লাইকি থেকে টাকা ইনকাম | লাইকি থেকে কিভাবে টাকা ইনকাম করা যায়

লাইকি থেকে টাকা ইনকাম : আমরা সবাই জানি যে, বর্তমান সময়ে শর্ট ভিডিও প্লাটফর্ম গুলো ক্রমেই জনপ্রিয়তা পাচ্ছে। আর এই প্লাটফর্ম গুলো পূর্বের তুলনায় এতো বেশি জনপ্রিয়তা পেয়েছে যা আমাদের কল্পনার বাইরে।

লাইকি থেকে টাকা ইনকাম | লাইকি থেকে কিভাবে টাকা ইনকাম করা যায়
লাইকি থেকে টাকা ইনকাম | লাইকি থেকে কিভাবে টাকা ইনকাম করা যায়

ঠিক সেরকম ই একটি শর্ট ভিডিও প্লাটফর্ম হলো লাইকি। যেখানে আপনি আপনার নিজের তৈরি করা Short Video কন্টেন্ট পাবলিশ করে রাতারাতি জনপ্রিয় হয়ে উঠতে পারবেন।

তবে এই likee এপসে আপনি শুধু কন্টেন্ট পাবলিশ করতে পারবেন। বিষয়টা কিন্তুু এমন নয়, বরং আপনি যদি অনলাইন থেকে সহজ পদ্ধতিতে টাকা আয় করতে চান।

তাহলে আপনার জন্য উপযুক্ত একটি প্লাটফর্ম হবে লাইকি। যেখান থেকে আপনি কোনো প্রকার পরিশ্রম ছাড়াই Likee থেকে আয় করতে পারবেন।

কি ভাই কথাটা বিশ্বাস হচ্ছে না? – না হওয়ার ই কথা। কারন যখন আমি রিসার্চ করে দেখলাম যে প্রচুর পরিমান টাকা Likee থেকে ইনকাম করা যাচ্ছে।

তখন আমিও আপনার মতো রীতিমতো অবাক হয়ে গেছিলাম। আর বর্তমান সময়ে কিন্তুু এমন অনেক ছেলে মেয়ে আছেন। যারা মূলত ভালো পরিমান টাকা লাইকি থেকে আয় করে আসছে।

হ্যালো বন্ধু, স্বাগতম আপনাকে Bangla it Blog এর নতুন একটি টাকা ইনকামের এপিসোডে। আজকের আর্টিকেলে আমি লাইকি থেকে টাকা ইনকাম করার সমস্ত বিষয় গুলো কে স্টেপ বাই স্টেপ আলোচনা করার চেস্টা করবো।

তো যদি আপনিও অন্যদের মতো লাইকি থেকে টাকা ইনকাম করতে চান। তাহলে আজকে আলোচিত পুরো আর্টিকেলটি মনোযোগ সহকারে পড়বেন।

তাহলে আজকের পর থেকে আপনিও অন্য মানুষদের মতো ব্যাপক পরিমান টাকা likee থেকে আয় করতে পারবেন।  

লাইকি কি? (what is likee in bangla)

লাইকি থেকে কিভাবে টাকা ইনকাম করা যায় এ সম্পর্কে আপনি অবশ্যই বিস্তারিত জানতে পারবেন। তবে সবার আগে আপনাকে জেনে নিতে হবে যে, এই লাইকি আসলে কি? আর লাইকি থেকে কেন আপনাকে টাকা দেয়া হবে।

লাইকি সম্পর্কে যতদুর জানা যায় এর শুরুটা হয়েছিলো ২০১৭ সালের জুলাই মাসে। এটি সর্বপ্রথম চালু করা হয়েছিলো সিঙ্গাপুরে।

কারন সিঙ্গাপুরের একটি জনপ্রিয় সংস্থা বিগো থেকে এই Likee app টি কে তৈরি করে। এবং পরবর্তী সময়ে তা পুরো বিশ্বের জন্য উন্মুক্ত করে দেয়া হয়।

আপনি আরো দেখুন...

Likee হলো একটি শর্ট ভিডিও কন্টেন্ট তৈরি করার জন্য উপযুক্ত একটি প্লাটফর্ম। যেখানে একজন ব্যক্তি খুব সহজেই তার তৈরি করা ভিডিও গুলো এই Likee এপসে আপলোড করতে পারবে।

আর ব্যবহারকারীর দিকটা চিন্তা করে এই জনপ্রিয় এপসটি এন্ড্রয়েড, আইওএস এর ভিওি করেই তৈরি করা হয়। যেন সব ধরনের মোবাইল ইউজার এই এপসটিকে ব্যবহার করতে পারে। 

লাইকি থেকে কি ইনকাম করা যায়? 

যদি আপনি আমার ওয়েবসাইট এর রেগুলার পাঠক হয়ে থাকেন। তাহলে আপনার জানা থাকবে যে এমন কোন app দিয়ে টাকা ইনকাম করা যায়

সেই সব গুলো এপস নিয়ে আমি নিয়মিত আর্টিকেল পাবলিশ করি। এছাড়া আমিও মন থেকে চাই যেন আপনিও বাংলাদেশি app দিয়ে টাকা ইনকাম করতে পারেন।

তো যেহুতু আমি Likee থেকে ইনকাম নিয়ে আর্টিকেল লিখছি। সেহুতু আপনাকে বিশ্বাস রাখতে হবে যে আজকের দিনে কিন্তুু লাইকি থেকে টাকা ইনকাম করা যায়।

আপনি যদি আপনার বন্ধুমহল কিংবা আশেপাশে একটু ভালোভাবে তাকান। তাহলে আপনি দেখতে পারবেন যে, এমন হাজার ছেলে মেয়ে আছেন।

যারা মূলত কোনো প্রকার পরিশ্রম ছাড়াই লাইকি থেকে মোবাইল দিয়ে টাকা ইনকাম করে আসছে।

এখন আপনি নিজেকে একটা প্রশ্ন করুন। আপনার বন্ধুবান্ধব এবং আপনার সমবয়সী ছেলে মেয়েরা যদি Likee থেকে টাকা আয় করতে পারে।

তাহলে আপনি কেন পারবেন না? – হুমম আপনিও পারবেন। কিন্তুু ইনকাম করার আগে আপনাকে কিছু গোপন টিপস এন্ড ট্রিকস জানতে হবে।

কেননা, আমি অনলাইন সেক্টরে দীর্ঘ ৬ বছর ধরে কাজ করে আসছি। আর আমার ভালো করে জানা আছে যে, কিভাবে সহজ উপায়ে অনলাইন ইনকাম করা যায়।

আর আমিও কিন্তুু বিপুল পরিমান টাকা Likee থেকে আয় করছি। আর কাজ করতে করতে এমন কিছু গোপন টিপস জানতে পেরেছি।

যেগুলো ফলো করলে আপনি হাজার হাজার টাকা অনলাইন থেকে আয় করে নিতে পারবেন। 

লাইকিতে কি ধরণের কাজ হয়?

এখন আপনার মনে হতে পারে যে, ভাই লাইকি থেকে টাকা ইনকাম করা যায়। এ বিষয়ে তো ক্লিয়ার ধারনা পেলাম। কিন্তুু এই Likee App এ কি কি কাজ করতে হবে। সেটা তো বললেন না।

যদি আপনারও এমন মনে হয় তাহলে শুনুন….

আপনি Youtube এর নাম তো শুনে থাকবেন। কেননা, বর্তমান সময়ে ইউটিউব হলো বিশ্বের সবচেয়ে বড় ভিডিও শেয়ারিং প্লাটফর্ম।

তো এই প্লাটফর্মে আমরা যেসব ভিডিও দেখতে পাই। সেগুলো কিন্তুু আপনার বা আমার মতো মানুষেরা তৈরি করার পর Youtube এ আপলোড করে।

ঠিক একই কাজটি করা হয় লাইকি (Likee) এপসে। এখানে আমরা যে ভিডিও গুলো দেখি। সেগুলো কিন্তুু কোনো না কোনো মানুষ তৈরি করে।

আর Likee এপস এর প্রধান কাজ হলো ভিডিও আপলোড করা। আর মানুষের কাছে আপনার আপলোড করার দায়িত্ব Likee এপস এর।

কিন্তুু এখানে একটা সমস্যা আছে। সেটি হলো আপনি চাইলেও ইউটিউব এর মতো বড় সাইজের ভিডিও আপলোড করতে পারবেন না। আপনি যদি আপনার তৈরি করা কোনো ভিডিওকে Likee এপসে আপলোড করতে চান।

তাহলে আপনার ভিডিও এর দৈর্ঘ্য ১০ সেকেন্ড থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ ৬০ সেকেন্ড এর হতে হবে। কেননা, এই এপসটি হলো Short Video Sharing Platform.

তবে আপনি যদি লাইকি থেকে টাকা ইনকাম করতে চান। তাহলে আপনাকে আলাদা কাজ করতে হবে। সেগুলো নিয়ে এখন পর্যায়ক্রমে আলোচনা করবো। তাই আর্টিকেলের কোনো অংশ miss করবেন না। 

লাইকি থেকে কিভাবে টাকা ইনকাম করা যায়?

শুনুন, যেহুতু আপনি লাইকি থেকে টাকা ইনকাম করার জন্য এই আর্টিকেলটি পড়ছেন। সেহুতু আপনাকে একটা গুরুত্বপূর্ণ কথা বলবো। কথাটি অবশ্যই মাথায় রাখবেন।

সেই কথাটি হলো, টাকা আয় করার কোনো পথ সহজ নয়। আপনি যদি ভেবে থাকেন যে, অনলাইনে হাত বাড়ালেই টাকা পাওয়া যায়। তাহলে বলবো, আপনার এই ধারনা সম্পূর্ন মিথ্যা।

কারন আপনি যদি অনলাইন থেকে টাকা আয় করতে চান। তাহলে এখানেও আপনাকে যথেষ্ট পরিমান শ্রম দিতে হবে।

ঠিক একইভাবে আপনি যখন লাইকি থেকে টাকা আয় করতে চাইবেন। তখন আপনাকে বেশ পরিশ্রম দিতে হবে এই Likee Apps এর পেছনে।

এখন জানার বিষয় হলো, টাকা ইনকাম করার জন্য আপনি যে সময় আর শ্রম ব্যয় করবেন। সেগুলো কি কি কাজে ব্যয় করবেন। এটি জানতে হলে নিচের বিষয়গুলো একটু পড়ে নিন।

তো যদি আপনি লাইকি থেকে টাকা ইনকাম করতে চান। তাহলে আপনাকে বেশ কিছু কাজ করতে হবে। যেমনঃ

০১| লাইকি ক্রাউন পদ্ধতির মাধ্যমে লাইকি থেকে টাকা আয়

এই এপস থেকে আয় করার সবচেয়ে জনপ্রিয় একটি পদ্ধতি হলো ক্রাউন পদ্ধতি। কেননা, আপনি যদি বেশি পরিমান টাকা আয় করতে চান।

তাহলে যেভাবেই হোক আপনাকে ক্রাউন পদ্ধতি ফলো করার চেস্টা করতে হবে। তবে সবচেয়ে বড় সমস্যা হলো, এই Crown কাকে বলে সে সম্পর্কে তো আপনি কিছুই জানেন না।

তো এবার সে সমন্ধে একটু জেনে নেয়া যাক।

আপনার জন্য আরো লেখা…

সাধারন অর্থে যখন আপনি কোনো কাজের বিনিময়ে কেউ আপনাকে পুরস্কৃত করলো। এবং পুরস্কার এর বিনিময়ে আপনাকে কিছু টাকা উপহার দিলো।

ঠিক এমনই হলো Crown পদ্ধতি। যেখানে লাইকি কোম্পানির মালিক আপনাকে কিছু টার্গেট দিবে।

এবং আপনি সেই টার্গেট ফিলাপ করবেন। তখন লাইকি কোম্পানি থেকে আপাকে বাড়তি কিছু টাকা উপহার হিসেবে দিবে। 

লাইকির ক্রাউন পদ্ধতি থেকে কিভাবে টাকা ইনকাম করা যায়?

তো এই Crown system কে আবার তিনটি ভাগে ভাগ করা হয়ে থাকে। সেগুলো হলোঃ-

Likee K1 Crown: এখানে আপনি যদি লাইকির দেয়া টার্গেট ফিলআপ করে K1 লেভেল পর্যন্ত যেতে পারেন। তাহলে লাইকি কতৃপক্ষ আপনাকে মোট ৪০০/- দিয়ে দিবে।

মানে এই চারশ টাকা আপনি তাদের কাছ থেকে উপহার হিসেবে পাবেন।

Likee K2 Crown: আপনার চোখ কপালে চলে আসবে। যখন আপনি জানতে পারবেন যে লাইকির K2 Crown লেভেলে আসার পর।

লাইকি আপনাকে মোট ২০০$ ডলার উপহার হিসেবে দিবে। যার বাংলাদেশি টাকায় হিসেব করলে মোট ১৬,০০০/- টাকা মতো। তাহলে চিন্তা করে দেখুন এখানে কি পরিমান টাকা আয় করা সম্ভব।

Likee K3 Crown: উপরের দুটি লেভেলে কি পরিমান টাকা আয় করা সম্ভব। এটা দেখে হয়তবা আপনি অবাক হয়ে গেছেন, তাইনা? -হুমম আপনি আরও বেশি অবাক হবেন।

যখন আপনি শুনবেন যে লাইকির K3 লেভেলে যেতে পারলে আপনি মোট ৫০০$ অনলাইন থেকে ইনকাম করতে পারবেন। যা বাংলাদেশি টাকায় মোট ৪০,০০০/- টাকার মতো। 

০২| কম্পিটিশনের অংশগ্রহণ করে লাইকি থেকে টাকা ইনকাম করা

যখন আপনি লাইকি নামক এই এপসটি ব্যবহার করবেন। তখন আপনি দেখতে পারবেন যে, এখানে বিভিন্ন ধরনের প্রতিযোগীতার আয়োজন করা হয়ে থাকে।

এখন আপনি যদি আয়োজিত সেই কম্পিটিশন গুলোতে অংশগ্রহন করেন ৷ এবং সেই প্রতিযোগীতা গুলোতে জয়ী হিসেবে নির্বাচিত হয়ে থাকেন ৷

তাহলে কিন্তুু আপনি সেখান থেকে বেশ ভালো পরিমান টাকা Likee থেকে আয় করে নিতে পারবেন ৷

তবে একজন নতুন মানুষের জন্য লাইকির আয়োজন করা কোনো কন্টেষ্টে অংশগ্রহন করাটা বেশ কঠিন মনে হতে পারে। কেননা, আপনি যদি প্রথমবার এই এপসটি ব্যবহার করেন।

তাহলে আপনি কোনো প্রতিযোগীতায় অংশগ্রহন করার যে অপশন আছে। সেগুলোকে খুজেই পারেন না।

তো যদি আপনি Likee App এ একেবারে নতুন হয়ে থাকেন। তাহলে সবার আগে আপনাকে লাইকির মেইন Dashboard এ যেতে হবে। এরপর আপনি Message নামের একটি অপশন দেখতে পারবেন ৷

সেখানে ক্লিক করার পর আপনি Contest নামের আরও একটি অপশন দেখতে পারবেন। মূলত এখান থেকে আপনি লাইকির যেকোনো প্রতিযোগীতা সম্পর্কে জানতে পারবেন।

এবং আপনি নিজেই সেগুলো তে অংশগ্রহন করতে পারবেন। 

০৩|লাইভ স্ট্রিমিং করে লাইকি থেকে টাকা ইনকাম 

আপনি যদি হিউজ পরিমান টাকা লাইকি থেকে আয় করতে চান। তাহলে আপনাকে Live Streaming করতে হবে। কেননা, Likee থেকে আয় করার অন্যান্য যেসব পদ্ধতি আছে।

তার মধ্যে সবচেয়ে বেশি আয় করা যায় লাইভ স্ট্রিমিং করে। আর যেহুতু আপনি একজন নতুন ব্যক্তি হিসেবে এখানে কাজ করবেন।

সেহুতু আপনাকে শুরুতে এই এপসটি তে লাইভ স্ট্রিমিং করা উচিত।

তবে এখানে একটা কথা বলে রাখা ভালো যে, আপনি যদি একেবারে লাইকিতে নতুন হয়ে থাকেন। এবং আপনার Likee Account টি সম্পূর্ন নতুন হয়ে থাকে।

তাহলে কিন্তুু আপনি সরাসরি লাইভ স্ট্রিমিং করতে পারবেন না। কারন তাদের দেয়া নিয়ম অনুযায়ী আপনাকে কমপক্ষে ৩৫ লেভেল কমপ্লিট করতে হবে।

এবং এই লেভেলের পর থেকে আপনি আপনার ইচ্ছামতো লাইভ স্ট্রিমিং করতে পারবেন ৷

আর একটা কথা জেনে রাখা উচিত যে, আপনি লাইভ করলেই যে প্রচুর পরিমান টাকা আয় করতে পারবেন। বিষয়টা কিন্তুু এরকম নয়, বরং আপনাকে এমন কোনো টপিকে লাইভ করতে হবে।

যা দর্শকদের কাছে ভালো লাগে। তারা যেন আপনার লাইভ দেখতে আগ্রহ প্রকাশ করে। যদি আপনি আপনার লাইভ করা ভিডিও গুলোতে দর্শকদের ধরে রাখতে পারেন।

তাহলে কিন্তুু আপনি এখান থেকে ৫০ থেকে ২০০$ পর্যন্ত আয় করে নিতে পারবেন৷ 

০৪| লাইকিতে প্রমোশন করে Likee থেকে টাকা ইনকাম 

Likee থেকে ইনকাম করার আরও একটি জনপ্রিয় মাধ্যম হলো প্রমোশন ৷ যেখান থেকে অন্যান্য মানুষ গুলো বেশ ভালো পরিমান টাকা অনলাইন থেকে আয় করে আসছে।

তাই আপনিও চাইলে লাইকি থেকে টাকা ইনকাম করার অন্যান্য উপায় গুলো ফলো করার পাশাপাশি Promotion করেও বিপুল পরিমান টাকা আয় করে নিতে পারবেন।

তবে নতুন অবস্থাতে আপনি এই ধরনের প্রমোশন থেকে তেমনটা আয় করতে পারবেন না।

যদি আপনি এই পদ্ধতি অবলম্বন করে টাকা আয় করতে চান। তাহলে সবার আগে আপনাকে আপনার লাইকি একাউন্টটি কে জনপ্রিয় করতে হবে।

আপনার একাউন্টে অনেক বেশি পরিমানে ফলোয়ার নিয়ে আসতে হবে। তাহলেই আপনি প্রমোশন থেকে একটা মোটা অংকের টাকা আয় করার সুযোগ পাবেন। 

০৫| স্পন্সরশিপ করে লাইকি থেকে ইনকাম করার উপায়

প্রমোশনাল এর মতো সেম আরেকটি টাকা আয় করার উপায় হলো স্পন্সরশীপ। যেখানে আপনি বিভিন্ন ব্রান্ডের পন্যকে স্পন্সর করবেন ৷

এবং তার বিনিময়ে আপনি সেই ব্রান্ড বা কোম্পানি থেকে কোনো পন্য উপহার হিসেবে পাবেন। কিংবা সেই পন্যের সমমূল্য টাকা আয় করতে পারবেন।

তবে আপনি যদি কোনো ব্রান্ডের স্পন্সর থেকে টাকা আয় করতে চান। তাহলে কিন্তুু আপনাকে সেই একই কাজ করতে হবে। যে কাজটি প্রমোশন এর জন্য করা হয়েছিলো।

মূলত এখানেও সবার আগে আপনার একাউন্টকে জনপ্রিয় করতে হবে। এবং আপনার একাউন্টে অনেক বেশি ফলোয়ার থাকতে হবে।

তাহলে আপনি লাইকি থেকে স্পন্সর পাবেন৷ এবং সেখান থেকে একটা ভালো পরিমান টাকা আয় করতে পারবেন। 

০৬| এফিলিয়েট মার্কেটিং করে লাইকি থেকে টাকা আয়

আমরা যারা অনলাইন ইনকাম সেক্টরে কাজ করি। তারা সবাই জানি যে বর্তমান সময়ে Online Theke income করার সবচেয়ে জনপ্রিয় একটি মাধ্যম হলো এফিলিয়েট মার্কেটিং

যেখানে আপনি কোনো কোম্পানির পন্যকে আপনার নিজের তৈরি করা কন্টেন্ট এর মাধ্যমে কাস্টমারের কাছে সেল করে দিবেন।

এবং এর বিনিময়ে আপনি সেখান থেকে কিছু পরিমান টাকা কমিশন হিসেবে আয় করতে পারবেন।

তো আপনি এই এফিলিয়েট মার্কেটিং এর সুবিধা ভোগ করতে পারবেন এই Likee এপস থেকে।

যেখানে আপনি আপনার শর্ট ভিডিও কনটেন্ট তৈরি করার মাধ্যমে এফিলিয়েট থেকে বেশ ভালো পরিমান টাকা Likee থেকে আয় করে নিতে পারবেন। 

০৭| লাইকি একাউন্ট বিক্রি করে টাকা আয়

আমরা সবাই জানি যে, যখন কোনো একটি প্লাটফর্ম অনেক বেশি জনপ্রিয়তা পায়। তখন ঐ প্লাটফর্মের একাউন্ট গুলো কেনাবেচা করা হয়ে থাকে।

এখন আপনি যদি একটি লাইকি একাউন্টকে অনেক বেশি জনপ্রিয় করতে পারেন। এবং সেই একাউন্টে হিউজ পরিমান লাইক,ফ্যান,ফলোয়ার নিয়ে আসতে পারেন।

আপনি আরো পড়ুন…

তাহলে কিন্তুু আপনি সেই একাউন্ট গুলোকে সেল করতো পারবেন। এবং সেই Account Sell করার মাধ্যমে একটা মোটা অংকের টাকা আয় করার সুযোগ পাবেন।

তবে একাউন্ট কেনাবেচা করার সময় সর্বদা সতর্কতা অবলম্বন করবেন। কেননা, আমাদের সোনার দেশ বাংলাদেশে কিন্তুু প্রচুর পরিমানে স্ক্যামিং হয়।

তাই আপনি যেন কোনোভাবে স্ক্যামিং এর শিকার না হন। সেদিকে যথেষ্ট ফোকাস রাখবেন। 

আমাদের শেষকথা 

তো আজকের এই আর্টিকেলে লাইকি থেকে টাকা ইনকাম করার সমস্ত বিষয় নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে।

আশা করা যায় এই আর্টিকেল থেকে আপনি বেশ ভালোভােবে বুঝতে পেরেছেন যে, লাইকি থেকে কিভাবে টাকা ইনকাম করা যায়।

তবে এরপরও যদি আপনার লাইকি থেকে টাকা ইনকাম করা নিয়ে আরও কোনো প্রশ্ন থাকে। তাহলে নিচে একটা কমেন্ট করে জানাবেন।

আমি যথাসম্ভব আপনার মূল্যবান কমেন্ট এর রিপ্লে দেয়ার চেস্টা করবো। বাংলা আইটি ব্লগের সাথে থাকার জন্য আপনাকে অসংখ্য অসংখ্য ধন্যবাদ 

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top
Share via
Copy link
Powered by Social Snap