ক্রেডিট কার্ড কি ভাবে পাবো । ক্রেডিট কার্ড কিভাবে বানাবো

ক্রেডিট কার্ড কি ভাবে পাবো : গত আর্টিকেলে আমি ক্রেডিট কার্ড কি সে বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেছি। আর আপনারা অনেকেই সেই আর্টিকেল টি পড়েছেন।

ক্রেডিট কার্ড কি ভাবে পাবো । ক্রেডিট কার্ড কিভাবে বানাবো
ক্রেডিট কার্ড কি ভাবে পাবো 

তবে তাদের মধ্যে এমন অনেক ব্যক্তি রয়েছেন। যারা আসলে জানতে চেয়েছেন যে ক্রেডিট কার্ড কিভাবে পাবো

আবার অনেকেই সেই আর্টিকেলের মধ্যে কমেন্ট করেছেন যে, ক্রেডিট কার্ড কিভাবে বানাবো।

আর আপনি যদি এই বিষয় গুলো সম্পর্কে জানতে চান। তাহলে আপনি একবারে সঠিক জায়গা তে চলে এসেছেন।

কারণ আজকের এই আর্টিকেলের মাধ্যমে আমি আপনাকে দেখিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করব যে। ক্রেডিট কার্ড কিভাবে পাব।

বর্তমান সময়ে আমরা অনেকেই জানি যে, এখন অধিকাংশ মানুষ তাদের আর্থিক লেনদেন করার জন্য ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করে থাকে।

কারণ এই ক্রেডিট কার্ড এর মধ্যে রয়েছে বিভিন্ন প্রকারের সুবিধা। আর এই সুবিধা গুলো ভোগ করার জন্য আমরা অনেকেই Credit Card Make করতে চাই।

দেখুন আমরা যারা সাধারণ মানুষ আছি। তারা আর্থিক লেনদেন করার জন্য হ্যান্ড ক্যাশ ব্যবহার করি। তবে এই হ্যান্ড ক্যাশ ব্যবহার করার ফলে যেমন সুবিধা রয়েছে।

ঠিক তেমনি ভাবে বিভিন্ন ধরনের অসুবিধা লক্ষ্য করা যায়। যেমন আপনি যখন কোন কিছু কেনা কাটা করতে যাবেন। তখন অবশ্যই আপনার পকেটে কিংবা মানিব্যাগে টাকা রাখবেন।

আর যদি কোন ঘটনাবশত আপনার পকেটে থাকা সেই টাকা গুলো হারিয়ে যায় কিংবা চুরি হয়ে যায়। তাহলে কিন্তু আপনি পুনরায় সেই টাকা গুলো আর ফেরত পাবেন না।

এতে করে আপনাকে বিরাট একটা লসের সম্মুখীন হতে হবে। কিন্তু আপনি যদি ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করেন। সে ক্ষেত্রে এই ধরনের অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা হওয়ার সম্ভাবনা থাকবে না।

তবে একজন ব্যক্তি ইচ্ছা করলেই ক্রেডিট কার্ড বানাতে পারবে না। বরং সেই ব্যক্তি যদি ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করতে চায়। তাহলে অবশ্যই তাকে কিছু নিয়ম কানুন অনুসরণ করতে হবে।

মূলত আজকের এই আলোচনার মাধ্যমে আমি আপনাকে ক্রেডিট কার্ড বানানোর নিয়ম গুলো সম্পর্কে জানিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করব।

তো যারা আসলে জানতে চেয়েছিলেন যে, ক্রেডিট কার্ড কিভাবে পাব। তারা যদি এই বিষয় টি সম্পর্কে একবারে পরিষ্কার ভাবে জানতে চান।

আপনার জন্য আরোও লেখা…

তাহলে আপনাকে নিচের আলোচিত আলোচনা গুলো মনোযোগ দিয়ে পড়তে হবে। যাতে করে আপনি খুব সহজেই বুঝতে পারেন যে, ক্রেডিট কার্ড কিভাবে পাওয়া যায়।

এবং তার জন্য কোন কোন পদ্ধতি গুলো অনুসরণ করতে হয়। তাহলে আর দেরি না করে চলুন সরাসরি মূল আলোচনা তে ফিরে যাওয়া যাক।

কোন ব্যাংকের ক্রেডিট কার্ড ভালো এবং ক্রেডিট কার্ড পাওয়ার যোগ্যতা কি? বিস্তারিত জানতে পারবেন এই আর্টিকেল এর দ্বারা।

ক্রেডিট কার্ড কিভাবে বানাবো ?

যেহেতু আপনার মনে প্রশ্ন রয়েছে যে, ক্রেডিট কার্ড কিভাবে পাব। সেহুতু প্রথমেই আপনাকে জানিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করব যে।

একজন ব্যক্তি আসলে কোন কোন পদ্ধতি গুলো অনুসরণ করে ক্রেডিট কার্ড বানাতে পারবে। তো যদি আপনি একজন নতুন ব্যক্তি হিসেবে ক্রেডিট কার্ড বানিয়ে নিতে চান।

তাহলে অবশ্যই আপনাকে বেশ কিছু নিয়ম অনুসারে কাজ করতে হবে। আর এবার আমি আপনাকে সেই নিয়ম গুলো সম্পর্কে ধাপে ধাপে জানিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করব।

আর যখন আপনি এই নিয়ম গুলো সঠিক ভাবে অনুসরণ করতে পারবেন। তখন আপনি খুব সহজেই ক্রেডিট কার্ড বানিয়ে নিতে পারবেন।

তো এবার চলুন ক্রেডিট কার্ড বানিয়ে নেওয়ার সকল ধাপ গুলো সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক।

আপনার ক্রেডিট কার্ড বেছে নিন

দেখুন প্রথমত আপনাকে জেনে নিতে হবে যে, বাংলাদেশের প্রায় প্রতি টা ব্যাংক এই ধরনের ক্রেডিট কার্ড প্রদান করে থাকে।

তবে আপনি আসলে কোন ধরনের ব্যাংক থেকে ক্রেডিট কার্ড তৈরি করবেন। সেটা আপনাকে নিজে থেকে নির্বাচন করে নিতে হবে।

এর পাশাপাশি ক্রেডিট কার্ডের বিভিন্ন প্রকারের ধরন রয়েছে। যেমন, আপনি এমন অনেক ক্রেডিট কার্ড দেখতে পারবেন। যে গুলো শুধুমাত্র শপিং করার কাজে ব্যবহার করা হয়।

আবার এমন অনেক ক্রেডিট কার্ড রয়েছে যে গুলো বিভিন্ন এন্টারটেইনমেন্ট এর টিকিট কাটার জন্য ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

এখন আপনার প্রয়োজন অনুসারে আপনাকে বিভিন্ন ধরনের ক্রেডিট কার্ড এর মধ্যে। নির্দিষ্ট ক্রেডিট কার্ড গুলো কে নির্বাচন করতে হবে।

তারপরে আপনাকে সেই ক্রেডিট কার্ড তৈরি করার জন্য যে সকল কাজ করার প্রয়োজন হয়। সেই কাজ গুলো সঠিক ভাবে করতে হবে।

আর আপনি যদি এই বিষয় সম্পর্কে আরো বিস্তারিত জানতে চান। তাহলে আপনাকে অবশ্যই ব্যাংকে থাকা কর্মকর্তাদের সাথে বিস্তারিত আলোচনা করতে হবে।

ক্রেডিট স্কোর পরীক্ষা করুন

প্রতিটা ক্রেডিট কার্ড এর মধ্যে নির্দিষ্ট স্কোর থাকে। আর যখন আপনি নতুন কোন ক্রেডিট কার্ড তৈরি করবেন। তখন অবশ্যই আপনাকে এই স্কোর এর দিকে যথেষ্ট পরিমাণে গুরুত্ব দিতে হবে।

এখন হয়তোবা আপনার মনে একটি প্রশ্ন জেগে থাকতে পারে। আর সেই প্রশ্ন টি হল যে, এই ক্রেডিট কার্ড স্কোর আবার কি জিনিস।

তো যদি আপনার এই ধরনের প্রশ্ন জেগে থাকে। তাহলে আমি আপনাকে বলব যে। একটি ক্রেডিট কার্ড এর মধ্যে আরও বিভিন্ন রকমের বিষয় থাকে।

যেমন, সেই ক্রেডিট কার্ড থেকে আপনি কি রকম রিওয়ার্ড পাবেন। আপনাকে কি পরিমানে সুদ প্রদান করতে হবে।

সেই সবকিছু মিলে মূলত একটি ক্রেডিট কার্ডের স্কোর নির্ণয় করা হয়ে থাকে। তবে আমার দৃষ্টিকোণ থেকে একটি ক্রেডিট কার্ডের স্কোর 750 বা এটা থেকে একটু বেশি হওয়া উচিত।

তো যখন আপনি নতুন কোন ক্রেডিট কার্ড তৈরি করবেন। তখন অবশ্যই আপনাকে এই ক্রেডিট স্কোর এর দিকে যথেষ্ট পরিমাণে গুরুত্ব দিতে হবে।

প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট গুলো প্রস্তুত করুন

যেহেতু আপনি নতুন একটি ক্রেডিট কার্ডের জন্য আবেদন করবেন। সেহেতু অবশ্যই আপনার বেশ কিছু ডকুমেন্টস এর প্রয়োজন হবে।

আর এই ক্রেডিট কার্ডের জন্য আবেদন করা পূর্বে আপনাকে সেই প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট গুলো প্রস্তুত করে রাখতে হবে। তবে যদি আপনার আগে থেকে কোন ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থাকে।

এবং আপনি যদি সেই ব্যাংক এর মাধ্যমে ক্রেডিট কার্ড তৈরি করতে চান। তাহলে আপনার ক্ষেত্রে এ ধরনের ডকুমেন্টস গুলোর খুব বেশি একটা প্রয়োজন পড়বে না।

কেননা যখন আপনি ব্যাংক একাউন্ট তৈরি করেছিলেন। তখন আপনি সেই ডকুমেন্ট গুলো অলরেডি প্রদান করেছেন। তবে এরপরও আপনার জেনে রাখা উচিত।

যে একটি ক্রেডিট কার্ড এর ক্ষেত্রে আবেদন করার জন্য কোন কোন ধরনের ডকুমেন্টস প্রয়োজন হয়। আর এই ধরনের প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট গুলো আমি নিচে উল্লেখ করে দিলাম।

  1. আপনার ব্যাংকের বিবরণী প্রদান করতে হবে।
  2. আপনি যেখানে স্থায়ী ভাবে বসবাস করে আছেন, তার প্রমাণ পত্র দিতে হবে। সে ক্ষেত্রে আপনি আপনার ইউটিলিটি বিল, ড্রাইভিং লাইসেন্স ইত্যাদি কপি প্রদান করতে পারবেন।
  3. আপনার ব্যক্তিগত জাতীয় পরিচয় পত্রের প্রয়োজন হবে।
  4. ক্রেডিট কার্ড এর জন্য আবেদন করার সময় একটি আবেদন পত্র পূরণ করা হয়। সেটি আপনাকে প্রদান করতে হবে।
  5. আপনার গত তিন মাস অথবা চার মাস এর ব্যাংকের আর্থিক লেনদেন এর বিবরণী প্রদান করতে হবে।
  6. আপনার আয়ের উৎস কি, সেটি জানিয়ে দিতে হবে। যদি আপনি ব্যবসা করেন। তাহলে অবশ্যই আপনার ব্যবসায়িক ট্রেড লাইসেন্স প্রদান করতে হবে।
  7. আপনার ব্যক্তিগত পাসপোর্ট সাইজের ছবি দিতে হবে।

তো একজন নতুন ব্যক্তি হিসেবে আপনি যদি ক্রেডিট কার্ড এর জন্য আবেদন করেন। তাহলে আপনার যে সকল ডকুমেন্টস এর প্রয়োজন হবে।

সে গুলো উপরে উল্লেখ করা হয়েছে। এবং আপনি অবশ্যই এই সকল ডকুমেন্ট গুলো আগে থেকেই প্রস্তুত করে রাখবেন। 

ক্রেডিট কার্ড সক্রিয় করুন

যখন আপনি উপরোক্ত ধাপ গুলো সঠিক ভাবে অনুসরণ করবেন। তখন আপনি আবেদন করার সময় যে ঠিকানা প্রদান করবেন।

সেই ঠিকানায় ক্রেডিট কার্ড পাঠিয়ে দেওয়া হবে। মূলত এই ক্রেডিট কার্ড পাঠিয়ে দেওয়ার সময় কতদিন লাগবে। সেটা ব্যাংকের উপর নির্ভর করবে।

তবে কিছু কিছু ক্ষেত্রে দেখা যায় যে অনেক ব্যাংক সাত দিনের মধ্যে ক্রেডিট কার্ড পাঠিয়ে দেয়। আবার কিছু ব্যাংক রয়েছে যারা ১৪ দিনের মধ্যে ক্রেডিট কার্ড পাঠিয়ে দেয়।

তবে তারা তাদের কার্যক্রম শেষ করার পরে যখন আপনার নিকট ক্রেডিট কার্ড পাঠিয়ে দিবে।

তখন আপনাকে আরো বেশ কিছু কাজ করতে হবে। যেমন, আপনি যখন এই কার্ড টি হাতে পাবেন তখন আপনাকে একটি স্বাক্ষর প্রদান করতে হবে।

সেই সাথে আপনার পরিচয় পত্র দেখাতে হবে। এর পাশাপাশি আপনি আবেদন করার সময় যে মোবাইল নম্বর টি দিয়েছিলেন।

সেই মোবাইল নম্বরে একটি গ্রীন পিন কোড পাবেন। তবে আপনি চাইলে পরবর্তী সময়ে এই পিন কোড টি পরিবর্তন করে নিতে পারবেন।

একটি ক্রেডিট কার্ডের জন্য কে আবেদন করতে পারেন ?

তো যারা আসলে জানতে চেয়েছিলেন যে, ক্রেডিট কার্ড কিভাবে পাবো । তাদের যে সকল কাজ করতে হবে সেই কাজ গুলো নিয়ে উপরে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে।

আশা করি আপনি উপরের আলোচিত এই আলোচনা গুলো খুব সহজ ভাবে বুঝতে পেরেছেন। তবে এখন অনেকের মনে একটি প্রশ্ন জেগে থাকবে।

আর সেই প্রশ্ন টি হল যে, একটি ক্রেডিট কার্ডের জন্য কে আবেদন করতে পারবে। দেখুন একজন ব্যক্তি ইচ্ছা করলেই এই ধরনের ক্রেডিট কার্ড এর জন্য আবেদন করতে পারবে না।

বরং ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করার জন্য বেশ কিছু যোগ্যতা থাকতে হবে। আর যখন আপনার এই যোগ্যতা থাকবে। তখন আপনি ক্রেডিট কার্ডের জন্য আবেদন করতে পারবেন।

এখন হয়তোবা আপনার মনে আরও একটি প্রশ্ন জেগে থাকতে পারে যে। ক্রেডিট কার্ডের জন্য আবেদন করতে হলে কি ধরনের যোগ্যতার প্রয়োজন হয়।

তো আপনি যদি এই বিষয় টি সম্পর্কে বিস্তারিত ভাবে জানতে চান। তাহলে আপনাকে নিচের আলোচনায় নজর রাখতে হবে।

তো আপনি যদি ক্রেডিট কার্ডের জন্য আবেদন করতে চান। তাহলে আপনার বেশ কিছু যোগ্যতার প্রয়োজন হবে। আর সে গুলো হলো:

  1. আপনার অবশ্যই বৈধ নাগরিক তা থাকতে হবে।
  2. যদি আপনি নিজে থেকেই এই ক্রেডিট কার্ডের জন্য আবেদন করতে চান। তাহলে অবশ্যই আপনার বয়স ১৮ বছর থেকে ২১ বছরের মধ্যে হতে হবে।
  3. আপনি বর্তমানে যে স্থানে বসবাস করছেন। তার একটি প্রমাণ পত্র লাগবে।
  4. আপনার মাসিক ইনকাম ২০,০০০ টাকার বেশি হতে হবে। অন্যথায় আপনি ক্রেডিট কার্ডের জন্য আবেদন করতে পারবেন না।
  5. আপনার ক্রেডিট স্কোর এর পরিমাণ ৭০০ থেকে ৭৫০ হতে হবে।
  6. আপনার ক্রেডিট হিস্ট্রি কমপক্ষে ছয় মাসের থাকতে হবে।
  7. আপনার বর্তমানে কি পরিমাণ আয় হয় এবং আপনার বর্তমানে কি পরিমানে ক্রেডিট ব্যবহার হয় তা দেখাতে হবে।

যে মানুষ গুলোর মনে প্রশ্ন ছিল যে, ক্রেডিট কার্ড কিভাবে পাবো। তাদের জন্য এই আলোচনা টি অনেক গুরুত্বপূর্ণ। কেননা কোন ধরনের মানুষ ক্রেডিট কার্ড এর জন্য আবেদন করতে পারবে।

আপনি আরোও পড়তে পারেন…

তার কি কি যোগ্যতা লাগবে সে গুলো উপরে উল্লেখ করা হয়েছে। আর যদি আপনার এই যোগ্যতা গুলো থাকে তাহলে অবশ্যই আপনিও ক্রেডিট কার্ডের জন্য আবেদন করতে পারবেন।

ক্রেডিট কার্ড পাওয়ার জন্য কি কি লাগে?

তো এবার একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক। অর্থাৎ আপনি যখন একজন নতুন ব্যক্তি হিসেবে ক্রেডিট কার্ড পাওয়ার জন্য চেষ্টা করবেন।

তখন আপনার নিকট বেশ কিছু ডকুমেন্টস এর প্রয়োজন হবে। আর আমরা অনেকেই জানতে চাই যে, ক্রেডিট কার্ড পাওয়ার জন্য কি কি লাগে।

তো আপনি যদি এই বিষয় টি সম্পর্কে জানতে চান। তাহলে বলব যে, ক্রেডিট কার্ড পাওয়ার জন্য অনেক প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টসের প্রয়োজন হয়। যেমন:

  1. আপনার দুই কপি ছবি এর প্রয়োজন হবে।
  2. আপনি যে ব্যাংক একাউন্টের মাধ্যমে ক্রেডিট কার্ডের জন্য আবেদন করবেন। সেই ব্যাংক একাউন্টের গত এক বছরের ট্রানজেকশন রেকর্ড থাকতে হবে।
  3. ১২ মাসের মধ্যে আপনার মোট ১০ লক্ষ টাকা বা তারও বেশি লেনদেন দেখাতে হবে।
  4. আপনার ব্যক্তিগত জাতীয় পরিচয় পত্র এর প্রয়োজন হবে।
  5. যদি আপনি একজন ব্যবসায়ী হয়ে থাকেন। তাহলে অবশ্যই আপনার ব্যবসার ট্রেড লাইসেন্স দেখাতে হবে।
  6. যখন আপনি একজন নতুন ব্যক্তি হিসেবে ক্রেডিট কার্ডের জন্য আবেদন করবেন। তখন অবশ্যই আপনার রেফারেন্স এর প্রয়োজন হবে।

মূলত ক্রেডিট কার্ড পাওয়ার জন্য কি কি লাগে সেই প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট গুলো উপরে উল্লেখ করা হয়েছে। আর আপনি যদি নতুন ক্রেডিট কার্ডের জন্য আবেদন করেন।

তাহলে অবশ্যই আপনাকে এই ডকুমেন্ট গুলো সঙ্গে রাখতে হবে। অন্যথায় আপনি ক্রেডিট কার্ড তৈরি করতে পারবেন না।

কোথায় থেকে ক্রেডিট কার্ড পাবো?

প্রথমত আপনি যদি ক্রেডিট কার্ড তৈরি করতে চান। তাহলে আপনাকে নির্দিষ্ট একটি ব্যাংকের সাথে যোগাযোগ করতে হবে। এবং তারা আপনাকে যে সকল ডকুমেন্টস দিয়ে দিতে বলবে।

সেই ডকুমেন্টস গুলো আপনাকে সঠিক ভাবে প্রদান করতে হবে। আর যখন আপনি তাদের নিকট আপনার ডকুমেন্ট গুলো প্রদান করবেন।

তখন তারা ব্যাংক থেকে আপনাকে ক্রেডিট কার্ড প্রদান করবে। তবে সব ক্ষেত্রে সরাসরি ব্যাংক থেকে ক্রেডিট কার্ড পাওয়া যায় না।

বরং কিছু কিছু ক্ষেত্রে অনেক ব্যাংক রয়েছে। যারা আপনার ব্যক্তিগত ঠিকানায় ক্রেডিট কার্ড পাঠিয়ে দেয়। কিন্তু আপনি যে ব্যাংকের মাধ্যমে এই ক্রেডিট কার্ডের জন্য আবেদন করবেন।

সেই ব্যাংকে থাকা কর্মকর্তার সাথে কথা বলবেন। এবং যখন আপনি তাদের সাথে কথা বলবেন। তখন তারা নিজে থেকে বলে দিবে যে, আপনি আসলে কিভাবে ক্রেডিট কার্ড পাবেন।

ক্রেডিট কার্ড ব্যবহারের নিয়ম

ক্রেডিট কার্ড কি ভাবে পাবো এই বিষয় টি সম্পর্কে বিস্তারিত জানার পর। এখন অনেকেই এই ক্রেডিট কার্ড ব্যবহারের নিয়ম গুলো সম্পর্কে জানতে চাইবেন।

তো আপনি যদি সেই নিয়ম গুলো সম্পর্কে জানতে চান। তাহলে আমি আপনাকে বলব যে। একটি নতুন ক্রেডিট কার্ড পাওয়ার পরে বেশ কিছু কাজ করতে হয়।

আর যখন আপনিও একটি নতুন ক্রেডিট কার্ড পাবেন। তখন আপনাকে অবশ্যই এই কাজ গুলো সঠিক ভাবে সম্পন্ন করতে হবে। মূলত এবার আমি আপনাকে সেই কাজ গুলো সম্পর্কে ধারণা দেয়ার চেষ্টা করব।

  1. যখন আপনি একটি নতুন ক্রেডিট কার্ড পাবেন। তখন অবশ্যই আপনাকে সেই কার্ড টি একটিভ করে নিতে হবে।
  2. আর একটি ক্রেডিট কার্ড কে ব্যবহার করার জন্য অবশ্যই পিন নম্বর এর প্রয়োজন হয়ে থাকে। আপনি অবশ্যই সেই পিন নাম্বার টি সংগ্রহ করে রাখবেন।
  3. পূর্বে থেকে জেনে রাখবেন যে, আপনার কাছে থাকা ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করার জন্য কি পরিমানে খরচ বহন করতে হবে।
  4. একটি ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করার ক্ষেত্রে বিভিন্ন রকমের শর্ত থাকে। সেই শর্ত গুলো আপনি পূর্বে থেকেই জেনে নিবেন।
  5. যখন আপনি ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করবেন। তখন যদি কোন ধরনের সমস্যা হয় তাহলে অবশ্যই আপনাকে ব্যাংক কর্মকর্তার সাথে যোগাযোগ করতে হবে।
  6. আপনার ক্রেডিট কার্ড এর মধ্যে যে সকল তথ্য রয়েছে। সেই তথ্য গুলো অবশ্যই গোপন রাখবেন।
  7. একটি ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করার সময় বিভিন্ন ধরনের অফার প্রদান করা হয়। আপনি অবশ্যই এই অফার গুলো জেনে রাখবেন।
  8. যখন আপনি ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে লেনদেন করবেন। তখন অবশ্যই বিশ্বস্ত জায়গা থেকে আপনার কার্ড ব্যবহার করার চেষ্টা করবেন। অন্যথায় দুষ্কৃতিকারীদের কাছে আপনার ক্রেডিট কার্ডের তথ্য গেলে আপনি নানা রকম সমস্যার সম্মুখীন হবেন।

আমরা অনেকেই জানতে চাই যে, ক্রেডিট কার্ড ব্যবহারের নিয়ম গুলো কি কি। আর আপনিও যদি এই নিয়ম গুলো সম্পর্কে জানতে চান।

তাহলে অবশ্যই আপনাকে উপরের এই বিষয় গুলোর দিকে যথেষ্ট পরিমাণে খেয়াল রাখতে হবে। যদি আপনি এই বিষয় গুলো মেনে চলতে পারেন। তাহলে আপনি খুব সহজেই ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করতে পারবেন।

ক্রেডিট কার্ড বন্ধ করার উপায়

অনেক সময় আমাদের ক্রেডিট কার্ড বন্ধ করার প্রয়োজন হয়ে থাকে। আর সেই সময় আমরা ক্রেডিট কার্ড বন্ধ করার উপায় খুঁজে থাকি।

আর আপনি যদি আপনার ব্যবহার করা ক্রেডিট কার্ড বন্ধ করতে চান। তাহলে প্রথমত আপনাকে সেই ব্যাংকের সাথে যোগাযোগ করতে হবে।

যে ব্যাংকের মাধ্যমে আপনি ক্রেডিট কার্ড তৈরি করেছিলেন। তবে আপনি যদি আপনার ক্রেডিট কার্ড বন্ধ করতে চান।

তাহলে অবশ্যই আপনাকে পূর্বের সকল বকেয়া পরিশোধ করে দিতে হবে। আর যখন আপনি তাদের সকল বকেয়া পরিশোধ করবেন।

আপনি আরোও দেখতে পারবেন…

এবং আপনি যখন আপনার এই কার্ড বন্ধ করার বিষয় টি আপনার ব্যাংক কর্মকর্তা কে জানিয়ে দিবেন। তখন তারা আপনার সেই ক্রেডিট কার্ড টি বন্ধ করে দিবে।

আমাদের শেষ কথা

ক্রেডিট কার্ড কি ভাবে পাবো যারা আসলে এই বিষয় টি সম্পর্কে জানতে চাচ্ছিলেন। তাদের জন্য আজকে এই বিষয় টি সম্পর্কে বিশদ ভাবে আলোচনা করা হয়েছে।

এবং আমি আপনাকে ধাপে ধাপে দেখিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেছি যে। আপনি আসলে কিভাবে ক্রেডিট কার্ড পাবেন। যদিও বা এই ক্রেডিট কার্ড নিয়ে আমি অনেক আলোচনা করেছি।

তবে এরপরও যদি আপনার এই ক্রেডিট কার্ড সম্পর্কে কোন অজানা বিষয় থাকে। তাহলে অবশ্যই নিচে কমেন্ট করে জানিয়ে দিবেন।

কেননা আপনাদের কমেন্ট আসলে আমার নতুন আর্টিকেল লেখার উৎসাহ জেগে ওঠে। আর পুরো আর্টিকেল টি পড়ার জন্য আপনাকে জানাচ্ছি অসংখ্য ধন্যবাদ।

নিত্যনতুন টেকনোলজি তথ্য গুলো সহজ ভাষায় জানতে অবশ্যই আমাদের সাথে থাকবেন

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!
Scroll to Top
Share via
Copy link
Powered by Social Snap