ক্যাপচা কোড কি | Captcha কোড এর কাজ কি | Captcha meaning in Bengali

ক্যাপচা কোড কি : What is Captcha code in Bengali আমরা যারা ইন্টারনেট ব্যবহার করি।

তারা বেশ ভালো করে জানি যে, এই ইন্টারনেটের মধ্যে প্রচুর পরিমাণে স্পামিং হয়ে থাকে।

ক্যাপচা কোড কি | Captcha কোড এর কাজ কি | Captcha meaning in Bengali
ক্যাপচা কোড কি

আর এই স্পামিং এর ফলে ইন্টারনেট ইউজারদের বিভিন্ন ধরনের সমস্যা হয়ে থাকে। আর এটি ঠেকানোর জন্য বিশেষ একটি পদ্ধতির আবিষ্কার হয়েছে।

যাকে বলা হয় ক্যাপচা কোড (CAPTCHA code)। মূলত যখন এই ক্যাপচা কোড এর আবিষ্কার হয়েছে।

তখন থেকে অনলাইন এর মধ্যে যেসব বট বা স্পামিং রয়েছে। তা অনেকটাই বন্ধ করা সম্ভব হয়েছে। কিন্তু আমাদের মধ্যে এমন অনেক মানুষ কে পাবেন।

যারা মূলত এখন পর্যন্ত জানে না যে, ক্যাপচা কোড কি। এবং এই ক্যাপচা কোড ব্যবহার করার কারণ কি।

তো যে মানুষ গুলো আসলে এই ক্যাপচা কোড সম্পর্কে এখন পর্যন্ত কোন কিছু জানে না। তাদের জন্য আজকের এই আর্টিকেলটি অনেক বেশি হেল্প ফুল হবে।

কারণ আজকের এই আর্টিকেলের মাধ্যমে আমি আপনাকে Captcha Code এর যাবতীয় বিষয় গুলো তুলে ধরার চেষ্টা করব।

যদি আপনি একজন নিয়মিত ইন্টারনেট ইউজার হয়ে থাকেন। তাহলে আপনি একটা বিষয়ে খেয়াল করে দেখবেন।

যে, কোন একটি ওয়েবসাইটের মধ্যে যখন রেজিস্ট্রেশন করা হয়। তখন রেজিস্ট্রেশন ফিলাপ করার সবশেষে একটি বিশেষ ধরনের ক্যাপচা কোড থাকে।

এবং এই ক্যাপচা কোডটি সঠিকভাবে পূরণ করতে হয়। তারপরে ভেরিফিকেশন সম্পন্ন করা হলে উক্ত ওয়েবসাইট এর মধ্যে রেজিস্ট্রেশন করা যায়।

আপনার জন্য আরোও লেখা…

তো এই ধরনের ক্যাপচা কোড গুলোর একটা বিশেষত্ব রয়েছে। সেটি হলো যে, এই ক্যাপচা কোডগুলো শুধুমাত্র একটি মানুষ এর পক্ষে সলভ করা সম্ভব।

অর্থাৎ কোন রোবট চাইলেও এই ধরনের ক্যাপচা কোড গুলো সলভ করে ভেরিফিকেশন করতে পারবে না।

যার কারণে বর্তমান সময়ে এই ক্যাপচা কোড এর ব্যাপক পরিমাণে ব্যবহার করা হচ্ছে। তো চলুন আজকে জেনে নেওয়া যাক যে, এই ক্যাপচা কোড কি (Captcha code ki).

ক্যাপচা কোড কি – (Captcha code meaning in Bengali)

যদি আপনি জানতে চান যে, ক্যাপচা কোড কি (What is captcha code).

তাহলে আমি আপনাকে সহজ ভাষায় বলবো যে, ইন্টারনেট এর মধ্যে থাকা যেসব বট বা স্পামার রয়েছে।

তাদের কে প্রতিহত করার বিশেষ একটি ভেরিফিকেশন পদ্ধতি নাম হল, ক্যাপচা কোড। কেননা আপনি যদি ইন্টারনেট ব্যবহার করে থাকেন।

তাহলে আপনি নিশ্চিত ভাবে দেখবেন যে। ইন্টারনেটের মধ্যে প্রচুর পরিমাণে বট এবং স্পামার রয়েছে। আর যখন এই ধরনের বট বা স্পামার কোন এটি ওয়েবসাইটের মধ্যে প্রবেশ করে।

তাহলে সেই ওয়েবসাইটের বিভিন্ন রকমের ক্ষতি হয়ে থাকে। তো এ গুলো কে প্রতিহত করার জন্য নতুন একটি পদ্ধতির আবিষ্কার করা হয়েছে।

যেটা কে মূলত ভেরিফিকেশন প্রক্রিয়া বলা হয়ে থাকে। আর যে পদ্ধতির মাধ্যমে এই বিশেষ ভেরিফিকেশন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হয়। তাকে বলা হয়ে থাকে, ক্যাপচা কোড।

তবে এই ক্যাপচা কোড গুলো মূলত একই রকম হয় না। কারণ এই ধরনের ভেরিফিকেশন প্রক্রিয়ায় বিশেষ কিছু টাস্ক প্রদান করা হয়।

আর আপনি যখন এই টাস্ক গুলো সঠিক ভাবে সম্পন্ন করতে পারবেন। তখন আপনি ওই ওয়েব সাইটের মধ্যে থাকা পরবর্তী পেজে অগ্রসর হতে পারবেন।

আর সেই বিশেষ টাস্ক গুলো হলো: 

  1. অনেক সময় আপনাকে একটি পিকচার দেখানো হবে। এবং সেই পিকচারের মধ্যে যেসব লেখা থাকবে। সেই লেখা গুলো আপনাকে টাইপ করে দিতে হবে।
  2. অপর দিকে আপনি বেশ কিছু ছোট ছোট অংক দেখতে পারবেন। যেমন: যোগ, বিয়োগ, গুণ, ভাগ ইত্যাদি। তো এই অংক গুলো সঠিক ভাবে করার পরে তার উত্তর টা আপনাকে বসিয়ে দিতে হবে।
  3. আপনাকে অনেক গুলো পিকচার দেখানো হবে। এবং সেখান থেকে আপনাকে নির্দিষ্ট কিছু পিকচার সিলেক্ট করতে হবে।
  4. যদি আপনি সঠিক পিকচার গুলো সিলেক্ট করতে পারেন। তাহলে আপনি ভেরিফিকেশন সম্পন্ন করতে পারবেন।
  5. কিছু এলো মেলো শব্দ থাকবে যে শব্দ গুলো কে আপনাকে সাজিয়ে লিখতে হবে।

তো ক্যাপচা কোড এর মধ্যে শুধুমাত্র এই কয়েক টি বিষয় থাকে না বরং এ গুলোর বাইরে আমি আরো অনেক ধরনের ভেরিফিকেশন প্রক্রিয়া দেখতে পারবেন।

আর এই ধরনের ভেরিফিকেশন প্রক্রিয়া শুধুমাত্র একজন মানুষের পক্ষে সলভ করা সম্ভব।

অর্থাৎ আপনি চাইলে কোন রোবট কে দিয়ে এই ভেরিফিকেশন প্রক্রিয়া কখনোই সম্পন্ন করতে পারবেন না।

আশা করি ক্যাপচা কোড কি সে সম্পর্কে আপনি একবারে পরিষ্কার ধারণা পেয়ে গেছেন। চলুন এবার তাহলে অন্যান্য বিষয় গুলো নিয়ে আলোচনা করা যাক।

Captcha Code Full Form in Bengali

উপরের আলোচনা থেকে আপনি ক্যাপচা কোড কি সে সম্পর্কে একবারে বিস্তারিত জানতে পেরেছেন।

তবে এই বিষয় টা জানার পাশাপাশি আপনাকে আরও অতি গুরুত্বপূর্ণ তথ্য সম্পর্কে জানতে হবে। সেটি হল যে, এই Captcha শব্দ টি হল একটি শব্দ সংক্ষেপ।

এবং এর একটি পূর্ণরূপ রয়েছে আর ক্যাপচা কোড কি সেটা জানার পাশাপাশি Captcha Code Full Form in Bengali জেনে নিতে হবে।

আর ক্যাপচা এর পূর্ণরূপ হল, Complete Automated Public and Human Apart. এই পূর্ণরূপ এর অর্থ হল, ক্যাপচা মূলত বিশেষ একটি পরীক্ষা।

যার মাধ্যমে একজন ইন্টারনেট ইউজার মানুষ নাকি রোবট তা বুঝতে পারা যায়।

আর এই বিশেষ পরীক্ষা টি চালু হয়েছিল ২০২০ সালের প্রথম দিকে। যার মাধ্যমে অনলাইনের মধ্যে মেশিন এবং মানুষের পার্থক্য খুব সহজেই বুঝতে পারা যায়।

Captcha code আমরা কেন ব্যবহার করি ?

এতক্ষণের আলোচনা থেকে আপনি জানতে পারলেন যে ক্যাপচা কোড কি এবং ক্যাপচা কোড এর পূর্ণরূপ কি। তো এই বিষয় গুলো জানার পরে অনেকের মনে একটি প্রশ্ন জেগে থাকতে পারে।

আর সেই প্রশ্ন টি হল যে আমরা কেন আসলে ক্যাপচা কোড ব্যবহার করি। তো যদি আপনার মনে এই ধরনের প্রশ্ন জেগে থাকে।

তাহলে আমি আপনাকে এক কথায় উত্তর দিব যে, ইন্টারনেটের মধ্যে নিরাপত্তা বজায় রাখার জন্য এই ধরনের ক্যাপচা কোড ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

এখন হয়তো বা আপনার মনে আরো একটি প্রশ্ন ঘুরপাক খাবে। সেটি হলো যে ক্যাপচা কোড এর মাধ্যমে কিভাবে ইন্টারনেটের মধ্যে নিরাপত্তা প্রদান করে।

তো যদি আপনার মনে এই ধরনের প্রশ্ন জেগে থাকে। তাহলে আপনাকে একটু বিস্তারিত আলোচনা তে নজর দিতে হবে।

কেননা এবার আমি আপনাকে স্পষ্ট ভাবে ধারণা দেয়ার চেষ্টা করব যে। বর্তমান সময়ে আসলে কি কি কারনে ক্যাপচা কোড ব্যবহার করা হয়।

যদি আপনি নিয়মিত ইন্টারনেট ব্যবহার করে থাকেন। তাহলে আপনি বেশ ভালো করে জানবেন।

যে, ইন্টারনেটের মধ্যে থাকা প্রত্যেকটি ওয়েবসাইট এর মধ্যে যথেষ্ট পরিমাণে নিরাপত্তা প্রদান করতে হয়।

আর যদি সেই নিরাপত্তার মধ্যে কোন প্রকারের ঘাটতি থাকে। তাহলে কিন্তু সেই ওয়েবসাইট গুলোর বিভিন্ন ধরনের ক্ষতি হয়।

তার মধ্যে অন্যতম হলো যে, ওয়েবসাইট হ্যাক হয়ে যাওয়া। মূলত আপনি প্রায় একটা কথা শুনবেন যে অমুক ওয়েবসাইট হ্যাক হয়েছে।

আসলে এই হ্যাকিং গুলো ঠিক তখনই করা হয়ে থাকে। যখন সেই ওয়েবসাইটের মধ্যে নিরাপত্তা ব্যবস্থা অনেক দুর্বল থাকে। তো এই ইন্টারনেটের মধ্যে থাকা বট বা স্পামার হলো এমন কিছুর সমন্বয়।

যা মূলত কোনো একটি ওয়েব সাইটের নিরাপত্তা ব্যবস্থা কে ভেঙে সামনের দিকে অগ্রসর হতে সক্ষম।

তবে তারা যেন এই নিরাপত্তা ব্যবস্থা কে ভেঙে সামনের দিকে অগ্রসর হতে না পারে। সে জন্য ক্যাপচা কোড বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে।

কারন ক্যাপচা কোড হলো এমন এক ধরনের ভেরিফিকেশন পদ্ধতি। যা শুধুমাত্র একজন মানুষের পক্ষে সেই ভেরিফিকেশন সম্পন্ন করা সম্ভব।

কেননা উপরের আলোচনা থেকে আপনি জানতে পেরেছেন যে। ক্যাপচা কোড মূলত বিভিন্ন ধরনের হয়ে থাকে। যেমন, অনেক সময় ক্যাপচা কোড এর মধ্যে কিছু এলো মেলো ছবি থাকে।

এবং সেই ছবি গুলো কে একত্রে যুক্ত করে দিতে হয়। কিন্তু এটা শুধুমাত্র একজন মানুষের পক্ষে যুক্ত করা সম্ভব।

তবে একটা রোবট চাইলেও এই ধরনের ভেরিফিকেশন পদ্ধতি গুলো সম্পন্ন করতে পারবে না।

আপনি আরোও দেখতে পারেন…

যার কারণে বর্তমান সময়ে প্রায় প্রত্যেক টি ওয়েবসাইটে এই ধরনের ক্যাপচা কোডের মাধ্যমে ভেরিফিকেশন করা হয়ে থাকে।

যাতে করে কোন ধরনের ফেক অ্যাকাউন্ট কিংবা বট একাউন্ট এর মাধ্যমে। তার ওয়েবসাইটের কোন ধরনের সমস্যা না হয়।

মূলত এই নিরাপত্তা ব্যবস্থা কে আরো জোরদার করার জন্যই ক্যাপচা কোড ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

ক্যাপচা কোডের প্রকার – (Types of captcha code)

ক্যাপচা কোড কি এবং ক্যাপচা কোড এর ব্যবহার কেন করা হয়। সে সম্পর্কে আপনি উপরের বিষদ ভাবে জানতে পেরেছেন।

এবং উপরে আমি আপনাকে একটা কথা বলেছিলাম। সেই কথা টি হল বর্তমান সময়ে আপনি বিভিন্ন ধরনের ক্যাপচা কোড দেখতে পারবেন।

তো এখন যদি আপনাকে প্রশ্ন করা হয় যে বলুন তো ক্যাপচা কোড কত প্রকার। তাহলে কি আপনি সেই প্রশ্নের সঠিক উত্তর দিতে পারবেন।

আমি জানি আপনাদের মধ্যে অনেকেই থাকবেন যারা মূলত এই প্রশ্নের সঠিক উত্তর দিতে পারবেন না। আর সে কারণেই এবার আমি সেই বিষয় টি নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করার চেষ্টা করব।

মূলত এবারের আলোচনা থেকে আপনি জানতে পারবেন যে, ক্যাপচা কোড কত প্রকার। অর্থাৎ বর্তমান সময়ে মোট কত ধরনের ক্যাপচা কোড রয়েছে।

তাহলে চলুন এবার সেই বিষয় টি সম্পর্কে বিশদ ভাবে জেনে নেওয়া যাক।

Text recognition based

অনেক সময় এই ধরনের ক্যাপচা কোড এর মধ্যে বিশেষ কিছু এলো মেলো শব্দ দেওয়া থাকে। আবার অনেক সময় কিছু কোড দেওয়া থাকে।

মূলত এই কোড গুলো আপনাকে সঠিক ভাবে লিখে বসিয়ে দিতে হবে। যখন আপনি সেই এলো মেলো শব্দ কিংবা কোড গুলো কে সঠিক ভাবে লিখতে পারবেন।

তখন আপনি উক্ত ভেরিফিকেশন এর কাজ টি সম্পন্ন করতে পারবেন। আর এই ধরনের বিশেষ ক্যাপচা কোড এর নাম হল, Text recognition based.

মূলত এই ধরনের ক্যাপচা কোড অনেক বেশি পরিচিত। কেননা আমরা যারা ইন্টারনেট ব্যবহার করি। তারা প্রতিনিয়ত এই ধরনের ক্যাপচা কোড সলভ করে থাকি।

তবে অন্যান্য ক্যাপচার কোড এর তুলনায় এটি অনেক সহজ একটি পদ্ধতি।

Image recognition based

উপরের এই নাম টি দেখার পরেই আপনি বুঝতে পেরেছেন যে, এই ধরনের ক্যাপচা কোড এর মধ্যে ছবি ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

এবং সেই ছবি গুলো দেখানোর পাশাপাশি আপনাকে বেশ কিছু প্রশ্ন করা হবে। আর আপনি যখন সেই প্রশ্ন গুলোর সঠিক উত্তর দিতে পারবেন।

তখন আপনি উক্ত ভেরিফিকেশন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে পারবেন। যেমন ধরুন, আপনাকে অনেক গুলো পিকচার দেখানো হলো।

এবং তারপরে সেই পিকচার গুলোর মধ্যে আপনাকে সেই পিকচার গুলো সিলেক্ট করতে বলা হলো। যে গুলো তে পাহাড় রয়েছে কিংবা গাড়ি রয়েছে অথবা সিঁড়ি রয়েছে।

এখন আপনার সামনে থাকা অনেক গুলো পিকচারের মধ্যে যে গুলো সিলেক্ট করতে বলবে। সে গুলো আপনাকে সঠিক ভাবে সিলেক্ট করতে হবে।

তাহলে আপনি উক্ত ওয়েবসাইটের মধ্যে পরবর্তী পেজে যেতে পারবেন।

Social Authentication

আপনি যদি ফেসবুক ব্যবহার করে থাকেন। তাহলে অবশ্যই আপনি এই ধরনের Social Authentication নামক ক্যাপচা কোড গুলো দেখতে পারবেন।

কেননা এই ক্যাপচা কোড গুলো অধিকাংশ সময় বিভিন্ন ধরনের সোশ্যাল মিডিয়া গুলো তে ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

যেমন ধরুন, অনেক সময় আমাদের ফেসবুক একাউন্ট গুলো ভেরিফিকেশন এর মধ্যে পড়ে।

এবং যখন এই ভেরিফিকেশন এর মধ্যে পড়ে। তখন আমাদের বেশ কিছু ফ্রেন্ডলিস্টে থাকা বন্ধুদের প্রোফাইল দেখানো হয়।

এবং আমাদের কে সিলেক্ট করতে হয় যে আমরা কোন কোন বন্ধু দের সাথে ফেসবুকে বন্ধুত্ব করেছি।

এবং যখন আপনি এই লিস্টে থাকার সঠিক বন্ধুদের সিলেক্ট করতে পারবেন। তখন আপনি ফেসবুকের সেই ভেরিফিকেশন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে পারবেন।

তো অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গুলো তে ঠিক একই রকম ভেরিফিকেশন প্রক্রিয়া রয়েছে। সেজন্যই এই ধরনের ক্যাপচা কোড কে বলা হয়ে থাকে, Social Authentication.

Logic questions based

অনেক সময় ক্যাপচা কোড এর মধ্যে ছোট ছোট কিছু প্রশ্ন করা হয়ে থাকে। এবং আপনি একজন ইউজার হিসেবে অবশ্যই সেই প্রশ্ন গুলোর সঠিক উত্তর দিতে হবে।

আর যখন আপনি সে গুলোর সঠিক উত্তর প্রদান করতে পারবেন। তখন আপনি উক্ত ভেরিফিকেশন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে পারবেন।

যদিওবা এই ধরনের প্রশ্ন গুলো অনেক ছোট ছোট হয়ে থাকে। তবে উক্ত প্রশ্ন গুলোর উত্তর শুধুমাত্র মানুষ প্রদান করতে পারবে।

অর্থাৎ কোন ধরনের রোবট এই ধরনের প্রশ্নের উত্তর দিতে পারবে না।

মূলত অধিকাংশ ওয়েবসাইটের ক্ষেত্রে এই ধরনের ক্যাপচা কোড দ্বারা ভেরিফিকেশন করা হয়ে থাকে। যাতে করে কোন প্রকারের বট তার ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে না পারে।

User interaction based

এই ধরনের ক্যাপচা কোড এর মধ্যে অনেক ধরনের প্রশ্ন করা হয়ে থাকে। তবে এখানে যে গুলো প্রশ্ন করা হয়, সে গুলো অনেক সহজ হয়ে থাকে।

এবং উক্ত প্রশ্ন গুলো খুব ছোট ছোট হয়। যখন আপনি কোন ওয়েব সাইটের মধ্যে প্রবেশ করবেন। তখন অধিকাংশ সময় আপনি এই ধরনের User interaction based এর ক্যাপচা কোড দেখতে পারবেন।

মূলত যখন আপনি সেই ক্যাপচা কোড গুলো সঠিক ভাবে পূরণ করতে পারবেন। তখন আপনি তাদের ওয়েবসাইটের মধ্যে রেজিস্ট্রেশন করতে পারবেন।

আবার কিছু কিছু ওয়েবসাইট আছে। যারা মূলত একজন ইউজার হিসেবে তাদের ওয়েবসাইটে প্রবেশ করার সময়।

এই ধরনের ক্যাপচা কোড এর মাধ্যমে ভেরিফিকেশন করে থাকে।

Captcha code এর লাভ এবং সুবিধা গুলো

এতক্ষণের আলোচনা থেকে আপনি জানতে পারলেন যে, Captcha কি। এবং সেই সাথে আমি আপনাকে স্পষ্ট ভাবে জানিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেছি যে। ক্যাপচা কোড কত প্রকার হয়ে থাকে।

এখন এই বিষয় গুলো জানার পাশাপাশি অনেকের মনে একটি প্রশ্ন জেগে থাকতে পারে যে। এই ক্যাপচা কোড এর সুবিধা গুলো কি কি।

তো যদি আপনি এই ক্যাপচা কোড এর সুবিধা গুলো সম্পর্কে জানতে চান। তাহলে এবারের আলোচনা টি আপনার জন্য অনেক বেশি প্রয়োজনীয়।

কারণ এবার আমি আপনাকে ক্যাপচা কোড এর সুবিধা গুলো সম্পর্কে জানিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করব। চলুন এবার তাহলে সে সম্পর্কে বিস্তারিত ভাবে জেনে নেওয়া যাক।

  1. যদি আপনার একটি ওয়েবসাইট থাকে। তাহলে আপনি আপনার ওয়েবসাইট কে যথেষ্ট পরিমাণে নিরাপত্তা প্রদান করতে পারবেন। 
  2. অনেক সময় দেখা যায় যে, ওয়েবসাইটের মধ্যে বিভিন্ন ধরনের স্পাম কমেন্ট করা হয়ে থাকে। তো আপনি চাইলে এই ক্যাপচা কোড এর মাধ্যমে সেই ধরনের স্পাম কমেন্ট রোধ করতে পারবেন।
  3. ওয়েবসাইটের মধ্যে বট প্রবেশ করা বন্ধ করা যায় এই ক্যাপচা কোডের মাধ্যমে।
  4. কেউ যদি আপনার ওয়েবসাইটের মধ্যে লগইন করতে চায়। কিংবা রেজিস্ট্রেশন করতে চায়। তাহলে আপনি এই ক্যাপচা কোড এর মাধ্যমে তাদের ভেরিফিকেশন করতে পারবেন।
  5. কোন নতুন একটি ওয়েবসাইটে মানুষ একাউন্ট করছে নাকি রোবট অ্যাকাউন্ট করছে সেটা অনুমান করা যায়।

তো এই ক্যাপচা কোড এর যে সকল সুবিধা রয়েছে। সেই সুবিধা গুলোকে উপরে উল্লেখ করা হয়েছে।

যদি আপনার কোন ওয়েবসাইট থাকে তাহলে অবশ্যই আপনি এই সুবিধা গুলোর জন্য।

আপনার ওয়েব সাইটে ক্যাপচা কোডের পদ্ধতি চালু করে রাখবেন। তাহলে আপনি আপনার ওয়েবসাইটের নিরাপত্তা ব্যবস্থা আরও বেশি মজবুত রাখতে পারবেন।

ক্যাপচা কোড কিভাবে লিখতে হয়

আপনি যদি কখনও অনলাইনে একটি ফর্ম পূরণ করে থাকেন এবং একটি ক্যাপচা কোড দেখে থাকেন, তাহলে আপনি হয়তো ভাবতে পারেন যে সেগুলি কী।

এবং কীভাবে একটি লিখতে হয় ৷ ক্যাপচা কোডগুলি নিশ্চিত করতে ব্যবহৃত হয় যে একজন মানুষ ফর্মটি পূরণ করছে এবং এটি কোন কম্পিউটার রোবট প্রোগ্রাম নয়।

এগুলি অক্ষর এবং সংখ্যার যে কোনও সংমিশ্রণ হতে পারে, তবে সাধারণত এগুলি এলোমেলো হয়ে যায় যাতে সেগুলি পড়তে অসুবিধা হয়।

একটি ক্যাপচা কোড লিখতে, একটি এলোমেলো শব্দ বা বাক্যাংশ বাছাই করে শুরু করুন।

এই কাজটি করা হয় মূলত যাতে কোনো রোবটিক সফটওয়্যার এ ফরমটি ক্যাপচা কোড সহ পূরণ করতে না পারে।

ক্যাপচা কোড বক্সে যে বিভিন্ন লেটার, সংখ্যা অথবা ছবি এলোমেলো ভাবে সাজানো থাকবে । আপনাকে সেগুলো step-by-step টিক মেরে অথবা টেনে টেনে সঠিক উপায় সাজাতে হবে।

আপনি আরোও পড়তে পারেন…

তাহলে ক্যাপচা কোড টি সঠিকভাবে পূরণ হয়ে গেলে আপনার ফরমটি পূরণ করতে পারবেন। ফরম পূরণ করে আপনি যে কোন কাজের জন্য যা করতে চেয়েছিলেন তা ফরম ফিলাপ করে ফেলতে পারবেন।

ক্যাপচা (Captcha) নিয়ে আমাদের শেষ কথা

প্রিয় পাঠক, ইন্টারনেট ব্যবহার করার সময় আমাদের বিভিন্ন ধরনের ক্যাপচা কোড এর মাধ্যমে ভেরিফিকেশন করতে হয়।

কিন্তু যারা আসলে জানে না যে ক্যাপচা কোড কি। তাদের জন্য আজকের এই আর্টিকেল টি অনেক বেশি হেল্পফুল হবে।

কারণ আজকের এই আর্টিকেলের মাধ্যমে আমি আপনাকে স্পষ্ট ভাবে জানিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেছি যে, Captcha কি।

তো আপনি যদি আজকের আলোচিত আলোচনা টি মনোযোগ দিয়ে পড়ে থাকেন।

তাহলে আমার দীর্ঘ বিশ্বাস যে। এই বিষয় টি সম্পর্কে আপনি একবারে পরিষ্কার ধারণা পেয়ে গেছেন।

আর এই ধরনের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য গুলো কে খুব সহজ ভাষায় জানতে হলে অবশ্যই আমাদের সাথে থাকবেন।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!
Scroll to Top
Share via
Copy link
Powered by Social Snap