে যে, কিভাবে আপনি সঠিকভাবে পডকাস্টিং শুরু করবেন।

চলুন এবার সে নিয়ে একটু আলোচনা করা যাক।

তো যেহুতু আপনি এখনও এই আর্টিকেলটি পড়ছেন। সেহুতু ধরে নিবো যে, আপনি এখনও পডকাস্টিং সেক্টরে একেবারেই নতুন। এবং পডকাস্টিং সম্পর্কে তেমন কোনো ধারনা নেই।

আর যদি আপনি পডকাস্টিং প্লাটফর্মে একেবারে নতুন মানুষ হয়ে থাকেন। তাহলে আপনার সামনে বেশ কিছু প্রশ্ন চলে আসবে। যেমন,

  • পডকাস্ট করার জন্য কি কি যোগ্যতা লাগবে?
  • পডকাস্ট করে ইনকাম করার জন্য কি কি জানতে হবে? 
  • আপনি কোন কোন বিষয় নিয়ে পডকাস্ট করতে পারবেন?
  • এবং সবশেষে আপনি কি পরিমান টাকা পডকাস্ট করে ইনকাম করতে পারবেন? 

তো যদি আপনি পডকাস্ট করে আয় করতে চান। তাহলে কিন্তুু উপরোক্ত বিষয় গুলো সম্পর্কে অবশ্যই বিস্তারিত জেনে নিতে হবে।

আর সেই কারনে আমি আর্টিকেল এর শুরুতেই বলেছি যে, পডকাস্ট রিলেটেড যতো বিষয় আছে। সেগুলোর প্রত্যেকটি কে স্টেপ বাই স্টেপ আলোচনা করবো। 

পডকাস্ট করে আয় করার জন্য কি কি জানতে হবে? 

আশা করি উপর এর আলোচনা থেকে আপনি পডকাস্ট কি – সে সম্পর্কে একটা পরিস্কার ধারনা পেয়ে গেছেন। আর যদি আপনি উপরের আলোচনা গুলো সঠিকভাবে বুঝতে না পারেন।

তাহলে পুনরায় আরেকবার পড়ার অনুরোধ করবো। নাহলে পরের আলোচনা গুলোর কিছুই বুঝতে পারবেন না। তো এবার মূল টপিকে ফিরে আসবো। একজন বিগেনার যদি পডকাস্ট করে ইনকাম করতে চায়।

তাহলে তাকে কি কি জানতে হবে। চলুন তাহলে সে বিষয়ে স্বল্প আকারে আলোচনা করা যাক। 

নম্বর- ১ঃ ভয়েজ রেকর্ড করা সম্পর্কে জানতে হবে

হয়তবা আপনি ভাবছেন যে, এটা কোনো বিষয় হলো। এখন যে কেউ তো ইচ্ছে করলেই Voice Record করতে পারবে। কিন্তুু আসলে বিষয়টা তেমন নয়, বরং এখানে আপনাকে একটু অন্যভাবে চিন্তা করতে হবে।

কারন আমরা যখন সাধারন ভাবে ভয়েজ রেকর্ড করি। সেগুলোর কিন্তুু কোনো প্রকার উদ্দেশ্য থাকে না। তাই নিজের মনের মতো করে আমরা কম্পিউটার কিংবা মোবাইলে ভয়েজ রেকর্ড করে থাকি।

কিন্তুু যখন আপনি পডকাস্ট করে আয় করার জন্য ভয়েজ রেকর্ড করবেন। তখন আপনাকে বিভিন্ন দিক বিবেচনা করে তারপর রেকর্ড করতে হবে।

যেমন, কিভাবে রেকর্ড করলে আপনার ভয়েজে কোনো প্রকার Noise থাকবে না। রেকর্ড করা স্পিকার থেকে আপনার মুখ কত দুরে রাখলে ক্লিয়ারভাবে Voice Record করা যাবে।

এই সব বিষয় গুলোকে যথেষ্ট গুরুত্বের সাথে দেখতে হবে। 

নম্বর- ২ঃ ভয়েজ এডিটিং করা জানতে হবে 

আপনি যদি ইনকাম করার জন্য পডকাস্ট করে থাকেন। তাহলে আপনাকে আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় সম্পর্কে জানতে হবে। সেটি হলো, আপনার রেকর্ড করা ভয়েজ কে সঠিকভাবে এডিটিং করা সম্পর্কে জানতে হবে।

দেখুন আমরা যখন আমাদের হাতে থাকা মোবাইল ফোন কিংবা কম্পিউটার এর মাধ্যমে ভয়েজ রেকর্ড করি। তখন অনিচ্ছার সত্বেও বিভিন্ন রকমের নয়েজ এর উপস্থিতি টের পাই।

যা আপনার ভয়েজ এর স্বচ্ছতাতে বেশ ব্যাঘাত সৃষ্টি করে থাকে।

কিন্তুু আপনি যদি ভয়েজ এডিটিং এ যথেষ্ট দক্ষ হয়ে থাকেন ৷ তাহলে কিন্তুু আপনি এই ধরন এর অসুবিধা থেকে একেবারেই মুক্তি পেয়ে যাবেন। এছাড়াও যে বিষয়টি জানা অত্যন্ত জরুরি।

সেটি হলো, একটি নরমাল টাইপ এর ভয়েজ কে এডিটিং এর মাধ্যমে অনেক শ্রুতিমধুর করা সম্ভব। 

পডকাস্ট করে আয় করার জন্য কি কি প্রয়োজন হবে? 

উপর এর আলোচনা থেকে আমরা জানলাম যে, যদি একজন বিগেনার লেভেলে থাকা ব্যক্তি পডকাস্ট করতে চায়। তাহলে তাকে কোন কোন বিষয় এর দিকে গুরুত্ব দিতে হবে।

আশা করি উপর এর আলোচিত বিষয় গুলো সম্পর্কে একটা পরিস্কার ধারনা পেয়ে গেছেন।

তো এবার আমরা জানবো যে, যদি আপনি পডকাস্ট করে আয় করতে চান। তাহলে আপনার কাছে কি কি ইকুইপমেন্ট এর প্রয়োজন হবে। চলুন এবার সে বিষয় নিয়ে বিস্তারিত জেনে নেয়া যাক। 

০১ঃ একটি ভালো মানের রেকর্ডিং ডিভাইস  

পডকাস্ট যেহুতু একটি ভয়েজ বেস প্লাটফর্ম। তাই আপনাকে এমনভাবে ভয়েজ রেকর্ড করতে হবে। যেন মানুষের কাছে আপনার রেকর্ডেড ফাইলটি অনেক শ্রুতিমধুর হয়।

আর শ্রুতিমধুর ভয়েজ রেকর্ড করার জন্য সবচেয়ে বেশি ভূমিকা পালন করবে আসলে আপনি কোন ডিভাইস দিয়ে ভয়েজ রেক্স করবেন।

তাই বলে আমি এটা বলবো না যে, ভয়েজ রেকর্ড করার জন্য আপনার কম্পিউটার এর প্রয়োজন হবে। বরং আপনি যে কোনো ডিভাইস দিয়েই উক্ত কাজটি করতে পারবেন। কিন্তুু সেই ডিভাইস টি যেন Voice Record করার জন্য যথোপযুক্ত হয়। 

০২ঃ একটি ভালো মানের মাইক্রোফোন 

কোনো ভয়েস কে একেবারে স্বচ্ছ ভাবে রেকর্ড করার জন্য যেমন একটি ভালো মানের ডিভাইস এর প্রয়োজন হবে। ঠিক একইভাবে আপনি যদি সেই ভয়েস কে আরও শ্রুতিমধুর হিসেবে রেকর্ড করতে চান।

তাহলে আপনার এই কাজটি কে তুলনামূলক ভাবে সহজ করে দিবে একটি ভালো মানের মাইক্রোফোন।

আপনি যদি ইউটিউব এর টিউটোরিয়াল ভিডিও গুলো দেখেন। তাহলে আপনি দেখতে পারবেন যে, তাদের গলার নিচে কিংবা মুখের সামনে একটি করে মাইক্রোফোন থাকে।

আর যাদের মাইক্রোফোন এর কোয়ালিটি ভালো। তাদের সাউন্ড কোয়ালিটিও অনেক ভালো মানের হয়ে থাকে। 

০৩ঃ একটি শান্ত / নিরব পরিবেশ

দেখুন আপনি যতো ভালো কোয়ালিটির মাইক্রোফোন বা ডিভাইস ব্যবহার করুন না কেন। যদি আপনি কোলাহল পূর্ন কোনো স্থানে ভয়েস রেকর্ড করেন। তাহলে কিন্তুু আপনি পরিস্কার কোনো ভয়েস রেকর্ড করতে পারবেন না।

কারণ কোলাহল পূর্ন স্থানে ভয়েস রেকর্ড করলে, উক্ত ভয়েসে প্রচুর পরিমানে নয়েজ থাকবে। যা আপনার ভয়েস কোয়ালিটি কে অনেক নিম্নমানের পর্যায়ে নিয়ে যাবে।

তাই আপনাকে এমন একটি পরিবেশ বাছাই করতে হবে। যেখানে নয়েজ এর পরিমান অনেক কম থাকবে। অপরদিকে আপনি রেকর্ড করার জন্য কিছু উপায় অনুসরন করতে পারবেন।

যেমন, গভীর রাতে কিংবা অনেক সকালে নয়েজ এর পরিমান অনেক কম থাকে। আপনি চাইলে Voice Record করার জন্য এই সময় গুলো কে বেছে নিতে পারবেন। 

পডকাস্ট করে কত টাকা আয় করা যাবে? 

দেখুন অনলাইন প্লাটফর্ম হলো একটি অর্থের সাগর। এখন আপনি এই অর্থের সাগর থেকে কত টাকা আয় করতে পারবেন। তা কিন্তুু সম্পূর্ন আপনার উপর নির্ভর করবে।

কারন, আপনাকে এমন অনেক মানুষের উদাহরন দিতে পারবো। যারা শুধুমাএ অনলাইনে কাজ করে লাখ লাখ টাকা আয় করতে পেরেছে।

আবার এমন অনেক মানুষের উদাহরন দিতে পারবো। যারা ঘন্টার পর ঘন্টা অনলাইন এ কাজ করার পরও কোনো অর্থ ইনকাম করতে পারেনি।

আপনি আরো দেখুন…

ঠিক তেমনি আপনি কত টাকা পডকাস্ট করে আয় করবেন। তা সম্পূর্ন আপনার উপরেই নির্ভর করবে। তবে আমার ধারনা অনুযায়ী আপনি যদি সঠিকভাবে পডকাস্ট করতে পারেন।

তাহলে আপনি প্রতি মাসে ২০ থেকে ৩০ হাজার টাকা পর্যন্ত আয় করে নিতে পারবেন ৷

আর আপনি যদি এই সেক্টরে সঠিকভাবে কাজ করতে না পারেন। তাহলে আপনি এই সেক্টর এর পেছনে যে সময় ও শ্রম গুলো ব্যয় করবেন। তার সবগুলোই বন্যার জলে ভেসে যাবে। 

Top Website List For Podcast 

পডকাস্ট নিয়ে এতো কিছু আলোচনা করার পর আপনার মনে প্রশ্ন জাগতে পারে যে, ভাই সবকিছুই তো বুঝলাম। কিন্তুু এই পডকাস্ট এর কাজ গুলো কোথায় পাবো? কিভাবে এই কাজ গুলো করবো ?

তো যেহুতু আমি আর্টিকেল এর শুরুতে বলেছিলাম যে, আজকে প্রতিটা বিষয় স্টেপ বাই স্টেপ আলোচনা করবো। সেহুতু এবার আপনাকে কিছু ওয়েবসাইট এর লিষ্ট দিবো।

যেখানে আপনি পডকাস্ট রিলেটেড জব গুলো করতে পারবেন। 

  • Anchor.fm
  • Podbean.com
  • Spreaker.com
  • Spotify.com
  • Radiopublic.com

আমাদের শেষকথা

এই আর্টিকেলটি পড়ার পর আশা করা যায় যে আপনার পডকাস্ট কি -সে সম্পর্কে একটা ক্লিয়ার ধারনা পেয়ে গেছেন। এছাড়াও আপনি কিভাবে পডকাস্ট করে আয় করবেন। সে সম্পর্কেও একটা ধারনা পেয়ে গেছেন।

এরপরও যদি আপনার পডকাস্ট করে ইনকাম নিয়ে কোনো জানার থাকে। তাহলে প্লিজ কমেন্ট করে জানাবেন।

আমাদের সাথে থাকুন। ধন্যবাদ

1 thought on “পডকাস্ট কি ? পডকাস্ট করে ইনকাম করার উপায় ”

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!
Scroll to Top
Share via
Copy link
Powered by Social Snap