ফ্রি টাকা ইনকাম করার উপায় | ফ্রিতে প্রতিদিন 1000 টাকা আয় করুন

আপনি যদি ব্যবসা করতে যান, তাহলে কি সেখানে ফ্রি টাকা ইনকাম করতে পারবেন? কিংবা আপনি যদি কোনো চাকরি করতে যান।

ফ্রি টাকা ইনকাম করার উপায় | ফ্রিতে প্রতিদিন 1000 টাকা আয় করুন
ফ্রি টাকা ইনকাম করার উপায় | ফ্রিতে প্রতিদিন 1000 টাকা আয় করুন

তাহলে কি সেখানে ফ্রিতে টাকা ইনকাম করতে পারবেন? – উওরে বলবো না!

আপনি এগুলোর কোনোটাতেই ফ্রিতে টাকা ইনকাম করতে পারবেন না। কেননা, এসব কাজে আপনাকে অনেক শ্রম,সময় ও ধৈর্য্য নিয়ে কাজ করতে হবে।

তাহলে কি ফ্রি টাকা ইনকাম করার কোনো উপায় নেই? – হুমমম! অবশ্যই আছে। আর সেই উপায় গুলো শেয়ার করার জন্যই মূলত আজকের এই গুরুত্বপূর্ণ আর্টিকেল টি লেখা হয়েছে।

কেননা, এই আর্টিকেলে আমি আপনার সাথে এমন কিছু উপায় শেয়ার করবো। যেগুলো ফলো করতে পারলে আপনিও অন্যদের মতো ফ্রি টাকা আয় করতে পারবেন।

আর এগুলোর পাশাপাশি আপনি আরও অনেক বিষয়ে ধারনা পেয়ে যাবেন। যেমনঃ

তো যদি আপনিও Free Taka Income করতে চান। তবে আজকের পুরো লেখাটি মন দিয়ে পড়বেন।

তাহলে আপনিও খুব সহজেই একেবারে ফ্রিতে টাকা আয় করে নিতে পারবেন। তো আর দেরী না করে চলুন মূল আলোচনা তে ফিরে যাওয়া যাক। 

ফ্রিতে টাকা ইনকাম করা সম্ভব? 

আপনার মনে এখন প্রশ্ন জেগে থাকতে পারে যে, ভাই আজকের দিনে তো ফ্রিতে আলকাতরাও পাওয়া যায়না। তাহলে মানুষ কিভাবে ফ্রি টাকা ইনকাম করবে?

আর এভাবে টাকা ইনকাম করার পদ্ধতি গুলো কি কি?

দেখুন, পৃথিবীতে কোনো কিছুই ফ্রিতে পাওয়া যায়না। বরং প্রত্যকেটি সফলতার পেছনে থাকে বিরাট এক গল্প। যা সবার কাছে দৃষ্টিগোচর হয়না।

এখন হয়তবা আপনার মনে হতে পারে, এখানে যেহুতু ফ্রিতে টাকা আয় করা যায়। সেহুতু এখানে মনে হয়, কোনো প্রকার শ্রম না দিয়ে একবারে ঘরে বসে থেকেই টাকা আয় করা যাবে।

যদি আপনি এমনটা ভেবে থাকেন। তাহলে বলবো যে, আপনার ধারনা সম্পূর্ন ভুল। কেননা, এখানে ফ্রি শব্দটির ব্যবহার আমি অন্য অর্থে প্রকাশ করেছি।

আপনি আরো পড়তে পারেন…

যার অর্থ হলো, বর্তমান সময়ে আপনি কোনো প্রকার ইনভেস্ট করা ছাড়াই এই ধরনের উপায় থেকে টাকা আয় করতে পারবেন।

যেমন, আপনি যদি অনলাইন ইনকাম সেক্টরে একবারে নতুন হয়ে থাকেন। তাহলে শুরুর দিকে যখন আপনি অনলাইন জব খুজবেন ৷

তখন এমন অনেক প্লাটফর্ম পাবেন। যেগুলোতে আপনাকে বেশ ভালো পরিমান টাকা ইনভেস্ট করতে হবে। এবং তারপর থেকে আপনি সেই প্লাটফর্ম থেকে টাকা আয় করতে পারবেন।

কিন্তুু সেইসব ইনভেস্ট করা প্লাটফর্ম ছাড়াও বর্তমানে এমন অনেক অনেক সোর্স আছে। যেখানে আপনি কোনো প্রকার টাকা ইনভেস্ট করবেন না।

অথচ আপনি সেই সোর্স গুলো থেকে বিপুল পরিমান টাকা আয় করে নিতে পারবেন। আর এবার সেই ফ্রি টাকা ইনকাম করার সোর্স গুলো নিয়েই বিষদভাবে কথা বলবো। 

ফ্রি টাকা ইনকাম করার উপায় ২০২২

যে কাজে কোনো প্রকার অর্থ ব্যয় করার দরকার হয়না। সেই কাজগুলো কে ফ্রি বললেও ভুল হবেনা। আর এবার আমি আপনাকে এমন সব উপায় সম্পর্কে বলবো।

যে উপায় গুলো সঠিক ভাবে অনুসরন করলে আপনিও একেবারে ফ্রিতে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। যেমনঃ

০১| কন্টেন্ট লিখে আয় 

কোনো একটি বিষয়কে লেখনির মাধ্যমে ফুটিয়ে তোলার নাম হলো কন্টেন্ট। আর বর্তমান সময়ে এই Content Writing এর ব্যাপক চাহিদা রয়েছে।

আর সেই চাহিদাকে কাজে লাগিয়ে আপনিও ফ্রি টাকা আয় করে নিতে পারবেন।

যা আপনার মতো এমন অনেক মানুষ এই কন্টেন্ট রাইটিং করে টাকা আয় করে আসছে।

তবে আপনি কন্টেন্ট লিখলেই যে টাকা আয় করতে পারবেন। ব্যাপারটা আসলে এমন নয়, বরং এই কাজেও আপনাকে বেশ বুদ্ধিমওার পরিচয় দিতে হবে।

কেননা, সব ক্ষেএেই শুধুমাত্র সেইসব ব্যক্তিকে যোগ্য বলে গন্য করা হয়। যাদের মধ্যে নির্দিষ্ট কাজে পূর্নাঙ্গ ধারনা আছে।

ঠিক তেমনিভাবে আপনি যদি কন্টেন্ট লিখে আয় করতে চান। তবে আপনার মধ্যে বেশ কিছু গুনবালি থাকতে হবে। যেমনঃ

  • প্রথম আপনার নিজের মধ্যে লেখনির একটা বিশেষ গুন থাকতে হবে। যেকোনো বিষয় কে সাজিয়ে গুছিয়ে লেখার মতো ধারনা থাকতে হবে। 
  • আপনার লেখার মধ্যে একটা ফ্লো থাকতে হবে। যেন পাঠকদের আপনার লেখার মধ্যে ধরে থাকতে পারেন ৷ 
  • যদি আপনার মধ্যে উপরোক্ত গুনাবলি গুলো বিদ্যমান থাকে ৷ তবে আপনার এর পরবর্তী ধাপ হবে মার্কেটপ্লেস গুলোকে সঠিকভাবে জেনে নেওয়া। 
  • যখন আপনি অনলাইন এর বিভিন্ন মার্কেট প্লেস গুলো সম্পর্কে ধারনা নিবেন ৷ তখন আপনি নিজে থেকে বুঝে নিতে পারবেন যে, আপনার কন্টেন্ট রাইটিং সার্ভিসে আপনি কি পরিমান টাকা আয় করতে পারবেন। 
  • এরপর আপনাকে আর কিছুই করতে হবে না। বরং এরপরে আপনি শুধু Content writing সার্ভিস প্রদান করবেন। এবং ফ্রীতে টাকা ইনকাম করবেন।

তো এই ছিলো কন্টেন্ট রাইটিং করে ফ্রিতে টাকা ইনকাম করার উপায়

এখন যদি আপনার লেখালেখি করতে ভালো লাগে ৷ তাহলে আপনি এই কাজটি করতে পারবেন ৷ আর যদি আপনার পছন্দ না হয়, তবে আপনি নিচের উপায় গুলো ফলো করতে পারবেন ৷ 

০২| ব্লগিং করে আয়

আমি বরাবরের মতো একটি কথা বলে থাকি। সেটি হলো আজকের দিনে ব্লগিং হলো একটি মুক্ত পেশার নাম।

যেখানে আপনি আপনার সুবিধা ও স্বাধীনতা কে বজায় রেখে কাজ করতে পারবেন ৷

কেননা, ব্লগিং সেক্টরে কাজ করলে, আপনিই হবেন আপনার নিজের বস। যেখানে আপনাকে আদেশ বা নির্দেশ দেয়ার মতো কেউ থাকবে না।

কিন্তুু সব মানুষ কে দিয়ে কি ব্লগিং করা সম্ভব? – উওরে বলবো না! সব মানুষ কে দিয়ে ব্লগিং করে আয় করা সম্ভব নয়।

কেননা, এই সেক্টর থেকে ফ্রি টাকা আয় করতে হলেও আপনার মধ্যে বিশেষ কিছু গুনাবলি বিদ্যমান থাকতে হবে। যেমনঃ 

  • একটা কথা বলে রাখা ভালো যে, ব্লগিং শুধুমাত্র সেই মানুষ কে দিয়ে সম্ভব। যাদের মধ্যে অপ্রতুল ধৈর্য্য শক্তি আছে। কেননা, ব্লগ থেকে আয় করার জন্য অনেকটা সময় ধরে অপেক্ষা করতে হয়। 
  • ব্লগিং করে ফ্রিতে টাকা ইনকাম করতে হলে আপনাকে বেশ কিছু ধাপ অতিক্রম করে কাজ করতে হবে।
  • এরপর আপনাকে একটা লম্বা প্ল্যান তৈরি করতে হবে। যেমন, আপনি নিঃস্বার্থ ভাবে কত বছর সেই ব্লগে কাজ করবেন। সেই ব্লগে মোট কত গুলো আর্টিকেল পাবলিশ করবেন। এবং কখন থেকে সেই ব্লগটি SEO Optimize করবেন। 
  • এবং সর্বশেষ আপনি কোন নেটওয়ার্ক থেকে ব্লগিং করে টাকা আয় করবেন। তার একটা পূর্ব পরিকল্পনা থাকতে হবে।

তো আপনি যদি Free taka income করার জন্য ব্লগিং কে বেছে নেন। তবে অবশ্যই আপনাকে উপরে থাকা বিষয় গুলোর দিকে যথেষ্ট নজর রাখতে হবে।

এবং আপনি যদি সেই বিষয় গুলোকে সঠিকভাবে ফলো করতে পারেন। তাহলেও আপনিও ব্লগ থেকে ফ্রি টাকা আয় করে নিতে পারবেন। 

০৩| ইউটিউব ভিডিও আপলোড করে ইনকাম

আমরা সবাই YouTube কে বেশ ভালো করেই চিনি। এর কারন হলো, আমাদের মধ্যে অধিকাংশ লোক এখন ভিডিও দেখার জন্য ইউটিউবে ভিড় জমায়।

কিন্তুু আপনি কি জানেন, আজকের দিনে ফ্রি টাকা আয় করার জন্য ইউটিউব হলো উপযুক্ত একটি মাধ্যম? –

হুমম আপনি ঠিকি দেখেছেন। কেননা, বর্তমান সময়ে আপনার মতো লাখ লাখ মানুষ এখন টাকা আয় করার জন্য ইউটিউবে পাড়ি জমাচ্ছে।

কিন্তুু সবাই ইউটিউবে পাড়ি জমালেই কি সবাই টাকা আয় করতে পারবে? – না ভাই! যদি সবাই ইউটিউব থেকে আয় করতে পারতো।

তাহলে আজকের দিনে এতো বেশি বেকার যুবক থাকতো না।

আর কোনো দেশ আর গরিব থাকতো না। কারন ইউটিউব থেকে টাকা আয় করতে গেলেও আপনার মধ্যে বিশেষ কিছু গুনাবলি বিদ্যমান থাকতে হবে। যেমনঃ

  • যেহুতু Youtube হলো একটি ভিডিও শেয়ারিং প্লাটফর্ম। সেহুতু ইউটিউব থেকে টাকা আয় করতে হলে আপনাকে একজন দক্ষ ভিডিও Content Creator হতে হবে। 
  • আপনার মধ্যে ভিডিও তৈরি করার একটা নেশা থাকতে হবে। যেন শয়নে স্বপ্নে সর্বদাই আপনার মাথায় ভিডিও তৈরির চাহিদা থাকে। 
  • কোনো একটি ভিডিওতে কি কি ইলিমেন্ট থাকলে দর্শকরা আপনার ভিডিও বেশি পরিমানে দেখবে। সেই গোপন টিপস গুলো ধীরে ধীরে রপ্ত করতে হবে। 
  • মনে রাখবেন, ইউটিউবে আপনি যতো বেশি দর্শক নিজের আওতায় রাখতে পারবেন। আপনার ফ্রি টাকা ইনকাম এর পরিমান ঠিক ততোই বেশি হবে। 
  • যখন আপনার ভিডিও তে হিউজ পরিমানে ভিজিটর আসবে। তখন আপনাকে নির্ধারন করতে হবে যে, আপনি আসলে কোন ধরনের Ad Network থেকে টাকা আয় করতে চান।

ইউটিউব নিয়ে আর নতুন কিছু বলার মতো নেই। কারন আমার পূর্বের আর্টিকেল গুলোতে ইউটিউব এর যাবতীয় খুটিনাটি বিষয় গুলো কে নিয়ে অনেক বিস্তারিত ভাবে আলোচনা করেছি।

যদি আপনি ফ্রি টাকা ইনকাম করার জন্য ইউটিউবে কাজ করতে চান। তবে অবশ্যই সেই আর্টিকেল গুলো পড়ে নিবেন। 

০৩| ফ্রীল্যান্সিং করে ফ্রিতে আয় করুন

বর্তমান সময়ে পৃথিবীতে যতোজন মানুষ অনলাইন থেকে টাকা আয় করে। তাদের প্রায় অধিকাংশ মানুষ ই ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ করে থাকে।

কেননা, এই Freelancing সেক্টর আজ এতোটাই জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে। যেখানে হু হু করে মানুষ এই সেক্টরে প্রতিয়নত যোগ দিচ্ছে।

কেননা, ফ্রিতে টাকা ইনকাম করার জন্য ফ্রিল্যান্সিং হলো উপযুক্ত একটি মাধ্যম।

যেখানে আপনি বাস্তবিক জীবনের মতো নিজের ঘরে বসে কাজ করবেন। যে কাজ গুলো অন্য কোনো কোম্পানি বা বায়ার আপনাকে দিবে।

এবং আপনি সেই কাজ গুলো নিজের ঘরে বসে করতে পারবেন। এবং সেই কাজের বিনিময়ে আপনি অনলাইন থেকে টাকা আয় করতে পারবেন।

তবে আপনি যদি Freelancing করে টাকা আয় করতে চান। তাহলেও আপনাকে বেশ কিছু ধাপ সঠিকভাবে অনুসরন করতে হবে। যেমনঃ

  • আপনার প্রথম এবং প্রধান টার্গেট হতে হবে অনলাইন রিলেটেড কোনো কাজ শিখে নেয়া। কারন এখানে আপনি ঘরে বসে টাকা আয় করতে পারবেন ঠিকি।
  • কিন্তুু এখানেও আপনাকে ঘরে বসে কাজ করতে হবে। 
  • যখন আপনি কোনো কাজ শিখবেন। যেমন, গ্রাফিক ডিজাইন /ওয়েব ডিজাইন /এসইও ইত্যাদি। তখন আপনাকে এই Freelancing Marketplace গুলোতে যেতে হবে। 
  • প্রথমত আপনাকে সেই মার্কেটপ্লেস গুলোকে বুঝতে হবে। সেখানে অন্যান্য মানুষ গুলো কিভাবে কাজ করছে, তারা কিভাবে টাকা নিচ্ছে ইত্যাদি। 
  • এরপর যখন আপনি এই মার্কেটপ্লেস গুলো কে বুঝতে পারবেন। তখন আপনিও সেই প্লাটফর্ম গুলোতে কাজ করতে পারবেন৷ এবং সেই কাজের বিনিময়ে টাকা আয় করতে পারবেন।

ফ্রিল্যান্সিং এর আদ্যপান্ত নিয়ে আমি বেশ কয়েকটি আর্টিকেলে বিস্তারিত আলোচনা করেছি ৷ তাই এ নিয়ে আর বেশি কথা বলাটা ঠিক হবেনা।

তাই যদি আপনার ফ্রিল্যান্সিং সম্পর্কে জানার ইচ্ছে থাকে। তবে আপনি সেই আর্টিকেল গুলো থেকে পূর্নাঙ্গ ধারনা নিতে পারবেন৷  

০৪| এফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয়

আজকের দিনে ফ্রিতে টাকা ইনকাম করার অন্যতম একটি উপায় হলো এফিলিয়েট মার্কেটিং। যেখান থেকে আপনি অসংখ্য টাকা আয় করে নিতে পারবেন।

আর বর্তমান সময়ে আপনার মতো লাখ লাখ মানুষ আছেন। যারা মূলত Affiliate করে বিপুল পরিমান টাকা অনলাইন থেকে আয় করে আসছে। 

সত্যি বলতে এফিলিয়েট মার্কেটিং হলো মজার একটা সেক্টর। যদি আপনি একবার Affiliate স্ট্রাটেজি কে বুঝে উঠতে পারেন।

তাহলে আপনি এই মাধ্যম থেকে এতো বেশি টাকা আয় করতে পারবেন।

যা দেখে আপনিও রিতীমতো অবাক হয়ে যাবেন। কিন্তুু এইসব স্ট্রাটেজি সম্পর্কে ধারনা নিতে হলে আপনাকে বেশ কিছু ধাপ অতিক্রম করতে হবে। যেমনঃ

  • সবার আগে আপনাকে বুঝতে হবে যে, এফিলিয়েট মার্কেটিং কাকে বলে। এবং একজন নতুন মানুষ কিভাবে Affiliate শুরু করতে পারবে। 
  • এরপর আপনাকে এমন এক বা একাধিক প্লাটফর্ম নির্বাচন করতে হবে। যেখান থেকে আপনি এফিলিয়েট করতে পারবেন। 
  • এরপর আপনাকে এফিলিয়েট এর হিডেন স্ট্রাটেজি গুলোকে প্রয়োগ করতে হবে ৷

তো আজকের এই আর্টিকেলে আমি এফিলিয়েট মার্কেটিং এর Hidden Strategy গুলো নিয়ে কোনো কথা বলবো না।

তবে আপনি যদি সেই হিডেন টিপস গুলো জানতে চান। তাহলে অবশ্যই নিচে একটা কমেন্ট করে জানাবেন ৷ আমি অন্য কোনো আর্টিকেলে এ নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করবো। 

০৫| Photography করে আয় করুন

বর্তমান সময়ে ফ্রি টাকা ইনকাম করার উপযুক্ত একটি মাধ্যম হলো Photography করা।

যে কাজটি করে আপনি অনেক টাকা আয় করে নিতে পারবেন। তবে মজার বিষয় হলো, আপনি অনলাইন বা অফলাইন এই দুইটি মাধ্যমে ফটোগ্রাফি থেকে টাকা আয় করতে পারবেন।

তবে আপনি যদি ফ্রিতে টাকা ইনকাম করতে চান। তাহলে আপনার মধ্যে ফটোগ্রাফি রিলেটেড অনেক অভিজ্ঞতা থাকতে হবে।

কেননা, সব মানুষ কে দিয়ে কিন্তুু Photography করা সম্ভব না।

বরং আপনার মধ্যে যখন কিছু কিছু গুনবালি বিদ্যমান থাকবে ৷ তখন আপনি এই মাধ্যম থেকে ফ্রি টাকা ইনকাম করে নিতে পারবেন।

  • আপনার মধ্যে ফটোগ্রাফি করার একটা চরম আগ্রহ থাকতে হবে। কেননা, যে কাজের প্রতি আপনার আগ্রহ থাকবে না৷ সেই কাজে আপনি কখনই সফলতা অর্জন করতে পারবেন না। 
  • ফটোগ্রাফি হলো একটি আর্ট। আর কখন এই শিল্পকে কাজে লাগাতে হবে। তা আপনাকে জেনে নিতে হবে। 
  • অসাধারন কোনো মূহূর্তকে ফ্রেমবন্দি করার জন্য আপনাকে প্রচুর পরিমান কাজ করতে হবে। 
  • এছাড়াও Photo angle নিয়েও আপনার মধ্যে পর্যাপ্ত জ্ঞান থাকতে হবে।

সত্যি বলতে ফটোগ্রাফি নিয়ে আমার তেমন একটা ধারনা নেই। কারন আমার আবার এসব বিষয়ে খুব একটা আগ্রহ নেই। তবে আপনি গুগলে সার্চ করলে এই রিলেটেড অনেক অজানা তথ্য সম্পর্কে জেনে নিতে পারবেন। 

০৬| ছবি বিক্রি করে আয়

Photography এর সাথে সম্পর্কযুক্ত আরও একটি ফ্রি টাকা ইনকাম করার উপায় হলো ছবি বিক্রি করা। হয়তবা প্রথমবার এই কথাটি শোনার পর আপনি বেশ অবাক হয়ে যেতে পারেন।

কিন্তুু এখনকার দিনে ছবি বিক্রি করেও প্রচুর পরিমান টাকা আয় করা সম্ভব। যা আপনার মতো অনেক মানুষ ই এই কাজটি করে টাকা আয় করে আসছে।

আপনি আরো দেখতে পারেন…

তবে আপনার এটা ভাইবেন না যে, অনলাইনে যে কোনো ছবি বিক্রি করলেই টাকা আয় করা যাবে। বরং আপনার ছবির মধ্যে বিশেষ কিছু গুনাবলি থাকতে হবে। যেমনঃ

  • আপনার ছবি গুলো মিনিংফুল হতে হবে। অর্থ্যাৎ, আপনার ছবির মধ্যে যেন মানুষ কিছু শিখতে পারে। আপনার ছবির মধ্যে এমন কিছু থাকতে হবে। 
  • আপনার ছবির মধ্যে যেন কিছু একটা মেসেজ পাওয়া যায়। তাহলে আপনি আপনার ছবি গুলোকে চড়া দামে বিক্রি করতে পারবেন। 
  • বিশেষ কিছু মুহূর্ত যা সর্বদা মানুষের নজরে আসেনা। সেইসব মূহুর্তের ছবি তুলে অনেক ভালো দামে বিক্রি করে টাকা আয় করতে পারবেন।

তবে আপনি চাইলে আমি অন্য কোনো আর্টিকেলে এ নিয়ে বিষদ ভাবে আলোচনা করবো। তবে সেজন্য আপনাকে এই পোষ্টের নিচে একটা কমেন্ট করতে হবে। 

আমাদের শেষকথা 

আজকের আর্টিকেলে আমি ফ্রি টাকা ইনকাম নিয়ে বিস্তারিত ভাবে আলোচনা করেছি। এবং কিভাবে ফ্রিতে টাকা ইনকাম করা যায়।

সে বিষয় গুলোকে আমি স্টেপ বাই স্টেপ আলোচনা করেছি।

তবে এরপরও যদি আপনার ফ্রিতে টাকা ইনকাম নিয়ে কোনো ধরনের প্রশ্ন থাকে।

তাহলে অবশ্যই নিচে একটা কমেন্ট করে জানাবেন৷ আমি সর্বদাই প্রস্তুত আছি আপনার সমস্যার সমাধান করার জন্য।

আর এমন সব হেল্পফুল তথ্য সম্পর্কে জানতে হলে, Bangla it blog এর সাথে থাকবেন৷ ধন্যবাদ।

4 thoughts on “ফ্রি টাকা ইনকাম করার উপায় | ফ্রিতে প্রতিদিন 1000 টাকা আয় করুন”

  1. আমি Arkes chakma আপনার আর্টিকেল পরে ভাল ধারণা পেয়েছি এবং আমিও ইনকাম করতে চাই।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!
Scroll to Top
Share via
Copy link
Powered by Social Snap