কিভাবে অনলাইনে আয় করা যায় ? | অনলাইনে ইনকাম করার উপায়

কিভাবে অনলাইনে আয় করা যায় : যেহুতু আপনি এই লিংকে ক্লিক করেছেন। সেহুতু ধরে নিবো যে আপনি ঘরে বসে মোবাইলে আয় করতে চান।

কিভাবে অনলাইনে আয় করা যায় ? |  অনলাইনে ইনকাম করার উপায়
কিভাবে অনলাইনে আয় করা যায় ? | অনলাইনে ইনকাম করার উপায়

আর অনলাইনে ইনকাম করার উপায় গুলো জানার জন্যেই আপনি গুগলে সার্চ করেছেন। তবে  আপনি যদি আসলেই Online income সম্পর্কে জানতে চান।

তাহলে আপনাকে স্বাগতম বাংলা আইটি ব্লগের কিভাবে অনলাইনে টাকা আয় করা যায় নিয়ে নতুন একটি আর্টিকেলে।

কেননা, আমিও আপনার মতোই একজন মানুষ কে খুজছি। যে মানুষটা অনলাইনে ইনকাম করার উপায় গুলো সম্পর্কে জানতে চায়।

তাহলে আর দেরী কেন ? এবার চলুন তাহলে অনলাইনে ইনকাম করার উপায় নিয়ে আপনার সাথে বিস্তারিত আলোচনা করা যাক।

দেখুন, বর্তমান সময়ে যে অনলাইন থেকে টাকা আয় করা যায়। এটা আমরা কমবেশি সবাই জানি। কারন আজকের দিনে আপনি এমন অনেক মানুষ কে খুজে পাবেন।

যারা লাখ লাখ টাকা অনলাইন থেকে আয় করে আসছে ৷

কিন্তুু আজকের দিনে অনলাইন ইনকাম করা যায়। এই কথাটি জানার পর বসে থাকলে চলবে না। বরংকিভাবে ডলার ইনকাম করা যায়, অনলাইনে কিভাবে ইনকাম করা যায়।

এই সব গুলো বিষয়ে আপনার যথেষ্ট ধারনা রাখতে হবে।

তো আজকের আর্টিকেলে আপনি অনলাইনে ইনকাম করার উপায় গুলো জানতে পারবেন। এর পাশাপাশি আপনি Online income রিলেটেড আরও অনেক অজানা বিষয়ে জেনে নিতে পারবেন।

যেমনঃ

তো আপনি যদি উপরোক্ত বিষয় গুলো সম্পর্কে জানতে চান। তাহলে আজকের পুরো আর্টিকেল টি মন দিয়ে পড়বেন।

তাহলে আমার বিশ্বাস যে, এরপর থেকে আপনার মনে আর অনলাইনে ইনকাম করার উপায় নিয়ে কোনো অজানা বিষয় থাকবে না। 

আর্টিকেল সূচিঃ

কিভাবে অনলাইনে আয় করা যায়?

যদি আপনি জানতে চান যে, মোট কয়টি পদ্ধতি অনুসরন করে অনলাইন ইনকাম করা যায়। তাহলে আমি বলবো যে, আপনি মোট ২ টি পদ্ধতির মাধ্যমে Online income করতে পারবেন। যেমনঃ 

  1. ফ্রিল্যান্সিং করে এবং 
  2. আউটসোর্সিং করে। 

হুমমম, আজকের দিনে পৃথিবীতে যতো জন মানুষ অনলাইন ইনকাম করে। তারা সবাই এই দুইটি পদ্ধতি অনুসরন করে থাকে।

এখন হয়তবা আপনার মনে প্রশ্ন জেগে থাকবে যে, এই ফ্রিল্যান্সিং ও আউটসোর্সিং আসলে কাকে বলে।

যদি আপনি Freelancing এবং Outsourcing সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জানতে চান। তাহলে নিচে দেওয়া লিংক গুলো থেকে এ সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা সম্পর্কে জেনে নিতে পারবেন ৷

আর আপনি যদি অনলাইন ইনকাম করতে চান। তবে এ দুটো বিষয়ে অবশ্যই ধারনা রাখতে হবে। 

তো বর্তমান সময়ে বেশিরভাগ মানুষ make money online এর জন্য ফ্রিল্যান্সিং করে থাকে। যেখানে আপনি নিজের ঘরে বসে অনলাইনে কাজ করে টাকা আয় করতে পারবেন।

তবে সময়ের সাথে তাল মিলিয়ে আউটসোর্সিং এর জনপ্রিয়তাও ক্রমেই জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। 

অনলাইনে ইনকাম করার উপায়

আপনি জানলে অবাক হয়ে যাবেন। কারন আজকের দিনে আপনি এমন অনেক ধরনের অনলাইনে ইনকাম করার উপায় দেখতে পারবেন।

এখন আপনি যদি সেই অনলাইনে ইনকাম করার উপায় কে সঠিক ভাবে কাজে লাগাতে পারেন।

তাহলে আপনিও এই মাধ্যমে বিপুল পরিমান টাকা অনলাইন থেকে আয় করে নিতে পারবেন।

আর এবার আমি আপনাকে অনলাইনে ইনকাম করার উপায় গুলোকে আলাদা আলাদা করে ধারনা দিবো।

যেগুলোর মাধ্যমে আপনিও অন্যান্য মানুষ এর মতো make money from online এর কাজটি সম্পন্ন করতে পারবেন।

আর যদিও আপনি উপরের লেখাগুলো স্কিপ করে থাকেন ৷ কিন্তুু এখন থেকে একটু হলেও মন দিয়ে পড়ার চেস্টা করুন ৷ 

০১| আর্টিকেল লিখে অনলাইনে ইনকাম করার উপায়

বর্তমান সময়ের সবচেয়ে সম্মানজনক একটি অনলাইন জব এর নাম হলো Content Writing. যেখানে আপনি কোনো টপিকে লেখালেখি করে টাকা আয় করতে পারবেন।

মূলত যারা লিখতে ভালোবাসেন এবং যারা এখনও লেখাপড়া অধ্যায়নরত আছেন। তাদের জন্য আর্টিকেল লেখার কাজটি অন্যতম একটি Online Job হিসেবে গন্য করা হয়।

আমাদের মধ্যে এমন অনেক মানুষ আছেন, যারা লেখালেখি করতে অনেক পছন্দ করেন।

এই মানুষ গুলোকে যদি কোনো একটি টপিক দেওয়া হয় ৷ তবে এরা সেই বিষয়টি নিয়ে এমনভাবে বিস্তারিত লিখতে পারে।

যা দেখে পাঠকদের সেই লেখা গুলো পড়তে অনেক পছন্দ করে।

তো আপনার ভেতরে যদি লেখালেখি করার মতো গুন থাকে ৷ তবে আপনি সরাসরি এই Content writer হয়ে কাজ করতে পারবেন।

এবং আপনি কন্টেন্ট রাইটিং সার্ভিস প্রদান করে অনেক টাকা অনলাইন থেকে আয় করে নিতে পারবেন।

Helpful Note: কন্টেন্ট রাইটিং কি ? কিভাবে কন্টেন্ট রাইটিং করে টাকা ইনকাম করতে হয় বিস্তারিত জানতে এই আর্টিকেল পড়ুন- Content Writing করে টাকা ইনকাম করার উপায়। 

০২| ব্লগসাইট থেকে অনলাইনে ইনকাম করার উপায়

আপনি যদি আমাকে প্রশ্ন করে থাকেন যে, কিভাবে অনলাইনে আয় করা যায়। তাহলে আমি আপনাকে সরাসরি বলবো যে, ব্লগ সাইট থেকে আয় করার জন্য ৷

কেননা, অনলাইন প্লাটফর্মে দীর্ঘদিন ধরে মানুষ বিপুল পরিমান টাকা ব্লগ সাইট থেকে আয় করে আসছে।

আর অনলাইনে ইনকাম করার জন্য ব্লগ সাইট এর মতো নির্ভেজাল অনলাইনে ইনকাম করার উপায় আর দ্বিতীয়টি নেই। 

বর্তমানে আপনি যেখানে এই লেখাটি পড়ছেন ৷

এটা হলো একটি ব্লগ সাইট৷ যেখানে আমি আপনাদের মতো মানুষের জন্য বিভিন্ন টপিক নিয়ে আলোচনা করে থাকি।

আর আমার ব্লগে যেসব আলোচনা করা হয়। সেগুলো আপনার মতো অনেক পাঠক এসে এই লেখাগুলো পড়ে অনেক অজানা বিষয়ে জানতে পারে ৷

তবে আমি এই কাজ গুলো এমনি এমনি করিনা ৷

আপনার জন্য আরো লেখা…

বরং আমার এই ব্লগে সময় ব্যয় করার মূল কারন হলো টাকা আয় করা ৷ হুমমম! আমি নিজেও আমার এই বাংলা ব্লগ থেকে টাকা আয় করি।

এখন আপনি যদি আমার মতো একটি ব্লগ সাইট তৈরি করেন ৷ এবং সেখানে নিত্যনতুন কন্টেন্ট পাবলিশ করেন ৷

তাহলে আপনি বেশ ভালো পরিমান টাকা অনলাইন ইনকাম করতে পারবেন ৷ 

০৩| গুগল এডসেন্স থেকে আয় করার উপায়

আজকের দিনে অনলাইনে ইনকাম করার উপায় হিসেবে গুগল এডসেন্স এর অবদান অতুলনীয়। কেননা, আপনি যদি সহজ উপায়ে make money from online এর কাজটি সম্পন্ন করতে চান।

তবে আপনার জন্য Earn money from online এর উপযুক্ত একটি মাধ্যম হবে গুগল এডসেন্স। যেখানে আপনার মতো লাখ লাখ মানুষ কাজ করে অনলাইন ইনকাম করে আসছে ৷ 

মজার বিষয় হলো, এডসেন্স মূলত Google এর নিজস্ব একটি প্রোডাক্ট। যা বিশ্বের জনপ্রিয় অনলাইন কোম্পানি গুগল নিজেই পরিচালনা করে থাকে।

তাই আপনি এখানে একেবারে নিশ্চিন্তে কাজ করতে পারবেন। এবং আপনি এডসেন্স থেকে যে পরিমান টাকা আয় করবেন ৷ সেই টাকা গুলো Google নিজে থেকে আপনার নিকট পাঠিয়ে দিবে ৷

কিন্তুু আপনি যদি গুগল এডসেন্স থেকে ইনকাম করতে চান।

তবে আপনাকে মোট ২ টি প্লাটফর্মে কাজ করতে হবে। তার মধ্যে প্রথমটি হলো, ব্লগ বা ওয়েবসাইট৷ এবং অন্য একটি পদ্ধতি হলো, ইউটিউব ৷

কেননা, গুগল এডসেন্স থেকে শুধুমাত্র সেই মানুষ গুলো টাকা আয় করতে পারবে ৷ যারা মূলত এই দুটি প্লাটফর্মে কাজ করে থাকে ৷ 

০৪| গুগল এডমব থেকে ইনকাম করার উপায়

গুগল এডসেন্স এর মতো আরও একটি অনলাইনে ইনকাম করার উপায় হলো গুগল এডমোব ৷ যেখান থেকে আপনি যদি সঠিকভাবে কাজ করতে পারেন ৷

তাহলে আপনি Google Admob থেকে ব্যাপক পরিমান টাকা অনলাইন ইনকাম করতে পারবেন।

তবে আপনি যদি গুগল এডমোব থেকে টাকা আয় করতে চান ৷ তবে সবার আগে আপনার নিকট নিজস্ব একটি Android Apps থাকতে হবে। এর পাশাপাশি সেই অ্যাপস এর প্রচুর পরিমানে ইউজার থাকতে হবে।

তাহলে আপনি সেই অ্যাপস এর মাধ্যমে বেশ ভালো পরিমান টাকা এডমোব থেকে আয় করে নিতে পারবেন।

গুগল এডসেন্স যেমন, ইউটিউব কিংবা ব্লগ সাইট ছাড়া আয় করার সুযোগ দেয়না। ঠিক তেমনি ভাবে এডমোব শুধুমাত্র Android Apps এর মাধ্যমে অনলাইন ইনকাম করার সুযোগ দিয়ে থাকে ৷

যেখানে আপনার একটি নজস্ব এন্ড্রয়েড অ্যাপস থাকবে। এবং সেখানে আপনি গুগল এডমোব এর বিজ্ঞাপন দেখিয়ে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। 

০৫| ইউটিব থেকে ইনকাম করার উপায়

আমরা সবাই জানি যে, Youtube হলো বর্তমান সময়ের সবচেয়ে জনপ্রিয় একটি ভিডিও শেয়ারিং প্লাটফর্ম। যেখানে আপনি শুধুমাত্র ভিডিও কন্টেন্ট দেখতে পারবেন ৷

তবে একজন মানুষ চাইলে ভিডিও দেখার পাশাপাশি ইউটিউব থেকে টাকা ইনকাম করতে পারবে ৷ আর ইউটিউব থেকে টাকা আয় করার উপায় গুলোকে ফলো করে।

এখনকার দিনে অনেক মানুষ বিপুল পরিমান টাকা ইউটিউব থেকে আয় করে আসছে।

তো আপনি যদি অন্যান্য মানুষের মতো Youtube থেকে আয় করতে চান। তাহলে সবার আগে আপনাকে একটি ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করতে হবে।

এবং একটি Channel Create করার পর সেখানে আপনাকে প্রতিনিয়ত নির্দিষ্ট কোনো টপিকে ভিডিও আপলোড করতে হবে।

এখন এই পর্যন্ত পড়ার পর আপনি হয়তবা ভাবছেন যে, ইউটিউবে একটি চ্যানেল তৈরি করার পর।

সেই চ্যানেলে ভিডিও আপলোড করলেই কি টাকা আয় করা যাবে? – যদি আপনি এমনটা ভেবে থাকেন।

তবে আপনার ধারনা আংশিক সত্যি বলা যাবে। কিন্তুু এই ধারনাটি পুরোপুরি সঠিক নয়।

কেননা, ইউটিউবে শুধু ভিডিও আপলোড করলেই টাকা আয় করতে পারবেন না। বরং আপনাকে এমন অনেক নিয়ম কানুন মেনে কাজ করতে হবে।

এবং আপনি যদি আপনার চ্যানেল কে মনিটাইজ এর জন্য উপযুক্ত করে তুলতে পারেন। তাহলে আপনি ইউটিউব এর পার্টনার প্রোগ্রাম এর সাথে যুক্ত হতে পারবেন।

এবং তখন থেকে আপনিও ইউটিউব থেকে আয় করে নিতে পারবেন। 

০৬| ফেসবুক থেকে আয় করার উপায়

অনলাইনে ইনকাম করার উপায় গুলোর মধ্যে ফেসবুক হলো অন্যতম একটি মাধ্যম। যেখান থেকে আপনি অনেক টাকা অনলাইন থেকে আয় করে নিতে পারবেন।

মূলত আজকের দিনে এমন অনেক কন্টেন্ট ক্রিয়েটর আছেন। যারা ইতিমধ্যে বেশ ভালো পরিমান টাকা ফেসবুক থেকে আয় করে আসছেন।

যদি আপনি কয়েক বছর আগের কথা চিন্তা করে দেখেন। তাহলে আপনি দেখতে পারবেন যে, সেই সময়ে কিন্তুু ফেসবুক ব্যবহার করা হতো শুধুমাত্র কমিউনিকেশন করার জন্য।

অর্থ্যাৎ, তখন আমরা শুধুমাত্র একে অন্যের সাথে যোগাযোগ রাখার জন্য Facebook ব্যবহার করতাম। 

তবে এখন আপনি ফেসবুকের মাধ্যমে অন্য মানুষ এর সাথে যোগাযোগ করার পাশাপাশি ফেসবুক থেকে টাকা আয় করতে পারবেন।

কেননা, ফেসবুক এখন পার্টনার প্রোগ্রাম এর ব্যবস্থা চালু করেছে।

যেখানে আপনি একজন ফেসবুক পাবলিশার হয়ে কাজ করবেন। এবং সেই কাজের বিনিময়ে আপনি ফেসবুক থেকে আয় করতে পারবেন।

তো আপনি যদি Facebook থেকে টাকা আয় করতে চান। তাহলে আপনার কাছে অবশ্যই একটি ফেসবুক পেজ থাকতে হবে। এরপর আপনাকে ফেসবুক এর পার্টনার প্রোগ্রামে যেসব শর্ত আছে।

সেই সব গুলো শর্ত সঠিকতর মেনে আপনার পেজ কে কন্টিনিউ করতে হবে। এরপর যদি আপনি তাদের সকল শর্ত মেনে পেজ কে পরিচালনা করেন।

তাহলে আপনি আপনার Facebook Page কে মনিটাইজ করিয়ে নিতে পারবেন। এবং আপনি সেই ফেসবুক পেজ থেকে টাকা আয় করতে পারবেন।

০৭| অ্যাপ থেকে ইনকাম করার উপায়

অনলাইনে ইনকাম করার উপায় গুলোর মধ্যে সবচেয়ে সহজ একটি উপায় হলো, অ্যাপ থেকে টাকা ইনকাম করা।

আর এই কাজটি তুলনামূলক অনেক সহজ হওয়ার কারনে প্রায় অনেক মানুষ এই আর্নিং অ্যাপ গুলোতে কাজ করে আসছে ৷

এবং সেই কাজের বিনিময়ে তারা Online income করতে পারছে।

আজকের দিনে আমাদের সবার হাতে হাতে এক বা একাধিক এন্ড্রয়েড মোবাইল আছে।

আর সেই ফোন গুলোকে ব্যবহার করার জন্য আমরা প্রতিনিয়ত কোনো না কোনো Android Apps ব্যবহার করে থাকি।

আর সেই চাহিদার সাথে তাল মিলিয়ে এখন এমন কিছু অ্যাপ ডেভলপ করা হয়েছে। যেখানে আপনি বাস্তবিক জীবনের মতো সেই Apps গুলোতে কাজ করতে পারবেন।

তবে এই ধরনের Earning Apps গুলোতে আপনি যে কাজ গুলো দেখতে পারবেন ৷ সেগুলো এতোটাই সহজ হয়ে থাকে। যেগুলো আপনি একবার দেখলে সব কিছু শিখতে পারবেন।

যেমন, আপনি হয়তবা শুনে থাকবেন যে, গেম খেলে টাকা আয়, ভিডিও দেখে টাকা আয় করা যায়।

মূলত এই ধরনের কাজ গুলো আপনি এই আর্নিং অ্যাপস গুলোতে দেখতে পারবেন।

আর সবচেয়ে ভালো লাগার মতো বিষয় হলো, এখন আমাদের বাংলাদেশ থেকে এমন অনেক ধরনের আর্নিং অ্যাপস তৈরি করা হয়েছে।

যে অ্যাপস গুলো তে আপনি Online income করে Bkash Payment নিতে পারবেন।

আর এই পেমেন্ট মেথডটি অনেক সহজ হওয়ার কারনে। এখন অনেক মানুষ ই এই ধরনের বাংলাদেশি আয় করার apps গুলোতে কাজ করছেন। এবং সেখান থেকে টাকা আয় করে আসছেন। 

০৮| গ্রাফিক ডিজাইন করে ইনকাম করার উপায়

কিভাবে অনলাইনে আয় করা যায় – যাদের মনে এই ধরনের প্রশ্ন জেগে থাকে। তারা কোনোদিক চিন্তা না করে সরাসরি গ্রাফিক ডিজাইন শুরু করে দিতে পারেন ৷

কেননা, গ্রাফিক ডিজাইন হলো অনলাইনে ইনকাম করার উপায় গুলোর মধ্যে অধিক জনপ্রিয়।

যেখানে আপনি Graphic Design এর ফ্রিল্যান্সিং সার্ভিস প্রদান করে অনেক টাকা অনলাইন ইনকাম করতে পারবেন।

আপনি যদি ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস গুলোতে একটু নজর দেন। তাহলে আপনি একটি বিষয় লক্ষ্য করলে দেখতে পারবেন যে, এই মার্কেটপ্লেস গুলোতে যারা Graphic Design এর কাজ করে।

তারা একেকটি কাজের জন্য বেশ ভালো পরিমান টাকা আয় করে থাকে। এখন আপনি আসলে কত টাকা গ্রাফিক ডিজাইন থেকে আয় করবেন ৷

সেটা নির্ভর করবে আসলে আপনি কতটা মানসম্মত ডিজাইন তৈরি করতে পারেন। তাছাড়া গ্রাফিক ডিজাইন এর জনপ্রিয়তা পাওয়ার আরও বেশ কিছু দিক আছে।

যা আপনার কাছেও অনেক ভালো লাগবে।

আপনি আরো দেখতে পারেন…

যেমন, আপনি গ্রাফিক ডিজাইন কে আরও অনেক ছোট ছোট অংশে ভাগ করতে পারবেন। কেননা, Graphic Design যদি একটি বড় প্লাটফর্ম হয়ে থাকে।

তাহলে এর সাথে সংযুক্ত আরও অনেক ছোট ছোট সেক্টর আছে। যেমন, Logo Design, Vector Design, Photo editing ইত্যাদি।

এখন আপনি যদি অনলাইনে ইনকাম করার উপায় হিসেবে গ্রাফিক ডিজাইনার হতে চান। তাহলে আপনি সম্পূর্ন ডিজাইনিং সেক্টর এর কাজ করতে পারবেন ৷

নতুবা আপনি চাইলে ডিজাইন এর সাথে জড়িত অন্যান্য যেসব ছোট ছোট সেক্টর আছে ৷ সেই কাজ গুলো করেও অনলাইন থেকে আয় করতে পারবেন। 

গ্রাফিক ডিজাইন নিয়ে লেখাঃ গ্রাফিক ডিজাইন করে টাকা ইনকাম করার উপায়

০৯| ওয়েব ডিজাইন এবং ওয়েব ডেভেলপিং করে আয়

বর্তমান সময়ে ফ্রিল্যান্সিং প্লাটফর্ম গুলোতে যত গুলো অনলাইন জব আছে ৷ তার মধ্যে Web Design হলো সবচেয়ে সম্মানজনক একটি পেশা।

যেখানে একজন দক্ষ ওয়েব ডিজাইনার তার ডিজাইনিং সার্ভিস প্রদান করে। অনলাইন থেকে বিপুল পরিমান টাকা আয় করতে পারে।

আর সেই কারনে এই অনলাইন জব কে একটি ডিমান্ডেবল জব হিসেবে বিবেচনা করা হয়ে থাকে।

আমরা সবাই এখন প্রযুক্তির যুগে বসবাস করছি। আর সেই তুলনায় সময়ের সাথে আমরা নিজেদের অনেকটাই পরিবর্তন করতে পেরেছি।

আর সে কারনে একজন ব্যক্তির একটা ওয়েবসাইট থাকা বেশ কমন একটি ব্যাপার হয়ে দাড়িয়েছে।

কেননা, ওয়েবসাইট হলো এমন একটি প্লাটফর্ম। যেখানে আপনি খুব দ্রুত নিজেকে প্রকাশ করতে পারবেন।

কিন্তুু একটি Website তৈরি করার জন্য প্রয়োজন হয় একজন ভালো ওয়েব ডিজাইনার এর। কেননা, একটি ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য যেসব কোডিং দক্ষতার প্রয়োজন হয় ৷

তা কিন্তুু সবার মধ্যে থাকে না। আর সে কারনে একজন দক্ষ ওয়েব ডিজাইনার কে অনেক বেশি টাকা দিয়ে এসব ডিজাইনিং কাজ গুলো করানো হয়ে থাকে।

তবে একটি ওয়েবসাইট কে শুধু ডিজাইন করলেই হবেনা। বরং সেই সাইট কে পরবর্তী সময়ে ডেভলপ করার দরকার হবে। আর আপনি যদি একজন দক্ষ Web Designer এবং Web Developer হয়ে থাকেন।

তাহলে আপনি অনলাইন প্লাটফর্ম গুলোতে এই সার্ভিস প্রদান করে প্রচুর টাকা অনলাইন থেকে আয় করে নিতে পারবেন। 

১০| অ্যাপ ডেভেলপিং করে আয় করার উপায়

সময়ের সাথে তাল মিলিয়ে ক্রমেই জনপ্রিয়তা অর্জন করতে শুরু করেছে অ্যাপ ডেভেলপিং। আর যদি আপনি একজন সুদক্ষ Apps Developer হতে পারেন।

তবে আপনি ভিন্ন ভিন্ন মাধ্যমে অনলাইন থেকে আয় করতে পারবেন। কেননা, এটিও হলো অনলাইন মার্কেটপ্লেসের বেশ ডিমান্ডবল একটি অনলাইন জব।

যে জবের মাধ্যমে আপনি যে পরিমান টাকা অনলাইন ইনকাম করবেন। তার পরিমান কিন্তুু মোটেও কম নয়।

আমরা বেশ ভালো করেই জানি যে, বর্তমান সময়ে এন্ড্রয়েড ফোন ব্যবহার এর চাহিদা একেবারে তুঙ্গে রয়েছে।

আর একটি Android ফোনকে সঠিক ভাবে পরিচালনা করার জন্য নানা ধরনের Apps এর দরকার হয়ে থাকে।

যেমন, আমরা গান শোনার জন্য মিউজিক প্লেয়ার ব্যবহার করি, আবার ইন্টারনেট চালানোর জন্য ব্রাউজার ব্যবহার করি।

কিন্তুু আমাদের দৈনন্দিন জীবনে ব্যবহার করা এই Android Apps গুলো কিন্তুু এমনি এমনি আসেনি। বরং আমাদের মতো কোনো না কোনো মানুষ এই অ্যাপস গুলোকে তৈরি করেছে।

আর এই ধরনের মানুষ গুলোকে বলা হয়, Apps Developer. যাদের তৈরি করা অ্যাপস গুলো ব্যবহার করে। আমরা আমাদের নিত্যদিনের কাজ গুলো অনেক সহজ করতে পেরেছি।

এখন আপনার মধ্যে যদি Apps Development নিয়ে পূর্নাঙ্গ ধারনা থাকে। তাহলে আপনি এই ডেভলপমেন্ট সার্ভিস প্রদান করে অনলাইন থেকে আয় করতে পারবেন।

যা বর্তমান সময়ে অনেক মানুষ এই অনলাইনে ইনকাম করার উপায় অনুসরন করে আসছে। 

১১| এফিলিয়েট করে ইনকাম করার উপায়

বর্তমান বাংলাদেশের প্রায় অনেক মানুষের অনলাইন ইনকাম এর প্রধান সেক্টর হলো এফিলিয়েট। যেখান থেকে আমাদের দেশের অনেক মানুষ লাখ লাখ টাকা আয় করে আসছে।

কেননা, এটি হলো এমন একটি অনলাইনে ইনকাম করার উপায়। যার মাধ্যমে আপনি নিজের ঘরে বসে অনলাইনে কাজ করে টাকা আয় করতে পারবেন।

এফিলিয়েট মার্কেটিং হলো এমন একটি প্রক্রিয়া। যেখানে আপনি ক্রেতা ও বিক্রেতার মধ্যে একটি মধ্যস্থ ব্যক্তি হিসেবে কাজ করবেন।

এবং এর বিনিময়ে আপনি এফিলিয়েট থেকে আয় করে নিতে পারবেন। হয়তবা বিষয়টি আপনি তেমন ক্লিয়ারভাবে বুঝতে পারেননি। তাই এবার একটু সহজ ভাবে এই বিষয়টি নিয়ে কথা বলা দরকার।

বাস্তবিক জীবনে আমরা যেমন বিভিন্ন পন্যের মার্কেট দেখতে পাই। ঠিক তেমনি ভাবে আজকের দিনে আপনি অনলাইনে এমন অনেক ধরনের মার্কেট দেখতে পারবেন।

যেমন, Amazon, Alibaba ইত্যাদি। যেখানে আপনি অনেক প্রয়োজনীয় পন্য দেখতে পারবেন। যে পন্য গুলো উন্নত বিশ্বের মানুষেরা কিনে থাকে।

এখন আপনি যদি সেই অনলাইন মার্কেটের পন্য গুলোকে কাস্টমার এর কাছে সেল করে দিতে পারেন। তাহলে আপনি যে Online Market এর পন্য সেল করে দিবেন৷ তারা আপনাকে কিছু টাকা কমিশন হিসেবে দিবে।

যেমন, আপনি যদি একটি ৫০০/- দিয়ে কোনো পন্য সেল করতে পারেন। তবে আপনি সেখান থেকে ৫০-১০০/- কমিশন হিসেবে লাভ করতে পারবেন।

আর এভাবে আপনি যতো বেশি পন্য সেল করতে পারবেন। আপনার অনলাইন থেকে আয় করার পরিমান ঠিক ততোই বেশি হবে।

আর বর্তমানে যারা দীর্ঘদিন থেকে এফিলিয়েট মার্কেটিং এর সাথে জড়িত আছে ৷ তারা এখন এতোটাই অভিজ্ঞ হয়েছে যে। তারা এখন এফিলিয়েট মার্কেটিং করেই লাখ লাখ টাকা Online income করতে সক্ষম হয়েছে। 

১২| ডিজিটাল মার্কেটিং করে আয় করার উপায়

বর্তমান সময়ে আমরা ডিজিটাল যুগে বসবাস করছি। আর সেই সুবাদে এখনকার দিনের মার্কেটিং করার পদ্ধতি গুলোর মধ্যেও বেশ প্রভাব পড়েছে।

যার জন্য এখন বেশিরভাগ মানুষ মার্কেটিং করার জন্য এই ডিজিটাল পদ্ধতি গুলোকে প্রাধান্য দিচ্ছে।

আর সেই সুযোগ কে কাজে লাগিয়ে আপনিও অনলাইনে ইনকাম করার উপায় হিসেবে ডিজিটাল মার্কেটিং করে টাকা আয় করতে পারবেন।

এখন হয়তবা আপনি ভাবছেন যে, এই Digital Marketing আবার কি জিনিস। তাহলে শুনুন, মনে করুন আপনি একটি নতুন কোম্পানির সূচনা করেছেন।

এখন আপনার এই কোম্পানি সম্পর্কে মানুষকে অবগত করার জন্য দরকার হবে প্রচার প্রচারনার। এখন আপনি যদি এই প্রচার করার কাজটি ডিজিটাল মাধ্যমে করে থাকেন। তখন তাকে বলা হবে, Digital Marketing.

আর যে কাজটি করে আজকের দিনের অনেক মানুষ বেশ ভালো পরিমান টাকা অনলাইন থেকে ইনকাম করে আসছে। তবে আপনি যদি এই কাজটি করে টাকা আয় করতে চান।

তাহলে সবার আগে আপনাকে অনলাইনে থাকা প্লাটফর্ম গুলোতে থাকা বিজ্ঞাপন প্রদর্শনের নিয়ম নীতি গুলো জেনে নিতে হবে। 

১৩| সিপিএ মার্কেটিং করে আয় করার উপায়

বেশ দীর্ঘদিন থেকে বেশ জনপ্রিয়তার শীর্ষে অবস্থান করে আছে সিপিএ মার্কেটিং। বলা বাহুল্য যে, আমি নিজেও একটা সময় CPA Marketing নিয়ে কাজ করতাম।

আর আমার অনলাইন ইনকাম এর শুরুটা হয়েছিলো এই সিপিএ মার্কেটিং এর হাত ধরেই। হয়তবা এখন আপনি ভাবছেন যে, এই Cpa marketing আসলে কাকে বলে।

তো চলুন এবার সে নিয়ে একটু ধারনা নেয়া যাক।

সহজ ভাষায় বলতে গেলে, CPA এর পূর্নরুপ হলো Cost Per Action. যার বাংলা অর্থ হলো, আপনাকে একটা নির্দিষ্ট টার্গেট এর উপর নির্ভর করে কাজ করতে দিবে।

এবং আপনি যদি সেই কাজটি সঠিক ভাবে করতে পারেন। তাহলে আপনি যার আওতায় কাজ করবেন।

তারা আপনাকে সেই কাজের বিনিময়ে টাকা প্রদান করবে। ব্যাস! এটিই হলো CPA Marketing এর মূল পদ্ধতি। 

১৪| ডাটা এন্টি করে আয় করার উপায়

আজকের আর্টিকেলে মোট যতগুলো অনলাইনে ইনকাম করার উপায় বলেছি। তার মধ্যে সবচেয়ে সহজ একটি উপায় হলো, Data Entry করে টাকা আয় করা।

যে কাজটি একজন মানুষ কে একবার দেখিয়ে দিলে। সেই মানুষ টি অনায়াসেই ডাটা এন্ট্রি এর কাজ গুলো করতে পারবে। এবং এই কাজ গুলো করে অনলাইন থেকে টাকা আয় করতে পারবে।

তাই আপনি যদি Online income সেক্টরে একবারে নতুন মানুষ হয়ে থাকেন। তাহলে আপনিও প্রথম অবস্থায় ডাটা এন্ট্রির কাজ দিয়ে শুরু করে দিতে পারবেন ৷

এবং এই কাজ গুলো করে আপনি শুরুতে কিছু বাড়তি টাকা অনলাইন ইনকাম করতে পারবেন। তাহলে আর দেরী কেন, আজ থেকেই এই Data Entry এর কাজ গুলো শুরু করে দিন।

১৫| সার্ভে করে আয় করার উপায়

বর্তমান সময়ে আরও একটি অনলাইনে ইনকাম করার উপায় আছে। সেটি হলো সার্ভে করে টাকা আয় করা। তবে যারা এখনও পড়াশোনা করছেন।

কিংবা চাকরির পাশাপাশি অনলাইন থেকে আরও কিছু বাড়তি টাকা আয় করতে চাচ্ছেন ৷ তাদের জন্য উপযুক্ত একটি অনলাইন জব হলো সার্ভে (Survey)। 

সার্ভে জবে আপনাকে বিভিন্ন কোম্পানি তাদের নিজস্ব পন্য সম্পর্কে প্রশ্ন করবে। আর আপনি সেই প্রশ্ন গুলোর উওর দিবেন। আর এই প্রশ্ন গুলোর উওর দেয়ার কারনে আপনি সেই কোম্পানি গুলোর কাছ থেকে টাকা আয় করতে পারবেন।

যদি আপনার ইংরেজিতে একটু ধারনা থাকে। তবে আপনি Survey করেই অনেক টাকা আয় করে নিতে পারবেন৷ 

আমাদের শেষকথা 

আজকের এই ছোট্ট আর্টিকেলে আমি বেশ কিছু জনপ্রিয় অনলাইনে ইনকাম করার উপায় সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করেছি।

আশা করি আজকের আলোচিত, অনলাইনে ইনকাম করার উপায় নিয়ে আপনার মনে আর কোনো প্রশ্ন থাকবে না।

আপনি আরো পড়তে পারেন…

তবে এরপরও যদি আপনার মনে প্রশ্ন জাগে যে, কিভাবে অনলাইনে আয় করা যায়। তাহলে নিচে কমেন্ট করে জানাবেন ৷ আমি আপনার প্রশ্নের উওর দেয়ার জন্য সর্বদা নিয়োজিত থাকবো। 

আর এমন সব অজানা তথ্য সম্পর্কে জানতে হলে Bangla it blog এর সাথে থাকবেন। ধন্যবাদ

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

HandsUp! কপি করা যাবে না বস!

Scroll to Top
Share via
Copy link
Powered by Social Snap